প্রধানমন্ত্রীরদপ্তর
azadi ka amrit mahotsav

প্রধানমন্ত্রী কোভিড – ১৯ এর পরিস্থিতি এবং টিকাকরণের বিষয়ে উচ্চপর্যায়ের পর্যালোচনা বৈঠকের পৌরোহিত্য করেছেন
প্রধানমন্ত্রীকে স্বাস্থ্য পরিকাঠামোর, ক্ষমতা বৃদ্ধি সম্পর্কে জানানো হয়েছে
প্রতিটি জেলায় পর্যাপ্ত পরিমাণে ওষুধের মজুত রাখতে রাজ্যগুলিকে পরামর্শ
প্রধানমন্ত্রী আগামী কয়েক মাসে টিকার উৎপাদন এবং সরবরাহের প্রস্তুতির পর্যালোচনা করেছেন
প্রধানমন্ত্রী ভাইরাসের অভিযোজনের উপর নজরদারী রাখতে প্রতি নিয়ত জিন বিন্য়াসের বিশ্লেষণের উপর গুরুত্ব দিয়েছেন

Posted On: 10 SEP 2021 8:38PM by PIB Kolkata

নতুন দিল্লি, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২১

 

প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী কোভিড – ১৯  পরিস্থিতির পর্যালোচনার জন্য একটি উচ্চপর্যায়ের বৈঠকের পৌরোহিত্য করেছেন।  কোভিড – ১৯ এর বর্তমান পরিস্থিতি, স্বাস্থ্য পরিষেবার প্রস্তুতি, চিকিৎসার কাজে ব্যবহৃত অক্সিজেনের প্রাপ্যতা কোভিড – ১৯ টিকার উৎপাদন ও বন্টন পরিকল্পনা নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। 

বিশ্বজুড়ে বেশ কিছু দেশে কোভিড সংক্রমণের হার এখনও উর্দ্ধমুখী। ভারতেও মহারাষ্ট্র ও কেরালার মত রাজ্যে সংক্রমণের হার প্রমাণ করে আত্মতুষ্টির কোনো অবকাশ নেই। তবে সাপ্তাহিক সংক্রমণের হার পর পর ১০ সপ্তাহ ধরে ৩ শতাংশের নিচে রয়েছে। 

প্রধানমন্ত্রীকে বৈঠকে জানানো হয়েছে, কয়েকটি নির্দিষ্ট অঞ্চলে এবং জেলায় কোভিড সংক্রমণের হার বেশি। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে দেশে নমুনা পরীক্ষা সম্পর্কেও তাঁকে জানানো হয়েছে। 

প্রধানমন্ত্রী ভাইরাসের অভিযোজনের উপর নজরদারী চালাতে প্রতিনিয়ত জিন বিন্যাসের বিশ্লেষণের প্রয়োজনীয়তার কথা বলেন। আধিকারিকরা জানিয়েছেন, দেশজুড়ে ২৪টি পরীক্ষাগারে আইএনএসএসিওজি –র ব্যবস্থা করা হয়েছে। পরীক্ষাগারগুলি বিভিন্ন হাসপাতালের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলছে। সেখান থেকে নমুনা পাঠানো হচ্ছে। এই নমুনার থেকে ভাইরাসের জিনের উপর নজরদারী চালানো হচ্ছে। আইএনএসএসিওজি – র সঙ্গে সার্স-কোভ-২ সংক্রমিত নমুনাগুলির বিষয়ে বিভিন্ন রাজ্য যাতে নিয়মিত তথ্য পাঠায়, তার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। 

প্রধানমন্ত্রী কোভিড আপৎকালীন পরিস্থিতির মোকাবিলার জন্য দ্বিতীয় প্যাকেজের আওতায় শিশুদের চিকিৎসার পরিকাঠামো বৃদ্ধির পর্যালোচনা করেছেন। প্রাথমিক এবং ব্লক স্তরে স্বাস্থ্য পরিষেবার পরিকাঠামো ঢেলে সাজানোর জন্য রাজ্যগুলিকে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে, যাতে গ্রামাঞ্চলে উদ্ভুত পরিস্থিতির মোকাবিলা করা যায়। কোভিড - ১৯, মিউকরমাইকোসিস, এমআইএস – সি এর জন্য প্রয়োজনীয় ওষুধের জেলা স্তরে যথাযথ মজুত রাখতে রাজ্যগুলিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

বৈঠকে আইসোলেশন বেড, অক্সিজেনের সুবিধা যুক্ত শয্যা, আইসিইউ বেড, শিশুদের জন্য আইসিইউ এবং ভেন্টিলেটরের সংখ্যা বৃদ্ধির উদ্যোগের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীকে জানানো হয়েছে। আগামী মাস গুলিতে আইসিইউ বেড এবং অক্সিজেনের সুবিধাযুক্ত বেডের সংখ্যা তাৎপর্যপূর্ণভাবে বাড়ানো হবে। 

দেশজুড়ে নমুনা পরীক্ষার পরিকাঠামো বৃদ্ধির উপর প্রধানমন্ত্রী গুরুত্ব দিয়েছেন। আধিকারিকরা তাঁকে জানিয়েছেন, জনস্বাস্থ্য ব্যবস্থায় আরটি-পিসিআর  পরীক্ষাগারের সুযোগ করে দিতে ৪৩৩ টি জেলায় বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, অক্সিজেনের সরবরাহ বৃদ্ধির জন্য অক্সিজেন কনসেনট্রেটর, সিলিন্ডার পিএসএ প্ল্যান্টের সংখ্যা দ্রুত বাড়ানো প্রয়োজন। প্রতিটি জেলায় যাতে অক্সিজেনের সরবরাহ নিশ্চিত হয়, তার জন্য দেশজুড়ে ৯৬১ টি চিকিৎসার কাজে ব্যবহৃত তরল অক্সিজেন মজুত রাখার ট্যাঙ্ক এবং ১৪৫০ টি অক্সিজেন পাইপলাইন ব্যবস্থাপনা গড়ে তোলা হচ্ছে। প্রতিটি ব্লকে যাতে কমপক্ষে একটি করে অ্যাম্বুলেন্স থাকে, তার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। পিএসএ অক্সিজেন প্ল্যান্ট দেশের যে সব জায়গায় গড়ে তোলা হচ্ছে, সেখানকার সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়েও বৈঠকে পর্যালোচনা করা হয়েছে। রাজ্যগুলিকে ১ লক্ষ অক্সিজেন কনসেনট্রেটর এবং ৩ লক্ষ অক্সিজেন সিলিন্ডার দেওয়া হয়েছে। 

প্রধানমন্ত্রীকে টিকাকরণের সর্বশেষ পরিস্থিতি সম্পর্কে জানানো হয়েছে। দেশে প্রাপ্ত বয়স্ক নাগরিকদের মধ্যে ৫৮ শতাংশ প্রথম ডোজ এবং ১৮ শতাংশ দ্বিতীয় ডোজ পেয়েছেন। টিকা সরবরাহ বৃদ্ধি এবং এসংক্রান্ত পরিকল্পনা সম্পর্কেও প্রধানমন্ত্রীকেও জানানো হয়েছে। 

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর প্রধান সচিব, ক্যাবিনেট সচিব, মুখ্য বৈজ্ঞানিক উপদেষ্টা, স্বাস্থ্য সচিব, নীতি আয়োগের স্বাস্থ্য বিভাগের সদস্য এবং অন্যান্য উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা উপস্থিত ছিলেন।  

 

CG/CB/SFS



(Release ID: 1754015) Visitor Counter : 100