PIB Headquarters

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত পিআইবি’র প্রাত্যহিক সংবাদ

Posted On: 11 JUL 2020 6:28PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ১১ জুলাই, ২০২০

 

 

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ তথ্য; সুস্থ লক্ষের বেশী সংক্রমিত ; আক্রান্তের তুলনায় ২.৩১ লক্ষ জন বেশী সুস্থ; আরোগ্য লাভের হার প্রায় ৬৩ শতাংশ
কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ আটকাতে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারগুলি সক্রিয়ভাবে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। কন্টেনমেন্ট এলাকায় যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ, সংক্রমিতদের দ্রুত শনাক্তকরণ এবং সঠিক সময়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করায় প্রতিদিন সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। আজ এই সংখ্যা ৫ লক্ষের গন্ডি ছাড়িয়ে হল ౼৫,১৫,৩৮৫ জন। আজকের হিসেবে চিকিৎসাধীন সংক্রমিতদের থেকে ২,৩১,৯৭৮ জন বেশি সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এর ফলে সারা দেশে সুস্থ হয়ে ওঠার হার দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে। এই হার বর্তমানে ৬২.৭৮%। গত চব্বিশ ঘন্টায় সুস্থ হয়ে উঠে বাড়ি ফিরে গেছেন ১৯,৮৭০ জন।
বর্তমানে ২,৮৩,৪০৭ জন সংক্রমিত চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে রয়েছেন। এঁরা কেন্দ্রীয় বা রাজ্য সরকারের নানা হাসপাতালে বেশী সংক্রমণ নিয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এছাড়া কোভিড উপসর্গহীন অথবা কম সংক্রমিতরা হোম আইসোলেশনে আছেন।
দেশে সব নিবন্ধীকৃত চিকিৎসকদের কোভিড পরীক্ষা করার সুপারিশের অনুমতি দেওয়ায় এবং আরটি-পিসিআর ছাড়াও র্যাুপিড অ্যান্টিজেন টেস্টের মাধ্যমে নমুনা পরীক্ষার সুযোগ তৈরি হওয়ায় নমুনা পরীক্ষার হার বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ পর্যন্ত দেশে মোট ১,১৩,০৭,০০২টি নমুনার পরীক্ষা হয়েছে। দেশের নানা প্রান্তে সরকারী পরীক্ষাগার ৮৪১টি ও বেসরকারি পরীক্ষাগার ৩৩৯টি ౼অর্থাৎ মোট ১১৮০টি পরীক্ষাগারে এই মুহূর্তে নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। গত ২৪ ঘন্টায় দেশে ২,৮৩,৬৫৯টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। প্রতি দশ লক্ষ জনের মধ্যে ৮১৯৩ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এর মধ্যে ৩৮৬টি সরকারী ও ২৩৪টি বেসরকারী পরীক্ষাগারে (মোট ৬২০ টি) রিয়েল টাইম পিসিআরের মাধ্যমে, ৪২০টি সরকারি ও ৪৩টি বেসরকারী পরীক্ষাগারে (মোট ৪৬৩টি) ট্রুন্যাটের মাধ্যমে এবং ৩৫টি সরকারি ও ৬২টি বেসরকারী পরীক্ষাগারে (মোট ৯৭টি) সিবিন্যাটের মাধ্যমে নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1637987 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।


কোভিড-১৯ মহামারী মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রীর পৌরহিত্যে পর্যালোচনা বৈঠক
প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী আজ দেশে কোভিড-১৯ পরিস্থিতি নিয়ে পর্যালোচনা বৈঠক করেছেন। এই বৈঠকে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী শ্রী অমিত শাহ, কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রী ডঃ হর্ষ বর্ধন, নীতি আয়োগের সদস্যরা, ক্যাবিনেট সচিব সহ কেন্দ্রের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা উপস্থিত ছিলেন। প্রধানমন্ত্রী দেশের বিভিন্ন প্রান্তের পরিস্থিতির পর্যালোচনা করে রাজ্যগুলি কি কি ব্যবস্থা নিয়েছে তা নিয়ে আলোচনা করেছেন। ব্যক্তিগত জনস্বাস্থ্যবিধি ও সর্বসাধারণের জন্য প্রকাশ্য স্থানে সামাজিক শৃঙ্খলা বজায় রাখার ওপর তিনি গুরুত্ব দিয়েছেন। কোভিডের বিষয়ে সচেতনতা গড়ে তুলে এই সংক্রমণকে আটকাতে বিভিন্ন ব্যবস্থা কার্যকর করার ওপরও তিনি গুরুত্ব দেন। তিনি বলেন, এই বিষয়ে শৈথিল্যের কোনো অবকাশ নেই। দিল্লিতে মহামারীর পরিস্থিতির মোকাবিলায় কেন্দ্র, রাজ্য সরকার ও স্থানীয় প্রশাসন সংস্থাগুলির একযোগে কাজ করায় প্রধানমন্ত্রী তার প্রশংসা করেন। জাতীয় রাজধানী অঞ্চলে অন্যান্য রাজ্য সরকারগুলির সঙ্গে একইভাবে কোভিড-১৯ মহামারীর মোকাবিলায় তিনি কাজ করার নির্দেশ দিয়েছেন।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1637938 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

স্বল্প তুলনামূলকভাবে বেশি আক্রান্ত কোভিড-১৯ রোগীদের জন্য আপৎকালীন ভিত্তিতে আইটোলিজুম্যাব ওষুধের সীমিত ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে ডিসিজিআই
আইটোলিজুম্যাব এক ধরনের মনোটোনাল অ্যান্টিবডি যা জটিল প্লাক সোরিয়াসিস চিকিৎসার ক্ষেত্রে ইতিমধ্যেই অনুমোদিত হয়েছে। এখন এই ওষুধটি ড্রাগস কন্ট্রোলার জেনারেল অফ ইন্ডিয়ার (ডিসিজিআই) পক্ষ থেকে চিকিৎসা সংক্রান্ত পরীক্ষা নিরীক্ষার তথ্যের ভিত্তিতে আপৎকালীন পরিস্থিতিতে সীমিত ব্যবহারের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। মেসার্স বায়োকন ২০১৩ সালে থেকে ‘অ্যালজুমাব’ ব্র্যান্ডের আওতায় স্বল্প আক্রান্ত প্লাক সোরিয়াসিস রোগীদের চিকিৎসার ক্ষেত্রে এই ওষুধটির উৎপাদন ও বিপণন করে আসছে। সম্পূর্ণ দেশীয় পদ্ধতিতে তৈরি এই ওষুধটিকে এখন কোভিড-১৯-এর চিকিৎসার ক্ষেত্রেও প্রয়োগ করা হবে। মেসার্স বায়োকন কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীদের ওপর এই ওষুধটির পরীক্ষানিরীক্ষার দ্বিতীয় পর্যায়ের ফলাফল ডিসিজিআই-কে দিয়েছে। ওষুধ নির্মাতা সংস্থাটির পক্ষ থেকে প্রাপ্ত ফলাফলের নিয়ে বিশদ আলাপ-আলোচনার পর ডিসিজিআই-এর বিশেষজ্ঞ কমিটি এই ওষুধটি কোভিড-১৯ রোগীদের ক্ষেত্রে আপৎকালীন ভিত্তিতে সীমিত ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1637926 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

কোভিড-১৯ এর ক্লিনিকাল ম্যানেজমেন্ট সংক্রান্ত রণকৌশলের আদর্শ মান
কোভিড-১৯ চিকিৎসা ক্ষেত্রে অধিকাংশ সময়েই উপসর্গ-ভিত্তিক এবং সহায়ক চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়া হয়ে থাকে। যেহেতু এই ভাইরাসের দমনকারী কোনও প্রতিরোধক ব্যবস্থা নেই, তাই উপসর্গের লক্ষণ অনুযায়ী, চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়া হয়। এ ধরনের সংক্রমণ প্রতিরোধে সর্বদাই পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ভারতীয় চিকিৎসা গবেষণা পরিষদ এবং দিল্লি এইমস্ – এর পক্ষ থেকে গতকাল রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির উৎকর্ষ প্রতিষ্ঠানগুলির সঙ্গে কোভিড-১৯ মোকাবিলা নিয়ে এক ভার্চ্যুয়াল বৈঠকে করোনার চিকিৎসা পরিচালনায় এক আদর্শ চিকিৎসা পদ্ধতি অবলম্বনের ওপর জোর দেওয়া হয়েছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1637996 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

ডালশস্য বপনের এলাকা গতবারের তুলনায় ২.গুণ বেড়েছে; তৈলবীজ চাষের এলাকাও এবার বৃদ্ধি পেয়েছে
কোভিড-১৯ মহামারীর সময় তৃণমূল স্তরে কৃষক এবং কৃষিকাজে সহায়তার জন্য কেন্দ্রীয় কৃষি, সহযোগিতা ও কৃষককল্যাণ দপ্তর একাধিক পদক্ষেপ নিচ্ছে। খরিফ শস্যের বীজ বপনের কাজে লক্ষ্যণীয় অগ্রগতি হয়েছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1637864 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

ডঃ হর্ষ বর্ধন ফোকাসড্‌ ইন্টারভেনসন্স ফর মেক ইন ইন্ডিয়া; পোস্ট কোভিড-১৯ শীর্ষক শ্বেতপত্র প্রকাশ করেছেন
কেন্দ্রীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী ডঃ হর্ষ বর্ধন টেকনোলজি ইনফরমেশন ফরকাস্টিং অ্যান্ড অ্যাসেসমেন্ট কাউন্সিলের পক্ষ থেকে তৈরি ফোকাসড্‌ ইন্টারভেনশন ফর মেক ইন ইন্ডিয়া; পোস্ট কোভিড-১৯ এবং অ্যাক্টিভ ফার্মাসিউটিক্যাল ইনগ্রিডিয়েন্স শীর্ষক একটি শ্বেতপত্র প্রকাশ করেছেন। টেকনোলজি ইনফরমেশন ফরকাস্টিং অ্যান্ড অ্যাসেসমেন্ট কাউন্সিলের পক্ষ থেকে তৈরি এই সমীক্ষাপত্রে ক্ষেত্র-ভিত্তিক সক্ষমতা, বিপণন প্রবণতা এবং স্বাস্থ্য পরিচর্যা, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি এবং কৃষি সহ ৫টি ক্ষেত্রের সুযোগ-সুবিধাগুলিকে তুলে ধরা হয়েছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1637806 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

পরিবেশ-বান্ধব এবং সুস্থায়ী স্থাপত্য কাঠামো গ্রহণের আহ্বান জানালেন উপ-রাষ্ট্রপতি
উপ-রাষ্ট্রপতি শ্রী এম ভেঙ্কাইয়া নাইডু দেশে স্থপতিদের পরিবেশ-বান্ধব স্থাপত্য কাঠামো রচনায় উৎসাহ দিতে অনুরোধ জানিয়েছেন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সৌরশক্তির মতো পুনর্নবীকরণযোগ্য শক্তির ব্যবহার নির্মীয়মান আবাসন প্রকল্পগুলিকে ব্যাপকভাবে কাজে লাগানো যেতে পারে। কোভিড-১৯ মহামারীর প্রভাবে উদ্বেগ প্রকাশ করে শ্রী নাইডু বলেন, সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্য ও জীবন-জীবিকার ওপর মহামারীর বিরূপ প্রভাব পড়েছে। এমনকি, এই মহামারীর প্রতিকূল প্রভাব লক্ষ্য করা গেছে ভবন নির্মাণ, আবাসন ও স্থাপত্য সংক্রান্ত কাজকর্মের ওপর।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1637925 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

আরসিএফ – এর নতুন পণ্য উদ্ভাবন : আইসো প্রোপাইল অ্যালকোহল-ভিত্তিক হাত পরিষ্কারের জেল আবিষ্কার
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1637935 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

 



পিআইবি’আঞ্চলিক কার্যালয় থেকে প্রাপ্ত তথ্য

পাঞ্জাব : রাজ্য সরকার দ্বাদশ শ্রেণীর বাকি পরীক্ষা বাতিল করে দিয়েছে। কোভিড-১৯ মহামারীর প্রেক্ষিতে এই সিদ্ধান্ত।

হরিয়ানা : রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এক সাংবাদিক সম্মেলনে বলেছেন, কোভিড-১৯ মহামারীর দরুণ যে সমস্ত কর্মকান্ড বিঘ্নিত হয়েছিল, তা ধীরে ধীরে স্বাভাবিক ছন্দে ফিরছে। কোভিড-১৯ মোকাবিলায় রাজ্য সরকার একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে। রাজ্য সরকার কোভিড-১৯ মোকাবিলায় প্রায় ৩ হাজার কোটি টাকা খরচ করেছে।

কেরল : কোভিড-১৯ এর নতুন উৎস কেন্দ্র পুন্থুরায় সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে একটি ক্যুইক রেসপন্স টিম গঠন করা হয়েছে। ভারতীয় চিকিৎসা সংগঠনের পক্ষ থেকে পুনরায় জানানো হয়েছে রাজ্যে কোভিড-১৯ এর কম্যুনিটি সংক্রমণ হয়েছে। রাজ্যে গতকাল আরও ৪১৬ জনের সংক্রমণের খবর মিলেছে। বিভিন্ন জেলায় ১ লক্ষ ৮৪ হাজারেরও বেশি মানুষ নজরদারির আওতায় রয়েছেন।

তামিলনাডু : কেন্দ্রশাসিত পন্ডিচেরীতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১ হাজার ৩৩৭। এছাড়াও, ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদিকে তামিলনাডুর মুখ্যমন্ত্রী ছাত্রছাত্রীদের স্বার্থে মূল্যায়ন পদ্ধতি কার্যকর করার ব্যাপারে কেন্দ্রের কাছ থেকে স্বাধীনতা চেয়েছে। রাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৩০ হাজার ২৬১। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪৬ হাজার ১০৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৮২৯ জনের।

কর্ণাটক : ব্যাঙ্গালোরে কোভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমাগত বৃদ্ধি পাওয়ার দরুণ রাজ্য সরকার আজ থেকে শহরে র্যা পিড অ্যান্টিজেন টেস্ট চালু করার অনুমতি দিয়েছে। রাজ্যের রাজস্ব মন্ত্রী জানিয়েছেন সপ্তাহান্তে লকডাউন কার্যকর করার কোনও প্রয়োজনীয়তা নেই। এদিকে রাজ্যে গতকাল আরও ৫৭ জনের করোনায় মৃত্যুর খবর মিলেছে। আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৩ হাজার ৪১৮ এবং মৃত্যু হয়েছে ৫৪৩ জনের।

অন্ধ্রপ্রদেশ : রাজ্য সরকার ১৩টি জেলায় ৩৫ হাজারেরও বেশি শয্যাবিশিষ্ট ৭৬টি কোভিড কেয়ার সেন্টার চিহ্নিত করেছে। এদিকে রাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৫ হাজার ৪২২। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১১ হাজার ৯৩৬। মৃত্যু হয়েছে ২৯২ জনের।

তেলেঙ্গানা : রাজ্যে কোভিড-১৯ সংক্রমণ মোকাবিলায় নজরদারির জন্য ১১ সদস্যের একটি মেডিকেল টিম গঠন করেছে। এদিকে রাজ্যে গতকাল পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩২ হাজার ২২৪। মৃত্যু হয়েছে ৩৩৯ জনের।

আসাম : লকডাউনের দরুণ দুর্বলতর শ্রেণীর মানুষের সমস্যার বিষয়টিকে বিবেচনায় রেখে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী দুর্গতদের খাদ্য সরবরাহের জন্য মুখ্যসচিবকে নির্দেশ দিয়েছেন।

মণিপুর : রাজ্যের থাঙ্গালকেইথেল – এ দোকান-বাজার খোলার জন্য নীতি-নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে।

মেঘালয় : রাজ্যে আরও ৭৬ জনের সংক্রমণের খবর মেলায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২১৫। এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৪৫ জন।

মিজোরাম : রাজ্যে আজ আরও ৭ জন করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৭৬। এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৫০ জন।

নাগাল্যান্ড : রাজ্যে স্বাস্থ্য পরিচর্যা ব্যবস্থাকে আরও মজবুত করতে অতিরিক্ত চিকিৎসক ও নার্স নিয়োগের প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করার জন্য কোভিড-১৯ সংক্রান্ত উচ্চ ক্ষমতাপ্রাপ্ত কমিটি রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরকে নির্দেশ দিয়েছে।

সিকিম : রাজ্যের এসপিএনএম হাসপাতালে ২ জন রোগীকে উপযুক্ত চিকিৎসা পরিষেবা দিয়ে কোভিড-১৯ থেকে সুস্থ করে তোলা হয়েছে।

মহারাষ্ট্র : রাজ্যে নতুন করে ৭ হাজার ৮৬২ জনের সংক্রমণের খবর মেলায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২ লক্ষ ৩৮ হাজার ৪৬১। সুস্থ হয়েছেন ১ লক্ষ ৩২ হাজারেরও বেশি। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৯৫ হাজার ৬৪৭।

গুজরাট : রাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৪০ হাজার ছাড়িয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় ৮৭৫ জন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ২৪ জনের।

রাজস্থান : রাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ২৩ হাজার ৩৪৪। আজ সকাল আরও ২ জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে। সুস্থ হয়েছেন ১৭ হাজার ৬৩৪ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪৯৯ জনের।

মধ্যপ্রদেশ : রাজ্যে ৩১৬ জনের নতুন করে সংক্রমণের খবর মেলায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৬ হাজার ৬৫৭। সুস্থ হয়েছেন ১২ হাজার ৪৮১ জন। এদিকে কিল করোনা অভিযানের আওতায় ৬৬ শতাংশ মানুষের সমীক্ষার কাজ সম্পন্ন হয়েছে।

ছত্তিশগড় : রাজ্যে শুক্রবার আরও ১৬৬ জনের সংক্রমণের খবর মেলায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩ হাজার ৮৩২। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৭৮৭।

গোয়া : রাজ্যে গতকাল আরও ১০০ জনের সংক্রমণের খবর মেলায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২ হাজার ২৫১। এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৩৪৭ জন। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৮৯৫।

 

 

 

CG/BD/SB



(Release ID: 1638088) Visitor Counter : 14