স্বাস্থ্যওপরিবারকল্যাণমন্ত্রক

রক্তদান জীবন বাঁচায়। “আসুন আমরা রক্তদান নিয়ে সচেতনতা বাড়িতে তুলি এবং রক্তের প্রয়োজন আছে এমন ব্যক্তিরা যাতে সময়মত সুলভে উৎকৃষ্ট রক্ত পান তা সুনিশ্চিত করি " ড: হর্ষবর্ধন

সকলকে রক্তদানে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রী ড:হর্ষ বর্ধন একে অপরের পাশে দাঁড়াবার পরামর্শ দিয়েছেন

Posted On: 04 MAY 2020 3:08PM by PIB Kolkata

নতুন দিল্লি, ৪ মে, ২০২০

 

 


রক্তদান জীবন বাঁচায়। যাদের রক্তের প্রয়োজন আছে তারা যাতে সময়মত  সুলভে  উৎকৃষ্ট রক্ত পান তা সুনিশ্চিত করতে রক্তদানে সচেতনতা  বাড়াতে হবে। সকলকে রক্তদানে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রী ড:হর্ষ বর্ধন একে অপরের পাশে দাঁড়াবার পরামর্শ দিয়েছেন। নতুন দিল্লীতে রেড ক্রস সোসাইটি ভবনে অনুষ্ঠিত এক রক্তদান শিবিরে আজ তিনি একথা বলেন। ড:হর্ষ বর্ধন বলেন, ব্যক্তিগতভাবে  তিনি একাধিকবার থ্যালাসেমিয়া রোগীদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন। তার  কাছে টুইটার বা অন্যান্য সোশাল মিডিয়ায় অনেক আবেদন ও অভিযোগ আসে সেই সব রোগীদের কাছ থেকে,যাদের নিয়মিত ভাবে রক্ত নিয়ে সুস্থ থাকতে হয়। তাই ব্লাড ব্যাঙ্ক গুলিতে টাটকা রক্তের প্রয়োজনীয় চাহিদা মেটানো,আমাদের দায়িত্ব এবং কর্তব্যর মধ্যে পড়ে বলে তিনি মন্তব্য করেছেন।


শ্রী বর্ধন সমস্ত স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা,অসরকারী সংগঠন এবং সাধারণ মানুষের কাছে রক্তদানে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান,এর দরুন দেশের প্রয়োজনে রক্তের মজুতের পরিমান সঠিক মাত্রায় বজায় থাকবে বলে তিনি জানান। মন্ত্রী বলেন, মানবিক কার্যকলাপে অনুপ্রেরণা,উৎসাহ এবং উদ্যোগী হওয়া আমাদের মূল লক্ষ্য হতে হবে। এর ফলে আগামী দিনে মানুষের দূর্ভোগ অনেক কম করা যাবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।


ড:হর্ষ বর্ধন,রেড ক্রস সোসাইটি কে রক্তের মজুত বাড়াবার আহ্বান জানান।এর জন্য অনেক বেশি স্বেচ্ছায় রক্তদান শিবির সংগঠিত করার পরামর্শ দেন তিনি। নিয়মিত যাঁরা স্বেচ্ছায় রক্তদান করে থাকেন,প্রয়োজনে তাদের যাতায়াতের ব্যবস্থা করার কথাও বলেন তিনি। এই সঙ্কটকালে স্বেচ্ছা রক্তদান কারীদের বাড়ীতে রক্ত সংগ্রহের গাড়ি পাঠাবার পরামর্শ দেন। ড:বর্ধন জানান,তিনি রাজ্য গুলির স্বাস্থ্য মন্ত্রীদের স্বেচ্ছা রক্তদান শিবির সংগঠিত করতে চিঠি লিখেছেন।
মন্ত্রী বলেন,কোভিড-19 সংক্রমণ কালে সরকার যাদের রক্তের প্রয়োজন রয়েছে, তাদের প্রয়োজন মিটিয়ে চলেছে। তিনি রেড ক্রস আধিকারিকদের আরো রক্তদান শিবির সংগঠিত করার  অনুরোধ জানান। যারা এই শিবিরে কাজ করবেন তাদের জন্য ৩০,০০০ পাস দেওয়া হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।


স্বেচ্ছায় রক্তদানকারিদের উৎসাহ দিয়ে তিনি বলেন,মানুষের জীবন বাঁচানো মনুষ্যত্বের একটি বড় দিক। যে কোনো সুস্থ ব্যক্তি ৬৫ বছর বয়স পর্যন্ত রক্তদান করতে পারেন। বছরে চার বার রক্তদান করলে সুস্থ থাকা যায় বলে তিনি জানান। তিনি বলেন রক্তদান করলে রক্তদান কারীরাও অনেক রকম ভাবে সুস্থ থাকতে পারেন। রক্তদান করলে,হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা কমে,পাশাপাশি রক্তচাপ নিয়ন্ত্রন,কোলস্টরেলের মাত্রা কম হয়, তাতে মেদবহুলতা কমে। তিনি নিজে ১০০ বার স্বেচ্ছায় রক্তদান করেছেন বলে জানান।


তিনি বলেন রেড ক্রস সোসাইটি একটি স্বেচ্ছাসেবী মানবিক সংগঠন, যাদের দেশজুড়ে ১১০০ টিরও বেশি শাখা ছড়িয়ে রয়েছে। তারা দেশের যে কোনো সঙ্কট কালে এগিয়ে এসে পরিষেবা দেয়।


কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেন দেশজুড়ে লকডাউন বিধিনিষেধ আরোপ হয়েছে এই মারন ভাইরাসটিকে আটকাতে, তাই সকলকেই এই বিধিনিষেধ মেনে চলার পরামর্শ দেন তিনি। তিনি জানান এই ভাইরাসটিকে আটকাতে, ভারতের হাতে যথেষ্ট পরিমান হাসপাতাল, পি পি ই, এন-95 মাস্ক, ভেন্টিলেটার এবং ওষুধ মজুত রয়েছে। অন্যান্য রাষ্ট্রের তুলনায় ভারত এখন অনেকটাই সুবিধাজনক অবস্থায় রয়েছে বলে তিনি জানান। পাশাপাশি রেড ক্রস যে ভাবে নানান চিকিৎসা সামগ্রী সরবরাহ করে সরকারের পাশে দাঁড়িয়েছে , তার তিনি ভূয়সী প্রশংসা করেন।


আজকের রক্তদান শিবিরে যাঁরা স্বেচ্ছায় রক্তদান করতে নাম নথিভুক্ত করেছেন পরিশেষে তিনি তাদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। তিনি জানান আপাতত  ২০০ জন স্বেচ্ছাসেবী রক্তদানের জন্য নাম নথিভুক্ত করেছেন আরও বহু ব্যক্তি করবেন। তিনি প্রতিটি ঘরে গিয়ে রক্তদাতাদের সঙ্গে দেখা করে উৎসাহ দেন। রক্তদাতাদের মধ্যে বেশ কয়েকজন পুলিশ কর্মীও ছিলেন।


আজকের রক্তদান শিবিরে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উত্তর পূর্ব দিল্লীর সাংসদ শ্রী মনোজ তিওয়ারি, ভারতীয় রেড ক্রস সোসাইটির মহা সচিব শ্রী আর কে জৈন, সমাজসেবক শ্রী শ্যাম জজু প্রমুখ।

 

 


CG/PPM



(Release ID: 1620980) Visitor Counter : 410