বিজ্ঞানওপ্রযুক্তিমন্ত্রক

সিতারে-জিওয়াইটিআই এবং সৃষ্টি-জিওয়াইটিআই পুরস্কারের দুটি বিভাগে গান্ধীয়ান ইয়ং টেকনলজিক্যাল পুরস্কার দিয়েছেন ডঃ হর্ষ বর্ধন

Posted On: 05 NOV 2020 5:13PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ৫ নভেম্বর, ২০২০

 

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি এবং ভূ-বিজ্ঞান মন্ত্রী ডঃ হর্ষ বর্ধন গান্ধীয়ান ইয়ং টেকনলজিক্যাল ইনোভেশন (জিওয়াইটিআই) পুরস্কার দিয়েছেন। ছাত্রছাত্রীদের গবেষণার ক্ষেত্রে উৎসাহদান এবং স্থিতিশীল প্রযুক্তিগত উদ্ভাবনের ক্ষেত্রে সামাজিক গবেষণার স্বীকৃতিস্বরূপ এই পুরস্কার দেওয়া হয়েছে। নতুন দিল্লিতে ডঃ হর্ষ বর্ধন সিতারে-জিওয়াইটিআই-র ১৪টি পুরস্কার এবং ১১টি প্রশস্তিপত্র দিয়েছেন। একইসঙ্গে, সৃষ্টি-জিওয়াইটিআই-এ সাতটি পুরস্কার ও ১৬টি প্রশস্তিপত্র দেওয়া হয়েছে। ভার্চ্যুয়ালি এই পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানটির আয়োজন করা হয়েছিল। বিশিষ্ট অধ্যাপক ও বৈজ্ঞানিকেরা,  নিবিড় পর্যালোচনার পর পুরস্কার প্রাপকদের নাম ঘোষণা করেছেন।  

 

জিওয়াইটিআই জৈবপ্রযুক্তি শিল্প গবেষণা সহায়ক পরিষদ (বাইরাক), জৈবপ্রযুক্তি দপ্তর এবং সৃষ্টি-জিওয়াইটিআই পুরস্কার সৃষ্টি বিভাগ থেকে দেওয়া হয়েছে। যে সমস্ত ছাত্রছাত্রীরা জৈবপ্রযুক্তির ক্ষেত্রে উদ্ভাবনমূলক কাজ করছেন এবং নতুন উদ্যোগের বিষয়ে উৎসাহ দেখাচ্ছেন, তাঁদের জন্যই এই পুরস্কারগুলি দেওয়া হচ্ছে।  

 

ডঃ হর্ষ বর্ধন সকল ছাত্রছাত্রীকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেছেন, সামাজিক, শিল্প ও পরিবেশগত দিক থেকে আরও সচেতনতার প্রয়োজন। তিনি জানিয়েছেন, ১০ কোটির বেশি বিভিন্ন পুরস্কার এবং বিনিয়োগ এই সিতারে-জিওয়াইটিআই বিজয়ীরা করেছেন। এছাড়াও, ৮৯টি প্রকাশনা এবং ৩৯টি স্বত্ত্বের জন্য আবেদন করা হয়েছে। 

 

ডঃ হর্ষ বর্ধন এই প্রসঙ্গে জানিয়েছেন, তরুণ ছাত্রছাত্রী, মহিলা গবেষক ও অন্যদের গবেষণার ক্ষেত্রে উৎসাহ দেওয়ার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে  বিভিন্নভাবে তহবিলের ব্যবস্থা করা হয়েছে। তিনি উদ্ভাবকদের জৈবপ্রযুক্তি দপ্তর, বাইরাক, সিএসআইআর এবং আইসিইআর-এর মতো সংস্থাগুলির ইনকিউবেটরের সুবিধা নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। এর মাধ্যমে ভারত আত্মনির্ভর হওয়ার দিকে এগোবে। মন্ত্রী বলেছেন, এই ধরনের উদ্ভাবন এবং বৈজ্ঞানিক সমাধানগুলি মানুষের জীবনে পরিবর্তন আনবে। আমরা বৈজ্ঞানিক সামাজিক দায়বদ্ধতা নীতি নিয়ে কাজ করে চলেছি যেখানে আমাদের বৈজ্ঞানিকেরা সমাজের সকল স্তরের মানুষকে সাহায্য করতে পারবেন। 

 

সিতারে-জিওয়াইটিআই পুরস্কারের জন্য উদ্ভাবক ছাত্রছাত্রীরা ২৫০টি আবেদন জমা দিয়েছিল যেখানে জৈবপ্রযুক্তি ও জীববিজ্ঞানের বিভিন্ন শাখায় নতুন উদ্যোগ গড়ে তোলার যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে। মূলত, ২৩টি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের ৯৬টি বিশ্ববিদ্যালয় এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রীরা এই আবেদনগুলি করেছিল। সৃষ্টি-জিওয়াইটিআই-এর আওতায় ৭০০-র বেশি আবেদন জমা পড়েছিল। ২৭টি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের ২৭০টি বিশ্ববিদ্যালয় এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে ৪২ রকমের প্রযুক্তিগত দিকের ওপর এই আবেদনগুলি জমা পড়ে। অনলাইনের মাধ্যমে বিশেষজ্ঞরা প্রতিটি আবেদনপত্রের মূল্যায়ন করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এই বিশেষজ্ঞদের মধ্যে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, আইআইটি, আইআইএসসি, জওহরলাল নেহরু সেন্টার ফর অ্যাডভান্সড সায়েন্টিফিক রিসার্চের নির্দেশক ও অধ্যাপকরা ছাড়াও আইসিএমআর, আইসিএআর এবং সিএসআইআর-এর গবেষকরাও এই বিশেষজ্ঞ কমিটিতে ছিলেন। 

পুরষ্কার প্রাপকদের তালিকা দেখার জন্য নীচের লিঙ্কে ক্লিক করুনঃ-

https://static.pib.gov.in/WriteReadData/userfiles/47.pdf 

 

CG/CB/DM



(Release ID: 1670485) Visitor Counter : 8