মন্ত্রিসভারঅর্থনৈতিকবিষয়সংক্রান্তকমিটি

ইথানল মিশ্রিত পেট্রোল কর্মসূচির আওতায় রাষ্ট্রায়ত্ত তেল বিপণন সংস্থাগুলির মাধ্যমে ইথানল সংগ্রহের পদ্ধতি সংশোধনের প্রস্তাব মন্ত্রিসভায় অনুমোদিত

Posted On: 10 NOV 2021 3:46PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ১০ নভেম্বর, ২০২১

 

প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদীর পৌরোহিত্যে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত কমিটি আসন্ন ২০২০-২১ চিনি মরশুমে ইথানল মিশ্রিত পেট্রোল কর্মসূচির আওতায় বিভিন্ন ধরনের আখ-ভিত্তিক কাঁচামাল থেকে নির্গত ইথানলের মূল্য বাড়ানোর একটি প্রস্তাব অনুমোদন করেছে। এছাড়াও, মন্ত্রিসভা নিম্নলিখিত বিষয় অনুমোদন করেছে। সি-শ্রেণীর মোটা জাতীয় গুড় থেকে নির্গত ইথানলের মূল্য লিটার প্রতি ৪৫ টাকা ৬৯ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ৪৬ টাকা ৬৬ পয়সা করা। বি-শ্রেণীর মোটা জাতীয় গুড় থেকে নির্গত ইথানলের মূল্য লিটার প্রতি ৫৭ টাকা ৬১ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ৫৯ টাকা ৮ পয়সা করা। আখের রস/সিরাপ থেকে নির্গত ইথানলের মূল্য বাড়িয়ে লিটার প্রতি ৬২ টাকা ৬৫ পয়সা থেকে ৬৩ টাকা ৪৫ পয়সা করা। অবশ্য, জিএসটি এবং পরিবহণ বাবদ শুল্ক পৃথকভাবে প্রযোজ্য হবে।

সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, রাষ্ট্রায়ত্ত তেল বিপণন সংস্থাগুলিকে ২জি ইথানলের মূল্য স্থির করার স্বাধীনতা দেওয়া হবে। এর ফলে, দেশে আধুনিক জৈব জ্বালানী পরিশোধনাগার স্থাপনের পথ সুগম হবে। উল্লেখ করা প্রয়োজন, দানাশস্য-ভিত্তিক ইথানলের মূল্য বর্তমানে তেল বিপণন সংস্থাগুলিই নির্ধারণ করে থাকে। 

মন্ত্রিসভার এই সিদ্ধান্তের ফলে না কেবল ইথানলের মূল্য স্থিতিশীল থাকবে, সেই সঙ্গে ইথানল সরবরাহকারীদেরও মুনাফা হবে। একইভাবে, আখ চাষীদের কাছে প্রদেয় বকেয়ার পরিমাণ কমবে, অপরিশোধিত তেল আমদানির ওপর নির্ভরশীলতা হ্রাস পাবে। এমনকি, বিদেশি মুদ্রা সঞ্চয়ের পাশাপাশি, পরিবেশের স্বার্থও সুরক্ষিত থাকবে। সমস্ত ইথানল উৎপাদকরা এই কর্মসূচির সুবিধা নিতে পারবেন এবং অধিকাংশ উৎপাদকই ইথানল মিশ্রিত পেট্রোলিয়াম কর্মসূচির আওতায় ইথানল যোগান দিতে পারবেন।

কেন্দ্রীয় সরকার ইথানল মিশ্রিত পেট্রোল কর্মসূচি রূপায়ণ করে আসছে এবং এই কর্মসূচিতে তেল বিপণন সংস্থাগুলি ১০ শতাংশ পর্যন্ত ইথানল মিশিয়ে পেট্রোল বিক্রি করছে। ইথানল মিশ্রিত পেট্রোল কর্মসূচিটি কেন্দ্রশাসিত আন্দামান ও নিকোবর এবং লাক্ষাদ্বীপ বাদে দেশের সর্বত্র ২০১৯-এর পয়লা এপ্রিল থেকে কার্যকর হচ্ছে। দেশে বিকল্প ও পরিবেশ-বান্ধব জ্বালানীর প্রয়োগ ও পরিধি বাড়াতে এই উদ্যোগ। মন্ত্রিসভার এই সিদ্ধান্ত শক্তি চাহিদার ওপর আমদানি নির্ভরশীলতা কমাতে এবং কৃষি ক্ষেত্রের বিকাশে সহায়ক হবে বলে মনে করা হচ্ছে। 

 

CG/BD/SB



(Release ID: 1770624) Visitor Counter : 50