PIB Headquarters

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত পিআইবি’র প্রাত্যহিক সংবাদ

Posted On: 08 AUG 2020 6:31PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ০৮ অগাস্ট, ২০২০

 

 

দেশে ১৪.লক্ষেরও বেশি সুস্থ হয়েছেন; আরোগ্যের হার বৃদ্ধি পেয়েছে ৬৮.৩২ শতাংশ; সংক্রমিতদের মৃত্যুর জাতীয় হার হ্রাস পেয়ে হয়েছে ২.০৪ শতাংশ
কেন্দ্র এবং রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির সমন্বিত উদ্যোগে সংক্রমিতদের নমুনা পরীক্ষা, আইসোলেশন এবং চিকিৎসার ব্যবস্থা করায় দেশে সংক্রমিতদের সুস্থ হয়ে ওঠার হার বৃদ্ধি পাচ্ছে। মৃত্যু হার কমছে। যথাযথ নজরদারির জন্য সংক্রমিতদের দ্রুত সনাক্তকরণ এবং চিকিৎসার ব্যবস্থা করার ফলে ভারতে প্রতি ১০ লক্ষের হিসাবে সংক্রমিতের হার সবচেয়ে কম – ১৪৬৯। আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে এই হার ২৪২৫। কেন্দ্র এবং রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলি ‘টেস্ট ট্র্যাক ও ট্রিট’ কৌশল অবলম্বন করায় দেশে কোভিড সংক্রমিতদের মৃত্যু হার ক্রমশ হ্রাস পাচ্ছে। আন্তর্জাতিক স্তরে মৃত্যু হারের তুলনায় এই হার কম – ২.০৪ শতাংশ। প্রতি ১০ লক্ষের হিসাবে ভারতে মৃত্যু হার ৩০, যেখানে আন্তর্জাতিক স্তরে এই হার ৯১। গত ২৪ ঘন্টায় ৪৮ হাজার ৯০০ জন সুস্থ হয়েছেন। দেশে মোট ১৪ লক্ষ ২৭ হাজার ৫ জন করোনা মুক্ত হলেন। আরোগ্য লাভের হার ৬৮.৩২ শতাংশ। বর্তমানে ৬ লক্ষ ১৯ হাজার ৮৮ জন সংক্রমিত চিকিৎসাধীন রয়েছেন। মোট সংক্রমিতের হার ২৯.৬৪ শতাংশ। এদের হাসপাতালে চিকিৎসার পাশাপাশি, হোম আইসোলেশনেও রাখা হয়েছে। প্রতিদিন নমুনা পরীক্ষাগারের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় এ পর্যন্ত মোট ২ কোটি ৩৩ লক্ষ ৮৭ হাজার ১৭১টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় ৫ লক্ষ ৯৮ হাজার ৭৭৮টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এর ফলে, প্রতি ১০ লক্ষের হিসাবে নমুনা পরীক্ষা বৃদ্ধি পেয়ে হয়েছে ১৬ হাজার ৯৪৭। দেশে ৯৩৬টি সরকারি এবং ৪৬০টি বেসরকারি অর্থাৎ মোট ১ হাজার ৩৯৬টি পরীক্ষাগারে কোভিড-১৯ এর নমুনা পরীক্ষার কাজ চলছে। ৪২৮টি সরকারি এবং ২৮৩টি বেসরকারি মিলিয়ে মোট ৭১১টি পরীক্ষাগারে রিয়েল টাইম আরটিপিসিআর পদ্ধতিতে, ৪৭৬টি সরকারি এবং ৯৮টি বেসরকারি অর্থাৎ মোট ৫৭৪টি পরীক্ষাগারে ট্রুন্যাট পদ্ধতিতে এবং ৩২টি সরকারি ও ৭৯টি বেসরকারি মিলিয়ে মোট ১১১টি পরীক্ষাগারে সিবিন্যাটের মাধ্যমে নমুনা পরীক্ষার কাজ চলছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1644403 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

কোভিড-১৯ সংক্রমিতদের মৃত্যু হার হ্রাস করতে রাজ্যগুলিকে যথাযথ উদ্যোগ নিতে নির্দেশ দিল কেন্দ্র
কেন্দ্রের কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে সমন্বিত পর্যায়ক্রমে সক্রিয় ব্যবস্থাপনার জন্য দেশে কোভিড সংক্রমিতদের মৃত্যু হার হ্রাস পাচ্ছে। রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলি কেন্দ্রের উদ্যোগে অংশগ্রহণ করেছে। বর্তমানে এই হার ২.০৪ শতাংশ। রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির সঙ্গে কোভিড-১৯ পরিস্থিতি নিয়ে ৭ ও ৮ই অগাস্ট দুটি উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিব শ্রী রাজীব ভূষণের পৌরহিত্যে এই বৈঠকে অনলাইনের মাধ্যমে রাজ্যগুলির প্রতিনিধিরা যোগ দেন। যেসব রাজ্যে কোভিড সংক্রমিতদের মৃত্যু হার জাতীয় হারের থেকে বেশি, সেখানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কি কি ব্যবস্থা নেওয়া যায়, বৈঠকে তা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। আজকের বৈঠকে ৮টি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের ১৩টি জেলার পরিস্থিতি পর্যালোচনা করা হয়েছে। এগুলি হ’ল – আসামের কামরূপ (নগর), বিহারের পাটনা, ঝাড়খন্ডের রাঁচি, কেরলের আলাপুছা এবং তিরুবনন্তপুরম, ওডিশার গঞ্জাম, উত্তর প্রদেশের লক্ষ্ণৌ পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগনা, হুগলী, হাওড়া, কলকাতা ও মালদা এবং দিল্লি। দেশে মোট সংক্রমিতদের ৯ শতাংশ এবং কোভিড সংক্রমণে মৃত্যুর ১৪ শতাংশ এই জেলাগুলিতে হচ্ছে। এখানে প্রতি ১০ লক্ষের হিসাবে নমুনা পরীক্ষার হার কম এবং সংক্রমিতের হার বেশি। আসামের কামরূপ (নগর), উত্তর প্রদেশের লক্ষ্ণৌ এবং কেরলের তিরুবনন্তপুরম এবং আলোপুছা জেলায় দৈনিক সংক্রমণের হার বৃদ্ধি পাচ্ছে। বৈঠকে ঐ ৮টি রাজ্যের প্রধান স্বাস্থ্য সচিব এবং জাতীয় স্বাস্থ্য মিশনের ম্যানেজিং ডাইরেক্টররা ছাড়াও সংশ্লিষ্ট জেলাগুলির আধিকারিকরাও উপস্থিত ছিলেন।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1644382 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

কোভিড-১৯ মৃত্যু হার তুলনামূলক বেশি এমন রাজ্যগুলির সঙ্গে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের আলোচনা
জাতীয় গড়ের তুলনায় যে সমস্ত জেলায় কোভিড-১৯ এ মৃত্যু হার তুলনামূলক বেশি, সেগুলি এখনও বড় উদ্বেগের কারণ হয়ে উঠেছে। কোভিড-১৯ মহামারী মোকাবিলায় সংক্রমণ প্রতিরোধ কৌশলে কেন্দ্র/রাজ্য সমন্বয়ের অঙ্গ হিসাবে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিব শ্রী রাজেশ ভূষণ গতকাল এক উচ্চ পর্যায়ের ভার্চ্যুয়াল বৈঠকে যে জেলাগুলিতে কোভিডে মৃত্যু হার বেশি সেই সমস্ত জেলা ও রাজ্যগুলির আধিকারিকদের সঙ্গে মিলিত হন। বৈঠকে সংক্রমণ ও মৃত্যু হার কমানোর বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা হয়েছে। উল্লেখ করা যেতে পারে, এই জেলাগুলিতে জাতীয় গড়ের তুলনায় মৃত্যু হার বেশি হওয়ার পাশাপাশি, দেশে মোট আক্রান্তের ১৭ শতাংশই এখান থেকে হয়েছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1644226 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

পরপর চারদিন দেশে দৈনিক লক্ষের বেশি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে
কেন্দ্র এবং রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির সমন্বিত উদ্যোগে দেশে পরপর চারদিন দৈনিক ৬ লক্ষের বেশি কোভিড-১৯-এর নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। দেশ জুড়ে পরীক্ষাগারের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় এটি সম্ভব হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় ৬,৩৯,০৪২টি নমুনার পরীক্ষা হয়েছে। ভারতে এ পর্যন্ত মোট ২,২৭,৮৮,৩৯৩টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। প্রতি ১০ লক্ষ জনের হিসেবে ১৬৫১৩টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। গত সাতদিনে দৈনিক নমুনা পরীক্ষার হার বৃদ্ধি পেয়ে ৫.৬৬ লক্ষ হয়েছে। ১৪ই জুলাই এই পরিমাণ ছিল ২.৬৯ লক্ষ। ১৪ই জুলাই পর্যন্ত যেখানে দেশে ১ কোটি ২০ লক্ষ নমুনা পরীক্ষা হয়েছিল, ৬ই আগস্টের হিসেবে তা বেড়ে হয়েছে ২ কোটি ২০ লক্ষ। এই সময়ে সংক্রমিতের হার ৭.৫ শতাংশ থেকে বেড়ে ৮.৮৭ শতাংশ হয়েছে। যদিও বেশি সংখ্যায় নমুনা পরীক্ষার কারণে প্রাথমিকভাবে সংক্রমণের হার বেশি হচ্ছে। কিন্তু দিল্লির উদাহরণ থেকে এটা স্পষ্ট যে সমন্বিত বিভিন্ন ব্যবস্থাপনার ফলে এই হার ক্রমশ কমে যাবে। দেশ জুড়ে নমুনা পরীক্ষার সুযোগ ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। আজকের হিসেবে ৯৩১টি সরকারি এবং ৪৫২টি বেসরকারি পরীক্ষাগার, অর্থাৎ মোট ১৩৮৩টি পরীক্ষাগারে নমুনা পরীক্ষা সম্ভব হচ্ছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1644170 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ প্যাকেজের সম্প্রসারণ : কোভিড-১৯ মোকাবিলায় যুক্ত বিমাকৃত স্বাস্থ্য কর্মীদের বিমার মেয়াদ আরও  ৯০ দিন বাড়ানো হয়েছে
https://www.mohfw.gov.in/pdf/PMGKPInsuranceextensionletter.pdf

সারা দেশে ২১টি ইএসআইসি হাসপাতালকে সুনির্দিষ্ট কোভিড-১৯ হাসপাতালে রূপান্তরিত করা হয়েছে : শ্রী সন্তোষ গাঙ্গোয়ার
কেন্দ্রীয় শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী শ্রী সন্তোষ কুমার গাঙ্গোয়ার এবং হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী শ্রী মনোহর লাল খট্টর ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ফরিদাবাদে ইএসআইসি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে প্লাজমা ব্যাঙ্কের উদ্বোধন করেছেন। অনুষ্ঠানে শ্রী গাঙ্গোয়ার জানান, দেশের ২১টি ইএসআইসি হাসপাতালকে সুনির্দিষ্ট কোভিড হাসপাতালে রূপান্তরিত করা হয়েছে। এই হাসপাতালগুলিতে ২ হাজার ৪০০-রও বেশি আইসোলেশন শয্যা, ৫৫০টি আইসিইউ শয্যা সহ ২০০টি ভেন্টিলেটরের ব্যবস্থা রয়েছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1644413 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা (শহরাঞ্চল) কর্মসূচির আওতায় প্রায় ১০ লক্ষ ২৮ হাজার গৃহ নির্মাণের প্রস্তাব
প্রধানমন্ত্রী আবাসন যোজনা (শহরাঞ্চল) কর্মসূচির আওতায় কেন্দ্রীয় অনুমোদন ও নজরদারি কমিটির ৫১তম বৈঠক গতকাল দিল্লিতে অনুষ্ঠিত হয়। এই বৈঠকে ১৯টি রাজ্য/কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের প্রতিনিধিরা যোগ দেন। বৈঠকে রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিতে প্রায় ১০ লক্ষ ২৮ হাজার গৃহ নির্মাণের প্রস্তাব অনুমোদিত হয়েছে। কোভিড-১৯ মহামারীর সময় এটিই ছিল কমিটির প্রথম বৈঠক।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1644120 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

জল পরিশোধন প্রযুক্তির ওপর গুরুত্ব দিয়ে ক্ষুদ্র মাঝারি শিল্প সংস্থার জন্য কোভিড-১৯ সম্পর্কিত বিভিন্ন সামগ্রীর নতুন প্রযুক্তি নিয়ে ওয়েবিনার
সিএসআইআর – সিএমইআরআই এর নির্দেশক অধ্যাপক (ডঃ) হরিশ হিরানি এবং পাটনার এমএসএমই – ডিআই প্রতিষ্ঠানের নির্দেশক শ্রী বিশ্বমোহন ঝা গতকাল এক ওয়েবিনারে যোগ দিয়ে জল পরিশোধন প্রযুক্তি সহ সিএসআইআর – সিএমইআরআই এর পক্ষ থেকে কোভিড-১৯ সম্পর্কিত সর্বশেষ প্রযুক্তিগুলি নিয়ে আলোচনা করেন। এ ধরনের ওয়েবিনার আয়োজনের উদ্দেশ্য হ’ল, সিএসআইআর – সিএমইআরআই প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে উদ্ভাবিত প্রযুক্তিগুলি সম্পর্কে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প ক্ষেত্রের সঙ্গে যুক্ত শিল্প সংস্থা/শিল্পোদ্যোগীদের অবহিত করা।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1644120 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।


 


পিআইবি’আঞ্চলিক কার্যালয় থেকে প্রাপ্ত তথ্য

অরুণাচল প্রদেশ : রাজ্যের স্বাস্থ্য মন্ত্রী পাপুমপারে জেলায় মিদপু-তে একটি সুনির্দিষ্ট কোভিড স্বাস্থ্য ক্ষেত্রের উদ্বোধন করেছেন। এই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে মোট ৩৫টি শয্যা রয়েছে।

মণিপুর : রাজ্যের লেইমা পোকপাম প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রের ৪ জন চিকিৎসক ও ১ জন নার্সের নমুনা পরীক্ষায় করোনার উপস্থিতির প্রমাণ মিলেছে।

মিজোরাম : রাজ্যে কোভিড-১৯ আক্রান্ত আরও ৭ জন রোগী আরোগ্য লাভের পর ছাড়া পেয়েছেন। এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ২৯৬ জন। বর্তমানে নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ২৭০ এবং আক্রান্তের সংখ্যা ৫৬৬।

নাগাল্যান্ড : রাজ্যে ৬০৭টি নমুনা পরীক্ষায় আরও ৩১ জনের করোনায় সংক্রমণের প্রমাণ মিলেছে। এদের মধ্যে ১২ জন কোহিমার ও ১০ জন ডিমাপুরের রয়েছেন।

কেরল : কারিপুর বিমান দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৮ হয়েছে। বর্তমানে ১৪৯ জন বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এদের মধ্যে ১৪ জনের শারীরিক অবস্থা সঙ্কটজনক। কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রী দুর্ঘটনা-স্থল ঘুরে দেখে আজ কয়েকটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীদের সঙ্গে দেখা করে দুর্ঘটনায় মৃত প্রত্যেক ব্যক্তির নিকটাত্মীয়কে ১০ লক্ষ টাকার অন্তর্বর্তীকালীন ত্রাণ সহায়তা, গুরুতর আহতদের ২ লক্ষ টাকা এবং স্বল্প আহতদের ৫০ হাজার টাকা করে এককালীন অনুদান দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন। এদিকে রাজ্যে গতকাল আরও ১ হাজার ২৫১ জনের সংক্রমণের খবর মিলেছে। বর্তমানে ১২ হাজার ৪১১ জন করোনা আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসা চলছে।

তামিলনাডু : কেন্দ্রশাসিত পন্ডিচেরীতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৫ হাজার ছাড়িয়েছে। মারা গেছেন ৮০ জন। এদিকে তামিলনাডু’তে কোভিড-১৯ মহামারী মোকাবিলায় আরও ৫০০টি অ্যাম্বুলেন্স ক্রয় করার জন্য রাজ্য সরকার ১০৩ কোটি টাকা মঞ্জুর করেছে। রাজ্যে গতকাল আরও ১১৯ জনের মৃত্যুর খবর মেলায় করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪ হাজার ৬৯০ হয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা ২ লক্ষ ৮৫ হাজার ছাড়িয়েছে এবং নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫২ হাজার ৭৫৯ জন।

কর্ণাটক : রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী টেলিফোনে মুখ্যসচিবের সঙ্গে কথা বলে বর্তমান বন্যা পরিস্থিতির ব্যাপারে খোঁজখবর নিয়েছেন। এদিকে ব্যাঙ্গালোর শহরে পুলিশ কর্মীদের মধ্যে করোনায় সংক্রমণের হার বৃদ্ধি পাওয়ায় শহরের পুলিশ কমিশনার পুলিশ কর্মীদের ডিউটির ব্যাপারে নতুন নির্দেশিকা জারি করেছেন। রাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ১ লক্ষ ৬৫ হাজার। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭৭ হাজার ৬৮৬ জন। মৃত্যু হয়েছে প্রায় ৩ হাজার ব্যক্তির।

অন্ধ্রপ্রদেশ : রাজ্যে যে সমস্ত ব্যক্তির জ্বর, শ্বাসকষ্ট ও শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা কম হওয়ার দরুণ অসুস্থতা বোধ করছেন, তাঁদের কোভিড-১৯ পরীক্ষা নির্বিশেষে হাসপাতালে ভর্তি করা হবে। নেল্লোর শহরে লকডাউনের মেয়াদ ২৩শে অগাস্ট পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। এদিকে রাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ২ লক্ষ ৭ হাজার। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৮৪ হাজার ৬৫৪ জন। এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৮৪২ জনের।

তেলেঙ্গানা : রাজ্যে স্বল্প উপসর্গ বিশিষ্ট রোগীরাই করোনা ভাইরাসের নীরব বাহক হয়ে উঠেছেন বলে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে। এদিকে হায়দরাবাদ শহরে করোনায় সংক্রমণ ধীরে ধীরে হ্রাস পাচ্ছে। রাজ্যে গত ২৪ ঘন্টায় আরও ১৪ জনের মৃত্যুর খবর মেলায় করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৬১৫ হয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা ৭৭ হাজার ছাড়িয়েছে। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২২ হাজার ৫৬৮ জন।

গুজরাট : আমেদাবাদ ও সুরাট দেশের সেই ১৬টি জেলার মধ্যে রয়েছে, যেখানে কোভিড-১৯ এ মৃত্যু হার জাতীয় গড়ের তুলনায় বেশি কেন্দ্রীয় সরকার এই জেলাগুলিতে প্রতি ১০ লক্ষ জনসংখ্যায় নমুনা পরীক্ষার হার আরও বাড়ানোর নির্দেশ দিয়েছে। রাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৬৮ হাজার ৮৮৫।

রাজস্থান : রাজ্যে শুক্রবার করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৫০ হাজারের সীমা ছাড়িয়েছে। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী জাতীয় স্বাস্থ্য মিশনের আওতায় ৬ হাজার ৩১০ জন কম্যুনিটি স্বাস্থ্য আধিকারিক নিয়োগের প্রস্তাব অনুমোদন করেছে।

মধ্যপ্রদেশ : রাজ্যে গত ২৪ ঘন্টায় আরও ৭৩৪ জনের সংক্রমণের খবর মেলায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৩৭ হাজার ২৯৮ হয়েছে। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ২৭ হাজার ৬২১ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৯৬২ জনের।

ছত্তিশগড় : দু’দিন আগে রাজ্য বিধানসভার প্রাক্তন স্পিকার কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হওয়ার পর বিরোধী দলনেতাও কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন। রাজ্যে শুক্রবার আরও ৩৭৮ জনের সংক্রমণের খবর মেলায় নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৩ হাজার ২ হয়েছে।

 

 

CG/BD/SB



(Release ID: 1644482) Visitor Counter : 5