কেন্দ্রীয়মন্ত্রিসভা

স্বাস্থ্য ও শিক্ষা সেস থেকে স্বাস্থ্যের জন্য তামাদিযোগ্য নয় এমন একক তহবিল – প্রধানমন্ত্রী স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিধি গঠনে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার অনুমোদন

Posted On: 10 MAR 2021 2:03PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ১০ মার্চ, ২০২১

 

প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদীর পৌরোহিত্যে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠকে ২০০৭-এর অর্থ আইনের ১৩৬-বি ধারায় স্বাস্থ্য ও শিক্ষা সেস থেকে স্বাস্থ্যের জন্য  তামাদিযোগ্য নয়  এ ধরণের একক তহবিল – প্রধানমন্ত্রী স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিধি (পিএমএসএসএন) গঠনের প্রস্তাবে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।  

 

পিএমএসএসএন-এর বৈশিষ্ট্য

 

(১) জনসাধারণের অ্যাকাউন্টে স্বাস্থ্যের জন্য তামাদিযোগ্য নয় এমন তহবিল

(২) স্বাস্থ্য ও শিক্ষা সেস থেকে স্বাস্থ্যের জন্য বরাদ্দকৃত অংশের অর্থ পিএমএসএসএন-এ পাঠানো হবে

(৩) স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের ফ্ল্যাগশিপ প্রকল্পগুলির জন্য পিএমএসএসএন-এর অর্থ ব্যয় হবে

             আয়ুষ্মান ভারত – প্রধানমন্ত্রী জন আরোগ্য যোজনা

             আয়ুষ্মান ভারত স্বাস্থ্যকেন্দ্র

             জাতীয় স্বাস্থ্য মিশন

             প্রধানমন্ত্রী স্বাস্থ্য সুরক্ষা যোজনা

 

             জরুরি ভিত্তিতে স্বাস্থ্যের প্রয়োজনে আপৎকালীন ও দুর্যোগপূর্ণ পরিস্থিতিতে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি

 

             এসডিজি-র জন্য ভবিষ্যতের কোনও পরিকল্পনা বা যোজনায় এই অর্থ ব্যয় হবে। এছাড়াও ২০১৭ সালের জাতীয় স্বাস্থ্য নীতি বাস্তবায়নেও তহবিলের অর্থ ব্যবহার করা যাবে।

 

(৪) স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রককে পিএমএসএসএন-এর যাবতীয় দায়িত্ব দেওয়া হবে

(৫) কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের কোনও প্রকল্পের জন্য বরাদ্দকৃত অর্থ যদি ওই অর্থবর্ষে ব্যয় করা না হয়, তাহলে সেই অর্থ পরবর্তী বছরের জন্য রাখা থাকবে

সুবিধা

নির্দিষ্ট সম্পদের সহজলভ্যতার কারণে সর্বজনীন ও ব্যয়সাশ্রয়ী স্বাস্থ্য পরিষেবার জন্য এই তহবিলের সুবিধা পাওয়া যাবে। এই অর্থ একটি অর্থবর্ষে খরচ না করলে তা তামাদি হবে না।

প্রেক্ষাপট

উন্নয়নের জন্য স্বাস্থ্য একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। অর্থনৈতিক দৃষ্টিকোণ থেকে সুস্বাস্থ্য, উৎপাদনের হার বাড়ায় এবং অকাল মৃত্যু, দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ থাকা ও নির্দিষ্ট সময়ের আগে অবসর নেওয়ার মতো সমস্যাগুলির সমাধান সুস্বাস্থ্যের মাধ্যমে করা যায়। স্বাস্থ্য ও পুষ্টি যে কোনও সাফল্যে প্রভাব বিস্তার করে এবং তার ফলে নাগরিকদের  উৎপাদনশীলতা ও আয় বৃদ্ধি পায়। স্বাস্থ্যের জন্য সরকারের ব্যয় করা অর্থে যথেষ্ট সুবিধা হয়। এক বছরের আয়ু বৃদ্ধি হলে দেশের মাথাপিছু মোট অভ্যন্তরীণ উৎপাদন ৪ শতাংশ বৃদ্ধি পায়। স্বাস্থ্যক্ষেত্রে বিনিয়োগের ফলে প্রধানত মহিলা সহ বহু  মানুষের কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হয়। ২০১৮ সালের বাজেট ভাষণে অর্থমন্ত্রী আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পের কথা ঘোষণা করার সময় পুরনো ৩ শতাংশ হারে স্বাস্থ্য সেসের থেকে যে অর্থ নেওয়া হত তার পরিবর্তে এখন ৪ শতাংশ হারে স্বাস্থ্য ও শিক্ষা সেস থেকে  অর্থ নেওয়া হবে। এর ফলে আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পের সুবিধা হবে।

***

 

CG/CB/DM



(Release ID: 1703803) Visitor Counter : 110