ক্রেতা, খাদ্যএবংগণবন্টনমন্ত্রক

২০২০র বর্ষশেষের পর্যালোচনা (উপভোক্তা বিষয়ক দপ্তর) উপভোক্তা বিষয়ক, খাদ্য ও গণবন্টন দপ্তর

Posted On: 21 DEC 2020 12:38PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লী, ২১ ডিসেম্বর, ২০২০


    ২০২০তে উপভোক্তা বিষয়ক দপ্তরের গুরুত্বপূর্ণ কিছু অংশ নিম্নরূপ :
    ১) উপভোক্তা সুরক্ষা
•    উপভোক্তা সুরক্ষা আইন ২০১৯ ১৯৮৬র উপভোক্তা সুরক্ষা আইনের পরিবর্তে বিজ্ঞাপিত হল ২০২০র জুলাইতে।
বিধিগুলির বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে সেন্ট্রাল কনজিউমার্স প্রোটেকশন অথরিটি (সিসিপিএ) উপভোক্তাদের অধিকার লঙ্ঘন, অসৎ ব্যবসা এবং মিথ্যা অথবা বিভ্রান্তিকর বিজ্ঞাপন নিয়ন্ত্রণ করবে এবং উপভোক্তাদের অধিকার, প্রসার, সুরক্ষা এবং বলবৎ করবে।
•    উপভোক্তা সুরক্ষা বিধি ২০২০র ৮নম্বর ধারা অনুযায়ী ২০২০র ৭ই সেপ্টেম্বর একটি অনলাইন পোর্টাল https://edaakhil.nic.in/ শুরু হয় ন্যাশনাল কনজিউমার্স ডিসপুটস রিড্রেসাল কমিশনে উপভোক্তা সংক্রান্ত মামলা ই-ফাইলিং করার জন্য।
২) কোভিড-১৯ সংক্রান্ত উদ্যোগ
অত্যাবশ্যক পণ্য আইনের অধীনে
•    মাস্ক এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজার অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের তালিকায় যুক্ত হল ৩০.৬.২০২০ পর্যন্ত।
•    হ্যান্ড স্যানিটাইজারে ব্যবহৃত অ্যালকোহলের দাম নিয়ন্ত্রণ করা হল।
•    দুই পরত বা তিন পরতের মাস্কের এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সর্বোচ্চ দাম নির্ধারিত হল।
প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ অন্ন যোজনা
•    কোভিড-১৯এর কারণে দরিদ্র মানুষের দুর্দশা দূর করতে প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ অন্ন যোজনা অনুমোদিত হল এপ্রিল থেকে জুন পর্যন্ত। ৫.৪৮ লক্ষ মেট্রিক টন বিতরণ করা হল ১৮.৩ কোটি সুবিধা প্রাপক পরিবারের মধ্যে।
•    জুন মাসে পিএমজিকেএওয়াই প্যাকেজের মেয়াদ বাড়ানো হল নভেম্বরের শেষ পর্যন্ত। এই ৫ মাসে ৬.৫৭ লক্ষ মেট্রিক টন বিতরণ করা হল।
আত্মনির্ভর ভারত প্যাকেজ
•    পরিযায়ী শ্রমিকদের দুর্দশা দূর করতে আত্মনির্ভর ভারত প্যাকেজের অধীনে যেসমস্ত পরিযায়ী শ্রমিক পরিবারে রেশন কার্ড নেই বা যারা জাতীয় খাদ্য সুরক্ষা আইনের অধীনে নয় তাদের জন্য সেই সেই রাজ্যে যেখানে তারা আটকে পড়েছে এরকম ১.৬৬ কোটি সুবিধা প্রাপক পরিবারের মধ্যে ১.৬৬ লক্ষ মেট্রিক টন খাদ্য বিতরিত করা হয়।
৩) সহজে ব্যবসা
•    কোভিড-১৯এর সময়ে উপভোক্তাদের স্বার্থ সুরক্ষায় দু-দফায় ৬ মাসের মেয়াদে নির্দেশ দেওয়া হল ওজন এবং মাপের নির্ধারণের সময়ের জন্য।
•    কোভিড-১৯এর পরিস্থিতির জন্য পুরনো ছাপা প্যাকেটেই মোড়ক বন্দি করার অনুমতি দেওয়া হল ৩০.৯.২০২০ পর্যন্ত।
•    লকডাউনের মতো অভাবিত পরিস্থিতির জন্য বিআইএস তাদের বিধিতে সাময়িক ছাড় দিল যাতে বিশেষ সুযোগ পেলেন প্রায় ক্ষুদ্র মাঝারি অনু উৎপাদন শিল্পের ৫৪.৩৮ কোটি লাইসেন্সি আবেদন পত্রের সঙ্গে জমা দেওয়া অর্থের ছাড়ের মাধ্যমে।
•    গহনা প্রস্তুতকারকদের নথিভুক্তি এবং পুনর্নবীকরণের জন্য অনলাইন ব্যবস্থা এবং হলমার্ক কেন্দ্র ও পরীক্ষা কেন্দ্রগুলির পুনর্নবীকরণের জন্য অনলাইন ব্যবস্থা চালু হল।
•    সহজে ব্যবসা পরিস্থিতির উন্নতির জন্য এবং ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’য় গতি আনতে সংশ্লিষ্ট সব প্রশাসনিক মন্ত্রক ও  দপ্তর প্রয়োজনীয় নির্দেশ দিল চলতি লাইসেন্স পাওয়ার তারিখ থেকে অন্তত ৫ বছরের জন্য ওই লাইসেন্সের বৈধতা নিশ্চিত করতে।
•    অত্যাবশ্যকীয় পণ্য আইনের সংশোধনী বিজ্ঞাপিত হল ২৭শে সেপ্টেম্বর ২০২০তে। এরফলে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য তালিকা থেকে বাদ পড়লো দানাশস্য, ভোজ্যতেল, ডাল, তৈলবীজ, আলু এবং পেঁয়াজ।
•    ২৯.৯.২০১৬র আদেশ সংশোধন করার সিদ্ধান্ত হল চুক্তি চাষে ক্রেতাকে ছাড় দিতে।
৪) প্রাইস স্টেবিলাইজেশন ফান্ড (পিএসএফ)
•    পিএসএফ-এর অধীনে ২০ লক্ষ মেট্রিক টন পর্যন্ত ডালের বাফার স্টক তৈরি করার অনুমোদন দেওয়া হল। এতে উপকৃত হলেন ৮.৫ লক্ষ কৃষক।
•    বাফার স্টকের ডাল ব্যবহার করা হল গণবন্টন ব্যবস্থায়, মিড-ডে মিলে এবং সুসংহত শিশু উন্নয়ন কর্মসূচিতে।
•    বাফারের ডাল সেনা এবং কেন্দ্রীয় আধা-সামরিক বাহিনীর জন্যও ব্যবহার করা হল গুণমান এবং সময়ে নিয়মিত সরবরাহ নিশ্চিত করতে।
•    ডাল ছাড়া হল খোলা বাজারে সরবরাহ স্বাভাবিক করতে এবং দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে।
•    ১ লক্ষ মেট্রিক টন পেঁয়াজের বাফার স্টক সংগৃহীত হল পিএসএফ-এর অধীনে।
•    বাফার স্টকের পেঁয়াজ সরবরাহ করা হল সফল, কেন্দ্রীয় ভান্ডার এবং রাজ্য সংস্থাগুলির মাধ্যমে দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে।
৫) ব্যুরো অফ ইন্ডিয়ান স্ট্যান্ডার্ডস (বিআইএস)
•    আত্মনির্ভর ভারত এবং সহজে ব্যবসা সংক্রান্ত সরকারি দৃষ্টিভঙ্গী অনুযায়ী উপভোক্তা, শিল্প, ল্যাবরেটরি ইত্যাদির জন্য বিআইএস সক্রিয়ভাবে অগ্রসর হল স্বয়ংক্রিয় ব্যবস্থার দিকে সফটওয়্যার অ্যাপ এবং অনলাইন পোর্টালের মাধ্যমে।
•    একটি স্ট্যান্ডার্ডস পোর্টাল তৈরি করা হল ডিজিটাইজেশনের জন্য যাতে পোর্টালটি সহজে লভ্য হয়।
•    গুণমান এবং মাপক সরলীকরণের জন্য বিআইএস আইআইটি-র মাধ্যমে কারিগরি শিক্ষায় পাঠ্যসূচিতে মানকের স্থান দিল।
•    বর্তমানে ২৭০টি ভারতীয় মানের ২৬৩টি পণ্য আইএসআই মার্কা যুক্ত।
•    ৬১টি তথ্য প্রযুক্তি এবং সৌরশক্তি চালিত পণ্য যার মধ্যে আছে ২৯টি ভারতীয় মানসম্পন্ন কম্পালসারি রেজিস্ট্রেশন কর্মসূচির অধীনে।
•    সোনায় হলমার্কিং এবং সোনার জিনিসের বাধ্যতামূলক হলমার্কিং-এর জন্য কোয়ালিটি কন্ট্রোল নির্দেশ বিজ্ঞাপিত হয় ২০২০তে যা কার্যকর হবে ২০২১এর পয়লা জুন থেকে।
৬) সংবাদ মাধ্যম সংক্রান্ত কাজকর্ম
•    টেলিকম রেগুলেটরি অথরিটি অফ ইন্ডিয়ার সঙ্গে যৌথভাবে সংবাদপত্রে প্রচার চালানো হল মোবাইল টাওয়ার স্থাপনের প্রতারণামূলক প্রস্তাব বিষয়ে সারা ভারত জুড়ে। এছাড়াও রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া একই মূল্যের মুদ্রার বিভিন্ন নকশার মুদ্রা গ্রহণ করছে এই বিষয়েও।
•    সংবাদ পত্রের মাধ্যমে একটি সচেতনতা মূলক অভিযান চালানো হয় সাধারণ মানুষকে অত্যাবশ্যকীয় সরবরাহ সংক্রান্ত অভিযোগের সুরাহা ব্যবস্থা সম্পর্কে।
•    দফতর পিএমজিকেওয়াই-এর ওপর একটি ফিল্ম পঞ্চায়েতগুলিকে দেয় যোজনার উপকারিতা নিয়ে সচেতন করতে।
•    উপভোক্তা সুরক্ষা আইন ২০১৯ সংক্রান্ত বিশেষ সতকর্তামূলক অভিযান চালানো হয় পোস্টার, অডিও ক্লিপিং এবং ভিডিও ফিল্মের মাধ্যমে। পঞ্চায়েতী রাজ দপ্তর, কৃষি বিজ্ঞান কেন্দ্র, ডাকঘর এবং রাজ্য সরকারগুলির সাহায্যে জাতীয় উপভোক্তা হেল্পলাইনে কিভাবে অভিযোগ দাখিল করতে হবে সেই সম্পর্কেও প্রচার চালানো হয়।
৭) ন্যাশনাল টেস্ট হাউস
•    ন্যাশনাল টেস্ট হাউস তার আঞ্চলিক কার্যালয়গুলির মাধ্যমে বিভিন্ন ইঞ্জিনিয়ারিং দ্রব্য এবং পূর্ণ প্রস্তুত দ্রব্যের পরীক্ষা-নিরীক্ষা এবং গুণমান খতিয়ে দেখার কাজ করে।
 

***

 


CG/AP/NS



(Release ID: 1682614) Visitor Counter : 13