সারওরসায়নমন্ত্রক

বিশ্বজুড়ে সবথেকে বড় জেনেরিক ওষুধের উৎপাদন ও রপ্তানীর কেন্দ্র হয়ে উঠেছে ভারত

Posted On: 15 OCT 2020 10:14AM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লী, ১৫ অক্টোবর, ২০২০

 

 

        কেন্দ্রীয় সার ও রসায়ন মন্ত্রী শ্রী ডি ভি সদানন্দ গৌড়া বলেছেন, বিশ্বে জেনেরিক ওষুধ নির্মাণ ও রপ্তানীর সবথেকে বড় কেন্দ্র হয়ে উঠেছে ভারত। প্রাথমিকভাবে কোভিড-১৯-এর চিকিৎসার সময় জরুরি ভিত্তিতে হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনিন এবং অ্যাজিথ্রোমাইসিনকে জরুরি ভিত্তিতে প্রয়োগের জন্য বাছাই করা হয়েছিল। ভারত এই ওষুধ দুটি,  ১২০টির বেশি দেশকে সরবরাহ করেছে। এই ভাবে ওষুধ সরবরাহের ক্ষেত্রে ভারত আন্তর্জাতিক দুনিয়ায় নির্ভরযোগ্য হয়ে উঠেছে।    

        মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এফডিএ-র নিয়ম মেনে সেদেশের বাইরে  সবথেকে বেশি ওষুধ নির্মাণ কেন্দ্র ভারতেই রয়েছে। ল্যাটিন আমেরিকা এবং ক্যারিবিয় দেশগুলির জন্য ফিকি আয়োজিত লিডস ২০২০ সম্মেলনে ১৪ই অক্টোবর মন্ত্রী ভাষণ দিচ্ছিলেন। তিনি বলেছেন, ভারতের ওষুধ উৎপাদন ক্ষেত্র ২০২৪ সালের মধ্যে ৬ হাজার ৫০০ কোটি মার্কিন ডলারের সমতুল শিল্পে পরিণত হবে। বর্তমানে দেশে ৩টি বড় ওষুধ উৎপাদন পার্ক এবং ৪টি চিকিৎসা সংক্রান্ত সরঞ্জাম উৎপাদন পার্ক তৈরি হচ্ছে।     

        মন্ত্রী আরও বলেছেন, ওষুধ শিল্পে ভারতে বিনিয়োগের এটিই সবথেকে বড় সুযোগ।  

        তিনি আরও বলেছেন, ভারতে রসায়ন ও পেট্রো রসায়ন শিল্পের পরিমাণ ১৬ হাজার ৫০০ কোটি ডলার। ২০২৫ সালের মধ্যে তা বেড়ে ৩০ হাজার কোটি মার্কিন ডলারে পৌঁছাবে। শ্রী গৌড়া বলেছেন, সার উৎপাদনের ক্ষেত্রেও ভারত একটি আকর্ষণীয় বাজার। যদিও আমাদের দেশে  সার উৎপাদন করা হয়, কিন্তু চাহিদা অনুসারে বিদেশ থেকেও আমদানির প্রয়োজন। ভারতে প্রতি বছর প্রচুর পরিমাণে ইউরিয়া, পিওকে সার, ডিওপি সার, এমওপি সার আমদানি করতে হয়। ল্যাটিন আমেরিকা ও ক্যারিবিয়ান অঞ্চলের দেশগুলি ভারতে প্রচুর সার রপ্তানী করে। মন্ত্রী ন্যানো ফার্টিলাইজারের ওপর গুরুত্ব দিয়ে বলেছেন, এক্ষেত্রে গবেষণা ও উদ্ভাবনের জন্য বিদেশের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগ নেওয়া যেতে পারে। ওষুধ শিল্প, রসায়নিক শিল্প ও সারের বিষয়ে যেকোন প্রস্তাবকে তিনি স্বাগত জানিয়েছেন।  

 

 

CG/CB/NS



(Release ID: 1664745) Visitor Counter : 174