প্রধানমন্ত্রীরদপ্তর
azadi ka amrit mahotsav

সর্বভারতীয় প্রিসাইডিং অফিসারদের ৮২তম সম্মেলনের উদ্বোধনী অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ

ভারতে গণতন্ত্র কেবল একটি ব্যবস্থা নয়, গণতন্ত্র আমাদের মজ্জায় নিহিত এবং জীবনের অঙ্গ

ভারতীয় যুক্তরাষ্ট্রীয় ব্যবস্থায় সমস্ত রাজ্যের ভূমিকা ‘সবকা প্রয়াস’ – এর বড় ভিত্তি

সংসদে আমরা প্রতি বছর এমন ৩-৪ দিন স্থির করতে পারি, যেখানে জনপ্রতিনিধিরা সমাজের জন্য বিশেষ কিছু করবেন এবং তাঁদের সমাজ-জীবনের বিভিন্ন দিক সম্বন্ধে দেশকে অবহিত করবেন

সংসদে সুষ্ঠু ও সুস্থ তর্ক-বিতর্কের জন্য নির্দিষ্ট সময় ও দিন স্থির করা যেতে পারে

সংসদীয় ব্যবস্থায় প্রযুক্তির প্রয়োজনীয় প্রসারে ওয়ান নেশন, ওয়ান লেজিসলেটিভ প্ল্যাটফর্ম গড়ে তোলা যেতে পারে, যা দেশের সমস্ত গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলির মধ্যে যোগাযোগ রক্ষা করবে

Posted On: 17 NOV 2021 11:37AM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ১৭ নভেম্বর, ২০২১

 

প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী আজ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সর্বভারতীয় প্রিসাইডিং অফিসারএর ৮২তম সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভাষণ দেন। এই উপলক্ষে লোকসভার অধ্যক্ষ, হিমাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী এবং রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান উপস্থিত ছিলেন। 

সম্মেলনে তাঁর ভাষণে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভারতে গণতন্ত্র কেবল একটি ব্যবস্থা নয়, গণতন্ত্র আমাদের মজ্জায় নিহিত এবং জীবনের অঙ্গ। তিনি জোর দিয়ে বলেন, দেশকে আমাদের এক নতুন উচ্চতায় নিয়ে যেতে হবে, আগামী বছরগুলিতে অনন্য উদ্দেশ্য পূরণ করতে হবে। তবে, এই উদ্দেশ্য কেবল ‘সবকা প্রয়াস’-এর মাধ্যমে পূরণ হবে। গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় ভারতীয় যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামো থেকে আমরা যখন ‘সবকা প্রয়াস’ – এর কথা বলি, তখন সমস্ত রাজ্যের ভূমিকা এই মন্ত্রের বড় ভিত্তি। সবকা প্রয়াসের বড় গুরুত্ব সম্বন্ধে বলতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী জানান, কয়েক দশক পুরনো উত্তর-পূর্বের সমস্যার সমাধানই হোক বা কয়েক দশক থমকে থাকার পর বড়মাপের উন্নয়নমূলক প্রকল্পগুলির বাস্তবায়ন – গত কয়েক বছরে এরকম অনেক কাজ হয়েছে। সকলের সমবেত প্রয়াসেই এই সাফল্য মিলেছে। করোনা মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ‘সবকা প্রয়াস’ এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত বলেও তিনি অভিমত প্রকাশ করেন। 

প্রধানমন্ত্রী জোর দিয়ে বলেন, আমাদের আইনসভাগুলির ঐতিহ্য ও ব্যবস্থা হবে সম্পূর্ণরূপে ভারতীয় ঘরানার। ‘এক ভারত, শ্রেষ্ঠ ভারত’ – এর আবেগকে আরও শক্তিশালী করতে তিনি সরকারি নীতি ও আইন প্রণয়নে আহ্বান জানান। সর্বোপরি, আইনসভায় আমাদের আচরণের সঙ্গে ভারতীয় মূল্যবোধ নিহিত থাকবে। আর, এটা পালন করাই আমাদের সকলের কর্তব্য। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশ বিবিধতায় পূর্ণ। হাজার বছরের উন্নয়নে আমরা উপলব্ধি করতে পেরেছি যে, বৈচিত্র্যের মাঝে একতার অপার, ঐশ্বরিক এবং অবিচ্ছিন্ন স্রোত প্রবাহিত হয়। একতার এই অবিচ্ছিন্ন ধারা আমাদের বৈচিত্র্যকে লালন-পালন ও সংরক্ষণ করে। 

প্রধানমন্ত্রী এই প্রস্তাব দেন যে, যদি আমরা সংসদে প্রতি বছর এমন ৩-৪ দিন স্থির করতে পারি, যেখানে জনপ্রতিনিধিরা সমাজের জন্য বিশেষ কিছু করবেন এবং তাঁদের সমাজ-জীবনের বিভিন্ন দিক সম্বন্ধে দেশকে অবহিত করবেন। তিনি বলেন, জনপ্রতিনিধিদের পাশাপাশি, সাধারণ মানুষও এ থেকে অনেক কিছু শিখতে পারবেন। 

সংসদে সুষ্ঠু ও সুস্থ তর্ক-বিতর্কের জন্য নির্দিষ্ট সময় ও দিন স্থির করা যেতে পারে বলেও প্রধানমন্ত্রী প্রস্তাব দেন। তিনি বলেন, এই তর্ক-বিতর্ক এমনভাবে হবে, যাতে মর্যাদার পরম্পরা এবং বিচক্ষণতার গাম্ভীর্য উভয়ই অটুট থাকবে। যেখানে জনপ্রতিনিধিরা কাউকে নিয়ে রাজনৈতিক অপবাদ দেবেন না। এমনকি, সংসদীয় কাজকর্ম সুষ্ঠুভাবে স্বাস্থ্যকর পরিবেশে পরিচালিত হবে। 

প্রধানমন্ত্রী সংসদীয় ব্যবস্থায় প্রযুক্তির প্রয়োজনীয় প্রসারে ওয়ান নেশন, ওয়ান লেজিসলেটিভ প্ল্যাটফর্ম গড়ে তোলা যেতে পারে বলে প্রস্তাব দেন, যা দেশের সমস্ত গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলির মধ্যে যোগাযোগ রক্ষা করবে। 

প্রধানমন্ত্রী জোর দিয়ে বলেন, ভারতের কাছে আগামী ২৫ বছর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই প্রেক্ষিতে তিনি সংসদদের কেবল একটি মন্ত্র বাস্তবায়িত করার পরামর্শ দেন এবং তা হ’ল – কর্তব্য, কর্তব্য, কর্তব্য। 

 

CG/BD/SB



(Release ID: 1772648) Visitor Counter : 96