বিজ্ঞানওপ্রযুক্তিমন্ত্রক

শ্রীনিবাস রামানুজনের জন্ম বার্ষিকীতে ভারতীয় বিজ্ঞান সাহিত্য উৎসব-বিজ্ঞানিকার আয়োজন

Posted On: 23 DEC 2020 11:19AM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লী, ২৩ ডিসেম্বর, ২০২০

 

সিএসআইআর-এর অধীনস্থ সংস্থা ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অফ সায়েন্স কমিউনিকেশন অ্যান্ড ইনফরমেশন রিসোর্সেস (সিএসআইআর-এনআইএসসিএআইআর), ভূবিজ্ঞান মন্ত্রক ও বিজ্ঞান ভারতী যৌথভাবে আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান সাহিত্য উৎসব বিজ্ঞানিকার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। ভারত আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান উৎসবের প্রথম দিনে  শ্রীনিবাস রামানুজনের জন্ম বার্ষিকীতে এই উৎসবের আয়োজন করা হয়। সিএসআইআর-এনআইএসসিএআইআর ও  সিএসআইআর-এনআইএসটিএডিএস-এর নির্দেশক ডঃ রঞ্জনা আগরওয়াল অনুষ্ঠানে বলেন বিজ্ঞান ও সাহিত্যকে জনসাধারণের কাছে পৌঁছে দিতে বিভিন্ন উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আত্মনির্ভরতা ও বিশ্বের কল্যাণের জন্য বিজ্ঞানের বিভিন্ন তথ্য মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়াই এর মূল কারণ। সিএসআইআর-এর  মহানির্দেশক ডঃ শেখর সি মান্ডে অনুষ্ঠানে মূল ভাষণ দিয়েছেন। কোভিড-১৯ মহামারীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন তথ্য প্রচার ও ভুয়ো খবর আটকানোর জন্য বিজ্ঞানের বিভিন্ন বিষয়কে প্রচার করার গুরুত্বের কথা তিনি জানিয়েছেন। মেঘালয় ও ত্রিপুরার প্রাক্তন রাজ্যপাল শ্রী তথাগত রায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। তিনি বলেছেন, কুসংস্কার আমাদের বিজ্ঞানমনস্কতাকে প্রভাবিত করে। কুসংস্কার এবং ধর্মীয় রীতিনীতির মধ্যে পার্থক্য সকলকে বোঝানোর প্রয়োজন।   

ভারত আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান উৎসবে সভাপতির ভাষণ দেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি দপ্তরের সচিব অধ্যাপক আশুতোষ শর্মা। বিজ্ঞানমনস্কতা, মানবিকতা ও বিভিন্ন বিষয় জানার মধ্য দিয়ে ভারতের সংবিধানের নির্দেশিত পথে এগোন যাবে এবং এইভাবেই দেশের উন্নয়ন সম্ভব। ডঃ বিজয় পি ভাটকর অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথির ভাষণ দিয়েছেন। তিনি প্রযুক্তির সঙ্গে আঞ্চলিক ভাষাগুলির সমন্বয় গড়ে তোলার কথা বলেছেন।   

শেয়ার কমিউনিকেশনের এএসএসএ স্পেশাল কমিটির উপপ্রধান অধ্যাপিকা ফিনারিয়া লেগো কোভিড-১৯ মহামারীর সময় কিভাবে বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে বিজ্ঞানের মাধ্যমে জানা গেছে সে বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেন। মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বিজ্ঞানের বিভিন্ন তথ্য কিভাবে সচেতনতা গড়ে তুলেছে তা নিয়ে তিনি আলোচনা করেছেন। ভূপালের মাখনলাল চর্তুবেদী ন্যাশনাল ইউনির্ভাসিটি অফ জার্নালিজম অ্যান্ড কমিউনিকেশনের উপাচার্য অধ্যাপক কে জি সুরেশ তাঁর বক্তব্যে জানিয়েছেন বিজ্ঞানের বিভিন্ন তথ্য শুধুমাত্র আঞ্চলিক ভাষাতেই নয় বিভিন্ন পউপভাষাতেও প্রচার করা উচিত যাতে যেসমস্ত মানুষ ডিজিটাল পরিষেবার বাইরে রয়েছেন তারা বিশদে বিভিন্ন তথ্য জানতে পারেন।  

ব্রিটেনের বিজ্ঞান ও পরিবেশ বিষয়ক সাংবাদিক, লেখক ডঃ কানন পুরকায়স্থ বিজ্ঞানের বিভিন্ন তথ্যের যথাযথ প্রচার সঠিক সময়ে না হওয়ার বিষয়টিতে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। শেয়ার কমিউনিকেশনের এএএসএসএ-র বিশেষ কমিটির প্রতিষ্ঠাতা দক্ষিণ কোরিয়ার অধ্যাপক হাক-সু কিম বলেছেন, ভুল তথ্য বিশেষ করে কোভিড-১৯ মহামারী এবং জলবায়ু পরিবর্তনের বিষয়ে যথাযথ সংবাদ দেওয়ার সময় বিজ্ঞানী ও নীতি নির্ধারকদের মধ্যে সহযোগিতা গড়ে তুলতে হবে। সিএসআইআর-এনআইএসসিএআইআর-এর মুখ্য বিজ্ঞানী শ্রী হাসান জাভেদ খান এই অনুষ্ঠানে ধন্যবাদ সূচক বক্তব্য রেখেছেন। 

ভারতীয় আঞ্চলিক ভাষাগুলিতে বিজ্ঞান সাহিত্য শীর্ষক অধিবেশনের পৌরহিত্য করেছেন পূনের ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন অফ ইন্ডিয়ার অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলের প্রাক্তন সদস্য, বিশিষ্ট বিজ্ঞান সংক্রান্ত চলচ্চিত্র নির্মাতা শ্রী নন্দন কুধিয়াড়ি।  এই অধিবেশনে বিজ্ঞান প্রসারের ডঃ টি ভি ভেঙ্কটেশ্বরণ তামিল ভাষায়, সিএসআইআর-এর শ্রী এএসকেভিএস শর্মা কন্নড় ভাষায় এবং অধ্যাপক (ডঃ) দীপক কুমার শর্মা অসমিয়া ভাষায় বিজ্ঞান সাহিত্যের বিষয়ে নানা তথ্য তুলে ধরেছেন।   

মহিলা বিজ্ঞানী ও শিল্পোদ্যোগী শীর্ষক অধিবেশনে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী শ্রীমতি স্মৃতি ইরানী বিশেষ অতিথি হিসেবে ও তেলেঙ্গানার রাজ্যপাল ডঃ তামিলিসাই সৌদারারাজন উপস্থিত ছিলেন। সুস্বাস্থ্য সংক্রান্ত অধিবেশনে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। আয়ুষ দপ্তরের স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিমন্ত্রী শ্রী শ্রীপাদ যশো নায়েক এই অনুষ্ঠানে মুখ্য অতিথির ভাষণ দিয়েছেন। 

রান্নাঘরে ওষুধপত্র শীর্ষক একটি আলোচনায় ভিডিও প্রতিযোগিতা, হ্যাপিনেস যোগ আলোচনায় যোগাসন প্রতিযোগিতা এবং অলইজ ওয়েল অধিবেশনে কবি সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

এ বছর ভারত আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান উৎসবে বিজ্ঞানের সঙ্গে কলা বিভাগের যোগসূত্র নিয়ে কয়েকটি বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। দর্শন ও বিজ্ঞান শীর্ষক আলোচনা সভায় ডঃ সুজিত ভট্টাচার্য, অধ্যাপক রমেশ চন্দ্র সিনহা ভাষণ দিয়েছেন। বিজ্ঞান-দর্শনের যোগাযোগ : ভারতীয় প্রেক্ষাপট শীর্ষক পূর্ণাঙ্গ অধিবেশনে পশ্চিমবঙ্গের বেলুড় মঠের ডিমড বিশ্ববিদ্যালয় আরকেএমভিইআরআই-এর উপাচার্য স্বামী আত্মপ্রিয়ানন্দ বক্তব্য রেখেছেন। 

ভারতীয় বিজ্ঞানের ইতিহাস শীর্ষক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কেরালার রাজ্যপাল শ্রী আরিফ মহম্মদ খান। জল বিষয়ক আলোচনাচক্রে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় জলশক্তি মন্ত্রী শ্রী গজেন্দ্র সিং শেখাওয়াত। 

জীববিদ্যার বিভিন্ন সহজ বিষয় উপস্থাপিত হয়েছে স্টুডেন্ডস সায়েন্স ভিলেজ শাখায়। ইন্ডাস্ট্রি অ্যাকাডেমিয়া কনক্লেভে একটি বিশেষ ওয়েবিনারের আয়োজন করা হয়েছিল যেখানে সৌর ও বায়ুশক্তির বিভিন্ন যন্ত্রপাতি নিয়ে বক্তব্য রেখেছেন ডঃ শিবনাথ মাইতি। 

ভারত আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান উৎসবের প্রথম দিনে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। চিরায়ত হস্তশিল্পী ও কারিগর সম্মেলন, শক্তি, আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান সাহিত্য সহ বিভিন্ন অনুষ্ঠান এদিন আয়োজিত হয়েছে। ৪ দিনের এই উৎসবে কোভিড পরিস্থিতির কারণে অনলাইনের মাধ্যমে নানা কর্মসূচি পালিত হচ্ছে। ১ লক্ষের বেশি অংশগ্রহণকারী এই উৎসবে যোগ দিয়েছেন। ২০১৫ সালে ভারত আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান উৎসব যে যাত্রা শুরু করেছিল এ বছর তার ষষ্ঠ বার্ষিকী। এবারের উৎসবের মূল ভাবনা ‘আত্মনির্ভর ভারত ও বিশ্বের কল্যাণের জন্য বিজ্ঞান’।    

***

 

 

CG/CB /NS



(Release ID: 1682949) Visitor Counter : 11