প্রধানমন্ত্রীরদপ্তর

খনি শিল্পে বাণিজিকীকরণের সূচনায় বৃহস্পতিবার ৪১টি কয়লা খনির নিলামের অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখবেন প্রধানমন্ত্রী

Posted On: 17 JUN 2020 7:16PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ১৭ জুন, ২০২০

 

 


কয়লা মন্ত্রক, ফিকি-র সঙ্গে সহযোগিতায় কয়লা খনিতে আত্মনির্ভরতার লক্ষ্যে ২১টি খনির নিলাম প্রক্রিয়া শুরু করবে। সিএম (এসপি) আইন এবং এমএমডিআর আইন অনুসারে পুরো প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হবে। এই নিলাম প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার মধ্য দিয়ে ভারতের কয়লা ক্ষেত্রের বাণিজিকীকরণের প্রক্রিয়ারও সূচনা হচ্ছে। এর ফলে, দেশে জ্বালানির চাহিদা মেটানো এবং শিল্পের উন্নয়ন সম্ভব হবে। আত্মনির্ভর ভারত অভিযানের আওতায় কয়লা খনিগুলির নিলাম প্রক্রিয়ার যে পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছিল, আগামীকালের কর্মসূচি তারই অঙ্গ। ১৮ই জুন বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় অনলাইনের মাধ্যমে এই প্রক্রিয়াটি শুরু হতে চলেছে। এনআইসি, বৈদ্যুতিন ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রকের এনইজিডি এবং ফিকি পুরো বিষয়টির সমন্বয় করবে। 


নিলাম প্রক্রিয়ার সূচনা


প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী এই নিলাম প্রক্রিয়ার সূচনায় খনি শিল্পে আত্মনির্ভরতা অর্জনের জন্য তাঁর পরিকল্পনার কথা জানাবেন। এর ফলে, বিদ্যুৎ, ইস্পাত, অ্যালুমিনিয়াম, স্পঞ্জ আয়রন ইত্যাদি শিল্পের সুবিধা হবে। কয়লা, খনি ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী শ্রী প্রহ্লাদ যোশী এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন।


যুগান্তকারী এই পদক্ষেপে বেসরকারি সংস্থাগুলি অংশগ্রহণ করবে। এর ফলে, উৎপাদন, প্রতিযোগিতা, উন্নত যন্ত্রপাতির ব্যবহার, প্রযুক্তি, বিনিয়োগ এবং কর্মসংস্থানের সুযোগ বৃদ্ধি পাবে। খনি শিল্পের বাণিজ্যিকীকরণের ফলে খনি, বিদ্যুৎ এবং স্বচ্ছ কয়লা শিল্পে বিনিয়োগের নতুন সম্ভাবনা তৈরি হবে। 


ফিকি-র সভাপতি ডঃ সঙ্গীত রেড্ডি, বেদান্ত গোষ্ঠীর চেয়ারম্যান শ্রী অনিল আগরওয়াল এবং টাটা সন্স-এর চেয়ারম্যান শ্রী এন চন্দ্রশেখরন এই অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখবেন।


ওয়েব টেলিকাস্টের মাধ্যমে এই অনুষ্ঠানে শিল্পপতি, ব্যবসায়ী, ব্যাঙ্কিং জগতের পেশাদার ব্যক্তিরা, খনি শিল্পের সঙ্গে যুক্ত শিল্পোদ্যোগী, কূটনীতিবিদ, বিদেশি প্রতিনিধিরা সহ বিশিষ্ট ব্যক্তিরা যোগ দেবেন।


নিলাম প্রক্রিয়ার মূল বিষয়


কয়লা খনিগুলি বন্টনের এই প্রক্রিয়া বৈদ্যুতিনভাবে দুটি পর্যায়ে হবে। এ ব্যাপারে বিস্তারিত তথ্য -

http://cma.mstcauction.com/auctionhome/coalblock/index.jsp – এখানে ক্লিক করে জানা যাবে। এই নিলাম প্রক্রিয়া

পরিচালনা করবে এমএসটিসি লিমিটেড।


দেশ উপকৃত হবে


২০২৫-২৬ সালের মধ্যে দেশের মোট কয়লা উৎপাদনের ১৫ শতাংশ এই কয়লা খনিগুলি থেকে  হবে, যার পরিমাণ সর্বোচ্চ ২২৫ মেট্রিক টন। এর ফলে, ২ লক্ষ ৮০ হাজার কর্মসংস্থান তৈরি হবে - এর মধ্যে ৭০ হাজার প্রত্যক্ষ এবং ২ লক্ষ ১০ হাজার অপ্রত্যক্ষ কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে। এই নিলামের ফলে আগামী ৫ থেকে ৭ বছরের মধ্যে ৩১ হাজার কোটি টাকার মূলধন বিনিয়োগ হবে। রাজ্য সরকারগুলির এর ফলে বার্ষিক ২০ হাজার কোটি টাকা রাজস্ব আদায় হবে। ১০০ শতাংশ প্রত্যক্ষ বিদেশি বিনিয়োগের সুযোগ তৈরি হওয়ায় খনি থেকে কয়লা উত্তোলনে আন্তর্জাতিক নিয়ম ও অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার হবে।


আগামী দিনে বিভিন্ন বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলি কম পরিমাণে কয়লা আমদানি করবে। এর ফলে, বিদেশি মুদ্রার সাশ্রয় হবে। কয়লার স্থিতিশীল ভাণ্ডারের কারণে নিয়ন্ত্রিত ও অনিয়ন্ত্রিতভাবে এখান থেকে  কয়লা উত্তোলনের ফলে সংশ্লিষ্ট শিল্পের আস্থা বৃদ্ধি হবে। জাতীয় কয়লা সূচকের বাস্তবায়নের জন্য মুক্ত বাজার পরিকাঠামোর দিকে দেশ এক ধাপ এগোবে। কয়লা খনির মধ্যে থাকা গ্যাস এবং তরল জ্বালানির ব্যবহারে উৎসাহদানের কারণে পরিবেশ কম দূষিত হবে এবং পরিবেশ-বান্ধব জ্বালানি দক্ষভাবে ব্যবহার করার সুযোগ তৈরি  হবে। 

 



CG/CB/DM



(Release ID: 1632220) Visitor Counter : 185