PIB Headquarters

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত পিআইবি’র প্রাত্যহিক সংবাদ

Posted On: 24 SEP 2020 6:18PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০

 

 

ভারতে পরপর ছয়দিন নতুন করে আক্রান্তের তুলনায় উচ্চহারে আরোগ্য লাভের প্রবণতা অব্যাহত রয়েছে; ১৩টি রাজ্য / কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে নতুন করে আক্রান্তের তুলনায় সুস্থতার সংখ্যা বেশি; ১০টি রাজ্য / কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল থেকে সদ্য আরোগ্য লাভের হার ৭৪ শতাংশ

সুচিন্তিত কৌশল এবং নাগরিক-কেন্দ্রিক কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে ভারতে করোনায় আক্রান্তের ক্ষেত্রে আরোগ্য লাভের সংখ্যায় অপ্রত্যাশিত অগ্রগতি হচ্ছে। দেশে গত ছয়দিনে নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যাকে ছাপিয়ে গেছে সুস্থতার সংখ্যা ।এই সাফল্যের পেছনে রয়েছে নমুনা পরীক্ষায় আগ্রাসী মনোভাব, আক্রান্তদের খুঁজে বের করা, উপযুক্ত চিকিৎসা পরিষেবা এবং আক্রান্তদের ওপর নজরদারি ব্যবস্থা। গতকাল সাতটি সর্বাধিক প্রভাবিত রাজ্য / কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের সঙ্গে পর্যালোচনা বৈঠকে স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী এই বিষয়গুলির ওপর বিশেষ গুরুত্ব আরোপ করেন। দেশে গত ২৪ ঘন্টায় ২৭,৩৭৪ জন আরোগ্য লাভ করেছেন। অন্যদিকে, নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা ৮৬,৫০৮। এর ফলে, এখনও পর্যন্ত মোট আরোগ্য লাভের সংখ্যা ৪৬ লক্ষ ৭৪ হাজার ৯৮৭। সুস্থতার হার বেড়ে হয়েছে ৮১.৫৫ শতাংশ। ভারতে নতুন করে আক্রান্তের তুলনায় আরোগ্য লাভের সংখ্যা নিরন্তর বৃদ্ধি পাওয়ার দরুণ নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা এবং সুস্থতার মধ্যে ফারাক ক্রমাগত আরও দীর্ঘায়িত হচ্ছে। নিশ্চিতভাবে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৯ লক্ষ ৬৬ হাজার ৩৮২-র তুলনায় আরোগ্য লাভের সংখ্যা ৩৭ লক্ষের বেশি বেড়ে হয়েছে ৪৬ লক্ষ ৭৪ হাজার ৯৮৭। এমনকি, মোট আক্রান্তের সংখ্যার নিরিখে নিশ্চিত করোনায় আক্রান্তের হার কেবল ১৬.৮৬ শতাংশ। এই প্রবণতা অব্যাহত রেখে নিশ্চিত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমাগত হ্রাস পাচ্ছে। জাতীয় স্তরে ১৩টি রাজ্য / কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে নতুন করে আক্রান্তের তুলনায় আরোগ্য লাভের সংখ্যা ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ১০টি রাজ্য / কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে নতুন করে আরোগ্য লাভ করেছেন প্রায় ৭৪ শতাংশ। কেবল মহারাষ্ট্র থেকেই গত ছয়দিনে আরোগ্য লাভ করেছেন ১৯,৪৭৬ জন বা ২২.৩ শতাংশ রোগী।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1658543 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ তথ্য; ১০টি রাজ্য / কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল থেকেই ৭৫ শতাংশ নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন

দেশে পরপর ছয়দিন নতুন করে আরোগ্য লাভের সংখ্যার তুলনায় আক্রান্তের সংখ্যা কম রয়েছে। দেশে গত ২৪ ঘন্টায় ৮৬,৫০৮ জন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন। নতুন করে আক্রান্তদের ৭৫ শতাংশই ১০টি রাজ্য / কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল থেকে। তালিকায় সবার ওপরে রয়েছে মহারাষ্ট্র। কেবল এই রাজ্য থেকেই গত ২৪ ঘন্টায় ২১ হাজারের বেশি আরোগ্য লাভ করেছেন। এছাড়াও, অন্ধ্রপ্রদেশ থেকে ৭ হাজারের বেশি এবং কর্ণাটক থেকে ৬ হাজারের বেশি রোগী আরোগ্য লাভ করেছেন। একই সময়ে, দেশে করোনায় মৃত্যু ১,১২৯ জনের। কোভিড-১৯ জনিত ৮৩ শতাংশ মৃত্যুর ঘটনাই ঘটেছে ১০ রাজ্য / কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল থেকে। তালিকায় সবার ওপরে রয়েছে মহারাষ্ট্র। এই রাজ্যে গত ২৪ ঘন্টায় মারা গেছেন ৪৭৯ জন। এরপর রয়েছে উত্তরপ্রদেশ ও পাঞ্জাব। এই দুই রাজ্যে মৃত্যু হয়েছে যথাক্রমে ৮৭ ও ৬৪ জনের। ভারতে নমুনা পরীক্ষাগার পরিকাঠামোয় ক্রমাগত অগ্রগতি অব্যাহত রয়েছে। আজ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষাগারের সংখ্যা ১,৮১০। এর মধ্যে ১,০৮২টি সরকারি এবং ৭২৮টি বেসরকারি পরীক্ষাগার রয়েছে।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1658598 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

কোভিড সবথেকে বেশি সংক্রমিত ৭টি রাজ্যের প্রস্তুতি ব্যবস্থাপনার পর্যালোচনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী; কোভিড ১৯এ এই ৭টি রাজ্যেই মোট সংক্রমিতের ৬২ শতাংশ রয়েছে এবং ৭৭ শতাংশের মৃত্যু হয়েছে

প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী ৭টি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এবং অন্যান্য ব্যক্তিবর্গের সঙ্গে কোভিড পরিস্থিতির প্রস্তুতি ও ব্যবস্থাপনার উপর পর্যালোচনা বৈঠকে পৌরহিত্য করেছেন। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী, প্রতিরক্ষা মন্ত্রী, কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রী এবং অন্ধ্রপ্রদেশ, তামিলনাডু, কর্ণাটক, মহারাষ্ট্র, দিল্লি, পাঞ্জাব এবং উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, স্বাস্থ্যমন্ত্রী, মুখ্যসচিব, স্বাস্থ্য সচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব এবং পুলিশের মহানির্দেশকরা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের আধিকারিকরা, ক্যাবিনেট সচিব, নীতি আয়োগের সদস্য, স্বাস্থ্য সচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব এবং আইসিএমআর সহ অন্যান্য সংস্থার আধিকারিকরাও বৈঠকে যোগ দেন। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিব, দেশের কোভিড পরিস্থিতির বিষয়ে বিস্তারিতভাবে তথ্য উপস্থাপন করেছেন। দেশে মোট চিকিৎসাধীন সংক্রমিতর ৬২ শতাংশ এবং কোভিডের কারণে মৃত্যুর ৭৭ শতাংশ ঘটনাই এই ৭টি রাজ্যের। উপস্থাপনার সময় বিভিন্ন জেলায় সংক্রমণের হার বৃদ্ধি, নমুনা পরীক্ষা, মৃত্যুর হার ও নমুনা পরীক্ষার পর সংক্রমিতের হার নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীরা নিজ নিজ রাজ্যের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীকে অবগত করেছেন। পরিস্থিতির মোকাবিলায় তাঁরা কি কি পদক্ষেপ নিয়েছেন, তা নিয়েও বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। এই ভাইরাসের সংক্রমণের শৃঙ্খল হ্রাস করতে রাজ্যগুলিকে সমস্ত নিয়ম কঠোরভাবে মেনে চলার অনুরোধ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি দ্রুত শনাক্তকরণের জন্য প্রচুর নমুনা পরীক্ষা, মৃত্যুর হার কমানো এবং কোভিড সংক্রান্ত সুরক্ষা মেনে চলার বিষয়েও গুরুত্ব দিয়েছেন।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1658407 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

সাতটি উচ্চহারে কোভিড সংক্রমিত রাজ্য / কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের মুখ্যমন্ত্রী স্বাস্থ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে ভার্চ্যুয়াল বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1658354 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

প্রধানমন্ত্রী বয়সোপযোগী ফিটনেসএর নিয়মের সূচনা করেছেন; ফিট ইন্ডিয়া মুভমেন্টের প্রথম বার্ষিকীতে ফিটনেস উৎসাহী বিভিন্ন ব্যক্তিত্বদের সঙ্গে মতবিনিময়

প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী বয়সোপযোগী ফিটনেস সংক্রান্ত নিয়মের সূচনা করেছেন। আজ তিনি ফিট ইন্ডিয়া মুভমেন্টের প্রথম বার্ষিকীতে অংশগ্রহণ করেন। শ্রী মোদী বিভিন্ন ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব, ফিটনেস বিশেষজ্ঞ এবং অন্যদের সঙ্গে ফিট ইন্ডিয়া ডায়ালগ অনুষ্ঠানে মতবিনিময় করেছেন। ভার্চ্যুয়ালি এই মতবিনিময় অনুষ্ঠানটি মুক্ত পরিবেশে অংশগ্রহণকারীরা তাঁদের জীবনের অভিজ্ঞতা এবং ফিট থাকার কৌশল প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভাগ করে নিয়েছেন।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1658729 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

ফিট ইন্ডিয়া অভিযানের প্রথম বার্ষিকীতে ফিট ইন্ডিয়া মতবিনিময় অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের মূল অংশ

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1658655 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

রাষ্ট্রসংঘ এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সদস্যদের উদ্দেশে ডঃ হর্ষবর্ধনের ভাষণ

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী ডঃ হর্ষ বর্ধন আজ ভার্চ্যুয়াল পদ্ধতিতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সদস্য দেশগুলির মন্ত্রী এবং রাষ্ট্রসংঘের বিভিন্ন সংস্থা তথা অংশীদার সংগঠনগুলির প্রধান ও প্রতিনিধিদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। কোভিড-১৯ সঙ্কটের প্রেক্ষিতে যক্ষ্মা দূরীকরণের ক্ষেত্রে বহুক্ষেত্রীয় প্রয়াস ও অগ্রগতিগুলিকে আরও নিবিড় করে তুলতে তিনি ভারতের ভূমিকা ও অবদানের কথা উল্লেখ করেন। তিনি আরও বলেন, কোভিড-১৯ মহামারী বিভিন্নভাবে আমাদের জীবনে নাটকীয় পরিবর্তন নিয়ে এসেছে।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1658346 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

স্বাস্থ্য মন্ত্রকের -সঞ্জীবনী ওপিডি ব্যবস্থায় সূচনার ছয় মাসের মধ্যেই লক্ষ টেলি-পরামর্শ দেওয়া হয়েছে; তালিকায় ওপরে থাকা চারটি রাজ্যের সুফলভোগীদের ৯০ শতাংশই এই সুবিধা গ্রহণ করেছেন

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের ই-সঞ্জীবনী ওপিডি প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে ৩ লক্ষ টেলি-পরামর্শ প্রদান করা হয়েছে। উল্লেখযোগ্য এই মাইলফলক ওপিডি পরিষেবা শুরু হওয়ার কেবল ছয় মাসের মধ্যেই অর্জিত হয়েছে। ই-সঞ্জীবনী ওপিডি পরিষেবা কোভিড-১৯ মহামারীর সময়ে রোগী ও চিকিৎসকের মধ্যে টেলিফোনে মতবিনিময়ের উপযুক্ত মঞ্চ হয়ে উঠেছে। এই পরিষেবা শুরু হওয়ার ফলে বাড়িতে থেকেই যেমন চিকিৎসকের পরামর্শ পাওয়া যাচ্ছে, অন্যদিকে তেমনই দৈহিক ব্যবধান সুনিশ্চিত করে করোনার সংক্রমণ প্রতিরোধ সম্ভব হচ্ছে। এমনকি, কোভিড-বহির্ভূত জরুরি চিকিৎসা পরিষেবার ক্ষেত্রেও রোগীদের প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। বিপুল সংখ্যায় এই পরিষেবা গ্রহণ ই-সঞ্জীবনী ওপিডি প্ল্যাটফর্মের জনপ্রিয়তাকেই প্রমাণিত করে।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1658674 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

চলতি বছরে সংসদের বাদল অধিবেশন শেষ হয়েছে

কেন্দ্রীয় সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী শ্রী প্রহ্লাদ যোশী এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন এবারের বাদল অধিবেশনে লোকসভায় প্রায় ১৬৭ শতাংশ এবং রাজ্যসভায় ১০০.৪৭ শতাংশ কাজ হয়েছে। শ্রী যোশী জানিয়েছেন, চলতি বছরে সংসদে ১৪ই সেপ্টেম্বর থেকে পয়লা অক্টোবর পর্যন্ত বাদল অধিবেশন চলার কথা ছিল। তবে কোভিড-১৯ সংক্রমণ ছড়িয়ে পরার ঝুঁকির কারণে ২৩শে সেপ্টেম্বর (বুধবার) অনির্দিষ্টকালের জন্য সংসদের অধিবেশন মুলতুবি করে দিতে হয়। এই ১০ দিনে ১০টি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। তিনি আরও বলেন, এবারের অধিবেশনে লোকসভায় ১৬টি এবং রাজ্যসভায় ৬টি বিল পেশ করা হয়েছে। সংসদের উভয় সভায় ২৭টি বিল পাশ হয়েছে।এর অর্থ হল প্রতিদিন গড়ে ২.৭টি করে বিল পাশ হয়েছে

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1658625 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

৫১তম ভারতীয় আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের বিষয়ে কেন্দ্রীয় তথ্য সম্প্রচার মন্ত্রীর প্রেস বিবৃতি

আগামী ২০শে নভেম্বর থেকে ২৮ নভেম্বর পর্যন্ত গোয়ায় অনুষ্ঠিত হতে চলা ৫১তম ভারতীয় আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। এই চলচ্চিত্র উৎসব অনুষ্ঠিত হবে আগামী বছর ১৬-২৪ জানুয়ারী পর্যন্ত। গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী ডঃ প্রমোদ সাওয়ান্তের সঙ্গে আলোচনার পর একথা জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী শ্রী প্রকাশ জাভড়েকর। আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের রীতি-নীতি মেনে ২০২১ সালে ১৬-২৪ জানুয়ারি পর্যন্ত গোয়ায় এই চলচ্চিত্র উৎসব আয়োজন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে এই চলচ্চিত্র উৎসব ভার্চুয়াল এবং ফিজিক্যাল ফরম্যাটে অনুষ্ঠিত হবে। সম্প্রতি আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উসব পরিসীমায় কোভিড-১৯ সম্পর্কিত যেসব নিয়ম-নীতি মেনে চলা হয়েছে তা এই চলচ্চিত্র উৎসবেও কঠোরভাবে প্রয়োগ করা হবে।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1658623 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

প্রধানমন্ত্রী স্বনিধি প্রকল্পের আওতায় ১৫ লক্ষেরও বেশি আবেদন জমা পড়েছে

প্রধানমন্ত্রী রাস্তার হকারদের আত্মনির্ভর নিধি (পিএম স্বনিধি) প্রকল্পের আওতায় ১৫ লক্ষেরও বেশি আবেদন জমা পড়েছে। এর মধ্যে সাড়ে ৫ লক্ষেরও বেশি আবেদনকারীর ঋণ মঞ্জুর হয়েছে এবং প্রায় ২ লক্ষ আবেদনকারীকে ঋণ বিতরণ করা হয়েছে। আবাসন ও নগর বিষয়ক মন্ত্রক কোভিড-১৯ পরবর্তী সময়ে ৫০ লক্ষ রাস্তার হকারের সাহায্যার্থে পুনরায় ব্যবসা শুরু করার সুবিধার্থে কোন রকম বন্ধকী ছাড়াই মূলধনী ঋণ প্রদানের জন্য প্রধানমন্ত্রী স্বনিধি প্রকল্প চালু করেছে। ঋণ অনুমোদন প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করার জন্য এবং ঋণদাতাদের কাজ সহজ করে তুলতে আবেদনগুলি সরাসরি ব্যাঙ্কের শাখায় জমা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এরফলে পছন্দসই ঋণদাতাকে ঋণ দেওয়ার সুযোগ থাকবেনা। আবেদনকারী হকারদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে সরাসরি ঋণের টাকা পৌঁছে যাবে। এতে ঋণ গ্রহণকারীর সংখ্যাও যেমন বাড়বে তেমনই ঋণ বিতরণের জন্য সময় হ্রাস পাবে।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1658605 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের ৪৬তম প্রতিষ্ঠা দিবস; বিজ্ঞান-ভিত্তিক পরিবেশ পরিচালনার ক্ষেত্রে আরও বেশি প্রযুক্তি সদ্ব্যবহারে অঙ্গীকার

কেন্দ্রীয় পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী শ্রী বাবুল সুপ্রিয় গতকাল বলেছেন, বায়ু দূষণমুক্ত রাখতে সাধারণ মানুষ ও সরকার উভয় পক্ষের দায়িত্ব ভাগ করে নেওয়া এবং একসঙ্গে কাজ করা প্রয়োজন। শ্রী সুপ্রিয় কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের ৪৬তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে এক ওয়েবিনারে অংশ নিয়ে আরও বলেন, দূষণ সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহের ক্ষেত্রে পর্ষদ উল্লেখযোগ্য কাজ করেছে এবং পর্ষদের সংগৃহীত তথ্য সরকারকে প্রয়োজনীয় পরিকল্পনা প্রণয়নে সাহায্য করছে। তিনি আরও বলেন, কোভিড-১৯ মহামারী পরিবেশের সুরক্ষায় আমাদের আরও সতর্ক এবং পরিবেশ সংরক্ষণের প্রতি সচেতন হয়ে ওঠার সুযোগ করে দিয়েছে। কোভিড-১৯ এর সময় বায়োমেডিকেল ও বর্জ্য পদার্থগুলি বিনাশের ক্ষেত্রে শ্রী সুপ্রিয় পর্ষদের ভূমিকার প্রশংসা করেন।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1658378 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

আয়ুষ্মান ভারত যোজনার আওতায় কোভিড-১৯ চিকিৎসা পরিষেবা

আয়ুষ্মান ভারত – প্রধানমন্ত্রী জনআরোগ্য যোজনার আওতায় গত ২১শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ১ কোটি ২৬ লক্ষেরও বেশি রোগী হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। এর মধ্যে ৫ লক্ষ ১৩ হাজার রোগী কোভিড-১৯ নমুনা পরীক্ষা করিয়েছেন এবং এ সংক্রান্ত চিকিৎসা পরিষেবা পেয়েছেন। কর্মসূচির আওতায় সমস্ত রাজ্য/কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিকে তাদের চাহিদার ভিত্তিতে তহবিল বরাদ করা হয়ে থাকে। গত ২১শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত রাজ্য/কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিকে ৫ হাজার ৪৭৪ কোটি টাকা এই খাতে মঞ্জুর করা হয়েছে। লোকসভায় এক লিখিত জবাবে এই তথ্য দেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার প্রতিমন্ত্রী শ্রী অশ্বিনী কুমার চৌবে।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1658281 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

রাষ্ট্রীয় আরোগ্যনিধি এবং আয়ুষ্মান ভারত যোজনার আওতায় ওপিডি পরিষেবা

সরকারি হাসপাতালগুলিতে চিকিৎসাধীন মারণ রোগের শিকার দরিদ্র রোগীদের আর্থিক সহায়তা দেওয়ার জন্য কেন্দ্রীয় সরকার রাষ্ট্রীয় আরোগ্যনিধি কর্মসূচি রূপায়ণ করছে। আর্থ-সামাজিক জাতিগত জনগণনার তথ্যানুযায়ী, দরিদ্র ও অসুরক্ষিত পরিবারগুলিকে স্বীকৃত হাসপাতালগুলিতে চিকিৎসার জন্য পরিবার পিছু বার্ষিক ৫ লক্ষ টাকার স্বাস্থ্য বিমার সুবিধা দেওয়া হয় আয়ুষ্মান ভারত – প্রধানমন্ত্রী জনআরোগ্য যোজনার মাধ্যমে। বর্তমানে এই কর্মসূচির সুযোগ-সুবিধা আউটডোর রোগীদের জন্য সম্প্রসারিত করার কোনও প্রস্তাব সরকারের কাছে নেই। লোকসভায় গতকাল এক লিখিত জবাবে এই তথ্য দেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার প্রতিমন্ত্রী শ্রী অশ্বিনী কুমার চৌবে।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1658279 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

আশা কর্মীদের উৎসাহ ভাতা

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত পরিষেবা প্রদানের ক্ষেত্রে ভারত কোভিড-১৯ আপৎকালীন সহায়তা ও স্বাস্থ্য পরিষেবা ব্যবস্থার প্রস্তুতি সংক্রান্ত প্যাকেজের আওতায় আশা কর্মীদের মাসিক ১ হাজার টাকা করে অতিরিক্ত উৎসাহ ভাতা দেওয়া হয়েছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রক আশা কর্মীদের এই উৎসাহ ভাতা দিয়েছে। এছাড়াও, আশা কর্মীদের প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ প্যাকেজের আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে। এই স্বাস্থ্য বিমা কর্মসূচির মাধ্যমে কোভিড-১৯ মোকাবিলায় যুক্ত স্বাস্থ্য কর্মীদের পাশাপাশি, আশা কর্মীদেরকেও ৫০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত স্বাস্থ্য বিমার সুবিধা দেওয়া হয়েছে। লোকসভায় গতকাল এক লিখিত জবাবে এই তথ্য দেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার প্রতিমন্ত্রী শ্রী অশ্বিনী কুমার চৌবে।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1658284 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

ফেসমাস্কের ব্যবহার নির্মূলীকরণ সংক্রান্ত নীতি-নির্দেশিকা

পিপিই কিটের যুক্তিসম্মত ব্যবহার সম্পর্কিত নীতি-নির্দেশিকায় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রক স্বাস্থ্য কর্মীদের ব্যবহৃত মেডিকেল মাস্ক সহ যাবতীয় পিপিই কিটের উপযুক্ত ব্যবহার সম্পর্কে নীতি-নির্দেশিকা জারি করেছে। এছাড়াও ভারত সরকার সাধারণ মানুষের ব্যবহৃত ফেসকভার ব্যবহারের বিষয়েও পরামর্শ জারি করেছে। লোকসভায় গতকাল এক লিখিত জবাবে এই তথ্য দেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার প্রতিমন্ত্রী শ্রী অশ্বিনী কুমার চৌবে।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1658276 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

করোনা ভাইরাস দমনে টিকা উদ্ভাবন

সেন্ট্রাল ড্রাগ স্যান্ডার্ড কন্ট্রোল অর্গানাইজেশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, পারক্লিনিকাল টেস্ট, পরীক্ষা-নিরীক্ষা এবং গুণমান যাচাইয়ের জন্য কোভিড-১৯ টিকা উদ্ভাবনের ক্ষেত্রে একাধিক সংস্থাকে অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে – পুণের শ্রীরাম ইন্সটিটিউট অফ টিকা প্রাইভেট লিমিটেড, আমেদাবাদের ক্যাডিলা হেলথ কেয়ার লিমিটেড, হায়দরাবাদের ভারত বায়োটেক ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড, মুম্বাইয়ের রিলায়েন্স লাইফ সায়েন্সেস প্রাইভেট লিমিটেড প্রভৃতি। সরকারি পর্যায়ে কোভিড-১৯ টিকা উদ্ভাবন ও তার গুণমান যাচাইয়ের জন্য সঠিক দিশা-নির্দেশ করতে সরকার জাতীয় স্তরে কোভিড-১৯ টিকা সংক্রান্ত একটি বিশেষজ্ঞ গোষ্ঠী গঠন করেছে। লোকসভায় গতকাল এক লিখিত জবাবে এই তথ্য দেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার প্রতিমন্ত্রী শ্রী অশ্বিনী কুমার চৌবে।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1658261 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

৫টি রাজ্যকে সংস্কারমূলক লক্ষ্যপূরণে অতিরিক্ত ,৯১৩ কোটি টাকা ঋণ সংগ্রহে অনুমতি

অর্থমন্ত্রকের ব্যয় বরাদ্দ বিষয়ক মন্ত্রক, খোলা বাজার থেকে ৫টি রাজ্যকে ৯,৯১৩ কোটি টাকার অতিরিক্ত আর্থিক সহায় সম্পদ সংগ্রহের অনুমতি দিয়েছে। এই ৫টি রাজ্য হল, অন্ধ্রপ্রদেশ, তেলেঙ্গানা, গোয়া, কর্ণাটক এবং ত্রিপুরা। এক দেশ, এক রেশনকার্ড ব্যবস্থা রূপায়নের ক্ষেত্রে সংস্কারমূলক পদক্ষেপগুলি সফলভাবে পূরণ করার পর এই ৫টি রাজ্যকে খোলা বাজার থেকে অতিরিক্ত ঋণ সংগ্রহের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে ঐ ৫টি রাজ্যকে অতিরিক্ত ঋণ সংগ্রহের অনুমতি সংক্রান্ত বিষদ পরিসংখ্যান - অন্ধ্রপ্রদেশ – ২,৫২৫ কোটি টাকা, তেলেঙ্গানা – ২৫০৮ কোটি টাকা, কর্ণাটক – ৪৫০৯ কোটি টাকা, গোয়া – ২২৩ কোটি টাকা এবং ত্রিপুরা – ১৪৮ কোটি টাকা।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1658681 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

 

 

পিআইবি আঞ্চলিক কার্যালয় থেকে প্রাপ্ত তথ্য

 

কেরল : রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, তিরুবনন্তপুরম সহ ৫টি জেলায় কোভিড-১৯ এর ব্যাপক সংক্রমণ লক্ষ্য করা যাচ্ছে। এই প্রেক্ষিতে কোভিড-১৯ উপসর্গ-বিশিষ্ট ব্যক্তিদের চিহ্নিত করে তাঁদের অবিলম্বে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। রাজ্যে গতকাল আরও ৫ হাজার ৩৭৬ জনের করোনায় সংক্রমিত হওয়ার খবর মিলেছে। বর্তমানে ৪২ হাজারেরও বেশি রোগীর চিকিৎসা চলছে।

 

তামিলনাডু : কেন্দ্রশাসিত পন্ডিচেরীতে গত ২৪ ঘন্টায় আরও ৬ জনের মৃত্যুর খবর মেলায় করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৮৭ হয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা ২৪ হাজার ৮৯৫। এদিকে তামিলনাডুতে গতকাল করোনায় মৃতের সংখ্যা ৯ হাজার ছাড়িয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৫ লক্ষ ৫৮ হাজার। গতকাল আরও ৫ হাজার ৩২৫ জনের সংক্রমিত হওয়ার খবর মিলেছে।

 

কর্ণাটক : রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীকে জানিয়েছেন, কোভিডে মৃত্যু হার ধীরে ধীরে কমছে। এক ভিডিও কনফারেন্সে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীকে জানিয়েছেন, রাজ্যে ১৩৬টি নমুনা পরীক্ষাগারে নিরন্তর কাজ চলছে এবং দৈনিক-ভিত্তিতে নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা বাড়িয়ে প্রায় ৭০ হাজার করা হয়েছে।

 

অন্ধ্রপ্রদেশ : রাজ্যের বিজয়ওয়াড়া, কুরনুল ও গুন্টুরের শহর এলাকাগুলিতে কোভিড-১৯ এর দ্রুত সংক্রমণ লক্ষ্য করা গেছে। দ্রুত সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার প্রবণতা ধীরে ধীরে গ্রামীণ এলাকাগুলিতেও দেখা যাচ্ছে।

 

তেলেঙ্গানা : রাজ্যে গত ২৪ ঘন্টায় আরও ২ হাজার ১৭৬ জনের সংক্রমিত হওয়ার এবং ৮ জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে। এর ফলে, রাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৭৯ হাজার ছাড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৭০ জনের।

 

অরুণাচল প্রদেশ : রাজ্যে গত ২৪ ঘন্টায় আরও ২৭৯ জনের করোনায় সংক্রমিত হওয়ার খবর মিলেছে। এদের মধ্যে ১৭৩ জন আক্রান্ত হয়েছেন ইটানগর রাজধানী এলাকা থেকে।

 

আসাম : রাজ্যে গত ২৪ ঘন্টায় ১ হাজার ৭৬২ জন আরোগ্য লাভ করেছেন। নিশ্চিতভাবে আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ হাজার ছাড়িয়েছে। এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১ লক্ষ ৩২ হাজারেরও বেশি রোগী।

 

মণিপুর : রাজ্যে আরও ৯৬ জনের সংক্রমিত হওয়ার খবর মেলায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৯ হাজার ৩৭৬ হয়েছে। সুস্থতার হার ৭৫ শতাংশ। এখনও পর্যন্ত ৬২ জনের।

 

সিকিম : রাজ্যে আজ আরও ১ হাজার ৯৭৪ জন আরোগ্য লাভ করেছেন। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বর্তমানে ৬০৭।

 

মহারাষ্ট্র : রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী আশা প্রকাশ করেছেন, তাঁর সরকারের আমার পরিবার – আমার দায়িত্ব অভিযানের মাধ্যমে কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে লড়াই আরও জোরদার হবে। এদিকে রাজ্যে আজ পর্যন্ত নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২ লক্ষ ৭৩ হাজারেরও বেশি ব্যক্তি। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে গতকাল কোভিড-১৯ পরিস্থিতি পর্যালোচনা বৈঠকে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী গৃহীত পদক্ষেপগুলি সম্পর্কে তাঁকে অবহিত করেছেন।

 

গুজরাট : রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বেসরকারি পরীক্ষাগারগুলির বিরুদ্ধে স্বাস্থ্য দপ্তরকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। এক গুজরাটি দৈনিকে বেসরকারি পরীক্ষাগারগুলি থেকে নেগেটিভ সার্টিফিকেট দেওয়া হচ্ছে বলে প্রকাশিত খবরের প্রেক্ষিতে রাজ্য সরকার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

 

রাজস্থান : রাজ্যে করোনায় সুস্থতার হার বেড়ে ৮৩.১২ শতাংশ হয়েছে। একই সঙ্গে, করোনা জয়ী মানুষের সংখ্যা ১ লক্ষ ছাড়িয়েছে। বার্মের জেলায় সুস্থতার হার ৯৫ শতাংশ ছাড়িয়েছে।

 

মধ্যপ্রদেশ : রাজ্যের ২১টি জেলায় সেপ্টেম্বর মাসের ২৩ তারিখ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দ্বিগুণ হয়েছে। রাজ্যের ৪টি জেলায় আলোচ্য সময়ে আক্রান্তের সংখ্যা ৩ গুণ হয়েছে। এই ৪টি জেলাতে প্রায় ৪০০ শতাংশ হারে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে।

 

 

CG/BD/SB



(Release ID: 1658869) Visitor Counter : 8