প্রধানমন্ত্রীরদপ্তর

মিঃ বিল গেটসের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর আলাপচারিতা

Posted On: 14 MAY 2020 10:22PM by PIB Kolkata

নতুন দিল্লি, ১৪ মে,২০২০

 



প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী আজ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনের সহ-সভাপতি মিঃ বিল গেটসের সঙ্গে  মতবিনিময় করেছেন। উভয়ে কোভিড-১৯-তে বিশ্বব্যাপী কার্যকলাপ এবং মহামারী মোকাবিলায় বৈজ্ঞানিক উদ্ভাবন, গবেষণা ও উন্নয়ন সম্পর্কিত আন্তর্জাতিক সমন্বয়ের গুরুত্ব নিয়ে আলোচনা করেছেন।

আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী স্বাস্থ্য সঙ্কটের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ভারত যে সচেতনতার পন্থা অবলম্বন করেছে - যে পদ্ধতির উপর ভিত্তি করে যথাযথভাবে বার্তাপ্রেরণের মাধ্যমে জনগণের অংশগ্রহণ সুনিশ্চিত করা হয়েছে, সেব্যাপারে দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।  সর্বস্তরের মানুষ  কীভাবে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখছেন , সামনের সারির কর্মীদের কীভাবে  সম্মান প্রদান করা হচ্ছে, মাস্ক  পরা, সঠিক স্বাস্থ্যবিধি বজায় রাখা এবং লকডাউন নিয়ম বিধি কি ভাবে পালন করা হচ্ছে ,তা তিনি ব্যাখ্যা করেন।

 প্রধানমন্ত্রী সরকারের পূর্ববর্তী কিছু উন্নয়নমূলক উদ্যোগ যেমন - আর্থিক অন্তর্ভুক্তি বৃদ্ধি, প্রান্তিক মানুষের কাছে  স্বাস্থ্যসেবার সুযোগ সুবিধা পৌঁছে দেওয়ার কাজ জোরদার করা, স্বচ্ছ ভারত মিশনের মাধ্যমে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা ও স্বাস্থ্যবিধির জোরদার প্রচার, জনগণের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য ভারতে আয়ুর্বেদিক জ্ঞানের বিকাশের মতো বিষয়গুলি আলোচনায় তুলে ধরেন।  বর্তমান মহামারী পরিস্থিতিতে  ভারতের এই কার্যকলাপ  বিশেষ ভাবে সহায়তা করেছে বলেও তিনি জানান ।

 প্রধানমন্ত্রী কোভিড-১৯-মোকাবিলায় কেবল ভারতে নয়, বিশ্বের অন্যান্য অঞ্চলে গেটস ফাউন্ডেশন স্বাস্থ্য সম্পর্কিত ক্ষেত্রে যে ভাবে কাজ করে চলেছে তার  প্রশংসা করেন। বিশ্বের সাধারণ সুবিধার জন্য কীভাবে ভারতের সক্ষমতা এবং অন্যান্য ক্ষমতা আরও বৃদ্ধি করা যায় সেব্যাপারে  তিনি মিঃ গেটসের কাছ থেকে পরামর্শ চান।


গ্রামীণ অঞ্চলে প্রান্তিক মানুষের কাছে  স্বাস্থ্য পরিষেবা পৌঁছে দেবার  জন্য ভারতের অনন্য পরিকল্পনা, সরকারের  উন্নত কার্যকর যোগাযোগ-অনুসন্ধান ভিত্তিক মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনের প্রচার এবং সর্বোপরি ভ্যাকসিন আবিষ্কারের পরে ভারতের বিশাল সংখ্যক  মানুষের  জন্য তা ব্যবহারের উপযোগী করে তোলা এবং ঔষধের  ক্ষমতা বৃদ্ধির মতো বিষয়গুলি নিয়ে উভয়ে আলোচনা করেন।  তারা  একমত হন যে, ভারতের আগ্রহ এবং দক্ষতার বিকাশ ঘটালে  বিশ্বব্যাপী বিশেষত উন্নয়নশীল দেশগুলি তার সুফল ভোগ করবে,এ কারণে  মহামারী মোকাবিলায়  সমন্বয়সাধনের  জন্য বর্তমান আন্তর্জাতিক  আলোচনায় ভারতের অন্তর্ভুক্ত হওয়া অত্যন্ত জরুরী।

 আলোচনার শেষে, প্রধানমন্ত্রী কোভিড-পরবর্তী বিশ্বে জীবন যাত্রা, অর্থনৈতিক সংগঠন, সামাজিক আচরণ পরিবর্তনের ফলে  উদ্ভূত পরিস্থিতি এবং শিক্ষা ও স্বাস্থ্য পরিষেবাকে আরো ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য প্রযুক্তিগত সমস্যা মোকাবিলার ক্ষেত্রে গেটস ফাউন্ডেশনকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।  ভারত তার নিজের অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে এই জাতীয় বিশ্লেষণী আলোচনায় অবদান রাখতে পারলে খুশি হবে বলেও তিনি জানান।

 

 


CG/SS



(Release ID: 1624103) Visitor Counter : 262