ইস্পাতমন্ত্রক

ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের কারণে ইস্পাতের উৎপাদন বা অক্সিজেন সরবরাহের কোনো বিঘ্ন ঘটেনি

Posted On: 27 MAY 2021 11:54AM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লী, ২৭  মে, ২০২১

 

ইস্পাত মন্ত্রক ২৩ মে শিল্পোৎসাহ ও অভ্যন্তরীণ বাণিজ্য দপ্তরের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বড় বড় ইস্পাত উৎপাদক সংস্থাগুলির বৈঠক করে। অক্সিজেন উৎপাদন এবং ইস্পাত তৈরির ক্ষেত্রে ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের ফলে কোনো প্রভাব পরলে সেই সমস্যার দ্রুত সমাধানের জন্য এই বৈঠকে আলোচনা হয়। বৈঠকে বিদ্যুৎ মন্ত্রক এবং সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকারগুলি উপস্থিত ছিলেন। যেহেতু ওড়িশা এবং পশ্চিমবঙ্গে এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব পরবে তাই ওই দুই রাজ্যে ইস্পাত ও অক্সিজেন উৎপাদনে যাতে কোনো সমস্যা না হয় তারজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়। ওই বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় যে ২-৪ দিন জরুরি ভিত্তিতে যেসব রাজ্য ওড়িশার কলিঙ্গনগর ও আঙুল কারখানার ওপর নির্ভরশীল তারা জামশেদপুরে টাটা কারখানা থেকে তাদের চাহিদা মেটাবে। ওড়িশার আঙুল, কলিঙ্গনগর ও রাউরকেল্লার ইস্পাত কারখানায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ হয়নি। টাটাদের যেসব প্রতিনিধি ওড়িশার কারখানায় ছিলেন তাঁরা জানিয়েছেন ইয়াসের কারণে চিকিৎসার কাজে ব্যবহৃত তরল অক্সিজেন উৎপাদনে কোনো সমস্যা হয়নি। কলিঙ্গনগর, জামশেদপুর এবং আঙুল থেকে চিকিৎসার কাজে ব্যবহৃত তরল অক্সিজেন সরবরাহ স্বাভাবিকভাবেই হয়েছে।

কলিঙ্গনগরে ট্যাঙ্কার কম পাঠানো হয়েছে। ওই ট্যাঙ্কারগুলিকে জামশেদপুরে পাঠানো হয়। ঘূর্ণিঝড়ের ফলে উদ্ভুত পরিস্থিতির মোকাবিলার জন্যই এই সিদ্ধান্ত। পরিকল্পনা অনুসারে সেইলের দুর্গাপুর, বার্ণপুর এবং রাউরকেল্লা ইস্পাত কারখানাগুলি পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য প্রস্তুত ছিল। পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে সাধারণ পরিচালন বিধি তৈরি করা হয়। ফলে ইস্পাত বা অক্সিজেনের উৎপাদনে কোনো সমস্যা দেখা যায়নি। জেএসপিএল ও জেএসডাব্লু-এর কারখানাগুলি আগে থেকেই প্রস্তুত থাকায় ঘূর্ণিঝড়ের ফলে উদ্ভুত পরিস্থিতিতে সেখানেও উৎপাদন প্রক্রিয়া অব্যাহত ছিল ।  


CG/CB/NS



(Release ID: 1722172) Visitor Counter : 47