বিদ্যুৎমন্ত্রক

প্রথম বারের মতো কেন্দ্র “বিদ্যুৎ (উপভোক্তার অধিকার) নিয়মাবলী ২০২০”-এর মাধ্যমে বিদ্যুতের গ্রাহকদের অধিকার সুনিশ্চিত করেছে

Posted On: 21 DEC 2020 3:48PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লী, ২১ ডিসেম্বর, ২০২০

বিদ্যুৎ মন্ত্রক দেশে বিদ্যুতের গ্রাহকদের জন্য অধিকার সংক্রান্ত নিয়মাবলী প্রকাশ করেছে। বিদ্যুৎ, নতুন ও পুননর্বীকরণযোগ্য জ্বালানী দপ্তরের স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিমন্ত্রী শ্রী আর কে সিং সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে এই নিয়মগুলির বিষয়ে বিস্তারিত জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন এই নিয়মগুলির ফলে গ্রাহকেরা বিদ্যুৎ ব্যবস্থার প্রতি আস্থা এবং তাঁদের নির্ভরযোগ্য পরিষেবা ও যথাযথ বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করা হবে। তিনি বলেছেন, দেশজুড়ে বন্টন সংস্থাগুলির- তা সরকারি হোক বা বেসরকারি- একচ্ছত্র বাজার নিয়ন্ত্রণ করে। ফলে গ্রাহকদের কোনও বিকল্প থাকেনা। আর তাই গ্রাহকদের অধিকার সুনিশ্চিত করার জন্য এই নিয়মাবলীগুলির প্রয়োজন দেখা দিয়েছে। 

মন্ত্রী আরও জানিয়েছেন, এর ফলে দেশজুড়ে সহজে ব্যবসা করার পরিবেশ গড়ে উঠবে। গ্রাহকরা নির্দিষ্ট সময়ে বিদ্যুতের সংযোগ, রিফান্ড যোগ্য টাকা অথবা অন্যান্য পরিষেবা পাবেন। ইচ্ছাকৃতভাবে গ্রাহকদের অধিকার ভঙ্গ করা হলে সংশ্লিষ্ট সংস্থাকে জরিমানা দিতে হবে। তিনি বলেছেন কেন্দ্রীয় সরকারের এটি জন-পরিষেবার ক্ষেত্রে গ্রাহকমুখী উদ্যোগ। এর ফলে দেশের ৩০ কোটি বর্তমান গ্রাহক এবং সম্ভাব্য গ্রাহকদের সুবিধা হবে। রাজ্য ও বিদ্যুৎ বন্টন সংস্থাগুলিকে গ্রাহক বান্ধব এই নিয়মাবলীর বিপুল প্রচারের জন্য তিনি পরামর্শ দিয়েছেন যাতে গ্রামাঞ্চলের গ্রাহকরা সহ সব ধরণের গ্রাহকের মধ্যে সচেতনতা গড়ে তোলা যায়।   

১) বিদ্যুৎ (উপভোক্তার অধিকার) নিয়মাবলীর মূল বিষয়

ক) গ্রাহকের অধিকার এবং বন্টনের দায়িত্বপ্রাপ্ত লাইসেন্সধারীদের বাধ্যবাধকতা

খ) নতুন সংযোগের এবং বর্তমান সংযোগের পরিবর্তনের ক্ষেত্রে নিয়মাবলী

গ) মিটারের ব্যবস্থাপনা

ঘ) বিদ্যুতের বিল ও অর্থ প্রদান

ঙ) সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা ও সংযোগের পুনর্স্থাপন

চ) বিদ্যুৎ সরবরাহের ওপর নির্ভরশীলতা

ছ) গ্রাহকদের উৎপাদক গ্রাহক হিসেবে ভূমিকা

জ) লাইসেন্সধারীদের সরবরাহের ক্ষেত্রে মান

ঝ) ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থাপনা

ঞ) গ্রাহক পরিষেবার জন্য কলসেন্টার

ট) অভিযোগ নিষ্পত্তির ব্যবস্থাপনা

২) অধিকার ও বাধ্যবাধকতা-

 বন্টনের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রত্যেক লাইসেন্সধারীর কর্তব্য হল যেকোন বাড়ির মালিক বা ব্যবহারকারীর অনুরোধ অনুযায়ী বিদ্যুৎ সরবরাহ করা।

 বন্টনকারী লাইসেন্স প্রাপ্তের কাছ থেকে ন্যূনতম পরিষেবা পাওয়ার অধিকার উপভোক্তার রয়েছে।  

৩) নতুন সংযোগ ও বর্তমান সংযোগের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় পরিবর্তন

 স্বচ্ছ, সরল ও নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করতে হবে

 অনলাইনের মাধ্যমেও আবেদন করা যাবে

 মহানগরের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৭ দিন, শহরের ক্ষেত্রে ১৫ দিন এবং গ্রামাঞ্চলের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৩০ দিনের মধ্যে নতুন সংযোগ অথবা পুরনো সংযোগের পরিবর্তনের কাজ করতে হবে।

৪) মিটার

 মিটার ছাড়া কাউকে বিদ্যুতের সংযোগ দেওয়া যাবেনা

 স্মার্ট প্রি পেমেন্ট মিটার অথবা প্রি পেমেন্ট মিটারের ব্যবস্থা করতে হবে

 মিটারের পরীক্ষার ব্যবস্থা রাখতে হবে

 খারাপ বা পুড়ে যাওয়া অথবা মিটার চুরি হলে নতুন মিটারের ব্যবস্থা করতে হবে

৫) বিদ্যুতের বিল ও অর্থ প্রদান

 গ্রাহকদের মাশুল এবং বিলের ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা

 গ্রাহকরা অনলাইন বা অফলাইনে বিলের টাকা জমা দিতে পারবেন

 বিলের টাকা অ্যাডভান্স দেওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে

৬) সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা ও সংযোগের পুনর্স্থাপন

৭) বিদ্যুৎ সরবরাহের ওপর নির্ভরশীলতা 

 সমস্ত গ্রাহককে বন্টনের দায়িত্বপ্রাপ্ত লাইসেন্সধারীদের সবসময় বিদ্যুতের ব্যবস্থা করতে হবে, তবে কৃষি সহ কিছু ক্ষেত্রে গ্রাহকদের জন্য বিদ্যুৎ সরবরাহের সময়সীমা কমিশন কমিয়ে দিতে পারে।

 বন্টনের দায়িত্বপ্রাপ্ত লাইসেন্সধারীর নজরদারি এবং সংযোগ পুনস্থাপনের জন্য একটি ব্যবস্থাপনা তৈরি করতে পারে যেটি স্বয়ংক্রিয় হওয়া বাঞ্ছনীয়।  

৮) গ্রাহকদের উৎপাদক গ্রাহক হিসেবে ভূমিকা 

 গ্রাহক যখন উৎপাদকের ভূমিকা পালন করবে তখনও তিনি গ্রাহক হিসেবে বিবেচিত হবেন এবং অন্যান্য সাধারণ গ্রাহকদের মতো তাঁর সব অধিকারগুলি বজায় থাকবে। এক্ষেত্রে বাড়ির ছাদে সোলার ফটোভোল্টিক ব্যবস্থাপনা গ্রাহক নিজে অথবা সংশ্লিষ্ট পরিষেবা প্রদানকারী বসাতে পারেন যেখান থেকে বিদ্যুৎ উপাদন করা যাবে।

 ন্যূনতম বিদ্যুতের লোড ১০ কিলোওয়াট এবং সার্বিক মিটারিং-এর পরিমাণ ১০ কিলোওয়াটের বেশি হতে হবে। 

৯) লাইসেন্সধারীদের সরবরাহের ক্ষেত্রে মান

 কমিশন বন্টনের দায়িত্বপ্রাপ্ত লাইসেন্সধারীদের সরবরাহের মানের বিষয়টি নিশ্চিত করবে

 নির্ধারিত মান বজায় না রাখলে গ্রাহককে লাইসেন্সধারী ক্ষতিপূরণ দেবে

১০) ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থাপনা

 দূর সঞ্চার পদ্ধতিতে নজরদারির মাধ্যমে মানানুসারে গ্রাহকরা বিদ্যুৎ না পেলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ক্ষতিপুরণ দেওয়া হবে। 

 বন্টনের দায়িত্বপ্রাপ্ত লাইসেন্সধারী ক্ষতিপূরণ দেওয়ার সময় কোনও নির্দিষ্ট অর্থের পরিমাণের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবেনা। এক্ষেত্রে যে বিষয়গুলি বিবেচিত হবে সেগুলি হল 

ক) কমিশনের নির্দিষ্ট সময় অতিক্রান্ত হলে গ্রাহক বিদ্যুৎ যদি না পান

খ) কমিশন নির্ধারিত বিদ্যুৎ সরবরাহে বিঘ্ন ঘটার পরিমাণ অতিক্রান্ত হলে

গ) বিদ্যুতের সংযোগ, সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা, পুর্নসংযোগ এবং অন্য জায়গায় সংযোগের ব্যবস্থা করার জন্য নির্ধারিত সময় অতিক্রান্ত হলে

ঘ) গ্রাহকের শ্রেণী বদল বা লোনের পরিমাণের পরিবর্তনের ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট সময় অতিক্রান্ত হলে 

ঙ) গ্রাহকের বিষয়ে বিস্তারিত তথ্যের পরিবর্তনের জন্য নির্দিষ্ট সময় অতিক্রান্ত হলে 

চ) খারাপ মিটার পরিবর্তনের সময়সীমা পেরিয়ে গেলে

ছ) যে সময়ের মধ্যে গ্রাহকের কাছে বিল দিতে হবে সেই সময়টি পেরিয়ে গেলে

জ) ভোল্টেজ সংক্রান্ত অভিযোগের নিষ্পত্তি করতে নির্দিষ্ট সময় অতিক্রান্ত হলে

ঝ) বিল সংক্রান্ত অভিযোগ

১১) গ্রাহক পরিষেবার জন্য কলসেন্টার

 বন্টনে দায়িত্বপ্রাপ্ত লাইসেন্সধারীকে একটি কেন্দ্রীয় স্তরে সবসময়ের জন্য টোল ফ্রি কলসেন্টারের ব্যবস্থা করতে হবে।

 লাইসেন্সধারীকে একজন অভিন্ন গ্রাহক সম্পর্ক ম্যানেজারের মাধ্যমে বিভিন্ন পরিষেবা পূরণের বিষয়ে প্রয়োজনীয় তথ্য সরবরাহ করতে  হবে।

১২) অভিযোগ নিষ্পত্তির ব্যবস্থাপনা

 গ্রাহকদের অভিযোগ নিষ্পত্তির ব্যবস্থাপনা গ্রাহক ও উৎপাদক গ্রাহকের প্রতিনিধিদের জানতে হবে 

 গ্রাহক অভিযোগ নিষ্পত্তির ক্ষেত্রে বহুস্তরীয় ব্যবস্থাপনা গড়ে তুলতে হবে এবং গ্রাহক প্রতিনিধির সংখ্যা একজনের পরিবর্তে ৪ জন করতে হবে।

 লাইসেন্সধারীকে বিভিন্ন অভিযোগের নিষ্পত্তি নানা ফোরামের দেওয়া নির্ধারিত সময়েই করতে হবে। এক্ষেত্রে সর্বোচ্চ সময়সীমা ৪৫দিন।   

১৩) আরও কিছু নিয়মাবলী

 আবেদন জমা দেওয়া, আবেদনটি এখন কোন পর্যায়ে রয়েছে তা জানা, বিলের টাকা জমা দেওয়া, অভিযোগ নিষ্পত্তির পর্যায় ইত্যাদির বিষয়ে নানা তথ্য, গ্রাহকরা সংস্থার ওয়েবসাই্‌ ওয়েব পোর্টাল এবং মোবাইল অ্যাপের মতো বিভিন্ন ব্যবস্থা ছাড়াও আঞ্চলিক দপ্তর থেকে জানতে পারবেন।  

 বন্টনের দায়িত্বপ্রাপ্ত লাইসেন্সধারীকে প্রবীণ নাগরিকদের জন্য আবেদন জমা দেওয়া, বিদ্যুতের বিলের টাকা দেওয়া ইত্যাদি পরিষেবা তাঁদের কাছে পৌঁছে দিতে হবে।   

 বিদ্যুতের সরবরাহ কখনও বন্ধ করতে হলে সেটি গ্রাহকদের জানাতে হবে। হঠাৎ করে পরিষেবায় বিঘ্ন ঘটলে গ্রাহককে এসএমএস অথবা অন্য কোন বৈদ্যুতিন মাধ্যমে জানাতে হবে। কখন বিদ্যুৎ আবার আসবে সে বিষয়ে সম্ভাব্য একটি সময়ও গ্রাহককে জানিয়ে দেওয়া হবে।    

এই নিয়মাবলীটি বিশদে জানার জন্য নিচের লিঙ্কে ক্লিক করুনঃ- 

https://static.pib.gov.in/WriteReadData/userfiles/final%20-%20Copy%202.pdf

***

 

 

CG/CB /NS



(Release ID: 1682482) Visitor Counter : 417