PIB Headquarters

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত পিআইবি’র প্রাত্যহিক সংবাদ

Posted On: 07 SEP 2020 6:20PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ০৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০

 

 

দেশে আরোগ্য লাভের সংখ্যায় ক্রমশ অগ্রগতি, আজ এই সংখ্যা ৩২ লক্ষ ৫০ হাজার ছাড়িয়েছে; দেশে মোট আক্রান্তের ৬০ শতাংশ নিশ্চিতভাবে আক্রান্তের ৬২ শতাংশ এবং মৃত্যু হারের ৭০ শতাংশই ৫টি রাজ্য থেকে
ক্রমাগত অগ্রগতির ধারা বজায় রেখে দেশে করোনায় আরোগ্যলাভের সংখ্যা আজ ৩২ লক্ষ ৫০ হাজার ছাড়িয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়েছেন ৬৯ হাজার ৫৬৪ জন। এর ফলে, সুস্থতার হার বেড়ে হয়েছে ৭৭.৩১ শতাংশ। টেস্ট, ট্র্যাক ও ট্রিট রণকৌশলের অঙ্গ হিসাবে একাধিক কার্যকর ও সুসমন্বিত প্রয়াস গ্রহণের ফলে ব্যাপক হারে নমুনা পরীক্ষার মাধ্যমে আক্রান্তদের আগাম চিহ্নিতকরণ সম্ভব হয়েছে। এছাড়াও, উন্নত অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা, রোগীদের উপযুক্ত চিকিসা পরিষেবা, সময় মতো হাসপাতালে স্থানান্তকরণ প্রভৃতি উদ্যোগের ফলে কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ক্রমশ কমছে এবং আরোগ্য লাভের পর হাসপাতাল থেকে অধিক সংখ্যায় ছাড়া পাচ্ছেন। আরোগ্য লাভের সংখ্যা বৃদ্ধির ফলে দেশে আজ পর্যন্ত মৃত্যু হার কমে হয়েছে ১.৭০ শতাংশ। দেশে মোট আক্রান্তের ৬০ শতাংশই ৫টি রাজ্য থেকে এই রাজ্যগুলির মধ্যে সবার উপরে রয়েছে মহারাষ্ট্র (২১.৬ শতাংশ) এরপর রয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশ (১১.৮ শতাংশ), তামিলনাডু (১১ শতাংশ), কর্ণাটক (৯.৫ শতাংশ) এবং উত্তর প্রদেশ (৬.৩ শতাংশ)। দেশে নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের ২৬.৭৬ শতাংশই মহারাষ্ট্র থেকে। এর পর রয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশ (১১.৩০ শতাংশ), কর্ণাটক (১১.২৫ শতাংশ), উত্তর প্রদেশ (৬.৯৮ শতাংশ) এবং তামিলনাডু (৫.৮৩ শতাংশ)। এই ৫টি রাজ্য থেকে বর্তমানে নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের হার ৬২ শতাংশ। দেশে আজ পর্যন্ত করোনা থেকে আরোগ্য লাভের সংখ্যা ৩২ লক্ষ ৫০ হাজার ৪২৯। গত ২৪ ঘন্টায় সর্বাধিক ১১ হাজার ৯১৫ জন আরোগ্য লাভ করেছেন অন্ধ্রপ্রদেশ থেকে। কর্ণাটক ও মহারাষ্ট্র থেকে আরোগ্য লাভের সংখ্যা যথাক্রমে ৯ হাজার ৫৭৫ এবং ৭ হাজার ৮২৬। তামিলনাডু থেকে সুস্থ হয়েছেন ৫ হাজার ৮২০ জন এবং উত্তর প্রদেশ থেকে ৪ হাজার ৭৭৯ জন আরোগ্য লাভ করেছেন। দেশে গত ২৪ ঘন্টায় মোট আরোগ্য লাভের মধ্যে ৫৭ শতাংশই এই ৫টি রাজ্য থেকে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1651925এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সর্বশেষ তথ্য; নতুন করে সংক্রমিত ও সুস্থতা এবং মৃত্যু সংক্রান্ত রাজ্য/কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির তথ্য
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1651924এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

পাঞ্জাব ও চন্ডীগড়ে ১০ দিন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দল থাকবে কোভিড-১৯ এর জন্য প্রতিরোধ, নজরদারী নমুনা পরীক্ষা ও চিকিসা ব্যবস্থায় সাহায্য করবে কেন্দ্রীয় দল
কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রক পাঞ্জাব ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল চন্ডীগড়ে কেন্দ্রীয় দল পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কোভিড সংক্রমণের হার কমান, সংক্রমিতদের মৃত্যুর হার হ্রাস করার জন্য প্রতিরোধ, নমুনা পরীক্ষা ও যথাযথ চিকিসা ব্যবস্থা সহ জন স্বাস্থ্যের বিভিন্ন বিষয়ে উচ্চ পর্যায়ের এই দলটি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল কতৃপক্ষকে সাহায্য করবে। দ্রুত সংক্রমণ শনাক্তকরণ এবং যথাযথ চিকিসার ব্যবস্থা করতেও দলের সদস্যরা সাহায্য করবেন। সদস্যের এই দলে একজন চন্ডীগড়ের পিজিআইএমইআর-এর কমিউনিটি মেডিসিনের বিশেষজ্ঞ এবং আরেক জন এনসিডিসি-র মহামারী রোগ বিশেষজ্ঞ থাকবেন। ১০ দিন ধরে তাঁরা প্রশাসনকে সাহায্য করবেন। পাঞ্জাবে ৬০,০১৩ জন মোট সংক্রমিতের মধ্যে বর্তমানে চিকিসাধীন ১৫,৭৩১ জন। ১৭৩৯ জন সংক্রমিত মারা গেছেন। রাজ্যে প্রতি ১০ লক্ষ জনের হিসেবে ৩৭,৫৪৬ জনের নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে। বর্তমানে জাতীয় হার ৩৪৫৯৩.১। মোট ৪.৯৭% সংক্রমিত হয়েছেন। কেন্দ্রশাসিত চন্ডীগড়ে চিকিসাধীন ২০৯৫ জন। সেখানে এ পর্যন্ত ৫২৬৮ জন সংক্রমিত হয়েছেন। প্রতি ১০ লক্ষ জনের হিসেবে ৩৮,০৫৪ জনের নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে। মোট ১১.৯৯% সংক্রমিত হয়েছেন।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1651728এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

কোভিড সংক্রমণ বেশি এবং একারণে মৃত্যুর হার বৃদ্ধি পেয়েছে এমন ৬টি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের স্বাস্থ্য সচিবদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিব
কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক দেশে যেসব রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে হঠা করে কোভিড সংক্রমণ বেড়ে যাচ্ছে ও সংক্রমিতদের মৃত্যুর হার বেশি হচ্ছে ধরণের রাজ্যগুলির সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রেখে চলেছে এবং যে জেলাগুলিতে সংক্রমণের হার বেশি সেই জেলাগুলির পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিচ্ছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিব ৩৫টি জেলার পরিস্থিতি বিবেচনা করে ওই জেলাগুলি যেসব রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের অন্তর্গত সেইসব রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের স্বাস্থ্য সচিবদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। এই ৩৫টি জেলা হল : পশ্চিমবঙ্গের কলকাতা, হাওড়া, উত্তর ২৪ পরগনা ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, মহারাষ্ট্রের পুনে, নাগপুর, থানে, মুম্বাই, মুম্বাই শহরতলি, কোলাপুর, সাঙ্গলি, নাসিক, আমেদনগর, রায়গড়, জলগাঁও, শোলাপুর, সাতারা, পালঘর, আউরঙ্গাবাদ, ধুলে এবং নান্দেদ, গুজরাটের সুরাট, ঝাড়খন্ডের পূর্ব সিংভূম, পুদুচেরীর পন্ডিচেরী এবং দিল্লীর ১১টি জেলার সবকটি। স্বাস্থ্য সচিবরা ছাড়াও এই বৈঠকে জেলা কালেক্টর, পুরসভার কমিশনার সহ সংশ্লিষ্ট জেলার উর্দ্ধতন আধিকারিকরা ডিজিটাল মাধ্যমে যোগ দিয়েছিলেন।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1651732এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

উত্তরপ্রদেশ সুসংহত কোভিড নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র এবং রাজ্য স্তরের একটি পোর্টাল তৈরি করেছে
দেশে ৯ মাস ধরে মহামারীর সমস্যা চলছে। কেন্দ্র কোভিডের মোকাবিলায় বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করছে। রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলি কেন্দ্রের বিভিন্ন নীতিকে বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে একযোগে কাজ করে চলেছে। উত্তরপ্রদেশ সরকার এক্ষেত্রে বেশকিছু উদ্যোগ নিয়েছে। উত্তরপ্রদেশ সরকার ১৮ই জুলাই সুসংহত কোভিড কেন্দ্র এবং কম্যান্ড সেন্টার রাজ্যের রাজধানী সহ প্রতিটি জেলায় গড়ে তুলেছে। সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলি সংক্রমিতদের বিষয়ে তথ্য দেওয়ার পাশাপাশি কোভিড মোকাবিলায় বিভিন্ন ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করেছে। এই কেন্দ্রগুলি আঞ্চলিক স্তরে দ্রুত নমুনা পরীক্ষা নিশ্চিত করা, সংক্রমিতদের জন্য যথাযথ চিকিসার ব্যবস্থা করছে। উত্তরপ্রদেশ সরকার একটি কোভিড সংক্রান্ত পোর্টাল তৈরি করেছে। http://upcovid19tracks.in/- এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে কোভিড সংক্রমিতদের নজরদারি, পরীক্ষা-নিরীক্ষা এবং চিকিসার বিষয়ে সবরকমের তথ্য সরবরাহ করা হচ্ছে। এই পোর্টাল, কেন্দ্রীয় সরকারের পোর্টালটিতেও প্রয়োজনীয় তথ্য সরবরাহ করছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1651789এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

ভারতকে আত্মনির্ভর করে তুলতে ধূপকাঠি বানানোর জন্য শিল্পীদের সহযোগিতা কয়েকগুণ বাড়িয়েছে সরকার
সংশ্লিষ্ট সবপক্ষের স্বার্থ সুরক্ষিত রেখে এক সুসংবদ্ধ প্রয়াসের অঙ্গ হিসাবে কেন্দ্রীয় অতিক্ষুদ্র, ছোট ও মাঝারি শিল্পোদ্যোগ মন্ত্রক ধূপকাঠি শিল্প এবং ধূপকাঠি বানানোর কাজে যুক্ত শিল্পীদের সহায়তায় গত ৪ঠা সেপ্টেম্বর নতুন নীতি-নির্দেশিকা জারি করেছে। মন্ত্রক গত ৩০শে জুলাই ধূপকাঠি শিল্প ও শিল্পীদের সহায়তায় যে কর্মসূচির সূচনা করেছে, তাতে শিল্প সংস্থাগুলির বিভিন্ন বিষয়ের সমাধানে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে, ধূপকাঠি বানানোর জন্য প্রয়োজনীয় যন্ত্র সরবরাহের পাশাপাশি, কাঁচামালের যোগান ও অন্যান্য প্রযুক্তিগত তথ্য সরবরাহের বিষয়গুলিকেও কর্মসূচিতে সামিল করা হয়েছে।উল্লেখ করা যেতে পারে, গত এক বছরে দেশে ধূপকাঠির চাহিদা লক্ষ্যণীয় হারে বৃদ্ধি পেয়েছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1651728এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

জটিল কোভিড পরিস্থিতি ও লকডাউন সত্ত্বেও বিপিপিআই ২০২০-২১ এর প্রথম ত্রৈমাসিকে ১৪৬.৫৯ কোটি টাকার রেকর্ড লেনদেন করেছে
জটিল কোভিড পরিস্থিতি ও লকডাউন সত্ত্বেও ব্যুরো অফ ফার্মা পিএসইউ অফ ইন্ডিয়া বা বিপিপিআই ২০২০-২১ এর প্রথম ত্রৈমাসিকে রেকর্ড ১৪৬ কোটি ৫৯ লক্ষ টাকার লেনদেন করেছে। প্রধানমন্ত্রী জনঔষধি পরিযোজনার রূপায়ণকারী সংস্থা হ বিপিপিআই। ২০১৯-২০র প্রথম ত্রৈমাসিকে লেনদেনের পরিমাণ ছিল ৭৫ কোটি ৪৮ লক্ষ টাকা। চলতি বছরের জুলাই মাসে বিপিপিআই ৪৮ কোটি ৬৬ লক্ষ টাকার লেনদেন করেছে। এর ফলে, জুলাই মাসের শেষে সংস্থার মোট বিক্রয়ের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১৯১ কোটি ৯০ লক্ষ টাকা। দেশ জুড়ে লকডাউনের সময় জনঔষধি কেন্দ্রগুলিতে স্বাভাবিক কাজকর্ম হয়েছে এবং অত্যাবশ্যকীয় ওষুধপত্রের নিরবচ্ছিন্ন যোগান অব্যাহত রাখার অঙ্গীকারের অঙ্গ হিসাবে জটিল পরিস্থিতিতেও অত্যাবশ্যকীয় ওষুধ গ্রাহকদের কাছে পৌঁছে দিতে পেরেছে। জনঔষধি কেন্দ্রগুলি থেকে ১৫ লক্ষ ফেসমাস্ক, ২৮ লক্ষ হাইড্রোঅক্সিক্লোরোকুইন ট্যাবলেট এবং ১ কোটি প্যারাসিটামল ট্যাবলেট বিক্রি করেছে। কেন্দ্রগুলি থেকে এই বিপুল পরিমাণ ওষুধ সামগ্রী বিক্রয়ের ফলে সাধারণ মানুষের প্রায় ১ হাজার ২৬০ কোটি টাকা সাশ্রয় হয়েছে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1651798এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

শ্রী থাওয়ার চাঁদ গেহলট মানসিক স্বাস্থ্য পুনর্বাসন সংক্রান্ত ২৪X৭ নি;শুল্ক হেল্পলাইন কিরণ এর সূচনা করেছেন
কেন্দ্রীয় সামাজিক ন্যায়-বিচার ও ক্ষমতায়ন মন্ত্রী শ্রী থাওয়ার চাঁদ গেহলট আজ মানসিক বিকারগ্রস্ত রোগীদের সাহায্য করতে ২৪X৭ নিঃশুল্ক মানসিক স্বাস্থ্য পুনর্বাসন সংক্রান্ত হেল্পলাইন কিরণ (১৮০০ ৫০০ ০০১৯) এর সূচনা করেছেন। কোভিড-১৯ মহামারীর প্রেক্ষিতে মানসিক ব্যাধি ক্রমাগত বৃদ্ধি পাওয়ার বিষয়টিকে বিবেচনায় রেখে মন্ত্রকের এই উদ্যোগ। শ্রী গেহলট এই উপলক্ষে নিঃশুল্ক হেল্পলাইন কিরণ সম্পর্কিত পোস্টার, ছোট পুস্তিকা ও তথ্য সম্বলিত একটি বই প্রকাশ করেন। শ্রী গেহলট বলেন, এই হেল্পলাইনের মাধ্যমে মানসিক বিকারগ্রস্তদের আগাম চিহ্নিতকরণ, তাঁদের প্রাথমিক সেবাশ্রুশ্রূষা, মনস্তাত্ত্বিক সাহায্য ও হতাশা দূরীকরণের মতো বিষয়গুলিতে পরিষেবা মিলবে। মানসিক চাপ, হতাশা, অস্থিরতা, মাদক সেবন তথা আত্মহননের মতো চিন্তাভাবনা দূর করতে এই হেল্পলাইন নম্বর সাধারণ মানুষের উপকারে আসবে।
বিস্তারিত বিবরণের জন্য https://pib.gov.in/PressReleasePage.aspx?PRID=1651963এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।


 


পিআইবির আঞ্চলিক কার্যালয় থেকে প্রাপ্ত তথ্য

চন্ডীগড় : কেন্দ্রশাসিত এই অঞ্চলের প্রশাসক কোভিডের প্রাথমিক লক্ষণগুলি দেখা দেওয়া মাত্রই অনতিবিলম্বে চিকিসা সহায়তার জন্য সাধারণ মানুষকে প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করার আহ্বান জানিয়েছেন। কেন্দ্রশাসিত এই অঞ্চলটিতে করোনা আক্রান্তদের চিকিসার জন্য পর্যাপ্ত সংখ্যায় শয্যা, ওষুধপত্র ও অন্যান্য চিকিসা সংক্রান্ত সুবিধা রয়েছে।

পাঞ্জাব : দরিদ্র পরিবারগুলিকে কোভিড-১৯ নমুনা পরীক্ষার জন্য উসাহিত করতে বিনামূল্যে খাবারের প্যাকেট বন্টনের কথা ঘোষণা করেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। তিনি আরও বলেছেন, হাসপাতালগুলিতে শয্যার কোনও অভাব নেই এবং কোভিড-১৯ মোকাবিলায় রাজ্য সরকার যাবতীয় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।

অরুণাচল প্রদেশ : রাজ্যে আরও ৮৬ জনের কোভিড-১৯ এ সংক্রমিত হওয়ার খবর মিলেছে। বর্তমানে রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ৫২০।

আসাম : রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ট্যুইটে জানিয়েছেন, গতকাল ১ হাজার ৭৬৩ জন রোগী হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন। রাজ্যে বর্তমানে নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ২৮ হাজার ২৭৩।

মণিপুর : রাজ্যে আরও ২ জনের করোনায় মৃত্যুর খবর মিলেছে এবং ১৩৯ জন আক্রান্ত হয়েছেন। রাজ্যে সুস্থতার হার ৭২ শতাংশ এবং নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৮২০ জন।

মেঘালয় : রাজ্যে নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ৪৩৩। সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৫৫৬ জন।

মিজোরাম : রাজ্যে গতকাল আরও ২১ জনের সংক্রমিত হওয়ার খবর মেলায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ১ হাজার ১১৪ হয়েছে। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩৮২।

নাগাল্যান্ড : রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪ হাজার ১৭৮। এর মধ্যে ১ হাজার ৭৮৬ জনই নিরাপত্তা কর্মী। নতুন করে আক্রান্তের খবর মেলায় রাজধানী কোহিমার একাধিক এলাকা সীল করে দেওয়া হয়েছে।

সিকিম : রাজ্যে আরও ১ জনের মৃত্যুর খবর মেলায় করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৬ হয়েছে। সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৩৮০ জন এবং নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৫৫৪।

কেরল : চতুর্থ পর্যায়ের আনলক কার্যকর হওয়ার পর রাজ্যে মেট্রো পরিষেবা শুরু হয়েছে। এদিকে মুখ্যমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কোচি মেট্রো পরিষেবার চূড়ান্ত অংশের সূচনা করেছেন। রাজ্যে গতকাল আরও ৩ হাজার ৮২ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। বর্তমানে ২২ হাজার ৬৭৬ জনের চিকিসা চলছে। এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৩৪৭ জনের।

তামিলনাডু : কেন্দ্রশাসিত পন্ডিচেরীতে গত ২৪ ঘন্টায় আরও ২৯২ জনের সংক্রমিত হওয়ার এবং ১১ জনের করোনায় মৃত্যুর খবর মিলেছে। এখানে এখনও পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৭ হাজার ৩১৬। মৃত্যু হয়েছে ২৮০ জনের। এদিকে তামিলনাডুতে আন্তঃজেলা বাস ও ট্রেন পরিষেবা শুরু হয়েছে। গতকাল রাজ্যে লকডাউন নিষেধাজ্ঞা না থাকায় বহু মানুষ মাস্ক ছাড়াই প্রকাশ্য স্থানে ঘোরাঘুরি করেছেন।

কর্ণাটক : বেঙ্গালুরুতে ১৫০ দিন পর আজ থেকে পুনরায় মেট্রো রেল পরিষেবা শুরু হয়েছে। তবে, যাত্রী সংখ্যা ছিল অতি নগণ্য। ৫ মাস ধরে করোনা সঙ্কটের পর রাজ্যের পর্যটন ক্ষেত্র ধীরে ধীরে স্বাভাবিক ছন্দে ফিরছে। এদিকে রাজ্যে গতকাল আরও ৯ হাজার ৩১৯ জনের সংক্রমিত হওয়ার খবর মেলায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লক্ষ ৯৮ হাজার হয়েছে।

অন্ধ্রপ্রদেশ : রাজ্য সরকার আজ কেন্দ্রের নীতি-নির্দেশিকার সঙ্গে সঙ্গতি রেখে চতুর্থ পর্যায়ের আনলক সংক্রান্ত নিয়মাবলী প্রকাশ করেছে। এদিকে রাজ্য সরকার আগামী ২১শে সেপ্টেম্বর থেকে নবম ও দশম শ্রেণীর ছাত্রছাত্রীদের জন্য বিদ্যালয়ে পঠন-পাঠনের অনুমতি দিয়েছে। আগামি ২১ তারিখ থেকে খোলা রঙ্গমঞ্চে অনুষ্ঠান আয়োজনে অনুমতি দেওয়া হলেও সিনেমা হল, সুইমিং পুল ও বিনোদন পার্কগুলিকে বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এদিকে রাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৫ লক্ষেরও কিছু কম।

তেলেঙ্গানা : রাজ্যে গত ২৪ ঘন্টায় আরও ১ হাজার ৮০২ জনের সংক্রমিত হওয়ার এবং ৯ জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৪২ হাজার ছাড়িয়েছে। নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩১ হাজার ৬৩৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ৮৯৭ জনের। এদিকে রাজ্যে ১ লক্ষ ১০ হাজারেরও বেশি করোনা রোগী আরোগ্য লাভ করায় সুস্থতার হার বেড়ে হয়েছে ৭৭.২ শতাংশ, জাতীয় স্তরে এই হার ৭৭.২৫ শতাংশ। পাঁচ মাসেরও বেশি সময় বন্ধ থাকার পর রাজ্যে মেট্রো পরিষেবা পুনরায় শুরু হয়েছে।

মহারাষ্ট্র : রাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশ ঊর্ধ্বগামী। গত ৭ দিনে ২ হাজার ২০৫ জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে। আক্রান্ত হয়েছেন ১ লক্ষ ২৬ হাজারেরও বেশি। সারা দেশে নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের এক-চতুর্থাংশই মহারাষ্ট্র থেকে।

গুজরাট : রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী আজ করোনা সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য ৫টি কোভিড বিজয় রথের সূচনা করেছেন। এদিকে রাজ্যে আজ পর্যন্ত নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১৬ হাজার ৪৭৫।

রাজস্থান : রাজ্যের সমস্ত ধর্মীয় স্থানগুলি আজ থেকে পুণ্যার্থীদের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে। তবে, পুণ্যার্থীদের ফুল, ফল ও মিষ্টি নিয়ে আসার অনুমতি নেই। মাস্ক ব্যবহারের পাশাপাশি, নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখার নির্দেশ রয়েছে। রাজ্যে নিশ্চিতভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১৪ হাজার ৯৫৮।

মধ্যপ্রদেশ : কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে হতাশা ও আত্মহননের মানসিকতা দূর করার জন্য পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে জব্বলপুরের নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বোস মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল সরাসরি মতবিনিময়ের উদ্যোগ শুরু করেছে। রাজ্যের একটি হাসপাতালে ২ জন করোনা আক্রান্ত রোগী আত্মহত্যার চেষ্টা করার পর এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। বর্তমানে এই হাসপাতালে ২৬০ জন করোনা সংক্রমিত রোগীর চিকিসা চলছে।

 

 

CG/BD/SB



(Release ID: 1652144) Visitor Counter : 8