স্বাস্থ্যওপরিবারকল্যাণমন্ত্রক

সরকারের টেলিমেডিসিন পরিষেবার মাধ্যমে ৩০ লক্ষ মানুষ পরিষেবা গ্রহণ করেছেন

Posted On: 17 MAR 2021 11:10AM by PIB Kolkata
নয়াদিল্লি, ১৭ মার্চ, ২০২১
 
ভারত সরকারের জাতীয় টেলিমেডিসিন পরিষেবা - ই-সঞ্জিবনীর মাধ্যমে ৩০ লক্ষ মানুষ পরিষেবা গ্রহণ করেছেন। টেলিমেডিসিন পরিষেবা ক্ষেত্রে এ এক মাইলফলক। বর্তমানে ৩১টি রাজ্য, কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে এই টেলিমেডিসিন পরিষেবা চালু রয়েছে। দৈনিক সারা দেশে ৩৫ হাজারেরও বেশি রোগী এই পরিষেবার সুযোগ গ্রহণ করে থাকেন। উদ্ভাবনী ডিজিটাল মাধ্যমের অন্যতম সাফল্যই হ’ল এই ই-সঞ্জিবনী স্বাস্থ্য পরিষেবা। 
 
স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রক এই জাতীয় টেলিমেডিসিন পরিষেবা – ই-সঞ্জিবনী পরিষেবা চালু করেছে। এই পরিষেবার দুটি ভাগ রয়েছে। একটি হ’ল – 'চিকিৎসক থেকে চিকিৎসক টেলিমেডিসিন প্ল্যাটফর্ম' এবং আরেকটি হ’ল 'রোগী থেকে চিকিৎসক টেলিমেডিসিন প্ল্যাটফর্ম'। প্রথম পরিষেবাটি আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পের আওতায় স্বাস্থ্য ও শুশ্রুষা কেন্দ্রে কার্যকর হয়েছে। ২০২২ সালের ডিসেম্বরে প্রায় ১ লক্ষ ৫৫ হাজার স্বাস্থ্য ও শুশ্রুষা কেন্দ্রে এই পরিষেবা চালু হয়ে যাবে আশা করা যাচ্ছে । ই-সঞ্জিবনী ওপিডি ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে নাগরিকদের ডিজিটাল স্বাস্থ্য পরিষেবা প্রদান করা হয়ে থাকে। এ পর্যন্ত ২৫০টিরও বেশি ই-সঞ্জিবনী ওপিডি ব্যবস্থাপনা প্রতিস্থাপন করা হয়েছে। গত বছর লকডাউনের সময় যখন বাইরের চিকিৎসা কেন্দ্র বা হাসপাতালগুলিতে ওপিডি পরিষেবা বন্ধ ছিল, সেই সময় এই ই-সঞ্জিবনী ওপিডি পরিষেবা চালু করা হয়। এ পর্যন্ত প্রায় ২১ লক্ষ রোগী এই ই-সঞ্জিবনী ওপিডি পরিষেবার মাধ্যমে সুযোগ-সুবিধা গ্রহণ করেছেন। 
 
খুব অল্প সময়ের মধ্যে ভারত সরকারের জাতীয় টেলিমেডিসিন পরিষেবা দেশের শহর ও গ্রামীণ অঞ্চলে জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। এমনকি, ভারতীয় স্বাস্থ্য পরিষেবা ক্ষেত্রে এক আমূল পরিবর্তন নিয়ে এসেছে। এই পরিষেবা চালু হওয়ার ফলে হাসপাতালে চাপ কিছুটা কমেছে। জাতীয় ডিজিটাল স্বাস্থ্য মিশনের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই ই-সঞ্জিবনী পরিষেবা দেশে ডিজিটাল স্বাস্থ্য ইকো ব্যবস্থাপনাকে জোরদার করে তোলা হয়েছে। 
 
তামিলনাডুতে ৬ লক্ষ ৪২ হাজার ৭০৮, উত্তর প্রদেশে ৬ লক্ষ ৩১ হাজার ১৯, কর্ণাটকে ৬ লক্ষ ৭ হাজার ৩০৫ জন ই-সঞ্জিবনী পরিষেবা গ্রহণ করেছেন। দেশের মধ্যে ৬০০টি জেলার নাগরিকদের ই-সঞ্জিবনী পরিষেবা গ্রহণের প্রবণতা সবচেয়ে বেশি। জাতীয় স্তরে ৩১ হাজারেরও বেশি চিকিৎসক এবং স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে যুক্ত অন্যান্য কর্মীদের এই ই-সঞ্জিবনী পরিষেবার প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। খুব শীঘ্রই ই-সঞ্জিবনী ওপিডি পরিষেবা আইওএস অ্যাপ হিসাবে নিয়ে আসা হবে। ঝাড়খন্ড সরকার ই-সঞ্জিবনী ওপিডি ক্ষেত্রে একটি বিশেষ ওপিডি ব্যবস্থাপনা চালু করেছে, যার মাধ্যমে কোভিড-১৯ চিকিৎসা সংক্রান্ত পরিষেবা প্রদান করা হয়ে থাকে। 
 
***
 
 
 
 
CG/SS/SB


(Release ID: 1705470) Visitor Counter : 8