স্বাস্থ্যওপরিবারকল্যাণমন্ত্রক
azadi ka amrit mahotsav

প্রধানমন্ত্রী দেশ জুড়ে আয়ুষ্মান ভারত ডিজিটাল মিশনের সূচনা করলেন
আয়ুষ্মান ভারত ডিজিটাল মিশন সহজে ব্যবহারযোগ্য এমন একটি প্ল্যাটফর্ম তৈরি করবে, যা ডিজিটাল স্বাস্থ্য ইকোসিস্টেমের মধ্যে অন্যান্য স্বাস্থ্য সম্পর্কিত পোর্টালগুলির সঙ্গে সমন্বয়ে সক্ষম হবে
আয়ুষ্মান ভারত ডিজিটাল মিশন সারা দেশে হাসপাতালগুলির মধ্যে ডিজিটাল স্বাস্থ্য পরিষেবার ক্ষেত্রে যোগসূত্র গড়ে তুলবে
এই মিশনে প্রত্যেক নাগরিককে ডিজিটাল স্বাস্থ্য পরিচয়পত্র দেওয়া হবে এবং তাঁদের স্বাস্থ্য সম্পর্কিত তথ্য ডিজিটাল পদ্ধতিতে সুরক্ষিত থাকবে
আজ শুরু হওয়া এই উদ্যোগের ফলে দেশের প্রত্যন্ত গ্রামগুলিতে থাকা আমাদের ভাই ও বোনেরা উন্নত স্বাস্থ্য পরিষেবা পাবেন এবং তাঁদের জীবনযাপনের মান আরও এক ধাপ বাড়বে

Posted On: 27 SEP 2021 1:55PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১

 

এক ঐতিহাসিক পদক্ষেপ হিসাবে প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী আজ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আয়ুষ্মান ভারত ডিজিটাল মিশনের সূচনা করেন। এই মিশনের সূচনা অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী শ্রী মনসুখ মান্ডভিয়া, বিভাগীয় প্রতিমন্ত্রী ডঃ ভারতী প্রবীণ পাওয়ার উপস্থিত ছিলেন। 

এই ঐতিহাসিক মুহূর্তে জাতির উদ্দেশে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী বলেন, স্বাস্থ্য পরিষেবা পরিকাঠামোকে মজবুত করে তোলার লক্ষ্যে গত সাত বছর ধরে যে অভিযান চলছে, আজ তা এক নতুন পর্যায়ে প্রবেশ করছে। “আজ আমরা এমন এক মিশনের সূচনা করছি, যার ফলে ভারতের স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে আমূল পরিবর্তন নিয়ে আসার সম্ভবনা রয়েছে” বলে প্রধানমন্ত্রী অভিমত প্রকাশ করেন।

আরোগ্য সেতু অ্যাপ করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছে বলে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী নিঃশুল্ক টিকাকরণ অভিযানের আওতায় রেকর্ড প্রায় ৯০ কোটি টিকার ডোজ দিয়ে যে সাফল্য অর্জিত হয়েছে, তার পেছনে কো-উইন ব্যবস্থার ভূমিকার প্রশংসা করেন। স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে প্রযুক্তির ব্যবহার সম্পর্কে বলতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী জানান, করোনার সময় টেলিমেডিসিন ক্ষেত্রে অভাবনীয় অগ্রগতি হয়েছে। তিনি জানান, ই-সঞ্জিবনী ব্যবস্থার মাধ্যমে এখনও পর্যন্ত প্রায় ১২৫ কোটি পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। প্রকৃত পক্ষে ই-সঞ্জিবনী ব্যবস্থার মাধ্যমে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের হাজার হাজার মানুষ বাড়িতে থেকেই শহরগুলির বড় হাসপাতালের চিকিৎসকদের কাছ থেকে পরামর্শ নিয়েছেন। 

শ্রী মোদী আরও বলেন, আয়ুষ্মান ভারত – ডিজিটাল ভারত এখন থেকে দেশের হাসপাতালগুলির ডিজিটাল স্বাস্থ্য পরিষেবার সঙ্গে যোগসূত্র গড়ে তুলবে। এমনকি, এই ব্যবস্থার ফলে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ও চিকিৎসা পরিষেবা ব্যবস্থা আরও সহজ হয়ে উঠবে। পক্ষান্তরে, সাধারণ মানুষ লাভবান হবেন। ডিজিটাল স্বাস্থ্য মিশনের মাধ্যমে প্রত্যেককে ডিজিটাল পরিচয়পত্র দেওয়া হবে এবং তাঁদের স্বাস্থ্য সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্য ডিজিটাল পদ্ধতিতে সুরক্ষিত থাকবে বলেও প্রধানমন্ত্রী জানান। 

ভারতে একটি সার্বিক এবং সুসংহত স্বাস্থ্য মডেল গড়ে তোলার কাজ চলছে বলে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই ব্যবস্থার মাধ্যমে রোগ প্রতিকারের উপর গুরুত্ব দেওয়ার পাশাপাশি, অসুস্থতার ক্ষেত্রে সহজে ও সুলভে চিকিৎসা পরিষেবা পৌঁছে দেওয়া যাবে। স্বাস্থ্য-শিক্ষা ক্ষেত্রে অভাবনীয় সংস্কারের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, গত ৭-৮ বছরের তুলনায় এখন চিকিৎসক ও আধা-চিকিৎসকদের সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে। দেশে এইমস্‌ চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান এবং অন্যান্য আধুনিক স্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠানগুলির মধ্যে সুসংবদ্ধ নেটওয়ার্ক গড়ে তোলা হচ্ছে। এমনকি, প্রতি তিনটি লোকসভা কেন্দ্রে অন্ততপক্ষে একটি করে মেডিকেল কলেজ স্থাপনের কাজ চলছে। গ্রামে স্বাস্থ্য পরিষেবা সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী জানান, প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্র ও রোগী কল্যাণ কেন্দ্রগুলির পরিষেবার মান বাড়ানো হচ্ছে। সারা দেশে গ্রামগুলিতে এ ধরনের ৮০ হাজারেরও বেশি কেন্দ্র চালু রয়েছে বলেও প্রধানমন্ত্রী জানান। 

অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী শ্রী মনসুখ মান্ডভিয়া দেশের প্রতিটি মানুষের কাছে স্বাস্থ্য পরিষেবার সুবিধা পৌঁছে দিতে প্রধানমন্ত্রীর নিরন্তর প্রচেষ্টার জন্য ধন্যবাদ জানান। ২০২০-র স্বাধীনতা দিবসে লালকেল্লার প্রাকার থেকে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের কথা স্মরণ করে স্বাস্থ্য মন্ত্রী বলেন, আয়ুষ্মান ভারত ডিজিটাল মিশন সমগ্র স্বাস্থ্য পরিষেবা ক্ষেত্রে এবং সাধারণ মানুষের জীবনে আমূল পরিবর্তন নিয়ে আসবে। 

শ্রী মান্ডভিয়া আরও বলেন, আয়ুষ্মান ভারত ডিজিটাল স্বাস্থ্য মিশন ছ’টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরীক্ষামূলকভাবে রূপায়িত হয়েছে। সারা দেশে এই মিশন শুরু হওয়ার ফলে যাবতীয় পুরনো মেডিকেল রেকর্ড বিনষ্ট হবে না, বরং প্রতিটি পরিসংখ্যানই ডিজিটাল পদ্ধতিতে সংরক্ষিত হবে। একই সঙ্গে, ডিজিটাল পদ্ধতিতে আলাপ-আলোচনা, রোগীর সম্মতি আদায় প্রভৃতি পদ্ধতি আরও সহজ হয়ে উঠবে।  স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে ডিজিটাল পদ্ধতির প্রয়োগের সাফল্য ভারতের ইতিহাসে এক মাইলফলক হয়ে উঠবে বলে শ্রী মান্ডভিয়া আশা প্রকাশ করেন। 

 

CG/BD/SB



(Release ID: 1758678) Visitor Counter : 184