পরিবেশওঅরণ্যমন্ত্রক

এই প্রথম এনটিসিএ-র বৈঠক জাতীয় রাজধানীর পরিবর্তে অরুণচল প্রদেশে অনুষ্ঠিত

Posted On: 09 APR 2022 3:24PM by PIB Kolkata
নতুন দিল্লি,  ৯ এপ্রিল, ২০২২
 
কেন্দ্রীয় পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রী শ্রী ভূপেন্দ্র যাদবের পৌরোহিত্যে আজ অরুণাচল প্রদেশে পাক্কে ব্যাঘ্র সংরক্ষণ কেন্দ্রে জাতীয় ব্যাঘ্র কর্তৃপক্ষের (এনটিসিএ) বিংশতিতম বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। 
 
জাতীয় ব্যাঘ্র সংরক্ষণ কর্তৃপক্ষের ইতিহাসে এই প্রথম জাতীয় রাজধানীর পরিবর্তে অন্যত্র এধরণের বৈঠকের আয়োজন করা হয়। ব্যাঘ্র সংরক্ষণ কেন্দ্র তথা স্থানীয় বিভিন্ন বিষয়ে হাতেনাতে বিভিন্ন তথ্য পেতে মন্ত্রী দিল্লির বাইরে দেশের বিভিন্ন ব্যাঘ্র সংরক্ষণ কেন্দ্রে এই ধরণের বৈঠক আয়োজনের নির্দেশ দিয়েছিলেন। বৈঠকে শ্রী যাদব বলেন, বিভিন্ন প্রজাতির গাছপালা ও বৈচিত্রময় প্রাণী জগৎ রয়েছে এমন ব্যাঘ্র সংরক্ষণ কেন্দ্রগুলির সার্বিক উন্নয়নে আরও অগ্রাধিকার দিতে হবে। একই সঙ্গে স্থানীয় মানুষ যারা অরণ্যের ওপর নির্ভরশীল তাদের জীবন-জীবিকার বিষয়টিও সুনিশ্চিত করতে হবে। 
 
ব্যাঘ্র সংরক্ষণ এলাকা তথা অরণ্যের উন্নয়নে স্থানীয় মানুষের সক্রিয় অংশগ্রহণের ওপর জোর দিয়ে মন্ত্রী বলেন, বন বিভাগের আধিকারিক সহ স্থানীয় গ্রাম, বিশেষজ্ঞ এবং ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে নিয়মিত বৈঠক আয়োজিত করতে হবে। এই উপলক্ষে স্থানীয় গ্রামবাসীরা ১০০টি এয়ারগান সমর্পণ করেন। উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলিতে এয়ারগানের এলোপাথাড়ি ব্যবহার বড় উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। অরুণাচল প্রদেশে গত বছরের মার্চে এয়ারগান সমর্পণ অভিযানের সূচনা হয়। এই অভিযান শুরু হওয়ার পর থেকে রাজ্যে ইতিবাচক সাড়া মিলেছে। 
 
শ্রী যাদব ব্যাঘ্র পুনর্বাসনের জন্য একটি আদর্শ কার্যপরিচালন প্রণালি সহ ব্যাঘ্র সংরক্ষণ এলাকাগুলিতে দাবানল সম্পর্কিত একটি অডিট প্রটোকল আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রকাশ করেন। 
 
উল্লেখ করা যেতে পারে, সারা বিশ্বে বন্য পরিবেশে ৭০ শতাংশ বাঘের বাস ভারতে। দেশে বিভিন্ন ভূপ্রাকৃতিক এলাকায় বাঘের বসবাস। কিছু ভূ-প্রাকৃতিক এলাকায় যেমন ঘন জনবসতি রয়েছে, আবার কিছু এলাকা সম্পূর্ণ নির্জন এবং জনপদ থেকে বহু দূরে। এই প্রেক্ষিতে তিনি যে সমস্ত সংরক্ষিত এলাকা থেকে বাঘ সম্পূর্ণ বিলুপ্ত হয়ে গেছে, সেখানে ব্যাঘ্র পুনর্বাসনের প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দেন। ব্যাঘ্র পুনর্বাসনের সমস্যা সম্পর্কে তিনি বলেন, যে সমস্ত কারণে একসময় যেখানে বিড়াল প্রজাতির সর্বশ্রেষ্ঠ এই প্রাণীটির অস্তিত্ব ছিল সেখানে তা পুনরায় ফিরিয়ে আনার জন্য প্রয়োজনীয় যাবতীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা যেতে পারে। এই বিষয়গুলিকে বিবেচনায় রেখে জাতীয় বাঘ সংরক্ষণ কর্তৃপক্ষ বন্য পরিবেশে বাঘ পুনর্বাসন ও পরিপূরক ব্যবস্থা গ্রহণ শীর্ষক আদর্শ কার্যপরিচালন প্রণালী প্রকাশ করেছে। 
 
অরণ্যের বৈচিত্র অটুট রাখতে দাবানল গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। প্রকৃতপক্ষে দাবানল অরণ্যে স্বাস্থ্যকর পরিবেশ বজায় রাখে, বিভিন্ন পৌষ্টিক উপাদানের শৃঙ্খল নতুন ভাবে গড়ে তোলে, নানা প্রজাতির গাছপালার পুনর্জন্মে সাহায্য করে। এমনকি, কিছু কিছু বন্য প্রাণীর বাসস্থান অটুট রাখতে বড় ভূমিকা নেয়। শুধু তাই নয়, দীর্ঘ সময় পর দাবানল হলে পুরো অরণ্যই ধ্বংস হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। কিন্তু কিছু সময় পর যদি এধরণের ঘটনা ঘটে, তাহলে অরণ্যে সঞ্চিত শুকনো কাঠ ও পাতার মত জ্বালানির বোঝা হ্রাস পায় এবং তা বৃহৎ দাবানল এড়াতে সাহায্য করে। এই প্রেক্ষিতে ব্যাঘ্র সংরক্ষণ কেন্দ্রগুলির আধিকারিক ও কর্মীদের জন্য জাতীয় ব্যাঘ্র সংরক্ষণ কর্তৃপক্ষ ফরেস্ট ফায়ার বা দাবানল নিয়ন্ত্রণ প্রটোকল তৈরি করেছে। 
 
CG/BD/AS/


(Release ID: 1815307) Visitor Counter : 119