স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের ‘আনলক-২’ এর নতুন নির্দেশাবলী

কন্টেনমেন্ট এলাকার বাইরে ‘আনলক-২’-এ আরো বেশী কাজকর্ম করা যাবে

কন্টেনমেন্ট এলাকায় লকডাউনের নিয়ম কঠোরভাবে মেনে চলতে হবে

Posted On: 29 JUN 2020 9:28PM by PIB Kolkata

নতুনদিল্লি, ২৯শে জুন, ২০২০

 

 


কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক ‘আনলক-২’-এ কন্টেনমেন্ট এলাকার বাইরে আরো কাজকর্ম করার বিষয়ে নতুন নির্দেশিকা জারী করেছে। পয়লা জুলাই থেকে এই নির্দেশাবলী কার্যকর হবে। এর ফলে পর্যায়ক্রমে আরো কাজকর্মের সুযোগ পাওয়া যাবে। রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির থেকে নানা তথ্য পাওয়ার পর, কেন্দ্রের বিভিন্ন মন্ত্রক ও দপ্তরের সঙ্গে আলোচনাক্রমে  এই নতুন নির্দেশাবলী ২৯শে জুন জারী করা হল।


‘আনলক-১’ এর জন্য ৩০শে মে-র নির্দেশাবলী অনুসারে কনটেনমেন্ট এলাকার বাইরে ৮ই জুন থেকে সর্বসাধারণের জন্য ধর্মীয় স্থান, হোটেল , রেস্তোরাঁ, শপিং মল সহ বিভিন্ন পরিষেবা খুলে দেওয়া হয়েছে। এর জন্য বিস্তারিত সাধারণ পরিচালন পদ্ধতি (স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিওর-এসওপি) জারী করা হয়েছে।



আনলক ২ এর নতুন নির্দেশাবলীঃ-


• নিয়ন্ত্রিতভাবে ইতিমধ্যেই আন্তর্দেশিয় উড়ান ও যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। পর্যায়ক্রমে সেই সংখ্যা বাড়ানো হবে।


• রাত্রীকালীন কারফিউ-এর সময় আরো শিথিল করে রাত ১০টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত করা হয়েছে। শিল্প কারখানায় বিভিন্ন শিফট চালানো, জাতীয় ও রাজ্য সড়কে যাত্রী ও পণ্য পরিবহণ, বাস, ট্রেন ও বিমান থেকে যাত্রী পরিবহণ ও পণ্য চলাচলের জন্য ওঠা নামার ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হয়েছে। 


• এলাকা অনুসারে দোকানে একসঙ্গে ৫ জনের বেশী এখন থেকে থাকতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। 


• কেন্দ্রীয় ও রাজ্য সরকারী প্রশিক্ষণ কেন্দ্রগুলি ১৫ই জুলাই থেকে কাজ শুরু করতে পারবে। এ বিষয়ে কেন্দ্রের কর্মী ও প্রশিক্ষণ দপ্তর এসওপি জারী করবে।


• রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির সঙ্গে বিস্তারিত আলোচনার পর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে আগামী ৩১শে জুলাই পর্যন্ত স্কুল, কলেজ ও কোচিং সেন্টারগুলি বন্ধ থাকবে। 


• বন্দে ভারত মিশনের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রিতভাবে আন্তর্জাতিক বিমানগুলি যাত্রীদের নিয়ে চলাচল করতে পারবে। পর্যায়ক্রমে এই সংখ্যা আরো বাড়ানো হবে।


• কন্টেনমেন্ট এলাকার বাইরে নিম্নলিখিত জায়গায় কাজকর্ম চলবে  না । অন্য সব কাজ অবশ্য করা যাবে।


১) মেট্রো রেল
২) সিনেমা হল, জিমনাশিয়াম, সুইমিং পুল, বিনোদন পার্ক, থিয়েটার, বার, অডিটোরিয়াম, জমায়েতের স্থান সহ সর্বসাধারণের জায়গা।
৩) সামাজিক, রাজনৈতিক, খেলাধুলো, শিক্ষামূলক/সাংস্কৃতিক/ধর্মীয় অনুষ্ঠান সহ অন্যান্য বড় জমায়েত
উপরের এই সব জায়গা পরিস্থিতি বিবেচনা করে পরবর্তীতে খোলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।


• কন্টেনমেন্ট এলাকায় লকডাউন ৩১শে জুলাই পর্যন্ত কঠোরভাবে পালন করা হবে। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের নির্দেশাবলী মেনে রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলি কোভিড-১৯ মহামারীর সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার বিষয়টি বিবেচনা করে কন্টেনমেন্ট এলাকা নির্ধারণ করবে। কন্টেনমেন্ট এলাকায় সব কিছু কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করা হবে, শুধুমাত্র অত্যাবশ্যক পরিষেবাকে অনুমতি দেওয়া হবে। 


• রাজ্য বা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল মারফৎ সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসনের ওয়েব সাইটে এই কন্টেনমেন্ট এলাকার বিষয়ে বিজ্ঞপ্তি জারী করা হবে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকেও এই বিষয়ে  তথ্য জানানো হবে।


• রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল কতৃপক্ষ কন্টেনমেন্ট এলাকার উপর নজরদারী চালাবে। এছাড়াও এই সব অঞ্চলে সব নিয়ম যথাযথভাবে মানা হচ্ছে  কি না , তা দেখবে। 


• কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকও কন্টেনমেন্ট এলাকায় সব নিয়ম যথাযথভাবে মানা হচ্ছে  কি না , সেই বিষয়ে নজরদারী চালাবে। 


রাজ্যগুলি কন্টেনমেন্ট এলাকার বাইরের কাজের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে


• পরিস্থিতি বিবেচনা করে রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলি কন্টেনমেন্ট এলাকার বাইরে প্রয়োজন অনুসারে কোন কোন কাজের উপর বিধি নিষেধ আরোপ করতে পারে।


• তবে রাজ্যের অভ্যন্তরে এবং এক রাজ্য থেকে অন্য রাজ্যের মধ্যে যাত্রীপরিবহণ ও পণ্য চলাচলে কোন নিষেধাজ্ঞা থাকবে না। এর জন্য আলাদা কোন অনুমতি বা ই-পারমিট নেওয়ার প্রয়োজন নেই।


রাত্রীকালীন কারফিউ 


• আনলক-২ এ প্রদেয় অত্যাবশ্যক পরিষেবা ও অন্যান্য ছাড় বাদ দিয়ে রাত ১০টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত রাত্রীকালীন কারফিউ জারী থাকবে। 

 


কোভিড-১৯ এর ব্যবস্থাপনায় জাতীয় নির্দেশাবলীঃ- 


• শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা নিশ্চিত করা সহ কোভিড-১৯ এর ব্যবস্থাপনার বিষয়ে নির্দেশাবলী দেশজুড়ে মেনে চলতে হবে। খরিদ্দাররা যেন যথাযথভাবে শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে চলেন, দোকানগুলিকে সেই ব্যবস্থা করতে হবে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক জাতীয় নির্দেশাবলী ঠিকমতো মেনে চলা হচ্ছে কি না, সেই বিষয়ে নজরদারী চালাবে।


ঝুঁকিপূর্ণ লোকেদের জন্য সুরক্ষাঃ-

• যাঁদের বয়স ৬৫-র উর্ধে, যারা জটিল অসুখে ভুগছেন, গর্ভবতী মহিলারা এবং যাদের বয়স ১০ এর নীচে তাঁদের খুব প্রয়োজন হলে বা স্বাস্থ্য সংক্রান্ত কারণেই  বাড়ির বাইরে বেড় হবার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। 
আরোগ্য সেতুর ব্যবহার

• আরোগ্য সেতু মোবাইল অ্যাপের ব্যবহারে উৎসাহ দেওয়া হচ্ছে।

 

 



CG/CB



(Release ID: 1635295) Visitor Counter : 69