মহাকাশদপ্তর

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ডাঃ জিতেন্দ্র সিং বলেছেন, ২০২২-এর দ্বিতীয়ার্ধে ইওএস-০২ কৃত্রিম উপগ্রহ উৎক্ষেপিত হবে

Posted On: 07 APR 2022 1:06PM by PIB Kolkata

নতুন দিল্লী, ০৭ এপ্রিল, ২০২২

 

ভূ বিজ্ঞান, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি দপ্তরের স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত এবং প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর, কর্মীবর্গ, জন অভিযোগ, পেনশন, পারমাণবিক শক্তি ও মহাকাশ দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী ডাঃ জিতেন্দ্র সিং জানিয়েছেন, ২০২২-এর দ্বিতীয়ার্ধে ইওএস-০২ কৃত্রিম উপগ্রহ উৎক্ষেপিত হবে। রাজ্যসভায় আজ এক প্রশ্নের লিখিত জবাবে মন্ত্রী জানান, বিভিন্ন উন্নত প্রযুক্তি সহযোগে ইওএস-০২ তৈরি করা হয়েছে। এর মাধ্যমে কৃষি, অরণ্য, ভূ বিজ্ঞান, জলসম্পদ যথাযথ ব্যবহারে সুবিধা হবে। এই কৃত্রিম উপগ্রহ বৈদ্যুতিন শক্তি, এসএসএলভি-১ এর জন্য প্রয়োজনীয় প্রযুক্তি ব্যবহার করবে। ২০২১-এর চতুর্থ ত্রৈমাসিকে কৃত্রিম উপগ্রহটি উৎক্ষেপণের কথা ছিল। কিন্তু মহামারী এবং অন্যন্য নানা কারণে আন্তর্জাতিক সরবরাহশৃঙ্খল বিঘ্নিত হওয়ায় বেশ কিছু যন্ত্রাংশ নির্দিষ্ট সময়ে এসে পৌঁছায়নি। এছাড়াও মহামারীর কারণে মানব সম্পদের যোগানের সমস্যা দেয়। ফলে এই কৃত্রিম উপগ্রহ তৈরিতে অতিরিক্ত সময় লাগে। 

ইওএস-০৩ কৃত্রিম উপগ্রহের উৎক্ষেপণ সফল না হওয়ার কারণ প্রসঙ্গে ডাঃ সিং জানান, উপগ্রহটি উৎক্ষেপণের পর প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী এর ক্রায়োজেনিক আপার স্টেজে কিছু যান্ত্রিক ত্রুটি নজরে আসে। জিএসএলভি-র ক্রায়োজেনিক আপার স্টেজে বেশ কিছু ত্রুটি জাতীয় পর্যায়ের একটি কমিটি খুঁজে পায়। এই কমিটিতে শিক্ষাবিদ এবং ইসরোর গবেষকরা ছিলেন। তদন্তে দেখা যায়, উপগ্রহটি উৎক্ষেপণের সময় প্রোপেলেন্ট ট্যাঙ্কে তরল হাইড্রোজেন স্বাভাবিক অবস্থায় ছিল না। এর ফলে, ইঞ্জিনে কম চাপ তৈরি হয়। যার ফলশ্রুতিতে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেয়। মন্ত্রী জানান, ওই কমিটির সুপারিশক্রমে আগামী দিনে জিএসএলভি প্রকল্পে ক্রায়োজেনিক আপার স্টেজের ক্ষেত্রে যে অসংগতি দেখা দিয়েছে, তা দূর করা সম্ভব হলো। আশা করা হচ্ছে, এবছরের তৃতীয় ত্রৈমাসিকে ক্রায়োজেনিক আপার স্টেজের সমস্যা দূর করে সেটি ব্যবহারের উপযোগী হয়ে উঠবে। ইওএস সিরিজে কৃত্রিম উপগ্রহগুলির মাধ্যমে যেসব ক্ষেত্র উপকৃত হবে সেগুলি হলো : 

ক) ইওএস-০১ – এর সাহায্যে কৃষি, অরণ্য ও বিপর্যয় ব্যবস্থাপনার বিভিন্ন কাজ করা সম্ভব হয়েছে।

খ) ইওএস-০২ – এর সাহায্যে বিভিন্ন উন্নত প্রযুক্তি প্রয়োগ করে কৃষি, অরণ্য, ভূতত্ত ও জলসম্বদ ক্ষেত্রে নানাবিধ কাজ করা হয়।

গ) ইওএস-০৩ – ভূস্থানিক কক্ষপথে প্রথম পর্যবেক্ষক কৃত্রিম উপগ্রহ হিসেবে এটি কাজ করে।  প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের পূর্বাভাষ, কৃষি ক্ষেত্রে কোনো সমস্যা সৃষ্টি হলে সেটি শনাক্তকরণে এই কৃত্রিম উপগ্রহ সাহায্য করে।

ঘ) ইওএস-০৪ – এর সাহায্যে সমস্ত আবহাওয়ার পরিস্থিতি সম্পর্কে তথ্য পাওয়া যায়। যার মাধ্যমে কৃষি, অরণ্য, বৃক্ষ রোপণ, মাটির আদ্রতা, জলসম্পদ ও বন্যা প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া  সম্ভব।

ঙ) ইওএস-০৫ – ভূস্থানিক কক্ষপথে পৃথিবীকে পর্যবেক্ষণ করা হয়।

চ) ইওএস-০৬ – এর মাধ্যমে মহাসাগর সংক্রান্ত নানা তথ্য পাওয়া যায়। এর ফলে মাছ ধরার ক্ষেত্রে সুবিধা হয়। এছাড়াও মহাসাগরের আবহাওয়া সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য পাওয়া যায়।

 

CG/CB/ SKD/



(Release ID: 1814542) Visitor Counter : 174