PIB Headquarters

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত পিআইবি’র প্রাত্যহিক সংবাদ

Posted On: 24 JUL 2020 6:32PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ২৪ জুলাই, ২০২০

 

 

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ তথ্য; পর পর তৃতীয় দিন সংক্রমিতদের সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যা সর্বোচ্চ – ৩৪,৬০২ জন সংক্রমিত সুস্থ হয়ে উঠেছেন; সুস্থ হওয়ার সংখ্যা লক্ষ ছাড়িয়েছে; সংক্রমিতদের মৃত্যুর হার ২.৩৮ শতাংশ এবং এই হার নিম্নমুখী
কোভিড সংক্রমিতদের একদিনে সুস্থ হওয়ার সর্বোচ্চ হার তার আগের রেকর্ডকে ক্রমশ ভাঙছে। পর পর তিনদিন এই প্রবণতা দেখা যাচ্ছে। গত ২৪ ঘন্টার হিসেবে ৩৪,৬০২ জন সংক্রমিত সুস্থ হয়ে উঠেছেন – যা সর্বোচ্চ। এর ফলে, দেশে মোট আরোগ্য লাভ করলেন ৮ লক্ষেরও বেশি সংক্রমিত – ৮,১৭,২০৮। যার মাধ্যমে, কোভিড সংক্রমিতদের সুস্থ হয়ে ওঠার হার পৌঁছল ৬৩.৪৫ শতাংশে।
প্রতিদিন সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ার ফলে চিকিৎসাধীন সংক্রমিতদের থেকে ৩,৭৭,০৭৩ জন বেশি সুস্থ হয়ে উঠেছেন। বর্তমানে ৪,৪০,১৩৫ জন চিকিৎসাধীন। চিকিৎসাধীন সংক্রমিতের থেকে সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যার ব্যবধান ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে।
রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলি কেন্দ্রীয় বিশেষজ্ঞ দলের সাহায্য পাচ্ছে। যেসব অঞ্চলে সংক্রমণের হার বেশি, সেইসব জায়গায় কেন্দ্র এই দলগুলিকে পাঠাচ্ছে এবং অনেক সময় কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্য ও জেলাস্তরের আধিকারিকদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মতামত সংগ্রহ করছে। এর ফলে, দেশে সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যা ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং সংক্রমিতদের মৃত্যু হার কমছে, বর্তমানে যা ২.৩৮ শতাংশ।
কেন্দ্রের পরামর্শক্রমে রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলি কোভিড-১৯-এর মোকাবিলায় সুপরিকল্পিত উদ্যোগ নেওয়ার ফলে আরোগ্যের হার বাড়ছে। প্রাথমিকভাবে প্রচুর পরিমাণে নমুনা পরীক্ষা এবং বাড়ি বাড়ি গিয়ে সমীক্ষা, সংক্রমিতদের সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিকে শনাক্তকরণ এবং সারি ও আইএলআই সংক্রমিতদের প্রতি নজরদারির ফলে এই সুফল পাওয়া যাচ্ছে। এর সঙ্গে সংক্রমিতদের প্রতি যত্ন নেওয়ার পন্থা যথেষ্ট সফলভাবে মেনে চলা হচ্ছে। সংক্রমিতদের মধ্যে কারোর কারোর হাসপাতালে থেকে চিকিৎসা হচ্ছে। কেউ আবার বাড়িতে নিভৃতাবাসে থেকে চিকিৎসকদের পরামর্শ নিচ্ছেন। এর ফলে যাঁদের জটিল সমস্যা দেখা দিচ্ছে তাঁরা সহজেই হাসপাতালের ব্যবহার করতে পারছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1640891 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

নিরন্তর গবেষণা পরিকাঠামোয় অগ্রগতির ফলে এখনও পর্যন্ত দেড় কোটিরও বেশি কোভিড-১৯ নমুনা পরীক্ষা
দেশে এখনও পর্যন্ত ১ কোটি ৫৪ লক্ষ ২৮ হাজার ১৭০টি কোভিড-১৯ নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় কোভিড-১৯ সংক্রমিতদের চিহ্নিতকরণের জন্য ৩ লক্ষ ৫২ হাজার ৮০১টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। ভারতে প্রতি ১০ লক্ষ জনসংখ্যায় নমুনা পরীক্ষার হার ১১১৭৯.৮৩। টেস্ট, ট্র্যাক এবং ট্রিট কৌশল গ্রহণের ফলে দেশে নমুনা পরীক্ষার হার ক্রমশ বাড়ছে। প্রতি ১০ লক্ষ জনসংখ্যায় নমুনা পরীক্ষার হার বৃদ্ধি পাওয়ার আরও একটি কারণ হ’ল – পরীক্ষাগারের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়া। দেশে সরকারি ও বেসরকারি মিলিয়ে নমুনা পরীক্ষাগারের সংখ্যা এখনও পর্যন্ত ১ হাজার ২৯০। ভারতীয় চিকিৎসা গবেষণা পর্ষদের পরামর্শ অনুযায়ী, সর্বাধুনিক নমুনা পরীক্ষার কৌশল গ্রহণের ক্ষেত্রে আরটি-টিসিআর পরীক্ষাগারগুলি মূল ভিত্তি হয়ে উঠেছে। বর্তমানে সরকারি ও বেসরকারি পরীক্ষাগারগুলিতে নমুনা পরীক্ষার হারে ক্রমাগত অগ্রগতি হচ্ছে। দেশে সরকারি পরীক্ষাগারের সংখ্যা এখন ৮৯৭ এবং বেসরকারি পরীক্ষাগারের সংখ্যা ৩৯৩।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1640889 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

সাংহাই সহযোগিতা সংগঠনের স্বাস্থ্য মন্ত্রীদের বৈঠকে ভারতের কোভিড সংক্রমণ প্রতিরোধ কৌশল প্রসঙ্গ উল্লেখ করেন ডঃ হর্ষবর্ধন
কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী ডঃ হর্ষবর্ধন ডিজিটাল পদ্ধতিতে সাংহাই সহযোগিতা সংগঠনের স্বাস্থ্য মন্ত্রীদের বৈঠকে অংশ নেন। কোভিড-১৯ সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকারের গৃহীত পদক্ষেপগুলি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, দেশে ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ভ্রমণ নির্দেশিকা প্রবেশ পথগুলিতে নজরদারি, গোষ্ঠী-ভিত্তিক নজরদারি এবং নমুনা পরীক্ষাগারগুলির ক্ষমতা বাড়ানো হয়েছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1640889 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

সুলভে ওষুধপত্র পেতে বিভিন্ন বাধা-বিপত্তি দূর করার আহ্বান জানালেন শ্রী পীযূষ গোয়েল
কেন্দ্রীয় বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রী শ্রী পীযূষ গোয়েল সমস্ত দেশের প্রতি ব্যবসা-বাণিজ্যে স্বচ্ছতা বজায় রেখে বিশ্বস্ত বাণিজ্য সহযোগী হিসাবে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন। ব্রিকস্‌ দেশগুলির বাণিজ্য মন্ত্রীদের দশম বৈঠকে ভার্চ্যুয়ালি অংশ নিয়ে তিনি বলেন, সমস্ত দেশকে ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে বিশ্বস্ত ও স্বচ্ছ ভাবমূর্তি অনুসরণ করে চলতে হবে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1640746 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

কয়েকটি দেশ থেকে সরকারি কাজে পণ্য সংগ্রহের ওপর নিষেধাজ্ঞা
কেন্দ্র বৃহস্পতিবার দরপত্র ডাকার ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ কার্যকর করার জন্য ২০১৭ সালের সাধারণ আর্থিক নিয়মের সংশোধন করেছে। প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে সরকারি প্রকল্পের দরপত্র ডাকার ক্ষেত্রে ভারতের সঙ্গে যেসব দেশের স্থল সীমান্ত রয়েছে সেসব দেশের সংস্থাগুলির জন্য এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে। এরসঙ্গে দেশের জাতীয় নিরাপত্তার বিষয়টিও জড়িত। ব্যয় সংক্রান্ত দপ্তর এই নিয়ম অনুযায়ী একটি বিস্তারিত নির্দেশাবলী প্রকাশ করেছে। দেশের জাতীয় নিরাপত্তা এবং প্রতিরক্ষার বিষয়গুলি বিবেচনা করে সরকারি দরপত্র আহ্বানের জন্য নতুন নিয়মাবলী মেনে চলতে হবে। এই নির্দেশাবলী অনুযায়ী ভারতের সঙ্গে যেসব দেশের স্থল সীমান্ত রয়েছে, সেইসব দেশের পণ্য, পরিষেবা অথবা কোন প্রকল্পের থেকে সুবিধা পেতে হলে উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের নিবন্ধীকৃত সংস্থাগুলিই শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট দরপত্রের বাছাই করার প্রক্রিয়ায় অংশ নিতে পারবে। উপযুক্ত কর্তৃপক্ষ শিল্প ও অভ্যন্তরীণ বাণিজ্য উন্নয়ন দপ্তরের দ্বারা গঠিত নিবন্ধীকৃত কমিটির মাধ্যমে এই ধরণের সংস্থাকে অনুমতি দেবে। বিদেশ মন্ত্রক এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের নিরাপত্তা জনিত ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় ছাড়পত্র এক্ষেত্রে বাধ্যতামূলক।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1640778 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।


বিশ্ব মন্ত্রী পর্যায়ের ফোরামে ফিট ইন্ডিয়া অভিযানের প্রশংসায় কমনওয়েথ – এর মহাসচিব
কোভিড পরবর্তী সময়ে ক্রীড়া ক্ষেত্রে ভারতের রূপরেখা সম্পর্কে কমনওয়েথ দেশগুলির মন্ত্রী পর্যায়ের ভার্চ্যুয়াল বৈঠকে অংশ নিয়ে কেন্দ্রীয় ক্রীড়া মন্ত্রী শ্রী কিরেণ রিজিজু জানান, কোভিড পরবর্তী সময়ে সমন্বয়ের ভিত্তিতে ক্রীড়া নীতি তৈরি করার পরিকল্পনা রয়েছে। সমস্ত কমনওয়েথ দেশের অংশগ্রহণে আয়োজিত মন্ত্রী পর্যায়ের ফোরামে শ্রী রিজিজু আরও বলেন, কমনওয়েথ গোষ্ঠীভুক্ত সদস্য দেশ হিসাবে সকল দেশের প্রতি সহমর্মিতা দেখানোর, বিশেষ করে বর্তমান পরিস্থিতির প্রেক্ষিতে অত্যন্ত প্রয়োজন রয়েছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1640851 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।


কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী ‘স্টে ইন ইন্ডিয়া অ্যান্ড স্টাডি ইন ইন্ডিয়া’ সম্পর্কিত বিশেষ সভায় পৌরহিত্য করলেন
কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী শ্রী রমেশ পোখরিয়াল ‘নিশাঙ্ক’ আজ নতুন দিল্লিতে মন্ত্রকের উচ্চ পদস্থ আধিকারিক সহ মন্ত্রকের অধীন স্বশাসিত প্রতিষ্ঠান/কারিগরি সংগঠনগুলির প্রধানদের সঙ্গে ‘স্টে ইন ইন্ডিয়া অ্যান্ড স্টাডি ইন ইন্ডিয়া’ বা ভারতে থেকে পঠন-পাঠন চালিয়ে যাওয়া শীর্ষক এক সভার আয়োজন করেন। এই সভায় বিভাগীয় প্রতিমন্ত্রী শ্রী সঞ্জয় ধোত্রে, উচ্চ শিক্ষা সচিব শ্রী অমিত খারে, ইউজিসি-র চেয়ারম্যান শ্রী ডি পি সিং প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। সভায় শ্রী পোখরিয়াল বলেন, কোভিড-১৯ পরিস্থিতির কারণে যে সমস্ত ছাত্রছাত্রী বিদেশে পড়াশুনো চালিয়ে যাওয়ার ইচ্ছে প্রকাশ করেছিলেন, তাঁরাই এখন ভারতে থেকে এখানে পঠন-পাঠনের বিষয়ে চিন্তাভাবনা করছেন। তিনি আরও জানান, বহু ছাত্রছাত্রী সম্পূর্ণ পাঠ্যক্রম শেষ না হওয়ার উদ্বেগ নিয়ে দেশে ফিরছেন এবং মন্ত্রক ছাত্রছাত্রীদের জন্য তাঁদের অধ্যয়ন চালিয়ে যাওয়ার প্রয়োজনীয়তার বিষয়ে সর্বাত্মক প্রয়াস নিচ্ছে। এ প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, বর্তমান পরিস্থিতি অনুযায়ী, দুটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে মন্ত্রক অগ্রাধিকার দিচ্ছে। এগুলি হ’ল – বিদেশে গিয়ে পড়াশুনায় ইচ্ছুক ছাত্রছাত্রীদের দেশে থেকেই প্রয়োজনীয় অধ্যয়নের সুযোগ-সুবিধা মেটানো এবং দ্বিতীয়টি হ’ল – বিদেশ ফেরৎ ছাত্রছাত্রীদের উদ্বেগ দূর করা, যাতে তাঁরা দেশে ফিরে অসমাপ্ত পাঠ্যক্রমের অধ্যয়ন শেষ করতে পারেন।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1640919 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

জেননোভা বায়ো ফার্মাসিউটিক্যাল – এর নোভেল এমআরএনএ-ভিত্তিক কোভিড-১৯ টিকা উদ্ভাবনের ক্ষেত্রে জৈব প্রযুক্তি দপ্তরের তহবিল সংস্থান
জৈব প্রযুক্তি দপ্তরের অধীন বিআইআরএসি দেশে এ ধরনের প্রথম এমআরএনএ-ভিত্তিক টিকা উদ্ভাবনের প্রয়োজনীয় পরিকাঠামো গড়ে তুলেছে। এজন্য জৈব প্রযুক্তি দপ্তর জেননোভা বায়ো ফার্মাসিউটিকালসের এমআরএনএ-ভিত্তিক কোভিড-১৯ টিকা উদ্ভাবনের কাজে তহবিল সহায়তা দিয়েছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1640846 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

সিএসআইআর ব্যয়সাশ্রয়ী ফ্যাভিপিরাভির প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছে
কোভিড-১৯ আক্রান্ত, বিশেষ করে স্বল্প ও মাঝারি উপসর্গ-বিশিষ্ট রোগীদের চিকিৎসার ক্ষেত্রে জাপানের ফুজি সংস্থার পক্ষ থেকে আবিষ্কৃত অ্যান্টি ভাইরাল প্রতিষেধক ফ্যাভিপিরাভির ব্যবহার করে ভালো পরিণাম পাওয়া যাচ্ছে। এর প্রেক্ষিতে সিএসআইআর – এর অধীন একাধিক পরীক্ষাগার স্থানীয়ভাবে সহজলভ্য ব্যয়সাশ্রয়ী ফ্যাভিপিরাভির প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছে। এই প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে দেশে ওষুধ তৈরির জন্য ডিসিজিআই – এর কাছ থেকে প্রয়োজনীয় অনুমোদন চাওয়া হয়েছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1640742 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

প্রতিরক্ষা সহযোগিতাকে আরও নিবিড় করতে ইজরায়েলের প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর সঙ্গে টেলিফোনে ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর কথা
প্রতিরক্ষা মন্ত্রী শ্রী রাজনাথ সিং আজ টেলিফোনে ইজরায়েলের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী লেঃজেঃ বেঞ্জামিন গ্যাঞ্জের সঙ্গে কথা বলেন। দুই মন্ত্রী পারস্পরিক কৌশলগত সহযোগিতায় অগ্রগতির ব্যাপারে সন্তোষ প্রকাশ করেন। কোভিড-১৯ মহামারীর মোকাবিলায় গবেষণা ও উন্নয়নের ক্ষেত্রে চলতি সহযোগিতার ব্যাপারেও দুই মন্ত্রী সন্তোষ প্রকাশ করেন।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1640901 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

অসম, বিহার উত্তরপ্রদেশে বন্যা দুর্গত মানুষদের সাহায্যের জন্য রেড ক্রস সোস্যাইটির পাঠানো ত্রাণ সামগ্রীর যাত্রার সূচনা করলেন রাষ্ট্রপতি
রাষ্ট্রপতি শ্রী রামনাথ কোবিন্দ আজ কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী ডাঃ হর্ষ বর্ধনের উপস্থিতিতে রাষ্ট্রপতি ভবন থেকে রেড ক্রস সোস্যাইটির পাঠানো ত্রাণ সরবরাহকারী ৯টি ট্রাকের যাত্রার সূচনা করেছেন। রাষ্ট্রপতি ভারতীয় রেড ক্রস সোস্যাইটির সভাপতি।
অসম, বিহার ও উত্তরপ্রদেশে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের জন্য এই ত্রাণ সরবরাহ করা হয়েছে। দিল্লী থেকে ট্রেনে করে এই ত্রাণ সামগ্রী রাজ্যগুলিতে পাঠানো হবে। এই ত্রাণ সামগ্রীতে ত্রিপল, তাঁবু, শাড়ি, ধুতি, কম্বোল, রান্নার সামগ্রী, মশারী, বিছানার চাদর, বালতি এবং দুটি জল পরিশোধন ইউনিট রয়েছে। এছাড়াও কোভিড-১৯ সুরক্ষা সরঞ্জাম যেমন- সার্জিক্যাল মাস্ক, পিপিই কিটস, গ্লাভস, ফেস শিল্ড’ও রয়েছে। এই সামগ্রীগুলি সংশ্লিষ্ট রাজ্যে ইন্ডিয়ান রেড ক্রস সোস্যাইটির সঙ্গে যুক্ত স্বাস্থ্যকর্মীদের সুরক্ষা কাজে লাগবে। একইসঙ্গে বন্যা দুর্গতদের পাশাপাশি ইন্ডিয়ান রেড ক্রস সোস্যাইটির স্বেচ্ছাসেবীদের সুরক্ষিত রাখবে। এই ত্রাণ সামগ্রীগুলি সংশ্লিষ্ট রাজ্যের বন্যা দুর্গতদের বিতরণ করবে ওই রাজ্যে অবস্থিত রেড ক্রস শাখা। এই ধরণের ত্রাণ সামগ্রী পাঠানো অব্যাহত রয়েছে। আগামীদিনেও তা জারি থাকবে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1640847 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

 


পিআইবি’আঞ্চলিক কার্যালয় থেকে প্রাপ্ত তথ্য

চন্ডীগড় : কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের প্রশাসক কোভিড সংক্রমণ প্রতিরোধে আগাম সুরক্ষামূলক ব্যবস্থাগুলি সম্পর্কে জনসাধারণের মধ্যে সচেতনতা গড়ে তোলার জন্য সংবাদমাধ্যমের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

পাঞ্জাব : রাজ্যে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা কোভিড-১৯ রোগীরা বিধিভঙ্গ করলে নতুন নির্দেশিকা অনুযায়ী ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হবে। রাজ্যে বর্তমানে ৯৫১ জন রোগী হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন।

হরিয়ানা : কোভিড-১৯ মহামারীর প্রেক্ষিতে উদ্ভূত বিরূপ পরিস্থিতির মোকাবিলায় রাজ্য দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদ ফেস মাস্ক, ফেস কভার ও দস্তানার বিনষ্টকরণের জন্য সচেতনতা গড়ে তুলতে বিশেষ অভিযান শুরু করেছে।

কেরল : রাজ্যে আজ আরও ৩ জনের মৃত্যু হওয়ায় করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫৩। রাজ্যে গতকাল এ যাবৎ একদিনেই সর্বাধিক ১ হাজার ৭৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। বর্তমানে ৯ হাজার ৪০০ জনেরও বেশি রোগীর চিকিৎসা চলছে।

তামিলনাডু : রাজভবনের নিরাপত্তা সহ অগ্নিনির্বাপণ পরিষেবা দপ্তরের ৮৪ জন কর্মীর নমুনা পরীক্ষায় ভাইরাসের উপস্থিতির প্রমাণ মিলেছে। এদিকে রাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৯২ হাজার ছাড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজার ২৩২ জনের।

কর্ণাটক : লকডাউনের দরুণ যে সমস্ত আদিবাসী মানুষ কর্মহীন হয়েছেন অথবা আর্থিক সঙ্কটে পড়েছেন, তাঁদের আর্থিক দূরাবস্থা দূর করতে রাজ্য সরকার আর্থিক অনুদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এদিকে রাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৮০ হাজার ছাড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৬১৬ জনের।

অন্ধ্রপ্রদেশ : কৃষ্ণার জেলাশাসক আগামী ২৬ জুলাই থেকে লকডাউন কার্যকর করার খবর নাকচ করে দিয়েছেন। রাজ্যে গতকাল আরও ৬১ জনের মৃত্যুর খবর মেলায় করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৮৮৪। করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৭২ হাজার ৭০০ ছাড়িয়েছে।

তেলেঙ্গানা : স্বাস্থ্য দপ্তরের আধিকারিকরা হায়দরাবাদে বেসরকারি হাসপাতাল ও পরীক্ষাগারগুলিকে সতর্ক করে দিয়েছেন। কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীদের পরিষেবা দিতে উপেক্ষা করলে কড়া ব্যবস্থা গ্রহণের ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে। এদিকে রাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৫০ হাজার ৮০০ ছাড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ৪৪৭ জনের।

মহারাষ্ট্র : মহামারী সংক্রমণ প্রতিরোধে মুম্বাইয়ে একাধিক অভিনব ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। এর মধ্যে রয়েছে – দৈহিক স্পর্শ ছাড়াই রেলে টিকিট পরীক্ষার ব্যবস্থা। এদিকে মুম্বাইয়ে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৫ হাজার। রাজ্যে নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১ লক্ষ ৪০ হাজার।

গুজরাট : রাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৫২ হাজার ছাড়িয়েছে। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১২ হাজার ৩৪৮ জন। রাজ্যে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২ হাজার ২৫৭।

রাজস্থান : রাজ্যে আরও ৩৭৫ জনের সংক্রমণের খবর মেলায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩৩ হাজার ৫০০ ছাড়িয়েছে। এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৫৯৮ জনের।

মধ্যপ্রদেশ : রাজ্যে এবার রাখি-বন্ধন এবং ঈদ-উল-জোহা উদযাপন না করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। ভোপাল পুর এলাকায় আজ রাত ৮টা থেকে ১০ দিনের সম্পূর্ণ লকডাউন কার্যকর হচ্ছে। রাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ২৫ হাজার ৪০০ ছাড়িয়েছে। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭ হাজার ৩৫৫ জন।

ছত্তিশগড় : রাজ্যে গতকাল আরও ৩৭১ জনের সংক্রমণের খবর মেলায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬ হাজার ৩৭০।

অরুণাচল প্রদেশ : রাজধানী ইটানগরের বিভিন্ন এলাকায় র্যা পিড রেসপন্স টিমগুলি অ্যান্টিজেন টেস্ট শুরু করেছে। এখনও পর্যন্ত ২০টি দল ২ হাজার ৬০০-রও বেশি নমুনা সংগ্রহ শিবির আয়োজন করেছে। রাজ্যে নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৬৫৪।

মণিপুর : রাজ্য তথ্য কমিশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে সমস্ত আবেদন ও অভিযোগের যাবতীয় প্রক্রিয়া লকডাউন প্রত্যাহার না হওয়া পর্যন্ত স্থগিত রাখা হয়েছে। রাজ্যে বর্তমান কোভিড-১৯ পরিস্থিতি বিবেচনায় রেখেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

মিজোরাম : রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ৮টি জেলায় কোয়ারেন্টাইন সুযোগ-সুবিধা গড়ে তোলার জন্য ৩ কোটি ৮৫ লক্ষ টাকা মঞ্জুর করেছেন।

নাগাল্যান্ড : রাজ্যে আরও ৬৩ জনের সংক্রমণের খবর মেলায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১ হাজার ২৩৭। এদের মধ্যে নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭০৭ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৫৩০ জন।

 

 

CG/BD/SB



(Release ID: 1641058) Visitor Counter : 11