নারীওশিশুবিকাশমন্ত্রক

আজাদি কা অমৃত মহোৎসবের অঙ্গ হিসেবে পুরো সেপ্টেম্বর মাস দেশজুড়ে বিষয় ভিত্তিক পোষণ মাস উদযাপিত হবে

Posted On: 29 AUG 2021 11:45AM by PIB Kolkata

নতুন দিল্লি, ২৯ আগস্ট, ২০২১

 

ভারত সরকারের একটি ফ্ল্যাগশিপ কর্মসূচি হল পোষণ অভিযান। এই অভিযানের মাধ্যমে শিশু, বয়ঃসন্ধিকালীন বালিকা, প্রসূতি মহিলা এবং স্তন্যদাত্রী মায়েদের শারীরিক পুষ্টির মান বাড়ানোর ওপর গুরুত্ব দেওয়া হয়। উল্লেখ করা যেতে পারে, প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী ২০১৮-র ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবসে রাজস্থানের ঝুনঝুনু থেকে পোষণ অভিযানের সূচনা করেন। মিশন মোড ভিত্তিতে অপুষ্টির সমস্যা দূর করতে এই কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়। এবারের সাধারণ বাজেটে দ্বিতীয় পর্যায়ে পোষণ অভিযান চালু করার কথা ঘোষণা হয়। পোষণ অভিযানের দ্বিতীয় পর্যায়ে পুষ্টিগত উপাদান, পৌষ্টিক খাবার সরবরাহ, অসুস্থতা ও অপুষ্টি দূর করতে আরও বেশি পুষ্টির সংস্থানের ওপর জোর দেওয়া হয়। 

স্থানীয় স্বশাসিত সংস্থা, রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির বিভিন্ন দপ্তর ও বেসরকারি ক্ষেত্রের পাশাপাশি সাধারণ মানুষের অংশগ্রহণের মাধ্যমে পোষণ অভিযান জনআন্দোলনের রূপ নিয়েছে। তাই প্রতি বছর সেপ্টেম্বর মাসে সাধারণ মানুষের অংশগ্রহণ বাড়াতে পোষণ মাস উদযাপন করা হয়। 

এবছর ভারত আজাদি কা অমৃত মহোৎসব উদযাপন করছে। এই প্রেক্ষিতে পোষণ অভিযানের দ্রুত ও নিবিড় রূপায়ণে পুরো সেপ্টেম্বর মাসে সাপ্তাহিক ভিত্তিতে নির্দিষ্ট বিষয় ভিত্তিক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় মহিলা ও শিশু কল্যাণ মন্ত্রক রাজ্য/কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির সহযোগিতায় পুরো সেপ্টেম্বর মাসজুড়ে একগুচ্ছ কর্মসূচি গ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই প্রেক্ষিতে ১-৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত পুষ্টি অভিযানের প্রথম সপ্তাহের মূল ভাবনা পোষণ বটিকা হিসেবে চারাগাছ রোপন। দ্বিতীয় সপ্তাহে ৮-১৫ সেপ্টেম্বর অভিযানের মূল বিষয় পুষ্টির জন্য যোগ ও আয়ূষ। অভিযানের তৃতীয় সপ্তাহ ১৬-২৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সারা দেশজুড়ে উদযাপাতি হবে। এই সপ্তাহের মূল বিষয় অপুষ্টির বেশি এমন জেলাগুলিতে অঙ্গনওয়াড়ি সুফলভোগীদের মধ্যে আঞ্চলিক পুষ্টি কিট বিতরণ। অভিযানের চতুর্থ সপ্তাহ ২৪-৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত উদযাপিত হবে। এই সপ্তাহের মূল বিষয় অপুষ্টি ও বয়সের তুলনায় কম ওজন বিশিষ্ট শিশুদের চিহ্নিত করা এবং পৌষ্টিক খাবার সরবরাহ। 

এবছর পোষণ মাস উদযাপনে পুরো সেপ্টেম্বর মাসজুড়ে পোষণ বটিকা কর্মসূচিতে চারাগাছ রোপন করা হবে। অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্র, বিদ্যালয় প্রাঙ্গন, গ্রামপঞ্চায়েত ও অন্যান্য জায়গায় চারাগাছ রোপনের পরিকল্পনা রয়েছে। পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ বিভিন্ন চারাগাছ এবং ভেষজ গুণ সম্পন্ন চারাগাছ লাগানো হবে। রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে বিভিন্ন সরকারি দপ্তর ও সংস্থার সহযোগিতায় সারা মাস জুড়ে পুষ্টি সম্পর্কে সচেতনতা অভিযান গ্রহণ করা হচ্ছে। একেবারে তৃণমূল স্তর পর্যন্ত এই অভিযান পরিচালিত হবে।  

 

CG/BD/AS/



(Release ID: 1750208) Visitor Counter : 92