অর্থমন্ত্রক
azadi ka amrit mahotsav g20-india-2023

সামাজিক সুরক্ষা প্রদানে প্রধানমন্ত্রী সুরক্ষা বিমা যোজনা (পিএমএসবিওয়াই), প্রধানমন্ত্রী জীবন জ্যোতি বিমা যোজনা (পিএমজেজেবিওয়াই) এবং অটল পেনশন যোজনা (এপিওয়াই)-এর ৮ বছর পূর্ণ হল

Posted On: 09 MAY 2023 7:45AM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি,  ৯ মে, ২০২৩

 

Ø পিএমজেজেবিওয়াই: ১৬ কোটির বেশি নথিভুক্তিকরণ

Ø পিএমএসবিওয়াই: ৩৪ কোটির বেশি নথিভুক্তিকরণ

Ø এপিওয়াই: ৫ কোটির বেশি গ্রাহক

প্রধানমন্ত্রী সুরক্ষা বিমা যোজনা (পিএমএসবিওয়াই), প্রধানমন্ত্রী জীবন জ্যোতি বিমা যোজনা (পিএমজেজেবিওয়াই) এবং অটল পেনশন যোজনা (এপিওয়াই)-যেহেতু আমরা এই তিনটি সামাজিক সুরক্ষা (জন সুরক্ষা) প্রকল্পের ৮ বছর পূর্তি উদযাপন করছি, তাই এই প্রকল্পগুলি সাফল্য এবং উল্লেখযোগ্য দিকগুলি আমাদের স্মরণ করা প্রয়োজন।

প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী ২০১৫ সালের ৯ই মে কলকাতায় পিএমজেজেবিওয়াই, পিএমএসবিওয়াই এবং এপিওয়াই-এর সূচনা করেছিলেন।

মানুষের জীবন এবং আর্থিক ক্ষেত্রে অনিশ্চয়তার কথা ভেবেই নাগরিকদের কল্যাণে এই তিনটি প্রকল্প উৎসর্গ করা হয়েছিল। এর মধ্যে পিএমজেজেবিওয়াই এবং পিএমএসবিওয়াই, এই দুটি ছিল বিমা প্রকল্প এবং এপিওয়াই হল বয়স্কদের জন্য পেনশন প্রকল্প।

জন সুরক্ষা প্রকল্প সম্পর্কে বলতে গিয়ে কেন্দ্রীয় অর্থ ও কর্পোরেট বিষয়ক মন্ত্রী শ্রীমতী নির্মলা সীতারমন বলেন, “নাগরিকদের ব্যাঙ্কিং সুযোগ-সুবিধা এবং সামাজিক নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার লক্ষ্যে ২০১৪ সালে আর্থিক অন্তর্ভুক্তির জন্য জাতীয় মিশন-এর সূচনা করা হয়েছিল। নাগরিকদের কল্যাণ এবং জীবনের অনিশ্চয়তার কথা মাথায় রেখে এই তিনটি সামাজিক সুরক্ষা প্রকল্প চালু করা হয়েছিল। এই প্রকল্পগুলির মাধ্যমে সমাজের পিছিয়ে পড়া অংশের মানুষকে আর্থিকভাবে সুরক্ষা প্রদান করা হচ্ছে।”

শ্রীমতী সীতারমন বলেন, ২০২৩এর ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত পিএমজেজেবিওয়াই, পিএমএসবিওয়াই এবং এপিওয়াই প্রকল্পে যথাক্রমে ১৬.২ কোটি, ৩৪.২ কোটি এবং ৫.২ কোটি নথিভুক্তিকরণ হয়েছে।

তিনি বলেন, “পিএমজেজেবিওয়াই প্রকল্পে ৬.৬৪ লক্ষ পরিবারকে ১৩,২৯০ কোটি টাকা দেওয়া হয়েছে। পিএমএসবিওয়াই প্রকল্পে ১.১৫ লক্ষ পরিবারকে ২৩০২ কোটি টাকা দেওয়া হয়েছে।”

কেন্দ্রীয় অর্থ প্রতিমন্ত্রী ডঃ ভগৎ কিষান রাও খাড়ার বলেন, “সরকার গ্রামাঞ্চলের মানুষকে এর আওতায় আনার উদ্যোগ নিয়েছে এবং প্রতিটি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় প্রচার কর্মসূচী সংগঠিত করা হচ্ছে।”

অষ্টম বর্ষপূর্তিতে জন সুরক্ষা প্রকল্প এবং এগুলির সাফল্য এক নজরে দেখে নেওয়া যাক

১. প্রধানমন্ত্রী জীবন জ্যোতি বিমা যোজনা (পিএমজেজেবিওয়াই)

প্রকল্প: পিএমজেজেবিওয়াই বিমা প্রকল্পটি প্রতি বছর পুনর্নবীকরণ করতে হয়। এতে যে কোন কারণে মৃত্যুর জন্য বিমা কভারেজ পাওয়া যায়।

যোগ্যতা: ১৮ থেকে ৫০ বছর বয়সী যে কোনও ব্যক্তি ব্যাঙ্ক বা ডাকঘরে অ্যাকাউন্ট চালু করে এই প্রকল্পে নাম নথিভুক্ত করতে পারেন। বয়স ৫০ পেরোনোর আগে যারা এই প্রকল্পে যুক্ত হবেন, তারাও ৫৫ বছর পর্যন্ত নিয়মিত প্রিমিয়াম দিয়ে এই প্রকল্পের সুবিধা নিতে পারবেন।

সুবিধাসমূহ: এই প্রকল্পে বার্ষিক প্রিমিয়াম ৪৩৬ টাকা এবং যে কোনও কারণে মৃত্যু হলে, ২ লক্ষ টাকা পাওয়া যাবে।

নথিভুক্তিকরণ: ব্যাঙ্কের শাখা অফিস বা ডাকঘরে গিয়ে কিংবা ওয়েবসাইটের মাধ্যমে নাম নথিভুক্ত করা যেতে পারে। নাম নথিভুক্ত হলে, ব্যাঙ্কের অ্যাকাউন্ট থেকে প্রতি বছর প্রিমিয়াম কেটে নেওয়া হবে। ওয়েবসাইটে বিস্তারিত তথ্য মিলবে (হিন্দি, ইংরেজি ও আঞ্চলিক ভাষাসমূহ): https://jansuraksha.gov.in।

সাফল্যসমূহ: ২৬.০৪.২০২৩ পর্যন্ত এই প্রকল্পে ১৬.১৯ কোটির বেশি নাম নথিভুক্ত হয়েছে এবং ৬,৬৪,৫২০টি ক্ষেত্রে ১৩,২৯০.৪০ কোটি টাকা প্রদান করা হয়েছে।

২. প্রধানমন্ত্রী সুরক্ষা বিমা যোজনা (পিএমএসবিওয়াই)

প্রকল্প:  এটি দুর্ঘটনাজনিত বিমা। প্রতি বছর পুনর্নবীকরণ করতে হয়। দুর্ঘটনায় মৃত্যু বা পঙ্গুত্বের জন্য বিমা কভারেজ পাওয়া যায়।

যোগ্যতা:  ১৮ থেকে ৭০ বছর বয়সী যে কোনও ব্যক্তি ব্যাঙ্ক বা ডাকঘরে অ্যাকাউন্ট চালু করে এই প্রকল্পে নাম নথিভুক্ত করতে পারেন।

সুবিধাসমূহ: দুর্ঘটনাজনিত মৃত্যু ও পঙ্গুত্বের জন্য ২ লক্ষ টাকা (আংশিক পঙ্গুত্বের ক্ষেত্রে ১ লক্ষ টাকা) পাওয়া যায়। বার্ষিক প্রিমিয়াম ২০ টাকা।

নথিভুক্তিকরণ: ব্যাঙ্কের শাখা অফিস বা ডাকঘরে গিয়ে কিংবা ওয়েবসাইটের মাধ্যমে নাম নথিভুক্ত করা যেতে পারে। নাম নথিভুক্ত হলে, ব্যাঙ্কের অ্যাকাউন্ট থেকে প্রতি বছর প্রিমিয়াম কেটে নেওয়া হবে। ওয়েবসাইটে বিস্তারিত তথ্য মিলবে (হিন্দি, ইংরেজি ও আঞ্চলিক ভাষাসমূহ): https://jansuraksha.gov.in।

সাফল্যসমূহ: ২৬.০৪.২০২৩ পর্যন্ত এই প্রকল্পে ৩৪.১৮ কোটির বেশি নাম নথিভুক্ত হয়েছে এবং ১,১৫,৯৫১টি ক্ষেত্রে ২৩০২.২৬ কোটি টাকা প্রদান করা হয়েছে।

অটল পেনশন যোজনা (এপিওয়াই)

প্রেক্ষাপট: সব ভারতীয় বিশেষত দরিদ্র এবং অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিকদের সার্বিক সামাজিক সুরক্ষার কথা ভেবে অটল পেনশন যোজনা চালু করা হয়েছে। এর মূল লক্ষ্য হল, অসংগঠিত ক্ষেত্রের মানুষের আর্থিক নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করা। পেনশন তহবিল নিয়ন্ত্রণ ও উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (পিএফআরডিএ)-এর মাধ্যমে এই প্রকল্পে পেনশন প্রদান করা হয়।

যোগ্যতা: আয়করের আওতায় পড়েন না এমন ১৮ থেকে ৪০ বছর বয়সী যে কোনও নাগরিক এই প্রকল্পে ব্যাঙ্কের মাধ্যমে অ্যাকাউন্ট চালু করতে পারেন। ব্যাঙ্কে জমা করা অর্থের পরিমাণ অনুযায়ী পেনশন নির্ধারিত হয়।

সুবিধাসমূহ: ৬০ বছর বয়স পেরোলে, এই প্রকল্প ১০০০ টাকা, বা ২০০০ টাকা, বা ৩০০০ টাকা, বা ৪০০০ টাকা, বা ৫০০০ টাকা পেনশন পাওয়া যাবে। ব্যাঙ্কে জমা করা অর্থের পরিমাণ অনুযায়ী পেনশন নির্ধারিত হয়ে থাকে।

সুবিধাসমূহ বন্টন: এই প্রকল্পে গ্রাহক মাসিক পেনশন পেয়ে থাকেন। তাঁর মৃত্যুর পর স্বামী বা স্ত্রী, তাঁদের মৃত্যু হলে, প্রাপ্য অর্থ তাঁদের মনোনীত ব্যক্তির হাতে তুলে দেওয়া হবে।

গ্রাহকের অকাল মৃত্যু হলে (৬০ বছরের আগে মৃত্যুর ক্ষেত্রে), তাঁর স্বামী বা স্ত্রী, অ্যাকাউন্ট চালিয়ে যেতে পারেন। মাসিক/ত্রৈমাসিক কিংবা ষান্মাসিকভাবে ব্যাঙ্কে টাকা দেওয়া যেতে পারে। গ্রাহক চাইলে, যে কোনও সময় এই প্রকল্প থেকে সরে যেতে পারেন।

সাফল্য: ২৭.০৪.২০২৩ পর্যন্ত এই প্রকল্পে ৫ কোটির বেশি গ্রাহক নথিভুক্ত হয়েছেন।

 

PG/MP/NS



(Release ID: 1922871) Visitor Counter : 469