অর্থমন্ত্রক

৭৫ বছরের বেশি বয়সী প্রবীণ নাগরিক যাঁদের পেনশন এবং সুদবাবদ আয়ের সংস্থান রয়েছে তাঁদের কর রিটার্ন দাখিল থেকে ছাড়

Posted On: 01 FEB 2021 1:37PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১

 

কেন্দ্রীয় অর্থ তথা কর্পোরেট বিষয়ক মন্ত্রী শ্রীমতী নির্মলা সীতারমন আজ সংসদে ২০২১-২২-এর কেন্দ্রীয় বাজেট পেশ করেছেন। এই বাজেটে শ্রীমতী সীতারমন কর প্রশাসন ব্যবস্থা, লিটিগেশন বা কর সংক্রান্ত মামলা এবং প্রত্যক্ষ কর প্রশাসন ব্যবস্থার সরলীকরণে গুরুত্ব দিয়েছেন।

 

বাজেট ভাষণে শ্রীমতী সীতারমন আয়কর দাখিল থেকে প্রবীণ নাগরিকদের ছাড়ের সুবিধা দিয়েছেন। তিনি আরও বলেন, এই বাজেটে পরিকাঠামো ক্ষেত্রে আরও বেশি বিদেশি লগ্নি, সুলভ আবাসন ও ভাড়া বাড়ির ক্ষেত্রে সুবিধা, আইএফএসসি ক্ষেত্রে কর ছাড়ের সুবিধা, ছোট দাতব্য প্রতিষ্ঠানগুলিকে ছাড় এবং দেশে স্টার্ট-আপ ক্ষেত্রের আরও বিকাশে গুরুত্ব দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

 

শ্রীমতী সীতারমন তাঁর বাজেট ভাষণে বলেন, মহামারী পরবর্তী সময়ে এক নতুন বিশ্ব ব্যবস্থা গড়ে উঠছে। এই নতুন ব্যবস্থায় ভারতের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা থাকবে। এই প্রেক্ষিতে ভারতীয় কর ব্যবস্থাকে আরও স্বচ্ছ, কার্যকর এবং বিনিয়োগ আকৃষ্ট করে তুলতে হবে। সরকার ইতিমধ্যেই করদাতাদের সুবিধার্থে এবং অর্থনীতির বিকাশে একাধিক সংস্কারমূলক পদক্ষেপ নিয়েছে। একইভাবে, ২০২০-তে কর্পোরেট কর হার কমানো হয়েছে, লভ্যাংশ বন্টনবাবদ কর ব্যবস্থা বিলোপ করা হয়েছে, ছোট করদাতাদের জন্য ছাড় আরও বাড়ানো হয়েছে। তিনি জানান, ২০১৪-র তুলনায় ২০২০-তে আয়কর রিটার্ন ৩.৩১ কোটি থেকে বেড়ে ৬.৪৮ কোটি হয়েছে।

 

স্বাধীনতার ৭৫তম বর্ষে এবারের বাজেটে ৭৫ বছর ও তার বেশি বয়সী প্রবীণ নাগরিকদের ওপর থেকে কর মান্যতা কমানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। যে সমস্ত প্রবীণ নাগরিকের কেবল পেনশন ও সুদবাবদ আয়ের সংস্থান রয়েছে, তাঁদের আয়কর রিটার্ন দাখিল থেকে ছাড় দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট প্রাপককে যে ব্যাঙ্ক থেকে পেনশন প্রদান করা হয়, সেই ব্যাঙ্কই পেনশনের অর্থ প্রদানের আগে প্রয়োজনীয় কর কেটে নেবে।

 

অর্থমন্ত্রী আরও জানান, ২০২২-এর ৩১ মার্চ পর্যন্ত সুলভ আবাসন ক্রয় করার ক্ষেত্রে গৃহীত ঋণের ওপর অতিরিক্ত ১.৫ লক্ষ টাকার সুদ ছাড়ের সুবিধা মিলবে। এছাড়াও দেশে স্টার্ট-আপ ক্ষেত্রের বিকাশে ২০২২-এর ৩১ মার্চ পর্যন্ত স্টার্ট-আপগুলির ক্ষেত্রে কর ছাড়ের সুবিধা বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী। তিনি আরও বলেন, যে সমস্ত ছোট দাতব্য সংস্থা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বা হাসপাতাল পরিচালনা করে থাকে, বাজেটে তাদের সুবিধার্থে বার্ষিক অনুদানের পরিমাণ বর্তমান ১ কোটি টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫ কোটি টাকা করার প্রস্তাব রয়েছে। রিটার্ন দাখিল আরও সহজ করতে বাজেটে তালিকাভুক্ত সিকিউরিটি সংস্থা, ব্যাঙ্ক, ডাকঘর প্রভৃতি প্রতিষ্ঠান থেকে লভ্যাংশ বাবদ আয় ও সুদের ক্ষেত্রে আগাম রিটার্ন দাখিলের ব্যবস্থা থাকছে। মাসোহারা, কর মাশুল মেটানো, টিডিএস প্রভৃতি ক্ষেত্রে আগাম রিটার্ন দাখিল করতে হবে।

***

 

 

CG/BD/DM



(Release ID: 1693989) Visitor Counter : 298