PIB Headquarters

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত পিআইবি’র প্রাত্যহিক সংবাদ

Posted On: 26 APR 2020 6:16PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ২৬ এপ্রিল, ২০২০

 

 

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের পক্ষ থেকে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ তথ্য
দেশে এখনও পর্যন্ত ৫ হাজার ৮০৪ জন ব্যক্তি সুস্থ হয়ে উঠেছেন। সুস্থতার হার ২১.৯০ শতাংশ। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ২৬ হাজার ৪৯৬। মৃত্যু হয়েছে ৮২৪ জনের। কোভিড-১৯ মোকাবিলায় যাবতীয় প্রস্তুতি খতিয়ে দেখতে রাজ্যগুলির মুখ্যসচিব ও পুলিশ প্রধানদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে বৈঠক করেন ক্যাবিনেট সচিব। যে রাজ্যগুলিতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেশি, তাদের সংক্রমণ প্রতিরোধে গৃহীত কৌশলগুলির পাশাপাশি, লকডাউন সম্পর্কিত ব্যবস্থাগুলি কার্যকর করার ওপর তিনি জোর দিতে বলেন। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী ডঃ হর্ষ বর্ধন বলেছেন, দেশে পরিস্থিতির উন্নতি ঘটছে, কোভিডের উৎস কেন্দ্র জেলাগুলিতে ধীরে ধীরে সংক্রমণের প্রভাব কমছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1618419 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

মন কি বাত ২.০ একাদশ পর্বে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ
মন কি বাত ২.০ একাদশ পর্বে জাতির উদ্দেশে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী বলেছেন, করোনার বিরুদ্ধে ভারতের লড়াই মানুষের দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে এবং মানুষের পাশাপাশি, সরকার ও প্রশাসনগুলি মহামারী মোকাবিলায় কাজ করছে। তিনি আরও বলেন, দেশের প্রতিটি নাগরিক এই যুদ্ধের একজন সেনানী এবং তাঁরাই সংগ্রামে নেতৃত্ব দিচ্ছেন। সাধারণ মানুষের দৃঢ় সংকল্পের প্রশংসা করে শ্রী মোদী বলেন, সাধারণ মানুষই প্রতিটি জায়গায় পরস্পরকে সাহায্যের জন্য এগিয়ে এসেছেন।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1618407 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

মন কি বাত ২.০ একাদশতম পর্বে জাতির উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের ইংরাজি অনুবাদ
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1618355 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

বাজারগুলিতে ভিড় এড়াতে ‘সরাসরি বিপণন’ সাহায্য করছে এবং লকডাউনের সময় কৃষিজ পণ্য সময় মতো বাজারে পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হচ্ছে
কেন্দ্রীয় সরকার কৃষকদের সরাসরি বাজারজাত করার সুবিধা প্রদানে এবং ভালো লাভের জন্য সাহায্য করতে সবরকম চেষ্টা চালাচ্ছে। একই সঙ্গে, কোভিড-১৯ মহামারীর প্রেক্ষিতে ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে কৃষি বাজারগুলিতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা মেনে চলা হচ্ছে। কৃষক, কৃষক উৎপাদক সংগঠন এবং সমবায় সমিতিগুলিকে তাদের কৃষিজ পণ্য বড় মাপের পাইকারি বিক্রেতাদের কাছে বিক্রি করার সুবিধা করে দেওয়ার জন্য রাজ্যগুলিকেও কৃষকদের কাছে সরাসরি বিপণন কৌশল পদ্ধতি গ্রহণে অনুরোধ করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় কৃষি মন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র সিং তোমর গত ১৬ই এপ্রিল সমস্ত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের চিঠি দিয়ে সরাসরি বিপণনের প্রয়োজনীয়তার কথা পুনরায় স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন। সেই সঙ্গে, তিনি কৃষক ও কৃষক উৎপাদক সংগঠন সহ সংশ্লিষ্ট সকলকে এই বিপণন কৌশল গ্রহণের জন্য উৎসাহিত করেছেন।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1618270 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

কোভিড-১৯ রোগীদের চিকিৎসার জন্য স্বাস্থ্য কর্মীদের প্রয়োজনীয় কভারঅল উৎপাদন ক্ষমতা বেড়ে দৈনিক ১ লক্ষ হয়েছে; আজ পর্যন্ত মোট উৎপাদন প্রায় ১০ লক্ষ
কোভিড-১৯ রোগীদের চিকিৎসায় স্বাস্থ্য কর্মীদের প্রয়োজনীয় কভারঅল উৎপাদন ক্ষমতা দৈনিক বেড়ে হয়েছে ১ লক্ষেরও বেশি। কোভিড-১৯ প্রতিরোধে দেশে পার্সোনাল প্রোটেকশন ইক্যুইপমেন্ট সংক্রান্ত কভারঅল উৎপাদনে বেঙ্গালুরু গুরুত্বপূর্ণ হাব হয়ে উঠেছে। এই শহর থেকে দেশে মোট উৎপাদনের প্রায় ৫০ শতাংশ কভারঅল উৎপাদিত হচ্ছে। স্বাস্থ্য কর্মীদের জন্য সারা দেহ আচ্ছাদনের মতো সুরক্ষা সামগ্রী অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং এ ধরনের সামগ্রীর যথাযথ গুণমান বজায় রাখাও আবশ্যক। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের পক্ষ থেকে জারি করা কারিগরি বিশেষত্ব অনুযায়ী, বেসরকারি সংস্থা এইচএলএল লাইফ কেয়ার লিমিটেড হাসপাতাল ও স্বাস্থ্য কর্মীদের জন্য এ ধরনের সুরক্ষা সামগ্রী সংগ্রহের একমাত্র স্বীকৃত প্রতিষ্ঠান। বেঙ্গালুরুর পাশাপাশি, পিপিই সংক্রান্ত কভারঅল কলকাতা সহ তিরুপুর, চেন্নাই, কোয়াম্বাটোর, আমেদাবাদ, বরোদা, লুধিয়ানা, দিল্লি, নয়ডা ও গুরুগ্রামে তৈরি করা হচ্ছে। আজ পর্যন্ত এ ধরনের কভারঅল উৎপাদনের মোট সংখ্যা ১০ লক্ষেরও বেশি।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1618389 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

আইআইটি বম্বের একদল ছাত্রছাত্রী কম খরচে মেকানিক্যাল ভেন্টিলেটর ‘রুদ্ধার’ আবিষ্কার করেছে
আইআইটি বম্বে, এনআইটি শ্রীনগর এবং জম্মু ও কাশ্মীরের অবন্তীপোরার ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অফ সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি প্রতিষ্ঠানের ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ছাত্রছাত্রীদের নিয়ে গঠিত দল ভেন্টিলেটরের চাহিদা পূরণে এগিয়ে এসেছে। এই দলটি স্থানীয় জিনিসপত্র ব্যবহার করে স্বল্প খরচের ভেন্টিলেটর আবিষ্কার করেছে। এই দলটি স্থানীয়ভাবে পাওয়া যায়, এমন সামগ্রী ব্যবহার করে স্বল্প মূল্যের ভেন্টিলেটর বানিয়েছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1618375 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।


করোনা সহায়তা যোজনার আওতায় সরকার ১ হাজার টাকা করে দিচ্ছে বলে হোয়াটসঅ্যাপ – এ ভুল খবর প্রচারিত হচ্ছে
প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরোর ফ্যাক্টচেক ইউনিট আজ এক ট্যুইটে স্পষ্টভাবে জানিয়েছে, ভারত সরকার তথাকথিত করোনা সহায়তা যোজনার আওতায় কোনও ব্যক্তিকেই ১ হাজার টাকা করে দিচ্ছে না। হোয়াটসঅ্যাপ –এ ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়া বার্তায় দাবি করা হয়েছে
যে, সরকার করোনা সহায়তা যোজনা নামে একটি কর্মসূচি চালু করেছে এবং এই কর্মসূচির আওতায় প্রত্যেককে ১ হাজার টাকা করে দেওয়া হচ্ছে। হোয়াটসঅ্যাপ – এর ঐ বার্তায় আরও বলা হয়েছে, এই আর্থিক সুবিধা নেওয়ার জন্য একটি লিঙ্ক-কে ক্লিক করে সাধারণ মানুষকে নিজেদের তথ্য দিতে হবে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1618314 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে ভারতের লড়াইয়ে বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে অবগত হতে প্রাক্তন আমলাদের সঙ্গে বিস্তারিত আলোচনা করলেন ডঃ জিতেন্দ্র সিং
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1618236 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

কেন্দ্রীয় পর্যটন মন্ত্রক ‘দেখো আপনা দেশ’ ওয়েবইনার সিরিজে এবার ‘আওয়াধ কি স্যয়র’ – লক্ষ্ণৌর গর্ব, রন্ধন বিষয়ক পর্যটন
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1618358 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

 


পিআইবি’র আঞ্চলিক কার্যালয় থেকে প্রাপ্ত তথ্য


· আসাম : রাজ্যে লকডাউনের সময় থেকে চাল, লবণ, চিনি, আলু, পেঁয়াজ প্রভৃতির মতো অত্যাবশ্যক সামগ্রী ১৮টি জেলার ২৮টি রেল পয়েন্ট থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে। দৈনিক গড়ে প্রায় ১ হাজার ৫০০টি লরি অত্যাবশ্যক সামগ্রী পৌঁছে দিয়েছে। এই লরিগুলির সাহায্যে ৩৫৭টি পণ্য বোঝাই রেক খালি করা হয়েছে। লকডাউনের সময় পর্যাপ্ত পরিমাণে খাদ্যের যোগান সুনিশ্চিত করতে এফসিআই – এর পণ্য বোঝাই ১৭৯টি রেক আসামে পৌঁছেছে। এই রেকগুলিতে বোঝাই পণ্য সামগ্রী উত্তর-পূর্বের বিভিন্ন রাজ্যে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। রাজ্যের স্বাস্থ্য মন্ত্রী আজ এক ট্যুইটে জানিয়েছেন, ৮ জন রোগীর নমুনা পরীক্ষায় কোভিড-১৯ এর উপস্থিতির প্রমাণ মেলেনি। এদেরকে ছেড়ে দেওয়া হলেও ১৪ দিন পর্যবেক্ষণে রাখা হবে।

·
মণিপুর : রাজ্যে লকডাউনের পর বিভিন্ন জেলায় ফেরৎ আসা ব্যক্তিদের হিসাব সমীক্ষার কাজ বন্ধ করা হয়েছে। এদের সকলের জন্য কোয়ারেন্টাইনের স্থান চিহ্নিত করা হয়েছে।

·
মিজোরাম : রাজ্য কল্যাণ পর্ষদ লকডাউনের মধ্যেই ৪৯ হাজারেরও বেশি দিনমজুরকে ৩ হাজার টাকা করে বিতরণ করেছে।

·
নাগাল্যান্ড : রাজ্যে লকডাউন বিধি ভঙ্গের জন্য ৪৬৯ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়া সংক্রান্ত বিধি ভঙ্গের জন্য ৫টি মামলা নথিভুক্ত হয়েছে এবং ৩৩৫টি গাড়ি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। রাজ্য সরকার আটকে থাকা নাগরিকদের ১ কোটি ৬৩ লক্ষ টাকা অর্থ সহায়তা দিয়েছে।

·
চন্ডীগড় : আজ পর্যন্ত দুর্গত ও দরিদ্র মানুষকে ২১ লক্ষ ৫০ হাজার খাবারের প্যাকেট বিতরণ করা হয়েছে। কেন্দ্রশাসিত প্রশাসন গুরুদ্বার, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ও স্বনির্ভর গোষ্ঠীগুলির প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে। চন্ডীগড় শহরে কোভিড-১৯ মোকাবিলার জন্য নতুন একটি কন্ট্রোল ও কমান্ড সেন্টার খোলা হয়েছে।

·
পাঞ্জাব : কোভিড-১৯ মহামারীর প্রেক্ষিতে আবাসন, বাণিজ্যিক কেন্দ্র ও হাসপাতালগুলিতে এয়ার কন্ডিশনারের ব্যবহার সম্পর্কে রাজ্য সরকার নির্দেশিকা জারি করেছে। ই-সঞ্জিবনী নামে একটি অনলাইন ওপিডি (চিকিৎসক থেকে রোগী) চালু হয়েছে। এই পরিষেবার মাধ্যমে গ্রামাঞ্চল এবং প্রত্যন্ত এলাকাগুলিতে স্বাস্থ্য পরিষেবা পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের নিয়ে গঠিত একটি দল ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সাধারণ স্বাস্থ্য সংক্রান্ত উদ্বেগের বিষয়গুলিতে পরামর্শ দিচ্ছেন।


· হরিয়ানা : রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ‘হেল্প মি’ নামে একটি মোবাইল অ্যাপের সূচনা করেছেন। উদ্দেশ্য হ’ল – এক অভিন্ন ব্যবস্থার মাধ্যমে যাবতীয় প্রয়োজনীয় অত্যাবশ্যক পরিষেবা পৌঁছে দেওয়া। রাজ্যে গত ৫ দিনে ১ লক্ষ ৩০ হাজারেরও বেশি কৃষকের কাছ থেকে ১৯ লক্ষ ২৬ হাজার মেট্রিক টন গম সংগ্রহ করা হয়েছে।

·
হিমাচল প্রদেশ : রাজ্য সরকার আজ থেকে কার্ফিউ কিছুটা শিথিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। রোজ সকাল সাড়ে পাঁচটা থেকে সকাল সাতটা পর্যন্ত এই সিদ্ধান্ত কার্যকর থাকবে। সাধারণ মানুষ, বিশেষ করে প্রবীণ নাগরিকদের প্রাতঃভ্রমণের সুবিধার্থে এই সিদ্ধান্ত। এছাড়াও, সোমবার থেকে ৩ ঘন্টার পরিবর্তে ৪ ঘন্টা কার্ফিউ শিথিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। এর ফলে, সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার পাশাপাশি, দোকানগুলিতে ভিড় এড়ানো যাবে। সড়ক নির্মাণের কাজে ব্যবহৃত যন্ত্রপাতির আন্তঃজেলা যাতায়াতেও অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

·
কেরল : রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী আন্তঃরাজ্য সীমান্ত বরাবর লকডাউন কঠোরভাবে বলবৎ করার নির্দেশ দিয়েছে। রাজ্যে নমুনা পরীক্ষার হার বর্তমানে ৫০০ থেকে আরও বাড়ানো হবে। বিদেশ থেকে রাজ্যে ফিরতে চাওয়া ব্যক্তিদের জন্য আরও বেশি কোয়ারেন্টাইনের ব্যবস্থা গড়ে তোলা হচ্ছে। রাজ্যে নিশ্চিতভাবে করোনা আক্রান্ত ৪৫৭। সুস্থ হয়েছেন ৩৩৮ জন। নজরদারিতে রয়েছেন ২১ হাজার ৪৪ জন। ২২ হাজারেরও বেশি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

·
তামিলনাডু : ভাইরাস সংক্রমণ রুখতে রাজ্যের ৫টি শহরে আজ থেকে সম্পূর্ণ লকডাউন কার্যকর হয়েছে। কোয়াম্বাটোরের ২টি পুলিশ থানায় ৬ জন পুলিশ কর্মীর নমুনা পরীক্ষায় ভাইরাসের উপস্থিতির প্রমাণ মেলায় থানা দুটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। রাজ্যে গতকাল পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ৮২১। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৮৩৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ২৩ জনের। সুস্থ হওয়ার পর ৯৬০ জনকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। সবচেয়ে বেশি ৪৯৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন চেন্নাই থেকে।

·
কর্ণাটক : বেঙ্গালুরুর ৪৫ বছর বয়সী গর্ভবতী এক মহিলা কোভিডে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। এ নিয়ে রাজ্যে কোভিডে আক্রান্তে মৃত্যু হয়েছে ১৯ জনের। রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৫০১। সুস্থ হয়েছেন ১৭৭ জন।

·
অন্ধ্রপ্রদেশ : রাজ্যে গত ২৪ ঘন্টায় আরও ৮১ জন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন। এর ফলে, নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ১ হাজার ৯৭। মৃত্যু হয়েছে ৩১ জনের। সুস্থ হয়েছেন ২৩১ জন। কুরনুল, গুন্টুর ও কৃষ্ণা জেলায় নিশ্চিতভাবে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় লকডাউন নিষেধাজ্ঞা আরও জোরদার করা হয়েছে। শ্রীকাকুলাম জেলার পাথাপত্তনম শহর পুরোপুরি সীল করে দেওয়া হয়েছে।

·
তেলেঙ্গানা : রাজ্যে পার্সোনাল প্রোটেকশন ইক্যুইপমেন্ট (পিপিই) কিটের ঘাটতি দেখা দেওয়ায় পুতুল প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলি বিশাখাপত্তনম বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে এ ধরনের কিট উৎপাদনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ৭ লক্ষ জনসংখ্যাবিশিষ্ট গাদোয়াল জেলা কোভিড সংক্রমণের অন্যতম উৎস কেন্দ্র হয়ে উঠেছে। এই জেলা থেকে ৪৫ জনের আক্রান্তের খবর মিলেছে। প্রতিদিন ১ বা ২টি করে আক্রান্তের খবর মিলছে। রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৯৯০।

 

 

CG/BD/SB



(Release ID: 1618533) Visitor Counter : 45