বিদ্যুৎমন্ত্রক

বিশ্ব পরিবেশ দিবসের ৫০তম বার্ষিকীতে বাড়িতে বাড়িতে বিদ্যুতের মাধ্যমে রন্ধন প্রক্রিয়ার প্রচলন বাড়ানোর বিষয়ে সম্মেলনের আয়োজন করল সরকার

Posted On: 05 JUN 2023 12:02PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ০৫ জুন, ২০২৩
বিশ্ব পরিবেশ দিবসে নতুন দিল্লিতে বাড়িতে বাড়িতে বিদ্যুতের মাধ্যমে রন্ধন প্রক্রিয়ার প্রচলন বাড়ানোর বিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের বিদ্যুৎ মন্ত্রকের আওতাধীন ব্যুরো অফ এনার্জি এফিশিয়েন্সি এবং সিএলএএসপি-র উদ্যোগে একটি সম্মেলনের আয়োজন করা হ’ল।
বিদ্যুৎ মন্ত্রকের অতিরিক্ত সচিব শ্রী অজয় তিওয়ারি তাঁর ভাষণে বলেন, রান্নার কাজে বিদ্যুতের ব্যবহার পরিবেশ রক্ষার প্রশ্নে সহায়ক। এখনও বহু মানুষ বিষয়টি নিয়ে গুরুত্ব দিয়ে না ভাবলেও শহরে ও গ্রামে এর প্রচলন নানা দিক থেকেই সুবিধাজনক হয়ে উঠতে পারে ভবিষ্যতে।
২০২১ সালে গ্লাসগোতে কপ-২৬ এ প্রধানমন্ত্রীর প্রস্তাবিত ‘লাইফ’ কর্মসূচির প্রসঙ্গ তুলে তিনি আরও বলেন, জ্বালানী ব্যবহারে পরিবর্তনের ক্ষেত্রে ভারত সারা বিশ্বে নেতৃস্থানীয় ভূমিকা নিয়েছে। পুনর্নবীকরণযোগ্য শক্তির ক্ষেত্রে নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রায় আমরা পৌঁছে যাব নির্ধারিত সময়ের আগেই।
বাড়িতে বাড়িতে ২৪ ঘন্টা বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত হওয়ায় রান্নার কাজে বিদ্যুৎ ব্যবহারের ক্ষেত্রে এগোনো ভারতের পক্ষে সম্ভব - একথা উল্লেখ করে শ্রী তিওয়ারি বলেন, সৌভাগ্য যোজনার আওতায় ১৮ মাসে ২ কোটি ৬০ লক্ষ পরিবার বিদ্যুৎ সংযোগ পেয়েছেন, যা নজিরবিহীন। তবে, সারা বিশ্বের ৭০ কোটি মানুষ এখনও বিদ্যুৎ পরিষেবা থেকে বঞ্চিত। সকলের কাছে এই পরিষেবা পৌঁছে দেওয়া জি-২০’র অন্যতম অগ্রাধিকার।
তিনি আরও বলেন, উজ্জ্বলা যোজনার সাফল্যের পর সরকার বিদ্যুৎ ব্যবহারের মাধ্যমে রান্নার কাজের প্রচলন জোরদার করতে চায়। এক্ষেত্রে সুলভে বিদ্যুতের যোগান এবং গোটা বিষয়টি বাণিজ্যিক দিক থেকে যুক্তিযুক্ত হওয়াও জরুরি।
অনুষ্ঠানের মূল ভাষণে ব্যুরো অফ এনার্জি এফিশিয়েন্সির মহানির্দেশক শ্রী অভয় বাকরে বলেন, ‘লাইফ’ অভিযানের মাধ্যমে পরিবেশ সংরক্ষণের বিষয়ে এগোনোর ক্ষেত্রে বিদ্যুতের মাধ্যমে রান্নার কাজের প্রচলন বিশেষ সহায়ক হয়ে উঠতে পারে। এজন্য প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম তৈরির ক্ষেত্রে আরও গবেষণার পাশাপাশি, সবধরনের খাবারদাবার যাতে ঐ সরঞ্জাম ব্যবহার করে তৈরি করা যায়, সেই বিষয়টিও সমান জরুরি। এক্ষেত্রে প্রাথমিকভাবে আংশিকভাবে বিদ্যুৎ চালিত সরঞ্জাম ব্যবহারের দিকে এগিয়ে পরবর্তীতে সামগ্রিক পরিবর্তন একটি পন্থা হতে পারে বলে তিনি মনে করেন।
ধারাবাহিক উন্নয়ন লক্ষ্য ৭.১ – এর সঙ্গে এই বিষয়টি সাযুজ্যপূর্ণ বলে শ্রী বাকরে আরও বলেন, এর মাধ্যমে বিদ্যুৎ ক্ষেত্র এবং উপভোক্তা – দু’পক্ষই লাভবান হবেন।
সিএলএএসপি-র বরিষ্ঠ অধিকর্তা শ্রী বিশাল থাপা তাঁর ভাষণে বলেন, বিদ্যুৎ শক্তি ব্যবহার করে রান্নাবান্নার প্রচলন বাড়লে জীবনযাপনের মানোন্নয়ন এবং পরিবেশ রক্ষার পাশাপাশি, জ্বালানী আমদানির উপরও দেশে নির্ভরশীলতা কমবে।
ব্যুরো অফ এনার্জি এফিশিয়েন্সির সচিব শ্রী মিলিন্দ দেওরা এই সম্মেলনের উদ্বোধনী অধিবেশনের সমাপ্তিতে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

CG/AC/SB



(Release ID: 1930127) Visitor Counter : 90