নতুনওপুনর্নবীকরণযোগ্যজ্বালানিমন্ত্রক

আন্তর্জাতিক সৌর জোটের তৃতীয় সম্মেলনে ভারত ও ফ্রান্স সভাপতি ও সহ সভাপতি নির্বাচিত হয়েছে

Posted On: 14 OCT 2020 6:10PM by PIB Kolkata
নতুন দিল্লি, ১৪ই অক্টোবর, ২০২০
 
 
 
 
আন্তর্জাতিক সৌর জোটের তৃতীয় সম্মেলনে জোটের ৩৪টি সদস্য রাষ্ট্রের মন্ত্রীরা অংশ নিয়েছেন। মোট ৫৩টি সদস্য রাষ্ট্র এবং ৫টি জোটের পক্ষে স্বাক্ষরকারী রাষ্ট্র সম্মেলনে যোগ দিয়েছে।  
 
তৃতীয় সম্মেলন ভার্চুয়ালী ১৪ তারিখ শুরু হয়েছে। ভারত এবং ফ্রান্স যথাক্রমে ২ বছরের মেয়াদে আন্তর্জাতিক সৌর জোটের সভাপতি এবং সহ সভাপতি হিসেবে পুর্ননির্বাচিত হয়েছে।
 
আন্তর্জাতিক সৌর জোটের ৪টি অঞ্চলের থেকে উপসভাপতি হিসেবে ৮টি দেশকে বাছাই করা হয়েছে। এশিয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের জন্য ফিজি এবং নাওরু, আফ্রিকার জন্য মরিশাস ও নাইজের, ল্যাটিন আমেরিকা ও ক্যারিবিও অঞ্চলের জন্য কিউবা ও গিয়ানা এবং ইউরোপ ও অন্যান্য অঞ্চলের জন্য ব্রিটেন ও নেদারল্যান্ডস উপসভাপতির দায়িত্ব গ্রহণ করেছে। 
সম্মেলনে আন্তর্জাতিক সৌর জোট সচিবালয়ে সরকারী ও বেসরকারী কর্পোরেট সংস্থাগুলিকে যুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ভারতের ১০টি রাষ্ট্রায়ত্ত্ব সংস্থার প্রত্যেকটি ১০ লক্ষ মার্কিন ডলারের চেক সম্মেলনে দিয়েছে।
 
পূর্ণাঙ্গ অধিবেশনে বক্তব্য রাখার সময় জোটের সভাপতি এবং ভারতের বিদ্যুৎ, নতুন ও পুর্ননবিকরণযোগ্য জ্বালানী মন্ত্রী শ্রী আর. কে সিং, জলবায়ু পরিবর্তন রোধে সদস্য রাষ্ট্রগুলির একজোট হয়ে কাজ করার উদ্যোগের প্রশংসা করেছেন। তৃতীয় সম্মেলনে গরম করা ও ঠান্ডা করার ব্যবস্থাপনা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। শ্রী সিং বলেছেন, বিগত ৫ বছরে সৌরশক্তির ব্যবহার দ্রুত হারে বেড়েছে। বর্তমানে সারা বিশ্বে মোট বিদ্যুতের ২.৮ শতাংশ আসে সৌরশক্তি থেকে। এই প্রবণতা বজায় থাকলে ২০৩০ সালের মধ্যে সৌরশক্তি বিদ্যুৎ উৎপাদনের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ উৎস হয়ে উঠবে।
 
সভাপতি হিসেবে শ্রী সিং, দ্বিতীয় সম্মেলনের পর থেকে সৌরশক্তি সংক্রান্ত গৃহীত বিভিন্ন উদ্যোগের বিষয়ে আলোচনা করেছেন।
সম্মেলনে বিশ্ব সম্পদ সংস্থা তহবিলের উৎস সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন পেশ করেছে, যেখানে তহবিলের সুযোগ এবং বিভিন্ন সমস্যা চিহ্নিত করা হয়েছে। এছাড়াও সৌরশক্তির জন্য বিনিয়োগ বৃদ্ধি ও সদস্য রাষ্ট্রগুলিকে সাহায্য করার ক্ষেত্রে নানা উদ্যোগ নিয়ে আলোচনা হয়েছে।
 
জোট তৈরি হওয়ার পর প্রথম বারের মতো সৌরশক্তি নিয়ে কাজ করছে এরকম সংস্থা ও দেশকে পুরস্কৃত করা হয়েছে। বিশ্বেশ্বরা পুরস্কার পেয়েছে এশিয় – প্রশান্ত সাগরীয় অঞ্চলের জন্য জাপান, ও ইউরোপ এবং অন্যান্য অঞ্চলের জন্য নেদারল্যান্ডস। সৌরশক্তি নিয়ে কাজ করছেন এরকম বিজ্ঞানী ও ইঞ্জিনিয়ারদের সম্মানিত করার জন্য ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিন নভোচারী কল্পনা চাওলার নামাঙ্কিত  পুরস্কার দেওয়া হয়। এবছর এই পুরস্কার পেয়েছেন, ভারতের দিল্লি আইআইটির ড. ভীম সিং এবং সংযুক্ত আরব আমিরশাহীর দুবাই বিদ্যুৎ ও জল কর্তৃপক্ষের ড. আয়েশা আলনুইমি।
 
ভিন্নভাবে সক্ষমদের জন্য কাজ করছে এরকম যে সব সংস্থা সৌরশক্তির সর্বাধিক ব্যবহার করে তাদের দিবাকর পুরস্কার দেওয়া হয়। এবছর এই পুরস্কার পেয়েছে হরিয়ানার অর্পণ ইনস্টিটিউট এবং আরুষী সোসাইটি। এই পুরস্কারটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভ্যানিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দেওয়া হয়।
 
বিশ্বজুড়ে মহামারীর আবহে স্বাস্থ্য পরিষেবা ক্ষেত্রে সৌরশক্তির ব্যবহার নিশ্চিত করতে জোট, আইএসএ কেয়ার্স তহবিল গঠন করেছে। অস্ট্রেলিয়া  ইতিমধ্যেই এই তহবিলে ৯২,০০০ অস্ট্রেলিয়ান ডলার দিয়েছে। 
 
বিশ্বজুড়ে গরম করার এবং ঠান্ডা করার চাহিদার কথা বিবেচনা করে আন্তর্জাতিক সৌর জোট সচিবালয় সৌরশক্তির মাধ্যমে গরম করা এবং ঠান্ডা করার ব্যবস্থা চালু করেছে।
 
২০১৮ সালে গ্রেটার নয়ডায় আন্তর্জাতিক সৌর জোটের প্রথম সম্মেলন উদ্বোধন করেছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী এবং রাষ্ট্রসংঘের মহাসচিব মি. আন্তেনিয় গুতারেজ। দ্বিতীয় সম্মেলন ২০১৯এ নতুন দিল্লিতে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। তৃতীয় সম্মেলন ভার্চুয়ালী অনুষ্ঠিত হচ্ছে, চলবে ১৬ তারিখ পর্যন্ত।
 
 
 
CG/CB/SFS


(Release ID: 1664608) Visitor Counter : 13