সড়কপরিবহণওমহাসড়কমন্ত্রক

সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক মন্ত্রকের বর্ষশেষের পর্যালোচনা

Posted On: 30 DEC 2020 12:40PM by PIB Kolkata
নতুন দিল্লি, ৩০ ডিসেম্বর, ২০২০
 
সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক মন্ত্রকের পক্ষ থেকে বিগত ৬ বছরে বিভিন্ন আইন প্রণয়ন করা হয়েছে। জনস্বার্থে চলতি বছরেও একাধিক গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। মন্ত্রকের পক্ষ থেকে ২০১৯-২০ বছরে মোট ৮৯৪৮ কিলোমিটার নতুন রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে। এর পাশাপাশি মোট ১০,২৩৭ কিলোমিটার রাস্তার কাজ সম্পূর্ণ করা হয়েছে। রাস্তা নির্মাণের ক্ষেত্রে ২০১৩-১৪ আর্থিক বছরে যেখানে হার ছিল ১১.৭ কিলোমিটার, তা বেড়ে বর্তমানে হয়েছে ২৮ কিলোমিটার। চলতি বছরের ২০ ডিসেম্বর পর্যন্ত জাতীয় সড়ক সম্প্রসারণ হয়েছে মোট ১, ৩৬,১৫৫ কিলোমিটার।
 
মন্ত্রকের পক্ষ থেকে আগামী পাঁচ বছরে অতিরিক্ত মোট ৬০ হাজার কিলোমিটার জাতীয় সড়কের উন্নয়ন ঘটান হবে বলে জানানো হয়েছে। এর পাশাপাশি দেশের ১০০ টি পর্যটন কেন্দ্রে যোগাযোগ রক্ষার জন্য রাস্তা তৈরি কবে হবে। এছাড়াও দেশের ৪৫ টি শহরের জন্য বাইপাস তৈরির পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।
মন্ত্রকের পক্ষ থেকে ২০১৩-১৪ বছরে যেখানে ৩৩, ৭৪৫ কোটি টাকা খরচ করা হয়েছিল, ২০১৯-২০ তে তা বেড়ে হয়েছে ১, ৫০,৮৪১ কোটি টাকা। এছাড়াও, ২০১৯-২৯ তে বেসরকারিভাবে বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ২১, ৯২৬ কোটি টাকা।
 
ভারতমালা পরিযোজনায় সারাদেশে মন্ত্রকের পক্ষ থেকে ৩৫ টি মাল্টি মডেল লজিস্টিকস পার্ক গড়ে তোলার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। এই পার্ক গুলি রক্ষণাবেক্ষণের জন্য ন্যাশনাল হাইওয়েজ লজিস্টিকস ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড গঠন করা হয়েছে।
 
এর পাশাপাশি মন্ত্রকের পক্ষ থেকে কয়েকটি বন্দরে পণ্য পরিবহন ব্যবস্থা সচল রাখতে জাতীয় সড়কের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করতে সুনির্দিষ্ট কয়েকটি পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।
 
ন্যাশনাল হাইওয়ে অথরিটি অফ ইন্ডিয়া বিভিন্ন জাতীয় সড়কের প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য অর্থসংস্থানের উদ্দেশ্যে আগামী পাঁচ বছরে টোল অপারেট ট্রান্সফার মডেলের মাধ্যমে এক লক্ষ কোটি টাকার সংস্থান করতে চায়। এছাড়াও পরিকাঠামোগত উন্নয়নের জন্য তারা একাধিক পরিকল্পনা নিয়েছে।এর মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন টোলপ্লাজা গুলি থেকে টোল আদায়ের পরিমাণ নিরূপণের ব্যবস্থা।
 
আত্মনির্ভর ভারত গঠনের লক্ষ্যে মন্ত্রকের পক্ষ থেকে বেশকিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। এজন্য ঠিকা সংস্থা থেকে শুরু করে নির্মাণকারী সংস্থা গুলির জন্য বহুবিধ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।
 
মোটরযান আইনের মাধ্যমে মন্ত্রকের পক্ষ থেকে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। মোটর গাড়ির নিবন্ধীকরণ থেকে শুরু করে ড্রাইভিং লাইসেন্স দেওয়ার ক্ষেত্রে সুনির্দিষ্ট কিছু পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। মন্ত্রকের পক্ষ থেকে বাহন এবং সারথি নামে দুটি পদ্ধতির প্রণয়ন করা হয়েছে। এছাড়াও ই-চালান, এম-পরিবহনের প্রবর্তন করা হয়েছে।
 
মন্ত্রকের পক্ষ থেকে মোটরযান সংশোধন আইন প্রণয়ন করে পুরাতন ব্যবস্থার বদল ঘটিয়ে নতুন কিছু বিষয়কে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। পথচারীদের নিরাপত্তার বিষয়টিকেও অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে। এর পাশাপাশি পর্যটক যানের ক্ষেত্রে টুরিস্ট ভেহিকেলস অথোরাইজেশন এন্ড পারমিট রুলস- ২০২০ প্রণয়ন করা হয়েছে।
 
এছাড়াও মোটরযানে ফাসট্যাগ লাগানোর কথা বলা হয়েছে।
 
***
 
 
CG/SB


(Release ID: 1684722) Visitor Counter : 21