যুবওক্রীড়াবিষয়কমন্ত্রক
azadi ka amrit mahotsav

রাষ্ট্রপতি ২০১৯-২০ সালের জাতীয় সেবা প্রকল্প পুরস্কার প্রদান করেছেন
প্রধানমন্ত্রীর নতুন ভারত গড়ার স্বপ্ন পূরণে তরুণদের একটি পরিবর্তনশীল ভূমিকা রয়েছে: শ্রী অনুরাগ ঠাকুর

Posted On: 24 SEP 2021 4:13PM by PIB Kolkata

নতুন দিল্লি, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১

 

ভারতের রাষ্ট্রপতি শ্রী রাম নাথ কোবিন্দ আজ নতুন দিল্লিতে ২০১৯-২০ সালের জন্য জাতীয় সেবা প্রকল্প পুরস্কার প্রদান করেছেন। 

সুষমা স্বরাজ ভবনে আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় ক্রীড়া ও যুব কল্যাণ মন্ত্রী শ্রী অনুরাগ ঠাকুর এবং ওই মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী শ্রী নিশীথ প্রামানিক উপস্থিত ছিলেন।

তিনটি বিভাগে মোট ৪২ জনকে এই জাতীয় সেবা প্রকল্প পুরস্কার দেওয়া হয়েছে।

অনুষ্ঠানে সভাপতির ভাষণে রাষ্ট্রপতি বলেন, মানব জীবন ছাত্রজীবনের ভিত্তির ওপর গড়ে ওঠে। যদিও শিক্ষালাভ করাটা জীবনব্যাপী একটা প্রক্রিয়া। তবে মৌলিক ব্যক্তিত্বের বিকাশ তৈরি হয় ছাত্রজীবন থেকেই। এজন্য তিনি জাতীয় সেবা প্রকল্প, এন এস এস- কে একটি দূরদর্শী মূলক প্রকল্প বলে মনে করেন। যার মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা স্কুল এবং কলেজের দিনগুলি থেকেই সমাজ ও দেশের সেবা করার সুযোগ পায়।

মহাত্মা গান্ধীর জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে ১৯৬৯ সালে জাতীয় সেবা প্রকল্পে সূচনার কথা উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি বলেন, মহাত্মা গান্ধী তার সমগ্র জীবন মানবতার সেবায় উৎসর্গ করেছিলেন। তিনি এটাই কামনা করেছিলেন যে আমাদের দেশের তরুণদের দায়িত্বশীল নাগরিক হওয়া উচিত এবং নিজেদের জানা উচিত। গান্ধীজীর মতে, নিজেকে জানার সর্বোত্তম উপায় হচ্ছে অন্যের সেবায় নিজেকে উৎসর্গ করা। গান্ধীজীর জীবন মানবসেবার এক অনন্য উদাহরণ। তাঁর আদর্শ এবং সেবার মনোভাব আজও আমাদের সকলের জন্য সমানভাবে প্রাসঙ্গিক ও অনুপ্রেরণা মূলক।

রাষ্ট্রপতি তার ভাষণে উল্লেখ করেছেন যে, কোভিড-১৯ এর প্রাথমিক প্রাদুর্ভাবের সময় পর্যন্ত মাস্কের ব্যাপক উৎপাদন শুরু না হওয়ায় এন এস এস- এর মাধ্যমে ২ কোটি ৩০ লক্ষেরও বেশি মাস্ক তৈরি করা হয়েছিল। সেই মাস্ক দেশের বিভিন্ন স্থানে বিতরণ করা হয়েছে। তিনি আরও উল্লেখ করেন যে, এনএসএসএস- স্বেচ্ছাসেবকরা হেল্প লাইনের মাধ্যমে জনগণকে কোভিড সংক্রান্ত তথ্য সরবরাহ করেছেন। এর পাশাপাশি জেলা প্রশাসনকে সহযোগিতা করেছেন।

রাষ্ট্রপতি তাঁর ভাষণে বলেন, ভারতের স্বাধীনতার ৭৫ বছর উপলক্ষে সারাদেশে 'আজাদী কা অমৃত মহোৎসব' উদযাপন করা হচ্ছে। তিনি এটা জেনে খুবই আনন্দিত হয়েছেন যে, এন এস এস- এর স্বেচ্ছাসেবকরা ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনের উপর ওয়েবিনার ও সেমিনার করে এই মহোৎসবে তাঁদের অবদান রেখেছেন। তিনি বলেন, আমাদের দেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম এবং স্বাধীনতা সংগ্রামীদের আদর্শ সম্পর্কে সচেতনতা ছড়িয়ে দেওয়াই হচ্ছে জাতির সেবা।

আজকের এই অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় ক্রীড়া ও যুব কল্যাণ মন্ত্রী শ্রী অনুরাগ ঠাকুর এনএসএস- এর পুরস্কার প্রাপক স্বেচ্ছাসেবক এবং আধিকারিকদের অভিনন্দন জানিয়ে করোনা অতিমারির সময় তাঁদের অবদানের জন্য ভূয়সী প্রশংসা করেন। গ্রামীণ উন্নয়ন কর্মসূচি থেকে শুরু করে টিকাকরণ অভিযান, রক্তদান শিবির বা প্রাকৃতিক দুর্যোগে এনএসএস স্বেচ্ছাসেবকদের নিঃস্বার্থ সেবার কথা তিনি উল্লেখ করেন। শ্রী ঠাকুর বলেন, তরুণরাই দেশের ভবিষ্যৎ এবং জাতি গঠনে তাদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। তিনি আহ্বান জানান যে, আরও বেশি সংখ্যক যুবকদের এগিয়ে আসতে হবে এবং গ্রামাঞ্চলে কাজ করতে হবে, যেখান থেকে তাঁরা আসল ভারত বর্ষ এবং তার সমস্যার অনুভূতি বুঝতে সক্ষম হবে। তিনি বলেন, আমরা দ্রুত প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি, অর্থাৎ সবকা সাথ, সবকা বিকাশ, সবকা বিশ্বাস এবং সবকা প্রয়াস। আমরা চাই এক ভারত শ্রেষ্ঠ ভারত এবং আধুনিক ও ঐক্যবদ্ধ ভারত।

 

CG/ SB



(Release ID: 1758031) Visitor Counter : 90