মন্ত্রিসভারঅর্থনৈতিকবিষয়সংক্রান্তকমিটি

২০২০-২১ অর্থবর্ষে খরিফ শস্যের বিপণন মরশুমে ফসলের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য বৃদ্ধিতে অনুমোদন কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার

Posted On: 01 JUN 2020 5:47PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ১ জুন, ২০২০

 



প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদীর পৌরোহিত্যে আজ কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার আর্থিক বিষয় সংক্রান্ত কমিটির বৈঠকে ২০২০-২১ অর্থবর্ষে খরিফ শস্যের বিপণন মরশুমে ফসলের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য বৃদ্ধি অনুমোদিত হয়েছে।

কৃষকরা যাতে তাঁদের উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্য দাম পান তা সুনিশ্চিত করার জন্য সরকার খরিফ ফসলের বিপণন মরশুমে ন্যূনতম সহায়ক মূল্য বৃদ্ধি করেছে। নাইজার বীজের ক্ষেত্রে ক্যুইন্টালপিছু ৭৫৫ টাকা, উরাদের দাম ক্যুইন্টালপিছু ৩০০ টাকা ও লম্বা ধরনের তুলোর ক্ষেত্রে ক্যুইন্টালপিছু ২৭৫ টাকা বৃদ্ধি করা হয়েছে।

২০২০-২১ অর্থবর্ষে খরিফ মরশুমের ফসলের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য ২০১৮-১৯ অর্থবর্ষের বাজেটের ঘোষণার তুলনায়  প্রায় দেড়গুণ বৃদ্ধি করা হয়েছে। এতে কৃষকদের ফসল উৎপাদন ব্যয়ের তুলনায় তাঁদের আয় বাজরার ক্ষেত্রে ৮৩ শতাংশ, উরাদের ক্ষেত্রে ৬৪ শতাংশ, তুরের ক্ষেত্রে ৫৮ শতাংশ এবং ভুট্টার ক্ষেত্রে ৫৩ শতাংশ বৃদ্ধি পাবে। বাকি ফসলের ক্ষেত্রে গড়ে ৫০ শতাংশ লাভ হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

সরকারের মূল লক্ষ্যই হল কৃষকদের আয় বৃদ্ধি করা। তাই, কৃষকরা যাতে ফসল উৎপাদন করে লাভ করতে পারেন তার ওপর বিশেষ জোর দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও, কৃষকদের আয় সুনিশ্চিত করতে সরকার একাধিক নীতি গ্রহণ করেছে।

কোভিড-১৯-এর কারণে লকডাউন পরিস্থিতিতে কৃষকদের সহায়তা এবং কৃষিকার্যের সুবিধার্থে সরকার ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি গ্রহণ করেছে। কৃষকরা যাতে কৃষি পণ্যের সহজেই  বিপণন করতে পারেন তার জন্য প্রয়াস চালানো হচ্ছে। এছাড়াও, ‘প্রধানমন্ত্রী অন্ত্যোদয় অন্ন সংরক্ষণ অভিযান’ ঘোষণা করা হয়েছে। এর পাশাপাশি, লকডাউনের সময় ‘প্রধানমন্ত্রী কৃষি সম্মান নিধি’ প্রকল্প চালু করা হয়েছে। এ পর্যন্ত এই প্রকল্পের আওতায় ৮.৮৯ কোটি কৃষক পরিবার লাভবান হয়েছে এবং তাঁদের ১৭,৭১৩ কোটি টাকা আর্থিক সহয়তা প্রদান করা হয়েছে।

 



CG/SS/DM



(Release ID: 1628500) Visitor Counter : 23