শিল্পওবাণিজ্যমন্ত্রক
azadi ka amrit mahotsav

আজাদি কা অমৃত মহোৎসবের অঙ্গ হিসেবে অ্যাপেডার পক্ষ থেকে বাসমতি চাল উৎপাদনকারী ৭টি রাজ্যের কৃষকদের নিয়ে ৭৫টি সচেতনতা সহ প্রশিক্ষণ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়

Posted On: 10 NOV 2021 2:30PM by PIB Kolkata

নতুন দিল্লি, ১০ নভেম্বর, ২০২১

 

সুগন্ধি এবং লম্বা দানাযুক্ত বাসমতি চালের রপ্তানি বৃদ্ধির লক্ষ্যে কৃষি ও প্রক্রিয়াজাত খাদ্য পণ্য রপ্তানি উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ, অ্যাপেডা ও তার শাখা ‌বাসমতি রপ্তানি উন্নয়ন ফাউন্ডেশন, বিইডিএফ, বাসমতি ধান চাষের সঙ্গে জড়িত কৃষকদের সচেতন করার জন্য উদ্ভাবনীমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

এরই অংশ হিসাবে, বাসমতি রপ্তানি উন্নয়ন ফাউন্ডেশন, পাঞ্জাব, হরিয়ানা, উত্তরপ্রদেশ, উত্তরাখণ্ড, হিমাচল প্রদেশ, জম্মু-কাশ্মীর এবং দিল্লির চাল রপ্তানিকারক সমিতি, রাজ্য কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় এবং রাজ্যের কৃষি বিভাগ গুলির সহযোগিতায় কৃষকদের উৎসাহিত করার জন্য ৭৫ টি সচেতনতা ও প্রশিক্ষণ কর্মসূচির আয়োজন করে। এই সাতটি রাজ্যে উচ্চমানের বাসমতি চাল উৎপাদন করা হয়। বাসমতি চাল উৎপাদনকারী রাজ্য গুলিতে বাসমতি রপ্তানি উন্নয়ন ফাউন্ডেশন, বিভিন্ন কৃষক উৎপাদক সংস্থা এবং রপ্তানিকারক সমিতি গুলির সাথে প্রযুক্তিগত অংশীদার হিসেবে জড়িত রয়েছে।

আজাদি কা অমৃত মহোৎসবের অঙ্গ হিসেবে ভারত সরকার দেশের স্বাধীনতার ৭৫ বছর উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। তারই অঙ্গ হিসেবে বাসমতি রপ্তানি উন্নয়ন ফেডারেশন ২০২১ সালের ১৬ জুলাই থেকে এই ধরনের সচেতনতা এবং প্রশিক্ষণ কর্মশালার আয়োজন করে আসছে। প্রথম কর্মশালাটি হয় উত্তরপ্রদেশের গৌতম বুদ্ধ নগর জেলার জাহাঙ্গীরপুর গ্রামে। ওই কর্মশালায় কৃষকদের "কীটনাশকের ন্যায় সঙ্গত ব্যবহার এবং উন্নয়নমূলক কৃষি পদ্ধতি অবলম্বন" বিষয়ের উপর আলোকপাত করে সচেতনামূলক প্রচার-অভিযানের আয়োজন করা হয়েছিল।

এই সচেতনতামূলক অভিযানের আরও একটি উদ্দেশ্য ছিল, যেখানে উন্নতমানের বীজের সমস্যার সমাধানের জন্য বীজ উৎপাদনের ক্ষেত্রে কৃষকদের প্রশিক্ষণ দেওয়া।

ওই কর্মশালায়, কৃষকদের বাসমতি চালের পোকামাকড় ও রোগ সনাক্ত করার বিভিন্ন পদ্ধতি ও ব্যবস্থাপনা সম্পর্কে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। ওই সচেতনতা অভিযান চলাকালীন বাসমতি উৎপাদনের এই মরশুমে বাসমতি রপ্তানির ক্ষেত্রে সমস্যার বিষয়টি রপ্তানিকারকদের নজরে নিয়ে আসা হয়।

ভারত- গাঙ্গেয় সমভূমিতে বাসমতি চালের একমাত্র অভিভাবক হিসাবে অ্যাপেডাকে ভৌগোলিক নির্দেশক জিআই ট্যাগ দেওয়া হয়েছে। ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে জারি করা জিআই শংসাপত্রের অধীনে ৭ টি রাজ্য, যেমন পাঞ্জাব, হরিয়ানা, উত্তর প্রদেশ, উত্তরাখণ্ড, দিল্লি এবং জম্বু- কাশ্মীররের ৭৭ টি জেলাকে বাসমতি চাল উৎপাদনকারী অঞ্চল হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।

সচেতনতামূলক প্রশিক্ষণ অভিযানের সময় বিজ্ঞানীরা কৃষক ও রপ্তানিকারকদের বাসমতি চাল রপ্তানিতে কীটনাশকের সমস্যা সহ চালের পুষ্টি এবং জল ব্যবস্থাপনা সম্পর্কেও প্রযুক্তিগত বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেন।

বিপুল সংখ্যক কৃষক, রপ্তানিকারক, কৃষক উৎপাদক সংস্থা এই সাতটি রাজ্যের ৭৫ টি স্থানে আয়োজিত বিভিন্ন কর্মশালায় কীটনাশকের ন্যায় সঙ্গত ব্যবহার এবং ভালো কৃষি পদ্ধতি অবলম্বন করা সম্পর্কে উৎসাহিত করেন।

এরকমভাবে পাঞ্জাবে ২৫ টি সচেতনতা ও প্রশিক্ষণ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছিল। পরবর্তীকালে উত্তরপ্রদেশে ২১ টি, হরিয়ানায় ১৭ টি, উত্তরাখণ্ডে পাঁচটি, জম্বু ও কাশ্মীরে তিনটি এবং হিমাচল প্রদেশ ও দিল্লিতে দুটি করে সচেতনতা ও প্রশিক্ষণ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।

সচেতনতামূলক এই কর্মসূচির মাধ্যমে কৃষকদের অবহিত করানো হয়েছিল যে, বাসমতি ধানের চাষে ভারতের একটি ঐতিহ্য রয়েছে। বিশ্ববাজারে বাসমতি ধানের ব্যাপক চাহিদা থাকায় সেই ঐতিহ্য বজায় রাখতে হবে সম্মিলিতভাবে। কৃষকদের কাছে অনুরোধ করা হয়েছে যে, তাঁরা যেন রাজ্যের কৃষি বিভাগের মাধ্যমে নিজেদের নাম basmati.net- এ নথিভুক্ত করে রাখেন।

অ্যাপেডা, বাসমতি রপ্তানি উন্নয়ন ফেডারেশনের মাধ্যমে বাসমতি ধান চাষের প্রচারে রাজ্য সরকার গুলিকে সহায়তা করছে।

শুধু তাই নয়, অ্যাপেডা, বাসমতি চালের গুণগত মান নিশ্চিত করার জন্য বৈজ্ঞানিক ভিত্তিতে রাসায়নিক সার  ব্যবহারের পাশাপাশি, কৃষকদের প্রয়োজনীয় শংসায়িত বা সার্টিফাইড বীজ ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছে। যাতে বাসমতি চালের রপ্তানি বৃদ্ধি পায়।

উল্লেখ্য, ভারত ২০২০-২১ সালে ২৯,৮৪৯ কোটি টাকা মূল্যের (৪০১৯ মার্কিন ডলার) ৪.৬৩ মিলিয়ন টন বাসমতি চাল রপ্তানি করেছে। ভারত থেকে বাসমতি চাল মূলত রপ্তানি করা হয় সৌদি আরব, ইরান, ইরাক, ইয়ামেন প্রজাতন্ত্র, সংযুক্ত আরব আমিরশাহী এবং ইউরোপের দেশগুলিতে।

অ্যাপেডা ভ্যালু চেইন- এর মাধ্যমে অংশীদারদের সহযোগিতায় বাসমতি চাল রপ্তানিকে আরও উন্নীত করেছে। অ্যাপেডার উদ্যোগে চাল রপ্তানি উন্নয়ন ফোরাম গঠন করা হয়েছে। ফোরামের পক্ষ থেকে বাসমতি চাল উৎপাদনকারী রাজ্য, এর মধ্যে যেমন পশ্চিমবঙ্গ রয়েছে, তেমনি উত্তর প্রদেশ, পাঞ্জাব, হরিয়ানা, তেলেঙ্গানা, অন্ধপ্রদেশ, আসাম, ছত্রিশগড় এবং ওড়িশাতেও তাদের প্রতিনিধি রাখা হয়েছে।


CG/ SB



(Release ID: 1770792) Visitor Counter : 87