প্রধানমন্ত্রীরদপ্তর
azadi ka amrit mahotsav

পণ্ডিত যশরাজ কালচারাল ফাউন্ডেশনের সূচনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ

সঙ্গীত এমন একটি মাধ্যম যা আমাদের জাগতিক কর্তব্য সম্পর্কে সচেতন এবং আমাদের জাগতিক যোগসূত্র থেকে মুক্তি দিতে সাহায্য করে

যোগ দিবসের অভিজ্ঞতায় এটা স্পষ্ট হয়েছে যে সমগ্র বিশ্ব ভারতীয় ঐতিহ্য থেকে লাভবান হয়েছে এবং মানুষের মনের গভীরতাকে নাড়া দেওয়ার ক্ষমতা ভারতীয় সঙ্গীতের রয়েছে

বিশ্বের প্রতিটি ব্যক্তির ভারতীয় সঙ্গীত সম্পর্কে জানার, শেখার এবং তা থেকে উপকার পাওয়ার অধিকার রয়েছে; তাই এটা দেখার দায়িত্বও আমাদের

বর্তমান সময়ে যখন প্রযুক্তির প্রভাব সর্বব্যাপী, তখন সঙ্গীতের ক্ষেত্রেও প্রযুক্তি ও তথ্য প্রযুক্তির বিপ্লব হওয়া উচিত

আজ আমরা কাশীর মতো শিল্প ও সংস্কৃতি চর্চার কেন্দ্রগুলির পুনরুজ্জীবন করছি

Posted On: 28 JAN 2022 4:36PM by PIB Kolkata
নতুন দিল্লি,  ২৮ জানুয়ারি, ২০২২
 
ভারতীয় শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের প্রবাদপ্রতীম ব্যক্তিত্ব পণ্ডিত যশরাজ জয়ন্তীতে প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী তাঁর প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়েছেন। পণ্ডিত যশরাজের সঙ্গীতের চিরন্তন শক্তির মূর্ত রূপের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী মহান এই ঐতিহ্যকে প্রাণবন্ত করে রাখার জন্য দুর্গা যশরাজ এবং পণ্ডিত শারাঙ্গ দেবের প্রয়াসের প্রশংসা করেন। শ্রী মোদী ভিডিও কনফারেন্সে পণ্ডিত যশরাজ কালচারাল ফাউন্ডেশনের সূচনা অনুষ্ঠানের ভাষণ দিচ্ছিলেন।
 
প্রধানমন্ত্রী ভারতীয় সঙ্গীতের পরম্পরায় মহান মুণীঋষিদের গভীর জ্ঞানের কথা উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, মহাজাগতিক শক্তি অনুভব করার এবং মহাবিশ্বের স্বাভাবিক প্রবাহে সঙ্গীতকে উপলব্ধি করার ক্ষমতাই ভারতীয় শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের ঐতিহ্যকে ব্যতিক্রমী করে তুলেছে। সঙ্গীত এমন একটি মাধ্যম যা আমাদের জাগতিক কর্তব্য সম্পর্কে সচেতন করে এবং আমাদের জাগতিক যোগসূত্র থেকে মুক্তি দিতে সাহায্য করে বলে, প্রধানমন্ত্রী অভিমত প্রকাশ করেন।
 
ভারতের শিল্প ও সংস্কৃতির সমৃদ্ধ ঐতিহ্যকে সংরক্ষণ করে রাখার জন্য প্রধানমন্ত্রী পণ্ডিত যশরাজ কালচারাল ফাউন্ডেশনের প্রচেষ্টার প্রশংসা করেন। প্রযুক্তির এই যুগে তিনি দুটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের উপর অগ্রাধিকার দেওয়ার জন্য এই ফাউন্ডেশনের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, বিশ্বায়নের এই যুগে ভারতীয় সঙ্গীতের নিজস্ব পরিচিতি গড়ে তোলা প্রয়োজন। তাই এসম্পর্কে প্রধানমন্ত্রীর অভিমত যোগ দিবসের অভিজ্ঞতায় এটা স্পষ্ট হয়েছে যে, সমগ্র বিশ্ব ভারতীয় ঐতিহ্য থেকে লাভবান হয়েছে এবং মানুষের মনের গভীরতাকে নাড়া দেওয়ার ক্ষমতাও ভারতীয় সঙ্গীতের রয়েছে। তিনি আরও বলেন, বিশ্বের প্রতিটি ব্যক্তির ভারতীয় সঙ্গীত সম্পর্কে জানার, শেখার এবং তা থেকে উপকার পাওয়ার অধিকার আছে। তাই এটা দেখার দায়িত্বও আমাদের। 
 
প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, বর্তমান সময়ে যখন প্রযুক্তির প্রভাব সর্বব্যাপী, তখন সঙ্গীতের ক্ষেত্রেও প্রযুক্তি ও তথ্য প্রযুক্তির বিপ্লব হওয়া উচিত। এপ্রসঙ্গে তিনি ভারতীয় সঙ্গীতের বাদ্যযন্ত্র ও ঐতিহ্যের উপর ভিত্তি করে স্বতন্ত্র স্টার্টআপ গড়ে তোলার আহ্বান জানান। 
 
কাশীর মতো শিল্প ও সংস্কৃতি চর্চার কেন্দ্রগুলির পুনরুজ্জীবনে সম্প্রতি যেসমস্ত প্রয়াস নেওয়া হয়েছে তার কথাও প্রধানমন্ত্রী উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, পরিবেশ সংরক্ষণে বিশ্বাস এবং প্রকৃতির প্রতি ভালোবাসার মাধ্যমে ভারত সমগ্র বিশ্বকে নিরাপদ ভবিষ্যতের পথ দেখিয়েছে। তাই ভারতের ঐতিহ্যের সঙ্গে উন্নয়নের যাত্রা পথে ‘সবকা প্রয়াস’ অন্তর্ভুক্ত হওয়া প্রয়োজন বলেও শ্রী মোদী অভিমত প্রকাশ করেন। 
 
CG/BD/SKD/


(Release ID: 1793391) Visitor Counter : 42