স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র ও সহযোগিতা মন্ত্রী শ্রী অমিত শাহ আজ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ইন্ডিয়ান চেম্বার অফ কমার্সের বার্ষিক অধিবেশন ও বার্ষিক সাধারণ সভায় বক্তব্য রেখেছেন

Posted On: 25 NOV 2021 6:34PM by PIB Kolkata

নতুন দিল্লি, ২৫শে নভেম্বর, ২০২১

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র ও সহযোগিতা মন্ত্রী শ্রী অমিত শাহ আজ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ইন্ডিয়ান চেম্বার অফ কমার্স (আইসিসি) -এর বার্ষিক অধিবেশন ও বার্ষিক সাধারণ সভায় বক্তব্য রেখেছেন। এবারের অধিবেশনের মূল বিষয় ছিল “ইন্ডিয়া@৭৫ -এম্পাওয়ারিং নর্থ - ইস্ট ইন্ডিয়া”।

শ্রী শাহ বলেন, ২০১৪ সালে গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী থাকার সময় শ্রী মোদী লোকসভা নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী হন। সেই সময় তিনি উত্তর – পূর্ব ভারত সম্পর্কে তাঁর পরিকল্পনার কথা সকলের সঙ্গে ভাগ করে নেন। শ্রী মোদী বলেন, সর্বাঙ্গীন ও সুষম উন্নয়ন ছাড়া কোনো দেশ এগিয়ে যেতে পারে না। তার সরকার ক্ষমতায় আসলে পূর্ব ভারতের উন্নয়নের দিকে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হবে, যাতে দেশের অন্য অংশের সঙ্গে পূর্ব ভারত ও উন্নয়নের সমান শরিক হতে পারে। 

বর্তমানে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, আমাদের স্বাধীনতার ৭৫তম বর্ষ থেকে শতবর্ষ পর্যন্ত ২৫ বছর সময়কালে দেশ যাতে আন্তর্জাতিক স্তরে প্রতিটি ক্ষেত্রে প্রথম সারিতে থাকতে পারে, সেটি নিশ্চিত করতে আমাদের উন্নয়নকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।

২০১৪ সালে মোদী সরকার ক্ষমতায় আসার পর উত্তর – পূর্বাঞ্চলের সঙ্গে দেশের বাকি অংশের  সেতুবন্ধের উপর বিশেষ গুরুত্ব দেন। বিগত ৭ বছরে প্রধানমন্ত্রী এই অঞ্চলে বহুবার সফর করেছেন। এক সময়ে উত্তর পূর্বাঞ্চলে আন্দোলন ও বিবাদের নানা ঘটনা ঘটতো। প্রধানমন্ত্রী বর্তমানে  এই অঞ্চলের উন্নয়ন এবং  সহযোগিতার পরিবেশ গড়ে তুলেছেন। এর আগে উত্তর পূর্বাঞ্চলের সংঘাত, জঙ্গিবাদ, বন্যা, দুর্নীতি এবং মাদক চোরাচালানের সমস্যা যথেষ্ট ছিল। কিন্তু আজ এই অঞ্চলের প্রধান খবরের তালিকায় বন্যা সমস্যার সমাধান, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতি, উন্নয়ন, পর্যটন, কর্মসংস্থান, বিদ্যুতায়ন এবং বনসৃজন স্থান পেয়েছে। শ্রী শাহ বলেন, তাঁরা প্রথমে এই অঞ্চলে রাজনৈতিক স্থিতাবস্থা গড়ে তুলেছেন। এখানকার সমস্ত ভাষা, উপভাষা, নৃত্য, সঙ্গীত, খাদ্য়াভাস ও বৈচিত্রকে এই অঞ্চলের চালিকা শক্তিতে পরিণত করা হয়েছে। বিগত ৭ বছরে উত্তর পূর্বাঞ্চলের পরিকাঠামোর বিপুল উন্নতি ঘটানো হয়েছে। ২০২৪ সালের মধ্যে উত্তর পূর্বাঞ্চলের সব রাজ্যের রাজধানীতে বিমানবন্দর গড়ে তোলা হবে। ২০১৪ থেকে ২০২১ সালের মধ্যে পরিকাঠামো খাতে ২,৬৫,৫১৩ কোটি টাকা ব্যয় করা হয়েছে। ২০২১ – ২২ সালে এই অঞ্চলের জন্য ৬৩,০০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে।

উত্তর  পূর্বাঞ্চলের বন্যা সমস্যার সমাধানের জন্য ইসরোর মাধ্যমে বিভিন্ন জায়গায় প্রাকৃতিক পুকুর তৈরি করা হবে। এই সব পুকুরে বন্যার জল সঞ্চিত হবে। প্রধানমন্ত্রীর এই অঞ্চলের পরিকল্পনাগুলি বাস্তবায়িত করতে আজাদি কা অমৃত মহোৎসবের সময়কালে এখানে উন্নয়নে সকলকে অংশীদার হতে শ্রী শাহ আবেদন জানান। তিনি বলেন, বিগত ৭ বছর ধরে বিনিয়োগের  জন্য উপযুক্ত পরিবেশ এখানে গড়ে তোলা হয়েছে। আইসিসি এবং তার সদস্যদের এখানে বিনিয়োগের জন্য তিনি আহ্বান জানান।
 
CG/CB/SFS



(Release ID: 1775177) Visitor Counter : 26