বিজ্ঞানওপ্রযুক্তিমন্ত্রক

অরুণাচল প্রদেশের হিমালয়ে ভূকম্প প্রবণ সমীক্ষায় ভূস্তরের দুটি গভীরতায় হালকা থেকে মাঝারি ভূমিকম্পের সন্ধান মিলেছে

Posted On: 25 JUL 2020 4:04PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ২৫ জুলাই, ২০২০

 



হিমালয়ের উত্থান একটি চলমান প্রক্রিয়া। ভূস্তরের নিম্নভাগের অপেক্ষাকৃত নরম অংশ উপরিভাগের শক্ত অংশকে তলা থেকে ধাক্কা মারায় এই উত্থান প্রক্রিয়াটি চলতে থাকে। মূলত পৃথিবীর ইউরেশিয়ান প্লেটের তলায় থাকে ইন্ডিয়া প্লেট ধাক্কা মারার জন্যই এই প্রক্রিয়া চলে। এর ফলে, হিমালয় পার্বত্য অঞ্চল সহ সন্নিহিত অঞ্চলে প্রবল ভূকম্প মাঝে মাঝেই অনুভূত হয়। এই কারণে ওই এলাকায় নির্মাণ কাজ চালানোর আগে ভূমিকম্পের প্রকৃতির বিষয়ে খোঁজখবর নেওয়াটা অত্যন্ত জরুরি।

পূর্ব হিমালয়ের টুটিং-টিডিং সঙ্গমস্থলে হিমালয় ক্রমশ দক্ষিণ দিকে নেমে গেছে এবং ইন্দো-বার্মা রেঞ্জের সঙ্গে এই এলাকার সংযুক্তি ঘটেছে। অরুণাচল প্রদেশের এই অংশের গুরুত্ব ইদানিংকালে যথেষ্ট বৃদ্ধি পেয়েছে। এখানে রাস্তা এবং জলবিদ্যুৎ প্রকল্প নির্মাণ করা হচ্ছে। ফলে, সংশ্লিষ্ট অঞ্চলের ভূ-প্রকৃতি জানাটা খুব জরুরি হয়ে পড়েছে।

কেন্দ্রের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি দপ্তরের স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা ওয়াদিয়া ইনস্টিটিউট অফ হিমালয়ান জিওলজি এই অঞ্চলের স্থিতিস্থাপক প্রকৃতি সম্পর্কে গবেষণা চালাচ্ছে। দেখা গেছে, ভারতের পূর্বতম প্রান্তে মাটির নিচে দুটি পৃথক জায়গায় মাঝারি মাপের ভূমিকম্প হয়। ভূ-ত্বকের ১ থেকে ১৫ মিটার নিচে যে ভূমিকম্প হয় সেগুলি সাধারণ মৃদু ভূকম্প। ভূ-ত্বকের ২৫ থেকে ৩৫ মিটার নিচে যে ভূমিকম্প হয় সেগুলি মাঝারি মাপের ভূকম্প – যার মাত্রা ৪.০ অবধি পৌঁছয়। ভূকম্প প্রবণতার মুল কারণ তরল অথবা থকথকে ভূ-প্রকৃতি।

এই অঞ্চলের ভূ-ত্বক এক এক জায়গায় এক এক রকমের পুরু। ব্রহ্মপুত্র উপত্যকায় যেখানে ৪৬.৭ কিলোমিটার নিচ পর্যন্ত এই ভূমির এই শক্ত ভাব দেখা যায়, সেখানে অরুণাচল প্রদেশে ৫৫ কিলোমিটার নিচ পর্যন্ত এই ভূমির এই কঠিন অবস্থা পাওয়া যায়। ইন্ডিয়ান প্লেটের টুটিং-টিডিং সঙ্গমস্থলে ধাক্কা মারার প্রবণতায় লোহিত উপত্যকায় ভূমিকম্পের হার বেশি। এখানে ভূ-ত্বকে তরল এবং থকথকে ভাবের উপস্থিতির প্রমাণ পাওয়া গেছে। ওয়াদিয়া ইনস্টিটিউট অফ হিমালয়ান জিওলজির এই নিবিড় গবেষণার ফলে ওই অঞ্চলে ভবিষ্যতে বড় মাপের নির্মাণ কাজের আগে যথাযথ পরিকল্পনা নেওয়া যাবে।

গবেষকরা এর জন্য লোহিত নদীর উপত্যকায় ১১টি জায়গায় ব্রডব্যান্ড সিসমিক স্টেশন গড়ে তুলেছেন যার মধ্য দিয়ে ভারতের পূর্বতম প্রান্তের পাথরের প্রকৃতি এবং ভূমিকম্পের প্রবণতা সম্পর্কে ধারণা পাওয়া গেছে।

 

 


CG/CB/DM



(Release ID: 1641308) Visitor Counter : 368