PIB Headquarters

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত পিআইবি’র প্রাত্যহিক সংবাদ

Posted On: 15 JUL 2020 6:27PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ১৫ জুলাই, ২০২০

 

 

 

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ তথ্য; গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থতার সংখ্যা ২০ হাজারেরও বেশি বেড়েছে এবং সুস্থতার হার বেড়ে হয়েছে ৬৩.২৪ শতাংশ; সুস্থতার সংখ্যা প্রায় লক্ষ; কোভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা এখন লক্ষ ১৯ হাজার ৮৪০
দেশে গত ২৪ ঘন্টায় কোভিড-১৯ এ সুস্থতার সংখ্যা লক্ষ্যণীয় হারে বেড়েছে। আরও ২০ হাজার ৫৭২ জন আরোগ্য লাভ করায় সুস্থতার সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫ লক্ষ ৯২ হাজার ৩১। সুস্থতার হার আজ বেড়ে হয়েছে ৬৩.২৪ শতাংশ। দেশে কোভিড-১৯ এ আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লক্ষ ১৯ হাজার ৮৪০। এরা সকলেই চিকিৎসাধীন রয়েছেন। হোম আইসোলেশন মেনে চলা এবং অক্সিমিটার ব্যবহারের ফলে উপসর্গ বা স্বল্প উপসর্গ দেখা দেওয়া রোগীদের হাসপাতালের চিকিৎসা পরিষেবা থেকে বিরত রাখা সম্ভব হয়েছে। সুস্থতার সংখ্যা এবং আক্রান্তের সংখ্যার মধ্যে ফারাক ক্রমশ বাড়ছে। আজ এই ফারাক বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ লক্ষ ৭২ হাজার ১৯১। আক্রান্তের তুলনায় সুস্থতার সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১.৮৫।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1638792 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা প্রতি ১০ লক্ষ মানুষের মধ্যে প্রতিদিন ১৪০ জনের নমুনা পরীক্ষার পরামর্শ দিয়েছে; প্রতি ১০ লক্ষ মানুষের মধ্যে প্রতিদিন ২২টি রাজ্য কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ১৪০ অথবা তারও বেশি নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে; প্রতি ১০ লক্ষ মানুষের হিসেবে ৮৯৯৪টির বেশি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু) ‘কোভিড-১৯এর প্রেক্ষিতে জনস্বাস্থ্য ও সামাজিক নিয়মকানুন’-এর নিরিখে যে পরামর্শ দিয়েছে সেই অনুযায়ী যাঁরা সংক্রমিত হয়েছেন বলে সন্দেহ করা হচ্ছে তাঁদের প্রতি সর্বাত্মক নজরদারি চালাতে হবে। হু’র এই পরামর্শে আরও বলা হয়েছে যে একটি দেশের প্রতি ১০ লক্ষ মানুষের হিসেবে দৈনিক ১৪০টি নমুনা পরীক্ষা করা উচিত। বিভিন্ন রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির সঙ্গে কেন্দ্রের সমন্বিত উদ্যোগের ফলে ইতিমধ্যেই ২২টি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল দৈনিক প্রতি ১০ লক্ষ মানুষের হিসেবে ১৪০ অথবা তারও বেশি মানুষের নমুনা পরীক্ষা করছে। হু-এর পরামর্শ অনুযায়ী এই নমুনা পরীক্ষার পরিমাণ নিয়মিত বাড়ানো হচ্ছে। দেশজুড়ে কোভিড-১৯এর নমুনা পরীক্ষার পরীক্ষাগার বৃদ্ধি করার ফলে এই কাজটি করতে সুবিধা হচ্ছে। আজকের হিসেবে দেশে ৮৬৫টি সরকারি এবং ৩৫৮টি বেসরকারী পরীক্ষাগারে- অর্থাৎ মোট ১২২৩টি পরীক্ষাগারে নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। আরটিপিসিআর পদ্ধতি ছাড়াও ট্রুন্যাট এবং সিবিন্যাট পদ্ধতিতেও নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। দেশে বর্তমানে ৩৯১টি সরকারী এবং ২৪২টি বেসরকারী- অর্থাৎ মোট ৬৩৩৩টি পরীক্ষাগারে রিয়েল-টাইম আরটি পিসিআর পদ্ধতিতে নমুনা পরীক্ষার কাজ চলছে। ৪৩৯টি সরকারী এবং ৫২টি বেসরকারী অর্থাৎ মোট ৪৯১টি পরীক্ষাগারে ট্রুন্যাট পদ্ধতিতে এবং ৩৫টি সরকারী এবং ৬৪টি বেসরকারী অর্থাৎ মোট ৯৯টি পরীক্ষাগারে সিবিন্যাট পদ্ধতিতে নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। জানুয়ারী মাসে যেখানে দেশে মাত্র একটি পরীক্ষাগারে নমুনার পরীক্ষার ব্যবস্থা ছিল, মার্চে তা বৃদ্ধি পেয়ে ১২১ ও আজকের হিসেবে সারা দেশে ১২২৩টি পরীক্ষাগারে নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। গত ২৪ ঘন্টায় ৩,২০,১৬১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এরফলে দেশে এ পর্যন্ত মোট ১,২৪,১২,৬৬৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। ভারতে প্রতিদিন নমুনা পরীক্ষার হার বৃদ্ধি পাচ্ছে। আজকের হিসেবে প্রতি ১০ লক্ষ জনের মধ্যে ৮৯৯৪.৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। ১৪ই জুলাই ১ দিনে ৩ লক্ষ ২০ হাজারের বেশি নমুনা পরীক্ষার খবর পাওয়া গেছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1638696 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

আইআইটি দিল্লির উদ্ভাবিত বিশ্বের সবচেয়ে সুলভ কোভিড-১৯ ডায়াগনস্টিক কিট করোসিওর – এর সূচনা করলেন কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী
কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী শ্রী রমেশ পোখরিয়াল ‘নিশাঙ্ক’ আজ আইআইটি দিল্লির পক্ষ থেকে উদ্ভাবিত বিশ্বের সবচেয়ে সুলভ আরটি-টিসিআর ভিত্তিক কোভিড-১৯ ডায়াগস্টিক কিটের সূচনা করেছেন। এই উপলক্ষে শ্রী পোখরিয়াল বলেন, দিল্লির আইআইটি’র আবিষ্কৃত এই ডায়াগনস্টিক কিটটি আত্মনির্ভর ভারত গঠনের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদীর পরিকল্পনার আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ। সম্পূর্ণ দেশীয় পদ্ধতিতে নির্মিত এই কিটের দাম অন্যান্য কিটের তুলনায় অনেক কম।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1638780 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

বিশ্ব যুব দক্ষতা দিবস উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী যুব সম্প্রদায়ের দক্ষতা, নতুন দক্ষতা অর্জন এবং দক্ষতা বৃদ্ধির উপর গুরুত্ব দিয়েছেন
বিশ্ব যুব দক্ষতা দিবস এবং স্কিল ইন্ডিয়া মিশনের পঞ্চম বার্ষিকীতে আয়োজিত ভার্চুয়াল কনক্লেভে আজ প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী বক্তব্য রেখেছেন। বর্তমান পরিবর্তনশীল পরিবেশে বাজারের চাহিদা মেটাতে যুব সমাজকে দক্ষ করে তুলতে এবং অর্জিত দক্ষতার ক্ষেত্রে প্রাসঙ্গিক হয়ে ওঠার জন্য নতুন নতুন ক্ষেত্রে দক্ষতা ও দক্ষতা বৃদ্ধির ওপর তিনি গুরুত্ব দেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ৫ বছর আগে, আজকের এই দিনেই স্কিল ইন্ডিয়া মিশনের সূচনা করা হয়েছিল। স্থানীয় স্তরে ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে কর্মসংস্থানের সুযোগ বাড়াতে যুবক-যুবতীদের বিভিন্ন বিষয়ে দক্ষ করে তোলা, নতুন নতুন বিষয়ে দক্ষতা অর্জন ও দক্ষতা বিকাশের উদ্দেশে একটি বিরাট পরিকাঠামো গড়ে তোলাই এর উদ্দেশ্য। এরফলে দেশজুড়ে প্রচুর পিএম কৌশলকেন্দ্র গড়ে উঠেছে এবং আইটিআই-গুলির ক্ষমতা বৃদ্ধি করা হয়েছে। সমন্বিত এই প্রয়াসে বিগত ৫ বছরে ৫ কোটির বেশি যুবক-যুবতী বিভিন্ন ক্ষেত্রে দক্ষতা অর্জন করেছেন। দক্ষ কর্মীদের বিষয়ে তথ্য সম্বলিত নতুন পোর্টালের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী জানান এই পোর্টালের মাধ্যমে ঘরে ফিরে আসা পরিযায়ী শ্রমিক সহ সব কর্মীদের কাজের সন্ধান পেতে সুবিধা হবে। এছাড়াও বিভিন্ন সংস্থা মাউসের একটি ক্লিকে দক্ষ কর্মীদের খুঁজে পাবেন। স্থানীয় স্তরে অর্থনীতির পরিবর্তনের জন্য পরিযায়ী শ্রমিকদের দক্ষতাকে কাজে লাগানোর ওপর তিনি গুরুত্ব আরোপ করেন।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1638686 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

বিশ্ব যুব দক্ষতা দিবস উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের মূল অংশ
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1638689 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

পঞ্চদশ ভারত – ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ভার্চুয়াল) শিখর সম্মেলন : প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদীর প্রারম্ভিক ভাষণ
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1638783 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

অ্যালকোহল-ভিত্তিক হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ওপর জিএসটি হার জারি সম্পর্কে স্পষ্টীকরণ
এক শ্রেণীর সংবাদ মাধ্যমে অ্যালকোহল-ভিত্তিক হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ওপর জিএসটি হার সম্পর্কে খবর প্রকাশিত হয়েছে। উল্লেখ করা প্রয়োজন, হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ওপর ১৮ শতাংশ হারে জিএসটি কার্যকর হয়। সাবান, অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল তরল, ডেটল ইত্যাদি স্যানিটাইজারগুলি জীবণু নাশক হিসাবে কাজ করে, তাই এ ধরনের সমস্ত জীবাণু নাশক উপাদানের ওপর ১৮ শতাংশ হারে জিএসটি কার্যকর হয়। বিভিন্ন সামগ্রীর ওপর জিএসটি হার কার্যকর করার বিষয়ে জিএসটি কাউন্সিল সিদ্ধান্ত নেয়। কেন্দ্রীয় সরকার ও রাজ্য সরকারগুলির পারস্পরিক সহমতের ভিত্তিতে যে কোনও সামগ্রীর ওপর জিএসটি হার আরোপের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1638769 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

কোভিড-১৯ সমাধানসূত্র খুঁজে বের করতে অটল ইনোভেশন মিশন স্টার্ট আপগুলিকে সাহায্যের জন্য বিভিন্ন মন্ত্রক অংশীদারদের সঙ্গে অংশীদারিত্ব গড়ে তুলেছে
কোভিড-১৯ মহামারী এবং আর্থিক মন্থরতা বিশ্ব অর্থনীতির গতি হ্রাস করেছে। এই প্রেক্ষিতে নীতি আয়োগের ফ্ল্যাগশিপ অটল ইনোভেশন মিশন শিল্পোদ্যোগীদের উৎসাহ বজায় রাখতে পুরোদমে কাজ করে চলেছে। কোভিড-১৯ মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে উপযুক্ত সমাধানসূত্র খুঁজে বের করতে স্টার্ট আপগুলিকে সহায়তার জন্য অটল ইনোভেশন মিশন বিভিন্ন মন্ত্রক ও সহযোগী সংস্থার সঙ্গে অংশীদারিত্ব গড়ে তুলেছে। অটল ইনোভেশন মিশনের পক্ষ থেকে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত ভার্চুয়াল ডেমো ডেজ কর্মসূচির জন্য ৭০টিরও বেশি স্টার্ট আপ সংস্থাকে তালিকাভুক্ত করা হয়। এই স্টার্ট আপ সংস্থাগুলি তহবিল সহায়তা থেকে শুরু করে, উৎপাদন ক্ষমতা বাড়ানো সরবরাহ-শৃঙ্খলে সুবিধা গ্রহণ করা প্রভৃতি ক্ষেত্রে সাহায্য পাবে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1638572 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

বিশ্ব স্থিতিশীলতা, নিরাপত্তা অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির প্রসারে অভিন্ন স্বার্থের ভিত্তিতে ভারত – মার্কিন দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে লক্ষণীয় অগ্রগতি হয়েছে : শ্রী পীযূষ গোয়েল
ভারত-মার্কিন সিইও ফোরামের পঞ্চম বৈঠক গতকাল টেলিফোনিক কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হয়। ২০১৪’র ডিসেম্বরে এই ফোরাম গঠিত হওয়ার পর থেকে প্রতি বছর সিইও-দের বৈঠক আয়োজিত হয়ে আসছে। উভয় দেশের অর্থনীতির পারস্পরিক সুবিধার স্বার্থে ঘনিষ্ঠ সহযোগিতার বিভিন্ন দিকগুলি চিহ্নিত করতে এবং ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলির সঙ্গে সম্পর্কিত নানা দিক নিয়ে আলোচনার জন্য এই ফোরাম এক উপযুক্ত মঞ্চ হয়ে উঠেছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1638702 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

সিবিএসই-দশম শ্রেণীর ফল ঘোষণা; ত্রিবান্দ্রম অঞ্চলে পাশের হার সবথেকে বেশি
কেন্দ্রীয় মধ্যশিক্ষা পর্ষদ (সিবিএসই) আজ দশম শ্রেণীর ফল ঘোষণা করেছে। সমস্ত অঞ্চলের মধ্যে ত্রিবান্দ্রম অঞ্চলেই পাশের হার সবথেকে বেশি - ৯৯.২৮ শতাংশ। এবারে ১৮,৭৩,০১৫ জন ছাত্রছাত্রী পরীক্ষা বসেছিল। এদের মধ্যে ১৭,১৩,১২১ জন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে। এ বছর পাশের হার ৯১.৪৬ শতাংশ। পরীক্ষা হয়েছিল ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে ২০ মার্চ পর্যন্ত। ৫,৩৭৭টি কেন্দ্রে পরীক্ষা নেওয়া হয়। গত বছরের তুলনায় এ বছর ০.৩৬ শতাংশ বেশি পাশ করেছে। ভুবনেশ্বর অঞ্চলে ৯৩.২ শতাংশ, পাটনা অঞ্চলে ৯০.৬৯ শতাংশ এবং গুয়াহাটি অঞ্চলে ৭৯.১২ শতাংশ পরীক্ষার্থী পাশ করেছে। বিদেশে যে সমস্ত ছাত্রছাত্রীরা পরীক্ষায় বসেছিল তাদের মধ্যে ৯৮.৬৭ শতাংশ পাশ করেছে। মেয়েরা ছেলেদের তুলনায় ৩.১৭ শতাংশ বেশি পাশ করেছে। মেয়েদের পাশের হার ৯৩.৩১ শতাংশ। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে কেন্দ্রীয় বিদ্যালয়গুলি থেকে বসা ছাত্রছাত্রীদের পাশের হার সবথেকে বেশি - ৯৯.২৩ শতাংশ। এ বছর ৮.০২ শতাংশ ছাত্রছাত্রী কম্পার্টমেন্ট পেয়েছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1638740 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন পঞ্চায়েতি রাজ মন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ৬টি রাজ্যের প্রতিনিধিদের সঙ্গে গরিব কল্যাণ রোজগার অভিযানের অগ্রগতি নিয়ে পর্যালোচনা বৈঠক করলেন
কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন ও পঞ্চায়েতি রাজ্য মন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র সিং তোমর আজ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে গরিব কল্যাণ রোজগার অভিযানের অগ্রগতি নিয়ে ৬টি রাজ্যের গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রী তথা উচ্চ পদস্থ আধিকারিকদের সঙ্গে পর্যালোচনা বৈঠক করেন। উল্লেখ করা যেতে পারে, প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী গত ২০শে জুন ৬টি রাজ্যের ১১৬টি জেলায় এই কর্মসূচি রূপায়ণের কথা ঘোষণা করেছিলেন। রাজ্যগুলি হ’ল – বিহার, উত্তর প্রদেশ, ঝাড়খন্ড, মধ্যপ্রদেশ, ওডিশা এবং রাজস্থান। কর্মসূচির আওতায় ১২৫ দিনের কর্মসংস্থানের সম্ভাবনা তৈরি করা হচ্ছে। এমনকি, ১১টি বিভিন্ন মন্ত্রকের অধীন ২৫টি ক্ষেত্রে কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হবে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1638602 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

এনওয়াইকেএস এনএসএস স্বেচ্ছাসেবকদের মাধ্যমে আত্মনির্ভর ভারতের বিষয়ে সচেতনা গড়ে তোলার আহ্বান জানালেন শ্রী কিরেন রিজিজু, এক রাজ্য এক খেলা নীতির মাধ্যমে অলিম্পিকে গৌরব অর্জনের প্রয়াসের প্রশংসা করল রাজ্যগুলি
কেন্দ্রীয় যুব বিষয়ক ও ক্রীড়া মন্ত্রী শ্রী কিরেন রিজিজু আজ ১৮টি রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের যুব কল্যাণ ও ক্রীড়া দপ্তরের মন্ত্রী ও পদস্থ আধিকারিকদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠক করেন। দু-দিনের এই বৈঠকে আজ যেসব রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের প্রতিনিধিরা যোগ দিয়েছিলেন তাঁরা কোভিড-১৯ পরবর্তী সময়ে খেলাধুলা শুরু করার বিষয়ে তাঁদের পরিকল্পনার কথা জানান । রাজ্যস্তরে নেহরু যুব কেন্দ্র সংগঠন (এনওইয়াকেএস) এবং ন্যাশনাল সার্ভিস স্কিম (এনএসএস)এর স্বেচ্ছাসেবকদের রাজ্যস্তরে বিভিন্ন কর্মসূচিতে আরও বেশি করে যোগদানের বিষয় নিয়েও বৈঠকে আলোচনা হয়েছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1638566 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

 


পিআইবি’আঞ্চলিক কার্যালয় থেকে প্রাপ্ত তথ্য

চন্ডীগড় : কেন্দ্রশাসিত এই অঞ্চলের প্রশাসক শ্রম-সচিবকে নির্দেশ দিয়ে বলেছেন, কোভিড-১৯ থেকে সুস্থ হওয়া কোনও ব্যক্তিকেই যাতে সরকারি বা বেসরকারি কর্মক্ষেত্রে কাজে ফিরিয়ে নেওয়ার ব্যাপারে প্রত্যাখ্যান না করা হয়, তা সুনিশ্চিত করতে।

পাঞ্জাব : ৭২ ঘন্টার কম সময়ের জন্য যাঁরা রাজ্যে আসছেন, তাঁদের জন্য হোম কোয়ারেন্টাইন বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে না। পরিবর্তে তাঁদের সীমান্ত চৌকিগুলিতে প্রথামাফিক লিখিত ঘোষণাপত্র জমা দিতে হবে। অবশ্য, রাজ্যে পৌঁছনোর ৭২ ঘন্টার মধ্যেই কোনও ব্যক্তি যদি শারীরিক অসুস্থতা বা দুর্বলতা বোধ করেন, তা হলে তাঁকে অবিলম্বে 104 নম্বরে ফোন করার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

হরিয়ানা : রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, রাজ্য সরকার কোভিড-১৯ চ্যালেঞ্জকে সুযোগ হিসাবে গ্রহণ করেছে এবং এই সুযোগকে কাজে লাগাতে শিল্প ও আর্থিক ক্ষেত্রে একাধিক সংস্কারমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।

হিমাচল প্রদেশ : রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের উচ্চ পদস্থ আধিকারিকদের সঙ্গে পর্যালোচনা বৈঠকের সময় মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, রাজ্যে কোভিড-১৯ সংক্রমণ প্রতিরোধে কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। অন্যান্য রাজ্য থেকে শিল্প শ্রমিকদের ফিরে আসার প্রক্রিয়া পুনরায় শুরু হয়েছে। অবশ্য, ফিরে আসা শ্রমিকদের কোভিড-১৯ সংক্রান্ত নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট জমা দিতে হবে।

মহারাষ্ট্র : রাজ্যে গত ২৪ ঘন্টায় আরও ৬ হাজার ৭৪১ জনের সংক্রমণের খবর মেলায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২ লক্ষ ৬৭ হাজার ৬৫৫। এর মধ্যে ১ লক্ষ ৪৯ হাজার রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন এবং নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৭ হাজার ৯০০-রও বেশি। রাজ্যে মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজার ৪০২ জনের। মুম্বাইয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দ্বিগুণ হওয়ার সময় বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫২ দিন।

গুজরাট : রাজ্যে আরও ৯৫১ জনের সংক্রমণের খবর মেলায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪৩ হাজার ৭২৩। মঙ্গলবার করোনায় আক্রান্ত আরও ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর ফলে, রাজ্যে করোনায় মৃতের সংখ্যা ২ হাজার ৭১।

রাজস্থান : রাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৫ হাজার ৮০৬। সুস্থতার সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে প্রায় ১৯ হাজার ২০০। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৬ হাজার ৮০। এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৫২৭ জনের।

মধ্যপ্রদেশ : রাজ্যে গতকাল এ যাবৎ একদিনেই সর্বোচ্চ ৭৯৮ জনের সংক্রমণের খবর মেলায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৯ হাজার ৫। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৪ হাজার ৭৫৭। এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৬৭৩ জনের।

ছত্তিশগড় : রাজ্যে আরও ১০৫ জনের সংক্রমণের খবর মেলায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪ হাজার ৩৭৯। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ৮৪।

গোয়া : রাজ্যে গতকাল আরও ১৭০ জনের সংক্রমণের খবর মেলায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২ হাজার ৭৫৩। সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৬০৭ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ১৮ জনের। রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমাগত বৃদ্ধি পাওয়ায় শুক্রবার থেকে পুনরায় ৩ দিনের লকডাউন কার্যকর হচ্ছে। আগামী ১০ই আগস্ট পর্যন্ত সমগ্র রাজ্যে রাত ৮টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত জনতা কার্ফিউ মেনে চলা হবে।

অরুণাচল প্রদেশ : কোভিড-১৯ সংক্রমণ প্রতিরোধে নামসাই জেলা প্রশাসন আজ রাত ১০টা থেকে ৩০শে জুলাই ভোর ৫টা পর্যন্ত ৯ দিনের লকডাউন কার্যকর করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

আসাম : রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বন্যার ত্রাণশিবিরে থাকা মানুষের সঙ্গে দেখা করেছেন। রাজ্যে বন্যা দুর্গত এলাকাগুলিতে ১৯৮টি ত্রাণশিবির খোলা হয়েছে।

মণিপুর : রাজ্যের কাকচিঙ – এ কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সচেতনতা কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।

মিজোরাম : রাজ্য বিদ্যালয় শিক্ষা পর্ষদ গতকাল দ্বাদশ শ্রেণীর পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণা করেছে। পাশের হার ৭৮.৫২ শতাংশ।

কেরল : কেরল হাইকোর্ট আজ থেকে আগামী ৩১শে জুলাই পর্যন্ত রাজ্যে সমস্ত ধরনের প্রতিবাদ সভা, ধর্মঘট ও পদযাত্রা নিষিদ্ধ করেছে। কোভিড-১৯ মহামারী সংক্রান্ত কেন্দ্রের নীতি-নির্দেশিকাগুলি কঠোরভাবে কার্যকর করার জন্য হাইকোর্ট রাজ্য সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে। এদিকে রাজ্যে আরও ১ জনের করোনায় মৃত্যুর ফলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৫। রাজ্যে গতকাল আরও ৬০৮ জনের সংক্রমণের খবর মিলেছে।

তামিলনাডু : কেন্দ্রশাসিত পন্ডিচেরীতে আরও ৩ জনের করোনায় মৃত্যুর খবর মিলেছে। আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে প্রায় ১ হাজার ৬০০। রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় করোনায় সংক্রমণ বৃদ্ধি পেলেও চেন্নাইয়ে তা নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছে। রাজ্যে আজ পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৪৭ হাজারেরও বেশি। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৪৭ হাজার ৯১২।

কর্ণাটক : ব্যাঙ্গালোর আর্বান ও রুরাল জেলায় ৭ দিনের লকডাউন কঠোরভাবে কার্যকর করা হচ্ছে। এদিকে কর্ণাটক হাইকোর্ট রাজ্যের কাছে জানতে চেয়েছে লকডাউনের সময় কর্তব্যরত সরকারি কর্মীদের কোভিড-১৯ নমুনা পরীক্ষার জন্য বিশেষ বন্দোবস্ত রয়েছে কিনা। রাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৪৪ হাজার ৭৭। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৫ হাজার ৮৩৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ৮৪২ জনের।

অন্ধ্রপ্রদেশ : রাজ্যের তিরুপতিতে একটি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে চিকিৎসক সহ ৫০ জনেরও বেশি কর্মীর নমুনা পরীক্ষায় কোভিড-১৯ সংক্রমণের প্রমাণ মেলায় হাসপাতালটির বহিরাগত রোগী পরিষেবা ৫ দিন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। রাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৪ হাজার ১৯। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১৫ হাজার ১৪৪। গতকাল পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৪০৮ জনের।

তেলেঙ্গানা : জেলা হাসপাতাল এবং তেলেঙ্গানা ইন্সটিটিউট মেডিকেল সায়েন্সেসে কোভিড-১৯ চিকিৎসা পরিষেবা শুরু হবে। এদিকে হায়দরাবাদের নিজাম ইন্সটিটিউট অফ মেডিকেল সায়েন্সেসে করোনা ভাইরাস টিকা কোভ্যাকসিনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা শুরু হয়েছে। রাজ্যে গতকাল পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩৭ হাজার ৭৪৫। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১২ হাজার ৫৩১। মৃত্যু হয়েছে ৩৭৫ জনের এবং সুস্থ হয়েছেন ২৪ হাজার ৮৪০।

 

 

 

CG/BD/SB



(Release ID: 1638905) Visitor Counter : 14