অর্থমন্ত্রক

নতুন ডিজিটাল মাশুল প্রদান পদ্ধতি ই-রুপি সম্পর্কে আরও বিশদে জানুন

Posted On: 06 AUG 2021 10:57AM by PIB Kolkata

মুম্বাই, ৬ আগস্ট, ২০২১

(প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী ২রা আগস্ট নগদ বিহীন এবং স্পর্শ বিহীন ডিজিটাল পদ্ধতিতে মাশুল মেটানোর জন্য ই-রুপি ব্যবস্থার সূচনা করেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, -রুপি ভাউচার প্রত্যক্ষ সুবিধা হস্তান্তর বা ডিবিটি ব্যবস্থাকে আরও বেশি কার্যকর করে তুলতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। পক্ষান্তরে দেশে ডিজিটাল লেনদেন ব্যবস্থায় এক নতুন যুগের সূচনা হবে। তিনি আরও বলেন, -রুপি ব্যবস্থা প্রযুক্তির সঙ্গে মানুষের দৈনন্দিন জীবনকে যুক্ত করে ভারতের অগ্রগতির প্রতীক বহন করছে।)

 

 

আমার সরকার

 

 

 

ডিজিটাল পেমেন্ট ব্যবস্থা

 

প্রিপেড ই-ভাউচার

 

 

-রুপি ব্যক্তি-কেন্দ্রিক এবং উদ্দেশ্য-ভিত্তিক ডিজিটাল মাশুল প্রদান পদ্ধতি

 

কিউআর কোড বা এসএমএস ভিত্তিক ই-ভাউচার যা সুফলভোগীর মোবাইলে পাঠানো হয়

 

ব্যবহারকারী কোন কার্ড বা পেমেন্ট অ্যাপ বা ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিং-এর সুবিধা ছাড়াই ভাউচারের বিনিময়ে পরিষেবা নিতে পারেন

-রুপি ব্যবস্থা কি এবং কিভাবে এই ব্যবস্থা কাজ করে?

-রুপি মূলত একটি ডিজিটাল ভাউচার, যা সুফলভোগীর ফোনে এসএমএস বা কিউআর কোড মারফত আসে। ফোনে এসএমএস বা কিউআর কোড হিসেবে আসা প্রিপেড ভাউচার ই-রুপি যে কোন সেন্টারে গিয়ে, যেখানে এধরণের পদ্ধতি ব্যবহারের সুবিধা রয়েছে, সেখানে ভাউচারটি দেখিয়ে প্রয়োজনীয় পরিষেবা নেওয়া যায়।

উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, যদি সরকার নির্দিষ্ট একটি হাসপাতালে কোন একজন কর্মচারীকে চিকিৎসা পরিষেবার সুবিধা দিতে চায়, সেক্ষেত্রে সরকার অংশীদার ব্যাঙ্কের মাধ্যমে সুনির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ সহ ই-রুপি ভাউচার ইস্যু করতে পারে। এরপর, সংশ্লিষ্ট ওই কর্মচারী তার ফিচার ফোন / স্মার্ট ফোনে কিউআর কোড পাবেন। সুনির্দিষ্ট ওই হাসপাতালে এসএমএস বা কিউআর কোড দেখিয়ে পরিষেবা গ্রহণ করা যাবে এবং ফোনে আসা এসএমএস বা কিউআর কোডের মধ্যদিয়ে ই-রুপি ভাউচারের সাহায্যে মাশুল মিটিয়ে দেওয়া যাবে।

-রুপি একটি এককালীন স্পর্শহীন, নগদ বিহীন ভাউচার ভিত্তিক মাশুল প্রদান পদ্ধতি, যা ব্যবহারকারীকে কার্ড, ডিজিটাল পেমেন্ট অ্যাপ বা ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিং-এর সুবিধা ছাড়াই ভাউচারের বিনিময়ে পরিষেবা পেতে সাহায্য করে।

 

 

 

 

জাতীয় স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ ইলেক্ট্রনিক্স ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রক

ভারত সরকার

 

 

ডিজিটাল পেমেন্ট ব্যবস্থা -

-রুপির সূচনা

 

মাননীয় প্রধীনমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী ব্যক্তি-কেন্দ্রিক ও উদ্দেশ্য-ভিত্তিক ডিজিটাল পেমেন্ট ব্যবস্থার সূচনা করেছেন

 

উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য :

 

  • ডিজিটাল পদ্ধতিতে মাশুল মেটানোর জন্য নগদ বিহীন ও স্পর্শ বিহীন পদ্ধতি ই-রুপি

  • এটি কিউআর কোড বা এসএমএস ভিত্তিক ই-ভাউচার, যা সুফলভোগীর মোবাইল ফোনে পাঠানো হয়

  • আর্থিক পরিষেবা দপ্তর, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রক এবং জাতীয় স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের সহযোগিতায় এনপিসিআই তার ইউপিআই প্ল্যাটফর্মে ই-রুপি ব্যবস্থা চালু করেছে

/

 

ডিজিটাল কারেন্সির সঙ্গে ই-রুপি পদ্ধতিকে এক মনে করা উচিত নয়। পরিবর্তে ই-রুপি ব্যক্তি কেন্দ্রিক এবং সুনির্দিষ্ট উদ্দেশ্য-ভিত্তিক ডিজিটাল ভাউচার।

গ্রাহকদের জন্য ই-রুপি কিভাবে উপকারে আসবে?

-রুপি ব্যবস্থার সুবিধা নিতে সুফলভোগীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থাকার প্রয়োজন নেই। অন্যান্য ডিজিটাল পেমেন্ট পদ্ধতিগুলির তুলনায় ই-রুপি ব্যবস্থার এটি অন্যতম একটি স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্য। ই-রুপি ব্যবস্থার মাধ্যমে সহজেই দ্বিস্তর বিশিষ্ট স্পর্শহীন প্রক্রিয়ায় পরিষেবা পৌঁছে দেওয়া সুনিশ্চিত করে। এমনকি, এই ব্যবস্থায় সুবিধা গ্রহণে ব্যক্তিগত তথ্য দেওয়ার প্রয়োজন পড়ে না।

-রুপি ব্যবস্থার আরও একটি সুবিধা হল, সাধারণ ফোনের মাধ্যমেও পরিষেবা গ্রহণ করা যায়। এর ফলে, যাদের স্মার্ট ফোন নেই বা যেখানে ইন্টারনেট পরিষেবা দুর্বল, সেখান থেকেও পরিষেবার সুবিধা নেওয়া যেতে পারে।

স্পনসরদের কাছে ই-রুপি ব্যবস্থার সুবিধা কি?

প্রত্যক্ষ সুবিধা হস্তান্তর বা ডিবিটি ব্যবস্থাকে আরও শক্তিশালী করতে ই-রুপি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবে বলে মনে করা হচ্ছে। এরফলে, সমগ্র ডিবিটি ব্যবস্থা আরও স্বচ্ছ হয়ে উঠবে। ই-রুপি ব্যবস্থায় যেহেতু বাস্তবিক ভাউচার ইস্যু করার সংস্থান নেই, তাই এতে ব্যয় সাশ্রয় হওয়ার সম্ভাবনাও রয়েছে

পরিষেবা দাতারা কি সুবিধা পাবেন?

প্রিপেড ভাউচার হওয়ার জন্য ই-রুপি ব্যবস্থায় পরিষেবা দাতাদের রিয়েলটাইম পেমেন্ট সুনিশ্চিত হবে।

 

 

 

 

জাতীয় স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ ইলেক্ট্রনিক্স ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রক

ভারত সরকার

 

 

ডিজিটাল পেমেন্ট ব্যবস্থা -

-রুপির সূচনা

 

মাননীয় প্রধীনমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী ব্যক্তি-কেন্দ্রিক ও উদ্দেশ্য-ভিত্তিক ডিজিটাল পেমেন্ট ব্যবস্থার সূচনা করেছেন

 

উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য :

 

  • কোন মধ্যস্থতাকারী ছাড়াই ই-রুপি প্রিপেড ব্যবস্থায় পরিষেবা দাতাদের কাছে সময় মত পেমেন্ট বা মাশুল পৌঁছে যায়

  • অপচয় রোধ করে বিভিন্ন কল্যাণমূলক পরিষেবা পৌঁছে দেওয়া সুনিশ্চিত করতে ই-রুপি ব্যবস্থাকে এক অভূতপূর্ব পদক্ষেপ বলে মনে করা হচ্ছে

  • ওষুধপত্র ও পৌষ্টিক সুবিধা প্রদানের লক্ষ্যে ই-রুপি ব্যবস্থার সাহায্য নেওয়া যেতে পারে

/

-রুপি ব্যবস্থার উদ্ভাবক কে?

ন্যাশনাল পেমেন্ট কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া (এনপিসিআই) দেশে ডিজিটাল পেমেন্ট ব্যবস্থার তত্ত্বাবধান করে। এনপিসিআই নগদ বিহীন লেনদেনের প্রসারে ভাউচার ভিত্তিক মাশুল মেটানোর পদ্ধতি হিসেবে ই-রুপি ব্যবস্থার সূচনা করেছে।

আর্থিক পরিষেবা দপ্তর, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রক এবং জাতীয় স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের সহযোগিতায় ই-রুপি ব্যবস্থা চালু হয়েছে।

কোন কোন ব্যাঙ্ক ই-রুপি জারি করতে পারে?

-রুপি ব্যবস্থায় লেনদেনের জন্য ১১টি ব্যাঙ্কের সঙ্গে এনপিসিআই-এর অংশীদারিত্ব গড়ে উঠেছে। এই ব্যাঙ্কগুলির হল এক্সিস ব্যাঙ্ক, ব্যাঙ্ক অফ বরোদা, কানাড়া ব্যাঙ্ক, এইচডিএফসি ব্যাঙ্ক, আইসিআইসিআই ব্যাঙ্ক, ইন্ডিয়ান ব্যাঙ্ক, ইন্ডাসইন্ড ব্যাঙ্ক, কোটাক মাহিন্দ্র ব্যাঙ্ক, পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্ক, ভারতীয় স্টেট ব্যাঙ্ক এবং ইউনিয়ন ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া।

যে অ্যাপগুলির মাধ্যমে ই-রুপি পরিষেবা মিলবে সেগুলি হল - ভারত পে, ভীম বরোদা মার্চেন্ট পে, পাইন ল্যাবস, পিএনবি মার্চেন্ট পে এবং ইয়োনো এসবিআই মার্চেন্ট পে।

আরও কিছু ব্যাঙ্ক এবং অ্যাপ শীঘ্রই ই-রুপি ব্যবস্থায় যুক্ত হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

এখন কোথায় ই-রুপি ব্যবহার করা যেতে পারে?

ইতিমধ্যেই এনপিসিআই ১,৬০০টি হাসপাতালের সঙ্গে চুক্তি করেছে, যেখানে ই-রুপি ব্যবস্থার সুবিধা পাওয়া যাবে।

বিশেষজ্ঞদের মতে আগামী দিনগুলিতে ই-রুপি ব্যবস্থায় ব্যবহারকারীদের সংখ্যা আরও বাড়বে। এমনকি, বেসরকারি ক্ষেত্রও তার কর্মচারীদের সুযোগ-সুবিধা প্রদানে ই-রুপি পদ্ধতি ব্যবহার করবে। সেই সঙ্গে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প ক্ষেত্রও বাণিজ্যিক লেনদেনের কাজে ই-রুপি পদ্ধতির প্রয়োগ করবে।

******

এনপিসিআই-এর কাছ থেকে পাওয়া তথ্যানুযায়ী পিআইবি মুম্বাই থেকে প্রকাশিত।

CG/BD/AS/ 6 August, 2021… (832)


 



(Release ID: 1743256) Visitor Counter : 76