PIB Headquarters

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত পিআইবি’র প্রাত্যহিক সংবাদ

Posted On: 26 AUG 2020 6:20PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ২৬ অগাস্ট, ২০২০

 

 

ভারতে করোনায় আরোগ্য লাভের সংখ্যা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে নিশ্চিতভাবে আক্রান্তের সংখ্যার মধ্যে ফারাক ক্রমশ বাড়ছে; নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের তুলনায় সুস্থ হওয়া ব্যক্তির সংখ্যা ৩.গুণ বেশি
দেশে আজ পর্যন্ত করোনায় আরোগ্য লাভের সংখ্যা নিশ্চিতভাবে আক্রান্তের তুলনায় বেড়ে হয়েছে ৩.৫ গুণ। একদিনেই আরোগ্য লাভের সংখ্যা বেড়ে ৬০ হাজারের বেশি হয়েছে। দেশে গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়েছেন ৬৩,১৭৩ জন। এর ফলে, মোট আরোগ্য লাভের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৪ লক্ষ ৬৭ হাজার ৭৫৮। ক্রমাগত আরোগ্য লাভের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়া এবং নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা হ্রাস পাওয়ার ফলেই এই সাফল্য পাওয়া গেছে। দেশে আজ পর্যন্ত নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যার (৭ লক্ষ ৭ হাজার ২৬৭) তুলনায় সুস্থ হওয়া ব্যক্তির সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৭ লক্ষ ৬০ হাজার ৪৮৯। এর ফলে, ভারতে সুস্থতার হার বেড়ে হয়েছে ৭৬.৩০ শতাংশ। রেকর্ড সংখ্যায় আরোগ্য লাভের ফলে দেশে নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশ কমছে। বর্তমানে মোট আক্রান্তের তুলনায় নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের হার কেবল ২১.৮৭ শতাংশ। ব্যাপক হারে নমুনা পরীক্ষা এবং উপযুক্ত চিকিৎসা পরিষেবা প্রদানের মাধ্যমে কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে রাজ্য / কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির সমন্বিত প্রয়াসের ফলে করোনায় মৃত্যু হার ক্রমশ কমছে। আজ পর্যন্ত এই হার কমে হয়েছে ১.৮৪ শতাংশ এবং এই হার নিরন্তর নিম্নমুখী।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1648672 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।


ভারতে কোভিড-১৯ পরীক্ষার সংখ্যা বৃদ্ধি, প্রতিদিন গড়ে লক্ষেরও বেশি নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে
সময়োপযোগী কোভিড-১৯ এর নমুনা পরীক্ষা এবং সংক্রমিত ব্যক্তিকে প্রাথমিক স্তরেই সনাক্তকরণ প্রক্রিয়া ভারতে মহামারী প্রতিরোধ কৌশলে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। ‘নমুনা পরীক্ষা-অনুসন্ধান-চিকিৎসা’ – এই তিন পদ্ধতি অনুসারে রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত সরকারের সহযোগিতায় ভারত সরকার নিয়মিতভাবে পরিকাঠামো উন্নয়নের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। এর ফলে, প্রতিদিন ১০ লক্ষ কোভিড-১৯ এর নমুনা পরীক্ষা সম্ভব হচ্ছে। ৭ দিনের গড়ে কেন্দ্র এবং রাজ্য/কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির সরকারের নির্ধারিত ধারাবাহিক ও সমন্বিত প্রচেষ্টার ফলে পরীক্ষার হার ক্রমশই বৃদ্ধি পেয়েছে। এদিন পর্যন্ত ৩ কোটি ৭৬ লক্ষ ৫১ হাজার ৫১২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় ৮ লক্ষ ২৩ হাজার ৯২২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। নমুনা পরীক্ষা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে আগে থেকে রোগ নির্ণয় করে চিকিৎসা করা সম্ভব হচ্ছে। আগে থেকে রোগ নির্ণয় করার ফলে চিকিৎসার সুবিধার্থে আইসোলেশন অথবা হসপিটালে কোভিড পজিটিভ রোগীকে ভর্তি করা সম্ভব হচ্ছে। যথাযথ চিকিৎসার ফলে মৃত্যু হারও কমেছে। ডায়াগোনেস্টিক ল্যাব নেটওয়ার্ক এবং সারা দেশে কোভিড-১৯ পরীক্ষা সহজ হওয়ার ফলে নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা ক্রমশ বৃদ্ধি পেয়েছে। এর ফলস্বরূপ, প্রতি ১০ লক্ষে ২৭ হাজার ২৮৪টি নমুনা পরীক্ষা করা সম্ভব হয়েছে। এই প্রক্রিয়া প্রতিদিনই বৃদ্ধি পাচ্ছে। পরীক্ষাগারে পরিকাঠামো বৃদ্ধির ওপর বিশেষ জোর দিয়েছে সরকার। আজ পর্যন্ত ১ হাজার ৫৪০টি পরীক্ষাগারে কোভিড-১৯ এর নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে। এর মধ্যে ৯৯২টি পরীক্ষাগার সরকারি এবং ৫৪৮টি বেসরকারি পরীক্ষাগার রয়েছে। রিয়েল টাইম আরটিপিসিআর-ভিত্তিক পরীক্ষাগারের সংখ্যা ৭৯০টি। এর মধ্যে সরকারি ৪৬০টি এবং বেসরকারি ৩৩০টি। ট্র্যুন্যাট বেস নমুনা পরীক্ষাগারের সংখ্যা হ’ল ৬৩২টি, যার মধ্যে ৪৯৮টি সরকার এবং ১৩৪টি বেসরকারি পরীক্ষাগার রয়েছে। সিবিএনএএটি-ভিত্তিক নমুনা পরীক্ষাগার হ’ল ১১৮টি, এর মধ্যে সরকারি ৩৪টি এবং বেসরকারি ৮৪টি।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1648683 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।


দিল্লি/জাতীয় রাজধানী অঞ্চলে ই-সঞ্জীবনী প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে সিজিএইচএস এর টেলি-কনসালটেশন পরিষেবা
কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রক প্রবীণ সুবিধাভোগী নাগরিক সহ বিভিন্ন মহল থেকে প্রাপ্ত অনুরোধের ভিত্তিতে দিল্লি / জাতীয় রাজধানী অঞ্চলে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের নিয়ে টেলি-কনসালটেশন পরিষেবা চালু করতে চলেছে। বর্তমান কোভিড-১৯ মহামারীর প্রেক্ষিতে প্রবীণ নাগরিকরা সিজিএইচএস ক্লিনিকগুলিতে যাওয়া-আসা করতে পারছিলেন না। এই বিষয়টিকে বিবেচনায় রেখেই মন্ত্রক টেলি-কনসালটেশন পরিষেবা চালু করার উদ্যোগ নিয়েছে।
সিজিএইচএস প্রকল্পের সুবিধাভোগীরা টেলি-কনসালটেশন পরিষেবার মাধ্যমে নিজেদের শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে চিকিৎসকদের সঙ্গে টেলিফোনে যোগাযোগ করে প্রয়োজনীয় পরামর্শ পাবেন। গতকাল থেকেই প্রাথমিকভাবে এই পরিষেবা শুরু হয়েছে। শীঘ্রই দিল্লি সহ জাতীয় রাজধানী অঞ্চলে এই পরিষেবা সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত সমস্ত কাজের দিন পাওয়া যাবে। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের ই-সঞ্জীবনী প্ল্যাটফর্ম কাজে লাগিয়ে সিজিএইচএস টেলি-কনসালটেশন পরিষেবা শুরু করেছে। সিজিএইচএস প্রকল্পের সুবিধাভোগীরা যাতে সহজেই এই প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে টেলি-কনসালটেশন পরিষেবার সুবিধা নিতে পারেন তার জন্য সুবিধাভোগীর পরিচিতিপত্রের সঙ্গে প্ল্যাটফর্মের যোগসূত্র গড়ে তোলা হয়েছে। এই ব্যবস্থা গড়ে তোলার ফলে সুবিধাভোগীরা সিজিএইচএস-এর প্রতিটি পরিষেবা গ্রহণ করতে পারবেন, তবে এর আগে ই-সঞ্জীবনী প্ল্যাটফর্মে গিয়ে মোবাইল নম্বর সহ নিজেদের নাম নথিভুক্ত করতে হবে। নথিভুক্তিকরণের পর সুবিধাভোগীর প্রদেয় মোবাইল নম্বরে এককালীন পাসওয়ার্ড আসবে। এই পাসওয়ার্ডটি ব্যবহার করে সংশ্লিষ্ট সুফলভোগী ই-সঞ্জীবনী প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে টেলি-কনসালটেশন সুবিধা গ্রহণ করতে পারবেন।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1648664 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

ডঃ হর্ষবর্ধন রাজস্থানে ২টি নতুন মেডিকেল কলেজ ৩টি সুপার স্পেশালিটি ব্লগ জাতির উদ্দেশে উৎসর্গ করেছেন
কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী ডঃ হর্ষবর্ধন ডিজিটাল উপায়ে রাজস্থানে ২টি মেডিকেল কলেজ ও ৩টি সুপার স্পেশালিটি ব্লগ জাতির উদ্দেশে উৎসর্গ করেছেন। রাজ্যের ভিলওয়াড়া ও ভরতপুরে জেলা হাসপাতালগুলির মানোন্নয়ন ঘটিয়ে মেডিকেল কলেজ ও সুপার স্পেশালিটি ব্লগে উন্নীত করা হয়েছে। এই ২টি মেডিকেল কলেজ এবং ৩টি ব্লগ গড়ে তোলার জন্য ৮২৮ কোটি টাকা বিনিয়োগ করা হয়েছে। এর মধ্যে ১৫০ কোটি টাকা করে বিনিয়োগ করা হয়েছে মেডিকেল কলেজগুলির জন্য। এই মেডিকেল কলেজ ২টির প্রতিটিতে নিম্ন স্নাতক পর্যায়ে ১৫০টি আসন রয়েছে এবং ভরতপুর মেডিকেল কলেজে ৫২৫টি রোগী শয্যা থাকছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1648708 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

বছরের ২০শে এপ্রিল থেকে তেল প্রাকৃতিক গ্যাস ক্ষেত্রে হাজার ৩৬৩টি প্রকল্প খাতে লক্ষ ৮৮ হাজার কোটি টাকার বিভিন্ন কর্মকান্ড শুরু হয়েছে, এই প্রকল্পগুলি থেকে প্রায় ৩৩ কোটি ৮০ লক্ষ শ্রমদিবস সৃষ্টি হবে
এ বছরের ২০শে এপ্রিল থেকে তেল ও গ্যাস শিল্প ক্ষেত্রে ৮ হাজার ৩৬৩টি প্রকল্প খাতে ৫ লক্ষ ৮৮ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগের পরিকল্পনা হয়েছে। যৌথ উদ্যোগে, রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার মাধ্যমে এই প্রকল্পগুলির কর্মকান্ড রূপায়িত হবে। তেল ও গ্যাস ক্ষেত্রে বর্তমানে যে ২৫টি প্রকল্পের কাজ চলছে, সেগুলি রূপায়ণ বাবদ খরচ ধরা হয়েছে ১ লক্ষ ৬৭ হাজার ২৪৮ কোটি টাকা। এর মধ্যে ৮ হাজার ৮৬১ কোটি টাকা মূলধনী ঋণ হিসাবে পাওয়া যাবে। সেই সঙ্গে, প্রকল্প রূপায়ণ থেকে ৭৬ লক্ষ ৫৬ হাজার ৮২৫টি শ্রমদিবস তৈরি হবে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1648544 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

গরিব কল্যাণ রোজগার অভিযানের সপ্তাহের মধ্যে প্রায় ২৪ কোটি শ্রমদিবস সহ কর্মসংস্থান হয়েছে এবং ১৮ হাজার ৮৬২ কোটি টাকা ব্যয় করা হয়েছে
গরিব কল্যাণ রোজগার অভিযানের সূচনা করা হয়েছে মূলত কোভিড-১৯ এর জেরে গ্রামীণ এলাকায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিযায়ী শ্রমিকদের কর্মসংস্থান ও জীবনধারণের সুবিধার্থে। মূলত, বিহার, ঝাড়খন্ড, মধ্যপ্রদেশ, ওডিশা, রাজস্থান ও উত্তরপ্রদেশ – এই ৬টি রাজ্যে যে সমস্ত পরিযায়ী শ্রমিক বাড়ি ফিরেছেন, তাঁদের কর্মসংস্থানের সুযোগ করে দিতেই এই উদ্যোগ। এই অভিযানের আওতায় এ পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট রাজ্যগুলির ১১৬টি জেলায় জীবন-জীবিকার সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1648709 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 



পিআইবি’আঞ্চলিক কার্যালয় থেকে প্রাপ্ত তথ্য

পাঞ্জাব : ক্রমশ সঙ্কটজনক হয়ে ওঠা কোভিড পরিস্থিতির পরিস্থিতির বিরুদ্ধে লড়াইকে আরও জোরদার করতে রাজ্য মন্ত্রিসভা ৪২৮টি স্থায়ী শূন্যপদে চিকিৎসা আধিকারিক (বিশেষজ্ঞ) নিয়োগের প্রস্তাবে সায় দিয়েছে। এছাড়াও, আরও ১০৭টি পদে কর্মপরবর্তী অনুমোদন মিলেছে।

হিমাচল প্রদেশ : রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী জন ধন যোজনার আওতায় ৫ লক্ষ ৯০ হাজার মহিলার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে মাসিক ৫০০ টাকা করে জমা করা হয়েছে এবং প্রধানমন্ত্রী কিষাণ সম্মান নিধি যোজনার আওতায় ৮ লক্ষ ৭৪ হাজার কৃষকের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে মাসিক ২ হাজার টাকা করে দেওয়া হয়েছে। তিনি আরও জানান, যোগ্য ব্যক্তিদের সামাজিক সুরক্ষা খাতে পেনশন হিসাবে আগাম ৩ মাসের টাকা দেওয়া হবে।

মহারাষ্ট্র : মানবদেহে করোনা ভাইরাস টিকার দ্বিতীয় পর্যায়ের পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভাবিত টিকা পুণের ভারতী বিদ্যাপীঠ মেডিকেল কলেজে এসে পৌঁছেছে। আজ থেকেই পরীক্ষা-নিরীক্ষার কাজ শুরু হওয়ার কথা। এদিকে রাজ্যে এখনও পর্যন্ত নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৬৫ হাজার ৯২১। রাজ্যে এখনও পর্যন্ত ৩৭ লক্ষ ২৪ হাজারেরও বেশি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে।

গুজরাট : রাজ্যে কোভিড-১৯ এ আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৮৯ হাজার। গত ২৪ ঘন্টায় আরও ২০ জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৪ হাজার ৭৫১ জন।

ছত্তিশগড় : রাজ্যে মঙ্গলবার এ যাবৎ সর্বাধিক ১ হাজার ১৪৫ জনের করোনায় সংক্রমণের খবর মিলেছে। এর ফলে, আক্রান্তের সংখ্যা ২৩ হাজার ছাড়িয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় আরও ১২ জনের মৃত্যুর খবর মেলায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২১৮ হয়েছে।

গোয়া : দিল্লির এইমস্ প্রতিষ্ঠানের একদল চিকিৎসক মঙ্গলবার গোয়া মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল ঘুরে দেখে সেখানকার কোভিড-১৯ চিকিৎসা ব্যবস্থা পর্যালোচনা করেছেন। রাজ্যে ৩ হাজার ১৪৯ জন আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসা চলছে।

কেরল : রাজ্যে আরও ৫ জনের মৃত্যুর খবর মেলায় করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৪৯ হয়েছে। রাজধানীতে শ্রীপদ্মনাভ স্বামী মন্দির আজ সকাল থেকে পুণ্যার্থীদের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে। এদিকে রাজ্যে গতকাল এ যাবৎ ২ হাজার ৩৭৫ জনের সংক্রমণের খবর মেলায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৮৩ হাজার ছাড়িয়েছে। সুস্থ হয়েছেন ৪০ হাজারেরও বেশি।

তামিলনাডু : দু’সপ্তাহের মধ্যে সমস্ত সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালগুলি এসএমএস – এর মাধ্যমে ২৪-৩৬ ঘন্টার মধ্যে কোভিড-১৯ নমুনা পরীক্ষার ফলাফল জানিয়ে দেবে। এসএমএস – এর মাধ্যমে এই ব্যবস্থা শুরু করার কাজ পুরোদমে চলছে।

কর্ণাটক : রাজ্যে ২ লক্ষেরও বেশি করোনা আক্রান্ত রোগী আরোগ্য লাভ করায় সুস্থতার হার বেড়ে ৭০ শতাংশ হয়েছে। মৃত্যু হার ১.৬৯ শতাংশ। রাজ্যের কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে নিরন্তর অগ্রগতি হচ্ছে। এদিকে আক্রান্তের সংখ্যা ২ লক্ষ ৯১ হাজার ছাড়িয়েছে।

অন্ধ্রপ্রদেশ : অনন্তপুর সরকারি হাসপাতালে মঙ্গলবার মধ্যরাতের কিছু পর অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এর ফলে, চিকিৎসাধীন রোগীদের মধ্যে দ্রুত আতঙ্ক ছড়িয়ে পরে। হাসপাতালে এই অগ্নিকান্ডের ঘটনার প্রেক্ষিতে কোভিড আক্রান্ত ২৪ জন রোগীকে নিরাপত্তার স্বার্থে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এদিকে বিজয়ওয়াড়ায় ৫টি বেসরকারি কোভিড কেয়ার সেন্টার রোগীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত মাশুল আদায় করার জন্য রাজ্য সরকার তাদের পারমিট বাতিল করে দিয়েছে। রোগীদের কাছ থেকে একাধিক অভিযোগ পাওয়ায় এই বেসরকারি কোভিড কেয়ার সেন্টারগুলির বিরুদ্ধে রাজ্য সরকার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে।

তেলেঙ্গানা : রাজ্যে গত ২৪ ঘন্টায় আরও ১০ জনের মৃত্যুর খবর মেলায় করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭৮০ হয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ১১ হাজার ছাড়িয়েছে। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৫ হাজার ৬৮৫ জন। এদিকে গ্রেটার হায়দরাবাদ পুর নিগম এলাকায় কোভিড-১৯ মহামারী ধীরে ধীরে নিয়ন্ত্রণে আসার ইঙ্গিত মিলেছে।

অরুণাচল প্রদেশ : রাজ্যে গত ২৪ ঘন্টায় আরও ১০০ জনের নতুন করে সংক্রমণের খবর মিলেছে। সুস্থতার হার বেড়ে হয়েছে ৭৩.৫০ শতাংশ। রাজ্যে কোভিড হাসপাতালগুলি থেকে ২ হাজার ৫০৮ জন রোগী আরোগ্য লাভের পর ছাড়া পেয়েছেন।

আসাম : রাজ্যের স্বাস্থ্য মন্ত্রী জানিয়েছেন, গতকাল ১ হাজার ৭৩৪ জন রোগী আরোগ্য লাভের পর হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন। এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়ে ওঠা ব্যক্তির সংখ্যা ৭৪ হাজার ৮১৪ এবং নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ হাজার ৫১৫ জন।

মণিপুর : রাজ্য সরকার তৃতীয় পর্যায়ের আনলক সংক্রান্ত নীতি-নির্দেশিকা জারি করেছে। তবে, সব ধরনের জমায়েত বাতিল হয়েছে এবং বিধিভঙ্গের ক্ষেত্রে জরিমানা আরও বাড়ানো হয়েছে।

মেঘালয় : রাজ্যে আজ আরও ৪২ জন করোনা আক্রান্ত রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন। নিশ্চিতভাবে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ১৭৯।

মিজোরাম : রাজ্যে আজ আরও ৪ জন করোনা আক্রান্ত রোগী সুস্থ হয়ে ওঠার পর হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন। করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৯৬৭ এবং নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪৯৯ জন।

নাগাল্যান্ড : আরটি-পিসিআর এবং ট্র্যুন্যায় যন্ত্রের মাধ্যমে নমুনা পরীক্ষার জন্য এখনও পর্যন্ত ৫৭ হাজার ৭৯৯টি নমুনা পাঠানো হয়েছে। সরকারি কোয়ারেন্টাইন ব্যবস্থায় প্রায় ১ হাজার ১১৩ জন চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এদিকে কোহিমা জেলা প্রশাসন আরও ৮টি এলাকা থেকে আক্রান্তের খবর মেলায় ঐ এলাকাগুলি সীল করে দিয়েছে। তুয়েনসাঙ জেলায় আরও ৯টি এলাকা করোনা সংক্রমণের প্রেক্ষিতে সীল করে দেওয়া হয়েছে।

 

 

CG/BD/SB



(Release ID: 1648855) Visitor Counter : 6