বৈদ্যুতিন ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রক

স্বনির্ভতার লক্ষ্যে এবং ‘আত্মনির্ভর ভারত’ গঠনের উদ্দেশ্যে রবি শঙ্কর প্রসাদ ‘স্বদেশী মাইক্রো প্রসেসার চ্যালেঞ্জ’এর সূচনা করেছেন

Posted On: 18 AUG 2020 3:31PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লী, ১৮ আগস্ট, ২০২০

 

 


    কেন্দ্রীয় আইন, ন্যায় বিচার, টেলি যোগাযোগ ও বৈদ্যুতিন এবং তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী শ্রী রবি শঙ্কর প্রসাদ আজ দেশে শক্তিশালী স্টার্ট আপ ইকো সিস্টেম গঠন এবং উদ্ভাবন ও গবেষণা ক্ষেত্রকে উৎসাহিত করে তুলতে ‘স্বদেশী মাইক্রো প্রসেসার চ্যালেঞ্জ- #আত্মনির্ভর ভারতের জন্য উদ্ভাবনী সমাধান’ শীর্ষক কর্মসূচির সূচনা করেছেন। বৈদ্যুতিন ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রকের মাইক্রো প্রসেসর উন্নয়ন কর্মসূচীর অধীনে ওপেন সোর্স আর্কিটেকচার ব্যবহার করে আইআইটি মাদ্রাজ এবং সেন্টার ফর ডেভেলপমেন্ট অফ অ্যাডভান্স কম্পিউটিং ‘শক্তি’ (৩২ বিট) এবং ভেগা (৮ বিট) নামে দুটি মাইক্রো প্রসেসার তৈরি করেছে। ‘#আত্মনির্ভর ভারতের জন্য স্বদেশী মাইক্রো প্রসেসর চ্যালেঞ্জ- উদ্ভাবনী সমাধান’ এর মাধ্যমে বিভিন্ন উদ্ভাবনী সংস্থা, স্টার্ট আপ এবং ছাত্রছাত্রীদের দেশীয় প্রযুক্তি ব্যবহার করে মাইক্রো প্রসেসর তৈরির আহ্বান জানানো হয়েছে।


    আত্মনির্ভর ভারত গঠনের পথে এই উদ্যোগের মূল লক্ষ্য  হল শুধুমাত্র ভারতের ভবিষ্যতের কৌশলগত এবং শিল্পের চাহিদা পূরণ করায় নয় একইসঙ্গে সুরক্ষা সুনিশ্চিত করা, পুরনো প্রযুক্তির ব্যবহার কমানো এবং আমদানির ওপর নির্ভরতা কমিয়ে স্বনির্ভর  হয়ে ওঠা। এই দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি অত্যাধুনিক প্রসেসারের নক্সা দেশ ও বিদেশের বৈদ্যুতিক ব্যবস্থাপনায় বিশেষভাবে সাহায্য করবে।


    ‘স্বদেশী মাইক্রো প্রসেসার চ্যালেঞ্জ’ দেশের প্রযুক্তি চালিত উদ্ভাবনী ইকো সিস্টেমে বিশেষভাবে সাহায্য করবে এবং ডিজিটালাইজেশনের পথে বৈদ্যুতিক ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রক ধারাবাহিকভাবে যে উদ্যোগ গ্রহণ করেছে তাতেও সহায়তা প্রদান করবে। একইসঙ্গে সকল স্তরের শিক্ষার্থী এবং স্টার্ট আপ সংস্থাগুলির জন্য উন্মুক্ত প্রতিযোগিতার দরজা খুলে দেবে। এতে দেশীয় প্রসেসার উৎপাদক সংস্থাগুলি কেবল লাভবান হবেনা, সামাজিক প্রয়োজনে সমস্যাগুলির সমাধানের পথও খুঁজে বের করতে পারবে। এছাড়াও অদূর ভবিষ্যতে দেশীয় চাহিদা  মিটিয়ে বিদেশে এই স্বদেশী প্রসেসার রপ্তানী পরিকাঠামোগত বিকাশে বিশেষভাবে সাহায্য করবে।


বৈদ্যুতিন এবং তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রক প্রতিযোগী ও প্রযুক্তি সংস্থাগুলিকে ইন্টার্নশিপের সুযোগ করে দিয়েছে। দেশের সেরা ইলেক্ট্রনিক সিস্টেম বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ প্রদানের পাশাপাশি ইনকিউবেশন সেন্টারগুলিকে আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে। হার্ডওয়্যার সংস্থাগুলির বিকাশে স্টার্ট আপ ইনকিউবেটিং চ্যালেঞ্জের বিভিন্ন পর্যায়ে ৪.৩০ কোটি টাকা আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হবে।


আজ থেকে শুরু হওয়া এই প্রতিযোগিতাটি চলবে আগামী ১০ মাস ধরে। ২০২১ এর জুনে এই প্রতিযোগিতা শেষ হবে। প্রতিযোগিতায় নাম নথিভুক্ত করা যাবে- https://innovate.mygov.in এই লিঙ্কের মাধ্যমে। ১০০ জন সেমি ফাইনাল প্রতিযোগীর মোট ১ কোটি টাকার আর্থিক  পুরস্কার জেতার সুযোগ রয়েছে। ২৫ জন চূড়ান্ত পর্যায়ের প্রতিযোগী ১ কোটি টাকা পুরস্কার জিততে পারেন। ফাইনালে প্রবেশ করা প্রথম ১০টি দল ১২ মাসের জন্য ইনকিউবেশন সহায়তায় মোট ২.৩০ কোটি টাকা আর্থিক সাহায্য পাবে। সমস্ত প্রতিযোগীদের স্বদেশী প্রসেসার উদ্ভাবনী ক্ষেত্রে নিজস্ব প্রতিভা বিকাশের সুযোগ রয়েছে। তাদের এই উদ্ভাবন সাধারণ মানুষের কাছে তুলে ধরা হবে এবং সরাসরি বাজারে নিয়ে আসা হবে।

 

 


CG/SS/NS



(Release ID: 1646841) Visitor Counter : 219