বিজ্ঞানওপ্রযুক্তিমন্ত্রক

থার্টি মিটার টেলিস্কোপ প্রকল্পের জন্য নোবেল বিজয়ীকে সাহায্য করছেন ভারতের জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা

Posted On: 10 NOV 2020 2:22PM by PIB Kolkata

নতুন দিল্লি, ১০ নভেম্বর, ২০২০



২০২০’র পদার্থবিদ্যায় নোবেল বিজেতা অধ্যাপক আন্দ্রিয়া ঘেজ, একসঙ্গে কাজ করছেন ভারতীয় জ্যোতির্বিজ্ঞানীদের সঙ্গে যন্ত্রপাতির নক্সা এবং থার্টি মিটার টেলিস্কোপ (টিএমটি) -এর সম্ভাব্য বৈজ্ঞানিক সম্ভাবনা নিয়ে। হাওয়াইয়ের মাউনাকিয়াতে স্থাপিত এই টিএমটি ব্রহ্মাণ্ড এবং তার রহস্য বোঝার ক্ষেত্রে বিপ্লব আনতে পারে।


এর পাশাপাশি অধ্যাপক রজার পেনরোজ এবং অধ্যাপক রাইনহার্ট গেঞ্জেরের সঙ্গে অধ্যাপক গেজ আমাদের সৌরমণ্ডলের কেন্দ্রে এক সুপার প্রকাণ্ড ঘনবদ্ধ বস্তু আবিষ্কারে অবদান রেখেছেন। এজন্য তাঁরা পদার্থবিদ্যায় নোবেল পেয়েছেন। অধ্যাপক গেজ, সংশ্লিষ্ট যন্ত্রপাতির উন্নয়নে এবং আগামী প্রজন্মের পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র টিএমটি-র সম্ভাব্য বৈজ্ঞানিক সম্ভাবনা নিয়ে কাজে গভীরভাবে জড়িত। অ্যাডাপটিভ অপটিক্সের মতো অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে টিএমটি যন্ত্রপাতি এবং সামনের সারির সম্ভাব্য বৈজ্ঞানিক বিষয়গুলির মূল্যায়নে কাজ করা দলের সদস্য তিনি।


থার্টি মিটার টেলিস্কোপ (টিএমটি) প্রকল্পটি আন্তর্জাতিক সহযোগিতায় গড়ে উঠছে।  বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি দপ্তর এবং পারমাণবিক শক্তি দপ্তরের মাধ্যমে ভারত এবং চীন, জাপান, কানাডা, ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয় এবং ক্যালটেকের মধ্যে এই সহযোগিতা হয়েছে। ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ অ্যাস্ট্রোফিজিক্স (আইআইএ) – এর ড. অন্নপুর্নি সুব্রমনিয়াম, আর্যভট্ট রিসার্চ ইনস্টিটিউট অফ অবজারভেশনাল সায়েন্সেস (এআরআইইএস) – এর মতো কতিপয় ভারতীয় জ্যোতির্বিজ্ঞানী এবং অন্যরা এই চলতি গবেষণা এবং টিএমটি প্রকল্পের অগ্রগতির কাজে অধ্যাপক গেজকে কে . সাহায্য করছেন।


এর ফলে অন্য অনেকের মধ্যে ২টি গুরুত্বপূর্ণ পেপার তৈরি হয়েছে। ইনফ্রারেড ইমেজিং স্পেক্টোগ্রাফ এবং সাম্প্রতিক সৌর ব্যবস্থা নিয়ে তথ্য সিমুলেটর। এতে দেখা যাচ্ছে, আইরিস / টিএমটি, ভবিষ্যতেও সামনের সারির বিজ্ঞান গবেষণা চালাতে পারবে এবং আমাদের নক্ষত্র মণ্ডলের মধ্যে অবস্থিত প্রকাণ্ড ঘনবদ্ধ বস্তুটির বৈশিষ্ট বুঝতে পারবে। এছাড়াও অজানার খোঁজে আরো নতুন নতুন বিষয় সামনে আসবে। বিজ্ঞানীরা আধুনিক তথ্য ব্যবস্থাপনা পদ্ধতি এবং তথ্য হ্রাস পাইপলাইনের প্রয়োজনীয়তার কথা বলেছেন।


২০১৫য় রিসার্চ ইন অ্যাস্ট্রোনমি অ্যান্ড অ্যাস্ট্রোফিজিক্স পত্রিকায় সম্মিলিতভাবে প্রকাশিত নিবন্ধে টিএমটি ব্যবহার করে বিভিন্ন নক্ষত্র মণ্ডল এবং তারও বাইরের বস্তুর জন্য ভবিষ্যতের মাল্টিমেসেঞ্জার জ্যোতির্বিজ্ঞানের কথা তুলে ধরা হয়েছে। এক্ষেত্রেও অধ্যাপক গেজের বৃহত্তর দলের অঙ্গ অন্য ভারতীয় জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা।


থার্টি মিটার টেলিস্কোপ, বিজ্ঞানের ধারণাকে বাড়িয়ে দিতে চায়, অংশীদারী দেশ এবং তার নাগরিকদের মধ্যে সংযোগ রেখে যেখানে ভারতীয় জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা কাজ করছেন অধ্যাপক আন্দ্রিয়া গেজের সঙ্গে। এর ফলে আশা করা যায়, জ্যোতির্বিজ্ঞান এবং সাধারণভাবে পদার্থবিদ্যার ক্ষেত্রে নতুন নতুন প্রশ্নের উত্তর দিতে প্রয়োজন, পর্যবেক্ষণ সংহত করার অতিরিক্ত শক্তি এটি দিতে পারবে।

***

 


CG/AP/SFS



(Release ID: 1671835) Visitor Counter : 59