প্রতিরক্ষামন্ত্রক
azadi ka amrit mahotsav

প্রতিরক্ষামন্ত্রী চণ্ডীগড় বিশ্ববিদ্যালয়ে কল্পনা চাওলা নামাঙ্কিত মহাকাশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ক্ষেত্রে গবেষণা কেন্দ্রের সূচনা করেছেন

Posted On: 03 JAN 2022 2:01PM by PIB Kolkata
নতুন দিল্লি,  ৩ জানুয়ারি, ২০২২
 
প্রতিরক্ষামন্ত্রী শ্রী রাজনাথ সিং আজ চণ্ডীগড় বিশ্ববিদ্যালয়ে কল্পনা চাওলা নামাঙ্কিত মহাকাশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ক্ষেত্রে গবেষণা কেন্দ্রের সূচনা করেছেন। তিনি এই উপলক্ষে সেনাবাহিনীর তিন শাখার কর্মীদের ছেলে-মেয়েদের জন্য ১০ কোটি টাকার একটি বৃত্তিপ্রদান কর্মসূচিরও সূচনা করেন। 
 
অনুষ্ঠানে শ্রী সিং চণ্ডীগড় বিশ্ববিদ্যালয়ে এধরণের গবেষণা কেন্দ্র স্থাপনের প্রয়াসকে গুরুত্বপূর্ণ আখ্যা দিয়ে বলেন, এই কেন্দ্র মহাকাশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ক্ষেত্রে গবেষণায় ভারতকে আরও শক্তিশালী করে তুলবে। সেই সঙ্গে ভবিষ্যৎ প্রযুক্তি উদ্ভাবনের ক্ষেত্রে ভারত অগ্রণী দেশ হয়ে উঠবে। কল্পনা চাওলাকে ভারতের গর্ব বলে বর্ণনা করে প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, এই গবেষণা প্রতিষ্ঠানটি সাফল্যের এক নতুন উচ্চতায় পৌঁছোতে সাহায্য করবে। 
 
একবিংশ শতাব্দীতে ভারতের ভবিষ্যৎ কেবল তখনই সুনিশ্চিত হতে পারে, যখন মহাকাশে নতুন নতুন গ্রহ নক্ষত্রে পৌঁছে যাওয়ার স্বপ্ন দেখা শুরু হবে। প্রতিরক্ষামন্ত্রী এপ্রসঙ্গে উপস্থিত ছাত্র-ছাত্রীদের আর্যভট্ট, বিক্রম সারাভাই, সতীশ ধাওয়ান ও কল্পনা চাওলার কথা স্মরণ করিয়ে দেন। তিনি বলেন, এঁদের মত স্বপ্ন ও বিচক্ষণতা থাকলে আপনারাও একই কৃতিত্বের অধিকারী হতে পারবেন। 
 
বর্তমান সময়ে মহাকাশ ক্ষেত্রের গুরুত্বের কথা উল্লেখ করে শ্রী সিং বলেন, মহাকাশ ক্ষেত্রের সঙ্গে মানচিত্র প্রণয়ন, যোগাযোগ ব্যবস্থা, পরিবহণ ব্যবস্থা, আবহাওয়ার পূর্বাভাস ও বিপর্যয় ব্যবস্থাপনা সহ সীমান্ত সুরক্ষার মত বিষয়গুলিও যু্ক্ত রয়েছে। কোভিড-১৯ মহামারীর সময় নমুনা পরীক্ষা থেকে তথ্য আদান-প্রদান ও বিশ্লেষণের ক্ষেত্রে মহাকাশ প্রযুক্তি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। তাই মহাকাশ ক্ষেত্রের সম্ভাবনার বিষয়টিকে উপলব্ধি করে সরকার মহকাশ প্রযুক্তি ক্ষেত্রে গবেষণার ওপর সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিচ্ছে। 
 
অর্থনৈতিক দিক থেকে ভারতকে বিশ্বের জ্ঞান সমৃদ্ধ দেশে পরিণত করতে এবং শিক্ষা ও বিজ্ঞান ক্ষেত্রে দেশকে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নিয়ে যেতে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী দীর্ঘ মেয়াদি ভিত্তিতে সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্ব গড়ে তোলার ওপর জোর দেন। তিনি বলেন, এখন বেসরকারি ক্ষেত্রের কাছেও মহাকাশ প্রযুক্তির গবেষণায় ব্যাপক সুযোগ-সুবিধার দ্বার খুলে গেছে। তাই প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রই হোক বা মহাকাশ সর্বত্রই বেসরকারি ক্ষেত্রের অংশগ্রহণকে সরকার স্বাগত জানাচ্ছে। দেশের সার্বিক উন্নয়নে বেসরকারি ক্ষেত্রকে আরও শক্তিশালী করে তোলার লক্ষ্যে সরকারের অঙ্গীকারের কথাও তিনি পুনরায় উল্লেখ করেন। 
 
বেসরকারি ক্ষেত্রের সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণের কথা উল্লেখ করে শ্রী সিং বলেন, সরকার বেসরকারি ক্ষেত্রের জন্য প্রযুক্তি ও বিশেষজ্ঞদের সুযোগ-সুবিধা পৌঁছে দিতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়েছে। তিনি জানান, প্রযুক্তি ক্ষেত্রের সর্বাধুনিক উদ্ভাবনগুলিকে বেসরকারি ক্ষেত্রের সঙ্গে হস্তান্তরের বিষয়ে সরকার চিন্তা-ভাবনা করছে। ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল স্পেস প্রমোশন অ্যান্ড অথরাইজেশন সেন্টার স্থাপন প্রসঙ্গে প্রতিরক্ষামন্ত্রী জানান, নিরপেক্ষ এই সংস্থাটি মহাকাশ ক্ষেত্রের সঙ্গে যুক্তি বিভিন্ন বিষয়ে ছাড়পত্র দানের ক্ষেত্রে এক জানালা ব্যবস্থা হিসেবে কাজ করবে। 
 
সরকার প্রতি ক্ষেত্রে মহাকাশ ভিত্তিক প্রযুক্তির প্রয়োগ বাড়াতে বিশেষ অগ্রাধিকার দিচ্ছে। এই লক্ষ্যে সড়ক ও পরিকাঠামো নির্মাণে জিও-ট্যাগিং প্রযুক্তি কাজে লাগানো হচ্ছে। 
 
দেশের সার্বিক উন্নয়নে শ্রী সিং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, ইন্টারনেট অফ থিংস, বিগ-ডেটা এবং ব্লক-চেনের মত ভবিষ্যৎ প্রযুক্তিগুলির উদ্ভাবন ও প্রয়োগ বাড়ানোর ওপর গুরুত্ব দেন। চণ্ডীগড় বিশ্ববিদ্যালয় গত কয়েক বছরে গবেষণা ও উদ্ভাবনের ক্ষেত্রে সাফল্যের যে নজির রেখেছে, তার প্রশংসা করে প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, শিক্ষায় বেসরকারি ক্ষেত্রের ক্রমবর্ধমান অংশীদারিত্বের প্রতীক হয়ে উঠেছে এই বিশ্ববিদ্যালয়। বিশ্বের অগ্রণী মহাকাশ সংস্থা হয়ে ওঠার জন্য তিনি ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংগঠন (ইসরো)-এর প্রশংসা করেন। 
 
ভারতীয় নভঃশ্চর কল্পনা চাওলার কথা স্মরণ করে শ্রী সিং তাঁকে মহিলা ক্ষমতায়ণের প্রতীক হিসেবে বর্ণনা করেন, যিনি যাবতীয় কল্পনার বাইরে প্রত্যাশার উড়ানে সওয়ার হয়েছিলেন। 
 
এই অনুষ্ঠানে চণ্ডীগড় বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য শ্রী সতনম সিং সান্ধু সহ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মণ্ডলী, বিজ্ঞানী ও ছাত্র-ছাত্রীরা উপস্থিত ছিলেন। 
 
CG/BD/AS/


(Release ID: 1787224) Visitor Counter : 75