স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক
azadi ka amrit mahotsav

সুভাষ চন্দ্র বসু আপদা প্রবন্ধন পুরস্কার, ২০২২

Posted On: 23 JAN 2022 9:06AM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ২৩ জানুয়ারি, ২০২২

 

কেন্দ্র বিপর্যয় ব্যবস্থাপনায় ব্যক্তি-বিশেষ এবং প্রাতিষ্ঠানিকভাবে নিঃস্বার্থ সেবা ও অমূল্য অবদানকে স্বীকৃতি দিতে প্রতি বছর সুভাষ চন্দ্র বসুর নামে আপদা প্রবন্ধন পুরস্কার প্রদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। নেতাজী সুভাষ চন্দ্রের জন্মদিন ২৩শে জানুয়ারি পুরস্কার-প্রাপকদের নাম ঘোষণা করা হয়। প্রতিষ্ঠানগুলিকে নগদ ৫১ লক্ষ টাকা পুরস্কার এবং শংসাপত্র আর ব্যক্তি-বিশেষকে নগদ ৫ লক্ষ টাকা পুরস্কার এবং একটি শংসাপত্র দেওয়া হবে।

এ বছরের পুরস্কারের জন্য ২০২১ – এর পয়লা জুলাই থেকে মনোনয়ন জমা নেওয়া শুরু হয়। ২০২২ সালের পুরস্কারের জন্য বিস্তারিত তথ্য মুদ্রণ, বৈদ্যুতিন ও সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়। এরপর, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তি-বিশেষের কাছ থেকে মোট ২৪৩টি বৈধ মনোনয়নপত্র জমা পড়ে।

এ বছর প্রতিষ্ঠান হিসাবে গুজরাট ইন্সটিটিউট অফ ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট এবং ব্যক্তি-বিশেষ হিসাবে অধ্যাপক বিনোদ শর্মাকে নির্বাচন করা হয়েছে।

বিপর্যয় ব্যবস্থাপনায় উল্লেখযোগ্য অবদান রাখায় সুভাষ চন্দ্র বসু আপদা প্রবন্ধন পুরস্কার-প্রাপকদের বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য :

১) গুজরাট ইন্সটিটিউট অফ ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট ২০১২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। বিপর্যয়ের সময় ঝুঁকি কমানোই এই প্রতিষ্ঠানের মূল কাজ। ইতিমধ্যেই ১২ হাজারেরও বেশি পেশাদারকে সংস্থাটি প্রশিক্ষণ দিয়েছে। এর ফলে, বিভিন্ন ঝুঁকিপূর্ণ কাজে দক্ষ মানবসম্পদ সৃষ্টি হয়েছে। গুজরাট ইন্সটিটিউট অফ ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট সহজে ব্যবহারযোগ্য অগ্নি সুরক্ষা সংক্রান্ত একটি পোর্টাল ও কোভিড-১৯ লক্ষণযুক্ত মানুষের উপর নজরদারি চালাতে একটি অ্যাপ তৈরি করেছে।

২) অধ্যাপক বিনোদ শর্মা ইন্ডিয়ান ইন্সটিটিউট অফ পাবলিক অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের সিনিয়র প্রফেসার। তিনি সিকিম স্টেট ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট অথরিটির ভাইস চেয়ারম্যানও।  ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অফ ডিজাস্টার ম্যানেজেমেন্ট যা আগে ন্যাশনাল সেন্টার অফ ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট হিসাবে পরিচিত ছিল সেই সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা সমন্বায়কের দায়িত্ব তিনি পালন করেছেন। বিপর্যয় ঝুঁকি কমানোর জন্য তাঁর গুরুত্বপূর্ণ কাজের স্বীকৃতি-স্বরূপ তাঁকে এই সম্মানে ভূষিত করা হবে। তিনি লালবাহাদুর শাস্ত্রী ন্যাশনাল অ্যাকাডেমি অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের রিসোর্স পার্সন। সিকিমের বিপর্যয় ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের ভাইস চেয়ারম্যান হিসাবে অধ্যাপক শর্মা জলবায়ু পরিবর্তন এবং বিপর্যয় সংক্রান্ত ঝুঁকি কমানোর জন্য প্রয়োজনীয় উদ্যোগের মেলবন্ধন ঘটিয়েছেন। পঞ্চায়েত স্তর থেকে বিপর্যয় মোকাবিলার জন্য বিভিন্ন পরিকল্পনা বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে তাঁর গুরুত্বপূর্ণ অবদান রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী প্রথম বারের মত এই দেবেন। ২০১৯, ২০২০, ২০২১ এবং ২০২২ সালের পুরস্কার আজ দেওয়া হবে।  

 

CG/CB/SB



(Release ID: 1791990) Visitor Counter : 81