মন্ত্রিসভারঅর্থনৈতিকবিষয়সংক্রান্তকমিটি

প্রধানমন্ত্রী গ্রাম সড়ক যোজনা (পিএমজিএসওয়াই)-১ ও ২ এবং চরম বামপন্থী প্রভাবিত অঞ্চলের জন্য সড়ক যোগাযোগ প্রকল্প (আরসিপিএলডাব্লুইএ) অব্যাহত রাখার প্রস্তাবে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার অনুমোদন

২০২১-২২ থেকে ২০২৪-২৫ সময়কালে রাজ্যের অংশ সহ পিএমজিএসওয়াই-এর বকেয়া প্রকল্পগুলি শেষ করার জন্য ১,১২,৪১৯ কোটি টাকা খরচ হওয়ার সম্ভাবনা

৯টি রাজ্যে ৪৪টি জেলায় ২০১৬ সাল থেকে আরসিপিএলডাব্লুইএ-এর আওতায় ৪,৪৯০ কিলোমিটার রাস্তা এবং ১০৫টি সেতু নির্মাণের কাজ ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে

বকেয়া কাজ শেষ করার জন্য উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও পার্বত্য রাজ্যগুলিকে ২০২২এর সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সময় দেওয়া হয়েছে

Posted On: 17 NOV 2021 3:33PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লী, ১৭  নভেম্বর, ২০২১

           

প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদীর পৌরোহিত্যে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত কমিটির বৈঠকে গ্রামোন্নয়ন দপ্তরের ‘প্রধানমন্ত্রী গ্রাম সড়ক যোজনা ১ ও ২’-এর সময়সীমা বাড়ানোর প্রস্তাব অনুমোদিত হয়েছে। বকেয়া রাস্তা ও সেতু নির্মাণের কাজ ২০২২এর সেপ্টেম্বরের মধ্যে শেষ করতে হবে। মন্ত্রিসভার এই কমিটি চরম বামপন্থা প্রভাবিত অঞ্চলে সড়ক যোগাযোগ প্রকল্পের কাজ ২০২৩এর মার্চের মধ্যে শেষ করার প্রস্তাবেও অনুমোদন দিয়েছে। 

কেন্দ্র, সমতলে যেসব অঞ্চলে ৫০০ জনের বেশি বসবাস করেন এবং উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও পার্বত্য অঞ্চলের রাজ্যগুলিতে যেখানে ২৫০ জনের বেশি বসবাস করেন সেইসব যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন এলাকার জনপথকে সড়ক ব্যবস্থার আওতায় আনতে পিএমজিএসওয়াই-১এর সূচনা করেছিল। নির্দিষ্ট কয়েকটি চরম বামপন্থা প্রভাবিত অঞ্চলে, যেখানে ১০০র বেশি মানুষ থাকেন সেই এলাকাগুলিকে এর আওতায় নিয়ে আসা হয়। এ ধরণের ১,৮৪,৪৪৪টি জনপদের মধ্যে মাত্র ২,৪৩২টি জনপদকে সড়ক ব্যবস্থায় যুক্ত করার কাজ বাকি আছে। পিএমজিএসওয়াই এর আওতায় ৬,৪৫,৬২৭ কিলোমিটার রাস্তা তৈরির প্রস্তাব অনুমোদিত হয়েছিল। বর্তমানে ২০,৯৫০ কিলোমিটার রাস্তা তৈরির কাজ বাকি আছে। এই প্রকল্পে ৭,৫২৩টি সেতু নির্মাণের প্রস্তাব ছিল। বর্তমানে ১,৯৭৪টি সেতু নির্মাণের কাজ বাকি আছে।

পিএমজিএসওয়াই ২এর আওতায় ৫০ হাজার কিলোমিটার গ্রামীণ রাস্তা নির্মাণের পরিকল্পনা করা হয়েছিল। এক্ষেত্রে ৪৯,৮৮৫ কিলোমিটার দীর্ঘ সড়ক এবং ৭৬৫টি সেতু নির্মাণের প্রস্তাব অনুমোদিত হয়েছে। বর্তমানে মাত্র ৪২৪০ কিলোমিটার রাস্তা এবং ২৫৪টি সেতু তৈরির কাজ বাকি আছে। এই কাজগুলি এখন শেষ করা হবে। 

মূলত উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও পার্বত্য অঞ্চলের রাজ্যে এই কাজ বাকি রয়েছে। কোভিড লকডাউন, দীর্ঘ সময় ধরে বৃষ্টিপাত, শীতকাল এবং অরণ্যের সমস্যার কারণে এই কাজ নির্দিষ্ট সময়ে শেষ করা সম্ভব হয়নি। সংশ্লিষ্ট রাজ্যগুলি কাজ শেষ করার জন্য কেন্দ্রের কাছে বাড়তি সময়ের আবেদন জানায়। কারণ এই প্রকল্প গ্রামীণ অর্থনীতির জন্য সহায়ক। কেন্দ্র ২০২২এর সেপ্টেম্বরের মধ্যে কাজ শেষ করার নতুন সময়সীমা ধার্য করেছে। 

দেশের ৯টি রাজ্যের ৪৪টি চরম বামপন্থা প্রভাবিত অঞ্চলে সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতির জন্য আরসিপিএলডাব্লুইএ ২০১৬ সালে সূচনা করা হয়। এই প্রকল্পে ৫৭১৪ কিলোমিটার রাস্তা ও ৩৫৮টি সেতু নির্মাণের কাজ এখনও বাকি আছে। এছাড়াও আরও ১৮৮৭ কিলোমিটার দীর্ঘ সড়ক ও ৪০টি সেতু নির্মাণের প্রস্তাবও অনুমোদিত হয়েছে। যোগাযোগ ও নিরাপত্তা ব্যবস্থার উন্নতি জন্য এই প্রকল্প অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। অর্থনৈতিক বিষয়ক কমিটি তাই ২০২৩এর মার্চ পর্যন্ত এর সময়সীমা বৃদ্ধি করেছে। 

পিএমজিএসওয়াই গ্রামাঞ্চলে সড়ক নির্মাণে নতুন পরিবেশ বান্ধব প্রযুক্তি ব্যবহারে উৎসাহী। স্থানীয় স্তরে উপাদান সংগ্রহ করে সেগুলি সড়ক নির্মাণের কাজে ব্যবহারের মাধ্যমে ব্যয় সাশ্রয় হয়। এ পর্যন্ত ১ লক্ষ কিলোমিটারের বেশি সড়ক নির্মাণের কাজ এই পদ্ধতির মাধ্যমে করার পরিকল্পনা করা হয়েছে। ইতিমধ্যে ৬১ হাজার কিলোমিটার রাস্তার কাজ শেষ হয়েছে। উত্তরপ্রদেশ সম্প্রতি এই প্রযুক্তি ব্যবহার করে ১২৫৫ কিলোমিটার সড়ক নির্মাণের প্রস্তাব অনুমোদন করেছে। এরফলে অর্থের সাশ্রয় হবে। পাশাপাশি প্রাকৃতিক সম্পদ সংরক্ষণ সম্ভব হবে, কার্বন নিঃসরণের হার কমবে।  

পিএমজিএসওয়াই-এর আওতায় সড়ক নির্মাণ এবং নির্মাণ পরবর্তী সময়ে রাস্তার অবস্থার গুনমান যাচাই করার জন্য ত্রিস্তরীয় ব্যবস্থাপনা গড়ে তোলা হয়েছে। কেন্দ্র ও রাজ্যস্তরে নজরদারির কাজ চালানো হয়। নতুন নজরদারী ব্যবস্থাপনার জন্য  পিএমজিএসওয়াই-তে সন্তোষজনক কাজ হচ্ছে। 

কেন্দ্র ২০১৯ সালে আরো ১,২৫,০০০ কিলোমিটার সড়ক নির্মাণের জন্য পিএমজিএসওয়াই ৩এর সূচনা করে। ২০২৫ সালের মধ্যে এই কাজ শেষ করতে হবে। পিএমজিএসওয়াই-৩এর আওতায় ৭২ হাজার কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণের প্রস্তাব অনুমোদিত হয়েছে। এরমধ্যে ১৭,৭৫০ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণের কাজ শেষ হয়েছে। পিএমজিএসওয়াই-এর আওতায় ২০২১-২২ থেকে ২০২৪-২৫ সময়কালে ১,১২,৪১৯ কোটি টাকা ব্যয় হবে। এরমধ্যে রাজ্যে দেয় অংশও রয়েছে।

পিএমজিএসওয়াই-১এর বিষয়ে বিস্তারিত তথ্যঃ-

         সমতলে যেসব জনপদে ৫০০ জনের বেশি এবং উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও পার্বত্য রাজ্যগুলিতে ২৫০ জনের বেশি বসবাস করেন সেইসব যোগাযোগ বিহীন অঞ্চলে সড়ক নির্মাণের জন্য ২০০০ সালে পিএমজিএসওয়াই-১এর সূচনা হয়। যেসব জেলায় জনসংখ্যা বেশী, সেখানে গ্রামীণ সড়কগুলির মানোন্নয়নও এই প্রকল্পের মাধ্যমে করা হয়েছে।

         ২০২১এর আদমশুমারী হিসেব অনুযায়ী কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের চিহ্নিত চরম বামপন্থা প্রভাবিত ব্লকের যেসব জনপদে ১০০ থেকে ২৪৯জন বাসবাস করেন সেইসব অঞ্চলে সড়ক নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। 

         ২৫০ জনের বেশি এবং ৫০০ জনের বেশি ১,৭৮,১৮৪টি জনপদে এই প্রকল্প বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ১৫ই নভেম্বরে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী ১,৭১,৪৯৪টি জনপদের কাজ শেষ হয়েছে। এখনও ৯৬৮টি জনপদের কাজ বাকি আছে। এই প্রকল্প লাভজনক হবেনা বলে বিবেচনা করে ৪,৭২২ টি জনপদে তা স্থগিত করা হয়েছে। ১০০ থেকে ২৪৯ জনের বসতিযুক্ত জনপদে সড়ক নির্মাণের জন্য ৬,২৬০ টি অঞ্চলের প্রস্তাব অনুমোদিত হয়েছে। ১৫ নভেম্বরের হিসেব অনুযায়ী মাত্র ৪৬৪টি জনপদের কাজ বাকি আছে।

         পিএমজিএসওয়াই অ্যাপের আওতায় ৬,৪৫,৬২৭ কিলোমিটার সড়ক নির্মাণ এবং ৭,৫২৩টি সেতু নির্মাণর প্রস্তাব অনুমোদিত হয়েছে। ১৫ নভেম্বরের হিসেব অনুযায়ী মাত্র ২০,৯৫০ কিলোমিটার রাস্তা এবং ১,৯৭৪টি সেতু নির্মাণের কাজ বকেয়া আছে।

         বাকি থাকা কাজগুলির বেশিরভাগই উত্তর-পূর্বাঞ্চল এবং হিমালয় সংলগ্ন রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে।

         কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত কমিটি এই প্রকল্পের সময়সীমা ২০১৮র ৯ই আগস্ট বাড়িয়ে ২০১৯এর মার্চ পর্যন্ত করেছে।

         ২০২২এর সেপ্টেম্বরের মধ্যে বকেয়া কাজগুলি শেষ করার লক্ষ্য ধার্য করা হয়েছে।

 

পিএমজিএসওয়াই-২এর বিষয়ে বিস্তারিত তথ্যঃ-

         গ্রামাঞ্চলে ৫০ হাজার কিলোমিটার সড়কের মানোন্নয়নের জন্য ২০১৩র মে মাসে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা পিএমজিএসওয়া-২এর প্রস্তাব অনুমোদন করে।

         রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির সমস্ত প্রস্তাব অনুমোদিত হয়।

         এই প্রকল্পে ৪৯,৮৮৫ কিলোমিটার সড়ক ও ৭৬৫টি সেতু নির্মাণের প্রস্তাব অনুমোদিত হয়। বর্তমানে মাত্র ৪২৪০ কিলোমিটার সড়ক ও ২৫৪টি সেতু নির্মাণের কাজ বাকি আছে। 

         বকেয়া প্রকল্পগুলির মধ্যে বেশিরভাগই উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও হিমালয় সংলগ্ন রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল এবং বিহারে রয়েছে।

         কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত কমিটি ২০১৮র ৯ই আগস্ট সমস্ত প্রকল্পের কাজ ২০২০ মার্চের মধ্যে শেষ করার প্রস্তাব অনুমোদন করে।

         বর্তমানে বকেয়া কাজ ২০২২এর সেপ্টেম্বরে শেষ করার পরিকল্পনা করা হয়েছে।

চরম বামপন্থা প্রভাবিত অঞ্চলে সড়ক যোগাযোগ প্রকল্পের বিষয়ে বিস্তারিত তথ্যঃ- 

         অন্ধ্রপ্রদেশ, বিহার, ছত্তিশগড়, ঝাড়খন্ড, মধ্যপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র, ওড়িশা, তেলেঙ্গানা এবং উত্তরপ্রদেশ౼ এই ৯টি রাজ্যে ৪৪টি জেলায় কৌশলগত দিক থেকে গুরুত্বপূর্ণ ৫,৪১২ কিলোমিটার রাস্তা ও ১২৬টি সেতু নির্মাণের জন্য ২০১৬ সালে প্রকল্পটির সূচনা হয়। এরজন্য ব্যয় ধরা হয় ১১,৭২৫ কোটি টাকা।

         ২০১৬-১৭ থেকে ২০১৯-২০ সময়কালে এই প্রকল্প শেষ করার পরিকল্পনা করা হয়।

         কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক সংশ্লিষ্ট রাজ্য এবং নিরাপত্তা বাহিনীর সাথে আলোচনাক্রমে সড়ক ও সেতু নির্মাণের পরিকল্পনা করে।

         কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের সুপারিশক্রমে আরও ১০ হাজার ২৩১ কিলোমিটার সড়ক নির্মাণের প্রস্তাব জমা দেওয়া হয়। এরজন্য ব্যয় হবে অতিরিক্ত ৯,৮২২ কোটি টাকা।

         ৪,৪৯০ কিলোমিটার দীর্ঘ সড়ক এবং ১০৫টি সেতু নির্মাণের কাজ শেষ হয়েছে।

         এখনও ১,৮৮৭ কিলোমিটার রাস্তা তৈরির কাজ বাকি আছে। ২০২৩এর মার্চের মধ্যে এই কাজ শেষ করার লক্ষ্যমাত্রা ধার্য করা হয়েছে।

 

কর্মসংস্থান সৃষ্টি সহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ঃ-

            পিএমজিএসওয়াই-এর বিষয়ে বিভিন্ন স্বায়ত্ত্বশাসিত সংস্থা নানা ধরণের পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালিয়েছে। দেখা গেছে কৃষি, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, নগরায়ন ও কর্মসংস্থান সৃষ্টির মতো বিভিন্ন ক্ষেত্রে এই প্রকল্প ইতিবাচক প্রভাব বিস্তার করেছে।

গ্রামাঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থায় উন্নতি হলে সংশ্লিষ্ট অঞ্চলের উন্নয়ন ত্বরান্বিত হয়। সারা বছর সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা থাকলে অর্থনৈতিক দিক থেকে তা যথেষ্ট সুবিধাজনক। গ্রামীণ রাস্তাগুলির মানোন্নয়নের ফলে যাত্রী, পণ্য ও পরিষেবার পরিবহণে সুবিধা হয়। সড়ক নির্মাণ এবং মানোন্নয়নের কাজে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হয়।

প্রকল্পের রূপায়ণ

পিএমজিএসওয়াই-এর বাস্তবায়নের জন্য সময়সীমা বাড়ানো গুরুত্বপূর্ণ ছিল। পিএমজিএসওয়াই-১ এবং ২এর আওতায় সব প্রকল্প ইতিমধ্যেই অনুমোদিত। মন্ত্রককে ডিসেম্বরের মধ্যে আরসিটিএলডাব্লুইএ-এর অতিরিক্ত প্রস্তাবগুলি অনুমোদন করতে হবে। বর্ধিত সময়ের মধ্যে প্রকল্পগুলির কাজ শেষ হয় সেদিকে নজরাদি চালাতে হবে। ২০১৯ সালে পিএমজিএসওয়াই ৩-এর সূচনা হয়। এই প্রকল্পে ১,২৫,০০০ কিলোমিটার সড়কের মানোন্নয়ন ঘটানোর প্রস্তাব অনুমোদিত হয়েছে। গ্রামাঞ্চলের কৃষি বাজার, উচ্চমাধ্যমিক স্কুল এবং হাসপাতালের সঙ্গে যোগাযোগ ব্যবস্থার মানোন্নয়নের জন্য এই প্রকল্প অনুমোদিত হয়। প্রকল্পের কাজ শেষ করতে হবে ২০২৫এর মার্চ মাসের মধ্যে। 

 

CG/CB/NS



(Release ID: 1772793) Visitor Counter : 39