সারওরসায়নমন্ত্রক

ভারতে রেমডেসিভিরের সহজলভ্যতার জন্য সরকার দ্রুত পদক্ষেপ নিয়েছে

Posted On: 17 MAY 2021 2:58PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লী, ১৭  মে, ২০২১

 

এপ্রিল মাসে কোভিড-১৯এর সংক্রমণের হার বৃদ্ধি পাওয়ায় চিকিৎসার জন্য ফার্মাসিউটিক্যাল দপ্তর বিভিন্ন ওষুধের বিষয়ে নজরদারি শুরু করে। রেমডেসিভির একটি পেটেন্ট ওষুধ।  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের গিলিড লাইফ সায়েন্স স্বেচ্ছায় এই ওষুধের লাইসেন্স ভারতের ৭টি সংস্থাকে দিয়েছে। এই ৭টি সংস্থা হল : সিপলা, ডঃ রেড্ডিজ ল্যাবরেটরি, হেটেরো, জুবিলিয়েট ফার্মা, মাইল্যান, সিনজিন এবং জাইডাস ক্যাডিলা।

দেশে রেমডেসিভিরের উৎপাদন বাড়াতে এই ৭টি সংস্থাকে নির্দেশ দেওয়া হয়। কেন্দ্রের উদ্যোগে সবকটি সংস্থার উৎপাদন ক্ষমতা বাড়ানোর ফলে প্রতি মাসে ১ কোটি ১৯ লক্ষ ভয়েল উৎপাদন করা সম্ভব হচ্ছে। আগে প্রতি মাসে ৩৮ লক্ষ ভয়েল উৎপাদিত হত। ৩৮টি অতিরিক্ত উৎপাদন করার জায়গার অনুমতি দেওয়ার পর এই ৭টি সংস্থা বর্তমানে ২২টির পরিবর্তে ৬০টি জায়গায় রেমডেসিভির উৎপাদন করছে। এছাড়াও বিদেশ থেকে রেমডেসিভিরের কাঁচামাল আমদানির জন্য বিদেশ মন্ত্রক সাহায্য করছে।

সব রকমের উদ্যোগের ফলে দেশে রেমডেসিভিরের সহজলভ্যতা বেড়েছে। ১১ই এপ্রিল থেকে এই ওষুধ রপ্তানী নিষেধ করা হয়েছে। রেমডেসিভির ইঞ্জেকশন, রেমডেসিভির এপিআই এবং বেটা সাইক্লোডেক্সট্রিন আমদানির ক্ষেত্রে সীমা শুল্কে ছাড় দেওয়া হয়েছে।

দেশে রেমডেসিভিরের চাহিদা হঠাৎ করে বেড়ে যাওয়ায় কেন্দ্র এপ্রিলের তৃতীয় সপ্তাহ থেকে বিভিন্ন রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের জন্য এই ইঞ্জেকশন বরাদ্দ করা শুরু করে। ১৯টি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে চাহিদার কথা বিবেচনা করে ২১ এপ্রিল ১১ লক্ষ ভয়েল পাঠানো হয়। পরবর্তীতে ২৪শে এপ্রিল সব রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের জন্য বরাদ্দের পরিমাণ বাড়িয়ে ১৬ লক্ষ করা হয়। এভাবে ধাপে ধাপে বাড়ানোর পর ১৬ই মে এই পরিমাণ দাঁড়ায় ৭৬ লক্ষে।

এইমস/আইসিএমআর কোভিড-১৯ জাতীয় টাস্ক ফোর্স এবং যৌথ নজরদারি গোষ্ঠীর পরামর্শ অনুযায়ী যাতে এই ইঞ্জেকশন প্রয়োগ করা হয় রাজ্য সরকারগুলি এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলকে সেই মর্মে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।  সমস্ত সরকারি এবং বেসরকারী হাসপাতালে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। রাজ্য সরকারগুলিকে এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের প্রশাসনকে সমন্বয় বজায় রেখে উৎপাদক সংস্থাগুলির থেকে এই ওষুধ আনার বিষয়ে আগে থেকে পরিকল্পনা করতে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। যেসমস্ত রোগীর ইঞ্জেকশনের প্রয়োজন শুধুমাত্র তাঁরাই যাতে এটি পেতে পারেন রাজ্য সরকারগুলিকে তা নিশ্চিত করতে হবে। যে  ৭টি ভারতীয় সংস্থা এই ওষুধ উৎপাদন করছে তারা সরকারের বরাত অনুযায়ী তা সরবরাহ করছে। এছাড়াও বেসরকারীভাবেও এই ওষুধ বিক্রি চলছে। ২১ এপ্রিল থেকে ১৫ মে এই সময়কালে ৫৪ লক্ষ ১৫ হাজার রেমডেসিভির ভয়েল সরবরাহ করা হয়েছে।ফার্মাসিউটিক্যাল দপ্তর এবং ন্যাশনাল ফার্মাসিউটিক্যাল্স প্রাইসিং অথরিটি রাজ্যগুলির সঙ্গে নোডাল আধিকারিকদের মাধ্যমে যোগাযোগ রেখে চলেছে।

এগুলি ছাড়াও ১৬ মে পর্যন্ত পাওয়া হিসেবে ৫ লক্ষ ২৬ হাজার রেমডেসিভিরের ভয়েল বিভিন্ন দেশ এবং সংস্থার পক্ষ থেকে অনুদান হিসেবে এসেছে। এছাড়াও ৪০ হাজার ভয়েল বাণিজ্যিকভাবে আমদানি করা হয়েছে। এই ভয়েলগুলি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিকে প্রয়োজন অনুসারে বরাদ্দ করা হয়েছে।

 

CG/CB/NS



(Release ID: 1719463) Visitor Counter : 25