PIB Headquarters

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত পিআইবি’র প্রাত্যহিক সংবাদ

Posted On: 13 MAY 2020 7:14PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ১৩ মে, ২০২০

 

 

আত্মনির্ভর ভারত গড়ে তোলার জন্য আহ্বান জানালেন প্রধানমন্ত্রী; ২০ লক্ষ কোটি টাকার বিশেষ আর্থিক প্যাকেজের কথা ঘোষণা করলেন শ্রী মোদী

প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী মঙ্গলবার জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেন। করোনা মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে যাঁরা প্রয়াত হয়েছেন, তাঁদের স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কোভিড-১৯ এর ফলে উদ্ভূত সঙ্কট অপ্রত্যাশিত। এই লড়াইয়ে কেবল আমাদের সুরক্ষিত রাখলেই হবে না, সেই সঙ্গে, আমাদের এগিয়েও যেতে হবে। তিনি আরও বলেন, একবিংশ শতককে ভারতের শতক হিসাবে পরিচিতিদানের জন্য সবচেয়ে জরুরি হ’ল দেশকে আত্মনির্ভর করে তোলা। তিনি বলেন, আত্মনির্ভর ভারতের ভিত্তি ৫টি স্তম্ভের ওপর দাঁড়িয়ে। এগুলি হ’ল – অর্থনীতি, পরিকাঠামো, একুশ শতকের প্রযুক্তি-ভিত্তিক পরিচালিত ব্যবস্থা, প্রগতিশীল জনসংখ্যার বৈশিষ্ট্য এবং চাহিদা। শ্রী মোদী আত্মনির্ভর ভারত গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়ে বিশেষ অর্থনৈতিক প্যাকেজের কথা ঘোষণা করেন। এই আর্থিক প্যাকেজ প্রসঙ্গে শ্রী মোদী বলেন, এর আগে কোভিড সঙ্কট মোকাবিলায় সরকার যে প্যাকেজের কথা ঘোষণা করেছে এবং রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গৃহীত সিদ্ধান্তগুলি সহ বর্তমান প্যাকেজের পরিমাণ ২০ লক্ষ কোটি টাকা। এই বিপুল অর্থ ভারতের জিডিপি-র প্রায় ১০ শতাংশ। তিনি বলেন, ‘আত্মনির্ভর ভারত’ গড়ে তোলার ক্ষেত্রে এই প্যাকেজ প্রয়োজনীয় শক্তি যোগাবে।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1623391 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদীর ১২ই মে জাতির উদ্দেশে ভাষণের মূল অংশ

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1623418 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে ভারতীয় অর্থনীতির লড়াইয়ে মদত যোগাতে অর্থমন্ত্রী বিশেষ করে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প সংস্থাগুলির জন্য ত্রাণ ও ঋণ সহায়তার ক্ষেত্রে একাধিক ব্যবস্থার কথা ঘোষণা করলেন

কেন্দ্রীয় অর্থ তথা কর্পোরেট বিষয়ক মন্ত্রী শ্রীমতী নির্মলা সীতারমন আজ পুনরায় কাজে ফেরার ব্যাপারে গুরুত্ব দিয়ে একাধিক পদক্ষেপের কথা ঘোষণা করেছেন। উদ্দেশ্য হ’ল – নিয়োগকর্তা ও কর্মচারী, ব্যবসায়িক ক্ষেত্র সহ ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প সংস্থাগুলির উৎপাদন প্রক্রিয়া চালু করে পুনরায় মুনাফার পথে ফিরে আসা। এছাড়াও, ব্যাঙ্ক বহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠান, হাউসিং ফিনান্স কোম্পানি, মাইক্রো ফিনান্স সেক্টর এবং বিদ্যুৎ ক্ষেত্রগুলির স্বার্থেও একাধিক পদক্ষেপের কথা তিনি ঘোষণা করেন। ব্যবসায়ীদের কর ছাড়ের সুবিধা, সরকারি সংগ্রহের ক্ষেত্রে বরাত দাতাদের রেহাই এবং রিয়েল এস্টেট ক্ষেত্রের জন্য একাধিক সুবিধার কথাও ঘোষণা করা হয়েছে।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1623601 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

পাঞ্জাবে কোভিড-১৯ সংক্রমণ মোকাবিলায় গৃহীত পদক্ষেপ ও প্রস্তুতিগুলির পর্যালোচনায় ডঃ হর্ষ বর্ধন

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী ডঃ হর্ষ বর্ধন পাঞ্জাবের স্বাস্থ্য মন্ত্রীর সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে রাজ্যের বর্তমান পরিস্থিতি খতিয়ে দেখেছেন। ডঃ হর্ষ বর্ধন বলেছেন, ১৩ই মে পর্যন্ত দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ৭৪ হাজার ২৮১। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২৪ হাজার ৩৮৬ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৪১৫ জনের। গত ২৪ ঘন্টায় দেশে আরও ৩ হাজার ৫২৫ জন নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। গত ১৪ দিনে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দ্বিগুণ হচ্ছিল প্রতি ১১ দিনে। গত ৩ দিনে আক্রান্তের হার দ্বিগুণ হওয়ার সময়ে অগ্রগতি হয়েছে ১২ দিন ৬ ঘন্টায়। তিনি আরও জানান, করোনায় মৃত্যুর হার ৩.২ শতাংশ এবং সুস্থতার হার ৩২.৮ শতাংশ। গতকাল পর্যন্ত ২.৭৫ শতাংশ কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগী আইসিইউ-তে রয়েছেন, ০.৩৭ শতাংশ রোগী রয়েছেন ভেন্টিলেটরে এবং অক্সিজেন সাপোর্টে রয়েছেন ১.৮৯ শতাংশ রোগী। এখনও পর্যন্ত কোভিড-১৯ নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১৮ লক্ষ ৫৬ হাজারেরও বেশি। ডঃ হর্ষ বর্ধন বলেছেন, আয়ুষ্মান ভারত কর্মসূচির আওতায় স্বাস্থ্য ও রোগী কল্যাণ কেন্দ্রগুলি থেকে পরিষেবা প্রদানের ক্ষেত্রে পাঞ্জাব ভালো কাজ করেছে। এই কেন্দ্রগুলি ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ সহ মুখগহ্বর, স্তন এবং কারভিক্সের মতো ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার কাজেও ব্যবহার করা যেতে পারে।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1623551 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

কেন্দ্রীয় সশস্ত্র পুলিশ বাহিনীর ক্যান্টিন ও স্টোরগুলিতে পয়লা জুন থেকে শুধুমাত্র দেশজ সামগ্রী বিক্রি হবে

প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী দেশকে স্বনির্ভর করে তোলা এবং ভারতেই উৎপাদিত সামগ্রী ব্যবহারের আহ্বান জানিয়েছিলেন। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী শ্রী অমিত শাহ প্রধানমন্ত্রীর এই আবেদনকে আলোকদিশারী হিসাবে বর্ণনা করে ভবিষ্যতে ভারতকে বিশ্বের অগ্রণী দেশে পরিণত করার বার্তা হিসাবে বর্ণনা করেন। এই লক্ষ্যে আজ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক কেন্দ্রীয় সশস্ত্র পুলিশ বাহিনীর সমস্ত ক্যান্টিন ও স্টোরগুলিতে আগামী পয়লা জুন থেকে কেবল দেশজ সামগ্রী বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ক্যান্টিন ও স্টোরগুলিতে দেশজ সামগ্রী সংগ্রহ বাবদ প্রায় ২ হাজার ৮০০ কোটি টাকা খরচ হবে। মন্ত্রকের এই সিদ্ধান্তের ফলে সশস্ত্র পুলিশ বাহিনীর প্রায় ১০ লক্ষ কর্মীর ৫০ লক্ষ পারিবারিক সদস্য দেশজ সামগ্রী ব্যবহার করবেন। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী দেশবাসীর প্রতি আবেদন জানিয়ে বলেছেন, “আপনারা যতটা সম্ভব দেশে উৎপাদিত পণ্য ব্যবহার করুন এবং এ ধরনের পণ্য ব্যবহারে অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন। বর্তমান সময় পিছিয়ে থাকার নয়, বরং সঙ্কট পরিস্থিতিকে সুযোগে পরিণত করার সময়”। শ্রী শাহ আরও বলেছেন, প্রত্যেক ভারতীয় যদি স্বদেশী পণ্য ব্যবহারে দৃঢ় সংকল্পবদ্ধ হন, তা হলে আগামী ৫ বছরের মধ্যেই দেশ স্বনির্ভর হয়ে উঠবে।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1623511 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প সংস্থা, গ্রামীণ ও কুটির শিল্পের জন্য প্রধানমন্ত্রী যে আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন শ্রী গড়করি তাকে স্বাগত জানিয়েছেন

কেন্দ্রীয় অতিক্ষুদ্র, ছোট ও মাঝারি শিল্প উদ্যোগ মন্ত্রী শ্রী নীতিন গড়করি আজ সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী যে ২০ লক্ষ কোটি টাকার ত্রাণ প্যাকেজের কথা ঘোষণা করেছেন তাকে স্বাগত জানিয়েছেন। শ্রী গড়করি বলেছেন, ঐতিহাসিক এই প্যাকেজ ঘোষণার মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী ক্ষুদ্র ও মাঝারি তথা গ্রামীণ ও কুটির শিল্প ক্ষেত্রের চাহিদা ও প্রত্যাশা পূরণ করেছেন। শ্রী গড়করি আরও বলেন, বিপুল সহায় সম্পদ, আধুনিক প্রযুক্তি এবং পর্যাপ্ত কাঁচামালের যোগানের দরুন ভারত শীঘ্রই সব শিল্পক্ষেত্রে আত্মনির্ভর হয়ে উঠবে। বিশ্ব অর্থনীতিতে ভারতকে মহাশক্তিধর দেশে পরিণত করার যে পরিকল্পনা প্রধানমন্ত্রী গ্রহণ করেছেন, তার বাস্তবায়নে এই আর্থিক প্যাকেজ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবে বলে শ্রী গড়করি অভিমত প্রকাশ করেন। তিনি আরও বলেন, কোভিড-১৯ মহামারীর ফলে আর্থিক মন্দার বিষয়টিকে সমস্যা হিসেবে না দেখে উদ্ভূত পরিস্থিতিকে কাজে লাগিয়ে সুযোগে পরিণত করা দরকার। এই লক্ষ্যে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে ইতিবাচক মনোভাব ও আত্মবিশ্বাস অক্ষুন্ন রাখা জরুরী।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1623410 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

বন্দে ভারত অভিযানের আওতায় ৭ই মে থেকে ৪৩টি বিমানে ৮ হাজার ৫০৩ জন ভারতীয় বিদেশ থেকে দেশে ফিরেছেন

এখন পর্যন্ত এই অভিযান শুরুর প্রথম ৬ দিনে ৪৩টি বিমানে করে ৮ হাজার ৫০৩ জন ভারতীয়কে বিদেশ থেকে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকার গত ৭ই মে বিদেশে থেকে ভারতীয়দের ফিরিয়ে আনতে এ যাবৎকালের সর্ববৃহৎ উদ্ধার অভিযান বন্দে ভারত অভিযান শুরু করে। এই অভিযানের আওতায় কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রক ভারতীয়দের ফিরিয়ে আনতে বিদেশ মন্ত্রক ও রাজ্য সরকারগুলির সঙ্গে যোগাযোগ বজায় রেখে চলেছে। এয়ার ইন্ডিয়া ও তার সহযোগী সংস্থা এ পর্যন্ত ৬৪টি বিমানে করে ১২টি দেশ থেকে প্রথম পর্যায়ে ১৪ হাজার ৮০০ ভারতীয় নাগরিককে দেশে ফিরিয়ে এনেছে।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1623475 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

ভারতীয় রেল ১৩ই মে পর্যন্ত ৬৪২টি শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন চালিয়েছে

ভারতীয় রেল ১৩ই মে পর্যন্ত বিভিন্ন রাজ্য থেকে ৬৪২টি শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন চালিয়েছে। এর মধ্যে ৭টি ট্রেন পশ্চিমবঙ্গ থেকে চালানো হয়েছে। এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি ৩০১টি ট্রেন চালনো হয়েছে উত্তর প্রদেশ থেকে। বিহার থেকে চালানো হয়েছে ১৬৯টি ট্রেন।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1623564 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

লকডাউনের সময় ভারতীয় খাদ্য নিগম ১ কোটি ৬০ লক্ষ মেট্রিক টন খাদ্যশস্য রাজ্যগুলিকে বন্টন করেছে

দেশের চাহিদা মেটানোর মতো পর্যাপ্ত খাদ্যশস্য ভারতীয় খাদ্য নিগমের কাছে মজুত রয়েছে। নিগমের কাছে পয়লা মে পর্যন্ত খাদ্যশস্য মজুতের পরিমাণ ৬ কোটি ৪২ লক্ষ ৭০ হাজার মেট্রিক টনের বেশি। গত ১২ই মে পর্যন্ত রাজ্যগুলিকে বিভিন্ন কর্মসূচির আওতায় ১ কোটি ৫৯ লক্ষ মেট্রিক টনের বেশি খাদ্যশস্য সরবরাহ করা হয়েছে। জাতীয় খাদ্য সুরক্ষা আইনের আওতায় সরকার নিগমের কাছ থেকে ৬০ লক্ষ ৮৭ হাজার মেট্রিক টন এবং প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ অন্ন যোজনার আওতায় ৭৯ লক্ষ মেট্রিক টনের বেশি খাদ্যশস্য নিগমের কাছ থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1623542 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

দেশে খাদ্যশস্যের পর্যাপ্ত যোগান সুনিশ্চিত করতে ভারতীয় খাদ্য নিগম একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1623561 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

মিশন সাগর : ভারতীয় নৌ-যুদ্ধ জাহাজ কেশরী মালদ্বীপকে খাদ্যসামগ্রী তুলে দিল

মিশন সাগর অভিযানের অঙ্গ হিসাবে ভারতীয় নৌ-বাহিনীর যুদ্ধ জাহাজ কেশরী ১২ই মে মালদ্বীপের পোর্ট অফ মালে’তে পৌঁছায়। মালদ্বীপের মানুষজনের সহায়তার লক্ষ্যে ভারত সরকার এই জাহাজে করে সেদেশে ৫৮০ টন খাদ্য সামগ্রী পাঠিয়েছে। ভারতীয় নৌ-বাহিনী বন্ধু মনোভাবাপন্ন দেশগুলিতে বিভিন্ন ক্ষেত্রে সাহায্য করে চলেছে।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1623331 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

মোদী সরকার তাঁর কর্মচারীদের কল্যাণে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ এবং তাঁদের অভাব-অভিযোগগুলি ন্যায়সঙ্গত উপায়ে নিরসন করা হচ্ছে : ডঃ জিতেন্দ্র সিং

কোভিড মহামারীর সময় এক অভিনব উদ্যোগের অঙ্গ হিসাবে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ডঃ জিতেন্দ্র সিং আজ তাঁর অধীনস্ত বিভিন্ন দপ্তরের সেকশন আধিকারিক পর্যায়ের কর্মীদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে বিভিন্ন বিষয়ে কথা বলেন। ডঃ সিং বলেন, মোদী সরকার তাঁর কর্মচারীদের কল্যাণে অঙ্গীকারবদ্ধ এবং তাঁদের সুযোগ-সুবিধাগুলির বিষয়ে সর্বদাই সচেতন। তিনি আরও জানান, কোভিড সঙ্কটের সময় বাড়ি থেকে কাজ সুষ্ঠুভাবে এগিয়ে চলেছে এবং নির্দেশ মতো ৩৩ শতাংশ কর্মী কার্যালয়ে উপস্থিত হচ্ছেন।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1623544 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

শ্রী নীতিন গড়করি কৃষি, মৎস্য চাষ এবং বনজসামগ্রী সংক্রান্ত ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পগুলির উৎপাদন প্রক্রিয়ায় স্থানীয় কাঁচামাল ব্যবহারে জোর দিয়েছেন

কেন্দ্রীয় অতিক্ষুদ্র, ছোট ও মাঝারি শিল্পোদ্যোগ মন্ত্রী শ্রী নীতিন গড়করি কৃষি, মৎস্য চাষ ও বনজসামগ্রী সংক্রান্ত ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পগুলির উৎপাদনে স্থানীয় কাঁচামালের ব্যবহার বাড়ানোর ওপর জোর দিয়েছেন। শ্রী গড়করি আজ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভারতীয় ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প সংস্থাগুলি সহ ভারতীয় ব্যয় নিরীক্ষণ প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের সঙ্গে কোভিড-১৯ পরিস্থিতির প্রভাব নিয়ে আলোচনার সময় একথা বলেন। তিনি আরও বলেন, নতুন গ্রিন এক্সপ্রেস হাইওয়েগুলি শিল্প সংস্থা, লজিস্টিক পার্ক ও ক্লাস্টারগুলিতে ভবিষ্যতে বিনিযোগের ক্ষেত্রে বিশেষ সহায়ক হবে। তিনি বলেন, রপ্তানি বৃদ্ধিতে বিশেষ নজর দেওয়ার পাশাপাশি, উৎপান প্রক্রিয়ায় বিদ্যুৎ সাশ্রয়, উৎপাদন খরচ কমানো প্রয়োজন। এই উদ্যোগগুলি কার্যকর করা গেলে বিশ্ব বাজার ব্যবস্থায় ভারতীয় ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প সংস্থাগুলি আরও প্রতিযোগিতামুখী হয়ে উঠবে।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1623324 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

আদিবাসী মানুষের জীবন জীবিকা ও নিরাপত্তা নিয়ে রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠক করলেন আদিবাসী বিষয়ক মন্ত্রী শ্রী অর্জুন মুন্ডা

বৈঠকে অংশগ্রহণকারীদের উদ্দেশে ভাষণে শ্রী অর্জুন মুন্ডা সংশোধিত ন্যূনতম সহায়ক মূল্যে গৌণ বনজ সামগ্রী সংগ্রহের পরিমাণ বাড়িয়ে আদিবাসী মানুষের জীবনযাপনে সুবিধা করে নেওয়ার জন্য রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। শ্রী মুন্ডা রাজ্যগুলিতে প্রধানমন্ত্রী বন ধন যোজনার কাজকর্মের অগ্রগতি পর্যালোচনা করেন। তিনি বলেন, বিশ্ব বাজার ব্যবস্থার সঙ্গে আদিবাসী মানুষের উৎপাদিত পণ্যগুলিকে পৌঁছে দেওয়ার জন্য মূল্য সংযোজন অত্যন্ত জরুরি। কোভিড-১৯ মহামারীর প্রেক্ষিতে যে সমস্ত আদিবাসী প্রবাসী শ্রমিক ও ছাত্রছাত্রী নিজ নিজ রাজ্যে ফিরছেন, সে ব্যাপারে রাজ্যগুলির প্রস্তুতিও তিনি খতিয়ে দেখেন।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1623325 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

কোভিড-১৯ এর প্রেক্ষিতে জম্মু – কাশ্মীর এবং লাদাখের পরিস্থিতি এবং জম্মুতে নিয়মিত ট্রেন পরিষেবা শুরুর বিভিন্ন দিক খতিয়ে দেখলেন ডঃ জিতেন্দ্র সিং

ডঃ জিতেন্দ্র সিং জম্মু ও কাশ্মীর সহ লাদাখের সমস্ত জেলার ডেপুটি কমিশনারদের সঙ্গে সর্বশেষ কোভিড-১৯ পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলেন। আধিকারিকদের সঙ্গে তিনি অন্যান্য রাজ্য থেকে যাঁরা জম্মু, কাশ্মীর বা লাদাখে ফিরছেন, তাঁদের ব্যাপারে কি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, তাও খতিয়ে দেখেন। জম্মুতে বুধবার থেকে শুরু হতে চলা নিয়মিত ট্রেন পরিষেবার বিষয়টিও ডঃ সিং পর্যালোচনা করে দেখেছেন।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1623329 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

হরিয়ানার গ্রামাঞ্চলে প্রতিটি বাড়িতে ২০২২ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে পাইপ বাহিত জল সংযোগ পৌঁছে দেওয়ার প্রস্তুতি

হরিয়ানার গ্রামাঞ্চলের প্রতিটি বাড়িতে আগামী ২০২২ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে পাইপ বাহিত জলসংযোগ পৌঁছে দিতে প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। রাজ্যে জল জীবন মিশনের আওতায় ২০১৯-২০’তে ১ লক্ষ ৫ হাজার পরিবারে পাইপ বাহিত জল পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। রাজ্য সরকার ২০২২ সালের ডিসেম্বরের আগে ১০০ শতাংশ পরিবারে পাইপ বাহিত জল পৌঁছে দেওয়ার পরিকল্পনা করছে। এই লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হলে জাতীয় স্তরে ২০২৪-২৫ নাগাদ গ্রামাঞ্চলের প্রতিটি পরিবারে পাইপ বাহিত জল পৌঁছে দেওয়ার যে লক্ষ্য ধার্য হয়েছে, তার অনেক আগেই রাজ্যে এই কাজ সম্পন্ন হবে। জল জীবন মিশনের আওতায় গ্রামাঞ্চলের প্রতিটি পরিবারে পাইপ বাহিত জল পৌঁছে দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়ে রাজ্যের আধিকারিকরা গতকাল কেন্দ্রীয় পানীয় জল ও স্বাস্থ্য বিধান মন্ত্রকের কাছে বিস্তারিত পরিকল্পনা জমা দেয়। রাজ্য আধিকারিকরা জানিয়েছেন, ২৮ লক্ষ ৯৪ হাজার গ্রামীণ পরিবারের মধ্যে ১৮ লক্ষ ৮৩ হাজার পরিবারে ইতিমধ্যেই পাইপ বাহিত জল পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হয়েছে। বাকি ১০ লক্ষ ১১ হাজার পরিবারের মধ্যে ৭ লক্ষ পরিবারকে ২০২০-২১ এর মধ্যে জল পৌঁছে দেওয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছে।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1623492 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

জম্মু ও কাশ্মীর ২০২২ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে ঐ অঞ্চলের প্রতিটি পরিবারে পাইপ বাহিত জল পৌঁছে দেওয়ার উদ্যোগ নিচ্ছে

জল জীবন মিশনের আওতায় ২০২২ সালের ডিসেম্বর মাসের মধ্যে গ্রামাঞ্চলের প্রতিটি পরিবারে পাইপ বাহিত জল পৌঁছে দিতে কেন্দ্রশাসিত জম্মু ও কাশ্মীর পরিকল্পনা গ্রহণ করছে। কেন্দ্রীয় শাসিত ঐ অঞ্চলটি চলতি বছরে ৩টি জেলার ৫ হাজার গ্রামের সমস্ত পরিবারে ১০০ শতাংশ জল সংযোগ পৌঁছে দেওয়ার পরিকল্পনা করছে। জল জীবন মিশনের আওতায় প্রতিটি পরিবারে পাইপ বাহিত জল পৌঁছে দেওয়ার উদ্দেশ্যে গতকাল পানীয় জল ও স্বাস্থ্য বিধান দপ্তরের পক্ষ থেকে বিস্তারিত পরিকল্পনা পেশ করা হয়। জম্মু ও কাশ্মীরের আধিকারিকরা জানিয়েছেন মোট ১৮ লক্ষ ১৭ হাজার গ্রামীণ পরিবারের মধ্যে ৫ লক্ষ ৭৫ হাজার পরিবারে ইতিমধ্যেই পাইপ বাহিত জল পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। বাকি পরিবারগুলির মধ্যে ২০২০-২১ এ আরও ১ লক্ষ ৭৬ হাজার পরিবারে পাইপ বাহিত জল পৌঁছে দেওয়ার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1623491 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

কোভিড-১৯ পরবর্তী সময়ে ম্যানুফ্যাকচারিং সংস্থাগুলির রূপান্তরণের ফলে শিল্প সংস্থাগুলির মধ্যে গবেষণামূলক সহযোগিতা আরও নিবিড় হবে

জাতীয় প্রযুক্তি দিবস উদযাপন উপলক্ষে একদিনের এক ডিজিটাল কনফারেন্সের আয়োজন করা হয়। বিষয় ছিল বিজ্ঞান, প্রযুক্তি এবং গবেষণামূলক কর্মকান্ডের মাধ্যমে অর্থনীতির গতি ত্বরান্বিত করা। এই কনফারেন্সে কোভিড-১৯ মহামারী পরবর্তী সময়ে ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানিগুলির রূপান্তরণ, সহযোগিতা এবং বর্তমান চ্যালেঞ্জগুলির মোকাবিলায় গবেষণামূলক কাজকর্মে সহযোগিতার ক্ষেত্রে বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা হয়। কনফারেন্সে বিশেষজ্ঞরা বলেন, বর্তমান সঙ্কটময় পরিস্থিতি শিল্প সংস্থাগুলিকে গবেষণা ও উন্নয়নের ক্ষেত্রে আরও বেশি কর্মকান্ড গ্রহণে সুযোগ এনে দেবে। কোভিড-১৯ সঙ্কট চিকিৎসা বিজ্ঞানের ক্ষেত্রে নতুন অগ্রগতি ও উদ্ভাবনের সুযোগ এনে দিচ্ছে। তাই, এই সুযোগকে নতুন ওষুধ, টিকা ও নমুনা পরীক্ষার সামগ্রী আবিষ্কারে কাজে লাগাতে হবে। বিশেষজ্ঞদের আরও অভিমত চিকিৎসা বিজ্ঞানের ক্ষেত্রে নতুন এই অগ্রগতিগুলিকে ভবিষ্যৎ মহামারীর মোকাবিলায় আরও বেশি দক্ষ করে তুলবে। বিশেষজ্ঞরা সকলেই সহমত প্রকাশ করে বলেন, ভবিষ্যতে চিকিৎসা শিল্প সংস্থাগুলির উৎপাদিত সামগ্রী সমগ্র ব্যবস্থায় এক নতুন আঙ্গিক নিয়ে আসতে পারে। জ্ঞান-ভিত্তিক কর্মকান্ডে বিনিয়োগ আর্থিক গতিকে ত্বরান্বিত করতে সুদূর প্রসারী ভূমিকা নিতে পারে।

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1623332 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

‘দেখো আপনা দেশ’ ওয়েবইনার সিরিজের অষ্টাদশ পর্বে পর্যটন মন্ত্রক ওডিশার সেরা তথাপি অজানা গন্তব্যগুলিকে নিয়ে অনুষ্ঠান আয়োজন করলো

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1623486 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ভাগলপুর স্মার্টসিটি উদ্ভাবনী প্রযুক্তিগত উদ্যোগ কাজে লাগাচ্ছে

বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleseDetail.aspx?PRID=1623568 – এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

 

 

 

পিআইবি’র আঞ্চলিক কার্যালয় থেকে প্রাপ্ত তথ্য

 

· কেরল : বিদেশ প্রতিমন্ত্রী ভি মুরলীধরণ জানিয়েছেন, বন্দে ভারত অভিযানের দ্বিতীয় পর্যায়ে কেরলে ৩৬টি চার্টার্ড পরিষেবা দেওয়া হবে। তিনি আরও জানান, এয়ার ইন্ডিয়ার থেকেও কম খরচে বা বিনামূল্যে কোনও বেসরকারি বিমান সংস্থা প্রবাসী ভারতীয়দের দেশে ফেরানোর ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করেনি। উপসাগরীয় দেশগুলি থেকে আরও দুটি বিমান আজ রাতে কোচি পৌঁছচ্ছে। কোভিড সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত অর্থ সংগ্রহে বিশেষ কর হিসাবে মদের ওপর ১০-৩৫ শতাংশ পর্যন্ত কর চাপানো হচ্ছে। ১৭ই মে তৃতীয় পর্বের লকডাউন শেষ হওয়ার পর রাজ্যে মদ বিক্রি শুরু হবে। ব্রিটেনে আরও একজন কেরলবাসীর কোভিডে মৃত্যু হয়েছে।

 

· তামিলনাডু : পন্ডিচেরীতে বেশ কয়েকজন কারখানা শ্রমিকের নমুনা পরীক্ষায় ভাইরাসের উপস্থিতির প্রমাণ মিলেছে। চিকিৎসা ক্ষেত্রের সঙ্গে যুক্ত নন, এমন অগ্রভাগে থাকা কর্মীদের পিপিই কিট সরবরাহ সম্পর্কে স্ট্যাটাস রিপোর্ট দাখিল করার জন্য তামিলনাডু সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। রাজ্যে ১ হাজার ১০০ জনেরও বেশি যাত্রী বিশেষ ট্রেনে এসে পৌঁছনোর পর তাঁদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে। রাজ্যে এখনও পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৮ হাজার ৭১৮। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬ হাজার ৫২০ জন। মৃত্যু হয়েছে ৬১ জনের।

 

· কর্ণাটক : রাজ্যে আজ বেলা ১২টা পর্যন্ত আরও ২৬ জন নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। কালবুর্গী জেলায় আজ আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। রাজ্যে এখনও পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৯৫১। মারা গেছেন ৩২ জন এবং ৪৪২ জন সুস্থ হয়েছেন। অসংগঠিত ক্ষেত্রের জন্য দ্বিতীয় ত্রাণ প্যাকেজ ঘোষণার কথা চিন্তাভাবনা করছে রাজ্য।

 

· অন্ধ্রপ্রদেশ : রাজ্যে ১৮ই মে থেকে গণপরিবহণ বাস পরিষেবা শুরু হচ্ছে। এখনও পর্যন্ত ২ লক্ষ ১০ হাজার কোভিড-১৯ এর পরীক্ষা হয়েছে। পশ্চিম গোদাবরী জেলায় বেসরকারি কলেজে নমুনা পরীক্ষাগার স্থাপন করা হবে। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ৪৮ জনের আক্রান্তের খবর মিলেছে এবং ১ জন মারা গেছেন। রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২ হাজার ১৩৭। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৯৪৮ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪৭ জনের।

 

· তেলেঙ্গানা : রাজ্য সরকার ই-সঞ্জিবনী নামে অনলাইনে ওপিডি পরিষেবা চালু করেছে। প্রাথমিকভাবে এই পরিষেবা পরীক্ষামূলকভাবে চালু হলেও এখন থেকে তা পুরোদমে চালু হচ্ছে। রাজ্যে গতকাল পর্যন্ত নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ৩২৬। সুস্থ হয়েছেন ৮২২ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৩২ জনের।

 

· অরুণাচল প্রদেশ : রাজ্যের স্বাস্থ্য মন্ত্রী নাহারলাগুনে দ্বিতীয় কোভিড-১৯ নমুনা পরীক্ষা কেন্দ্রের উদ্বোধন করেছেন। নমুনা পরীক্ষা পরিচালিত হচ্ছে ট্রুন্যাট যন্ত্রের সাহায্যে। প্রতিদিন এই যন্ত্রের সাহায্যে ২০টি নমুনা পরীক্ষা করা সম্ভব।

 

· আসাম : রাজ্যে কোভিড-১৯ আক্রান্ত এক রোগীর নমুনা পরীক্ষার পরিণাম নেগেটিভ আসায় তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। রাজ্যের স্বাস্থ্য মন্ত্রী এক ট্যুইটে জানিয়েছেন, এখনও পর্যন্ত ৩৯ জন রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন। দিল্লি থেকে ১৬৩ জন ছাত্রছাত্রী এবং চেন্নাই থেকে ২৪ জন ক্যান্সার রোগী আজ গুয়াহাটি ফিরেছেন। এদের সকলকেই ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

 

· মণিপুর : চেন্নাই থেকে ১ হাজার ১৪১ জন মণিপুরী আজ জিরিবাম রেল স্টেশনে পৌঁছেছেন। এদের সকলকে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হচ্ছে।

 

· মিজোরাম : কোভিড-১৯ মহামারীর প্রেক্ষিতে আটকে পড়া রাজ্যের স্থায়ী বাসিন্দা এমন ব্যক্তিদের ফিরে আসার পর সরকার এদের জন্য বিশেষ নীতি-নির্দেশিকা জারি করেছে।

 

· নাগাল্যান্ড : বিভিন্ন রাজ্যে আটকে পড়া ব্যক্তিদের ট্রেনে করে রাজ্যে ফিরে আসার যাবতীয় খরচ রাজ্য সরকার বহন করবে। এজন্য একটি ক্ষমতাপ্রাপ্ত কমিটি বিস্তারিত পরিকল্পনা প্রণয়ন করেছে।

 

· মেঘালয় : কোহিমা জেলা প্রশাসন আটকে পড়া ৪ হাজার ২২১ জন স্থানীয় মানুষকে নিজেদের জেলায় পাঠানোর ব্যবস্থা নিয়েছে। ইতিমধ্যেই ৩৩২ জন কিপহিরি জেলায় ফিরে গেছেন।

 

· সিকিম : রাজ্য গ্রামোন্নয়ন দপ্তর এমজিএনআরইজিএ, প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা ও প্রধানমন্ত্রী গ্রাম সড়ক যোজনার কাজকর্ম শুরু করেছে। এই কর্মকান্ড শুরু হওয়ার ফলে গ্রামীণ শ্রমিকদের আর্থিক দিক থেকে কিছুটা সুবিধা হবে।

 

· ত্রিপুরা : পুণেতে আটকে পড়া ত্রিপুরাবাসীদের নিয়ে দ্বিতীয় বাসটি আগরতলার উদ্দেশে যাত্রা শুরু করেছে।

 

· মহারাষ্ট্র : রাজ্যে আরও ১ হাজার ২৬ জনের আক্রান্তের খবর মিলেছে। এর ফলে, রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৪ হাজার ৪২৭। নিরন্তর কর্তব্য পালন থেকে অব্যাহতি দেওয়ার জন্য রাজ্য পুলিশ কর্মীদের পরিবর্তে ২০ কোম্পানি কেন্দ্রীয় সশস্ত্র বাহিনী চেয়ে পাঠিয়েছে রাজ্য সরকার। সোমবার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে আলোচনার সময় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এই প্রসঙ্গে উত্থাপন করেন।

 

· গুজরাট : রাজ্যে কোভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৮ হাজার ৯০৩। রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী নতুন করে ৩৬২ জন আক্রান্ত হয়েছেন। গতকাল ২৪ জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে। রাজ্যে ১৩৫টির বেশি পুর এলাকায় শিল্প সংক্রান্ত কর্মকান্ড শুরু হয়েছে। গুজরাট থেকে প্রায় ৩ লক্ষ প্রবাসী শ্রমিক নিজেদের রাজ্যের উদ্দেশে রওনা হয়েছেন।

 

· রাজস্থান : রাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৪ হাজার ছাড়িয়েছে। রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের আজ বেলা ২টো পর্যন্ত পাওয়া তথ্যানুযায়ী আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দঁড়িয়েছে ৪ হাজার ১৭৩। আজ নতুন করে ১৫২ জনের আক্রান্তের খবর মিলেছে। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, কোয়ারেন্টাইনের বিষয়টিকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।

 

· মধ্যপ্রদেশ : রাজ্যে নতুন করে ২০১ জনের সংক্রমণের ফলে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩ হাজার ৯৮৬। এখনও পর্যন্ত সুস্থ হওয়ার পর ৫৩৫ জন রোগীকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। রাজ্য সরকার অনলাইন স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ই-সঞ্জিবনী পোর্টাল চালু করেছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের টেলিমেডিসিন সংক্রান্ত ই-সঞ্জিবনী স্বাস্থ্য পরিষেবা রাজ্য সরকার রূপায়ণ করছে।

 

 

 

CG/BD/SB



(Release ID: 1623690) Visitor Counter : 30


Read this release in: English , Urdu , Hindi , Marathi , Assamese , Manipuri , Punjabi , Gujarati , Telugu , Kannada , Malayalam