খাদ্যপ্রক্রিয়াকরণশিল্পমন্ত্রক

খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ শিল্পের জন্য উৎপাদনের সঙ্গে সংযুক্ত উৎসাহদায়ক প্রকল্পে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার অনুমোদন

Posted On: 31 MAR 2021 3:08PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লী, ৩১ মার্চ, ২০২১

প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদীর পৌরহিত্যে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা কেন্দ্রীয় প্রকল্প- ‘খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ শিল্পের জন্য উৎপাদনের সঙ্গে সংযুক্ত উৎসাহদায়ক প্রকল্প’এ  অনুমোদন দিয়েছে। মূলত ১০ হাজার ৯০০ কোটি টাকা মূল্যের আন্তর্জাতিক বাজারে খাদ্য পণ্যের ক্ষেত্রে  ভারতীয় ব্র্যান্ডের সহায়তাদান এবং ভারতের প্রাকৃতিক সম্পদের যথাযথ ব্যবহারের মাধ্যমে  খাদ্য উৎপাদন ক্ষেত্রে বিশ্বের মধ্যে চ্যাম্পিয়ান হিসেবে গড়ে তোলার উদ্দেশ্যে এই অনুমোদন দিয়েছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা।

প্রকল্পের উদ্দেশ্য :

প্রকল্পের উদ্দেশ্য হল নির্ধারিত ন্যূনতম বিক্রয়মূল্য  সহ খাদ্য উৎপাদনকারী সংস্থাগুলিকে সমর্থন জোগানো এবং শক্তিশালী ভারতীয় ব্র্যান্ডগুলির উত্থানের বিষয়ে উদ্বুদ্ধ করতে বিদেশে প্রক্রিয়াকরণ ক্ষমতা ও ব্র্যান্ডিং-এর জন্য ন্যূনতম নির্ধারিত বিনিয়োগের ক্ষেত্রে  আগ্রহী করে তোলা :

● খাদ্য উৎপাদন ক্ষেত্রে বিশ্বের মধ্যে চ্যাম্পিয়ান হিসেবে গড়ে তুলতে সমর্থন জোগানো ;

● খাদ্য পণ্যের ভারতীয় ব্র্যান্ডকে শক্তিশালী হিসেবে বিশ্বের দরবারে তুলে ধরা এবং আন্তর্জাতিক বাজারে বৃহত্তর গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করা ;

● পশুপালনের সঙ্গে সংযুক্ত নয় এমন কাজের ক্ষেত্রে কর্মসংস্থান বৃদ্ধি করা ;

● কৃষকদের উৎপাদনের পারিশ্রমিক মূল্য এবং উচ্চ আয়ের ক্ষেত্রে নিশ্চয়তা প্রদান করা।

মূল বৈশিষ্ট্য :

● প্রথমে চারটি প্রধান প্রধান খাদ্য পণ্যের ক্ষেত্রে উৎসহায়ক প্রদান করা হচ্ছে। এগুলি হল সহজেই রান্না/সহজেই খাবার (রেডি টু কুক/রেডি টু ইট),প্রক্রিয়াজাত ফল ও শাকসব্জি, সামুদ্রিক পণ্য, মজারেলা পনির।

● ক্ষুদ্র, মাঝারি, শিল্পোদ্যোগ সংস্থার উদ্ভাবনী/জৈব পণ্যগুলি সহ ডিম, পোল্ট্রি মাংসও উপরোক্ত বিষয়ের আওতায় রয়েছে। 

● নির্বাচিত আবেদনকারীকে প্রথম দু-বছর অর্থাৎ ২০২১-২২ এবং ২০২২-২৩ অর্থবর্ষে প্ল্যান্ট এবং যন্ত্রপাতি বসানোর জন্য তাদের আবেদনের ভিত্তিতে বিনিয়োগ ক্ষেত্রে ছাড়পত্র দেওয়া হবে।

● উদ্ভাবনী/জৈব পণ্য তৈরির জন্য নির্বাচিত সংস্থাগুলির নির্ধারিত ন্যূনতম  বিক্রয়মূল্য এবং বাধ্যতামূলকভাবে বিনিয়োগের শর্তগুলি প্রযোজ্য হবে না। 

● দ্বিতীয় বৈশিষ্ট্যটি হল শক্তিশালী ভারতীয় ব্র্যান্ডগুলিকে উৎসাহিত করে তুলতে বিদেশে ব্র্যান্ডিং এবং বিপণনের জন্য সমর্থন যোগানো। 

● বিদেশে ভারতীয় ব্র্যান্ডের বিষয়ে প্রচার, স্টোর ব্র্যান্ডিং, জায়গা ভাড়া এবং বিপণনের জন্য আবেদনকারী সংস্থাগুলিকে উৎসাহ প্রদান। 

● ২০২১-২২ থেকে ২০২৬-২৭ অর্থবর্ষে ৬ বছরেরও বেশি সময়ের জন্য এই প্রকল্প কার্যকর হবে। 

কর্মসংস্থান সৃষ্টির সম্ভাবনা সহ প্রভাব :

● প্রকল্পটি বাস্তবায়নের ফলে খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ ক্ষেত্রে ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে। ৩৩ হাজার ৪৯৪ কোটি টাকা মূল্যের প্রক্রিয়াজাত খাদ্য উৎপাদনের ক্ষমতা গড়ে উঠবে।

● ২০২৬-২৭ সালের মধ্যে প্রায় আড়াই লক্ষ্য লোকের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে।

বাস্তবায়ন কৌশল এবং লক্ষ্যসমূহ :

● এই প্রকল্প সর্বভারতীয় স্তরে চালু করা হবে।

● প্রকল্প পরিচালন সংস্থা (পিএমএ)এর মাধ্যমে এই প্রকল্প কার্যকর করা হবে।

● আবেদন/প্রস্তাব সমূহের মূল্যায়ণ, সহায়তার জন্য যোগ্য কিনা তা যাচাই করা, উৎসাহ মূল্য বন্টনের জন্য যোগ্য দাবিদার কিনা তা খতিয়ে দেখার জন্য দায়বদ্ধ থাকবে পিএমএ।

● ২০২৬-২৭ সাল পর্যন্ত এই ৬ বছরের জন্য প্রকল্পের অধীনে উৎসাহদায়ক অর্থ প্রদান করা হবে। প্রকল্পের সময়কালের মেয়াদ হবে ২০২১-২২ থেকে ২০২৬-২৭ অর্থবর্ষ অর্থাৎ ৬ বছরের জন্য।

● প্রকল্পটির অনুমোদিত আর্থিক তহবিলের ব্যয় সীমাবদ্ধতা থাকবে। প্রতিটি সুবিধাভোগীকে আর্থিক সাহায্য প্রদানের আগে তা যোগ্য কিনা নির্ধারিত করা হবে।

● এই প্রকল্প বাস্তবায়নের ফলে খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ ক্ষেত্রে ৩৩ হাজার ৪৯৪ কোটি টাকা মূল্যের প্রক্রিয়াজাত খাদ্য উৎপাদন সম্ভবপর হবে এবং ২০২৬-২৭ সালের মধ্যে প্রায় আড়াই লক্ষ্য লোকের কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হবে।

প্রকল্প বাস্তবায়ন :

● ক্যাবিনেট সচিবের পৌরহিত্যে সচিব পর্যায়ে ক্ষমতাপ্রাপ্ত গোষ্ঠীর মাধ্যমে এই প্রকল্পটির বিষয়ে পর্যবেক্ষণ চালানো হবে।

● খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ শিল্প মন্ত্রক এই প্রকল্পের আওতায় সুবিধাভোগীদের জন্য আবেদনকারীকে বাছায়ের ক্ষেত্রে অনুমোদন করবে এবং আর্থিক সাহায্যের জন্য তহবিলের অনুমোদন দেবে। 

● প্রকল্পটি বাস্তবায়নের জন্য মন্ত্রক বিভিন্ন কার্যক্ষেত্রে বার্ষিক পরিকল্পনা তৈরি করবে।

● প্রকল্পটিতে একটি তৃতীয় পক্ষের মূল্যায়ণ এবং স্বল্প মেয়াদী পর্যালোচনা ব্যবস্থাপনা তৈরি করা হবে।

জাতীয় পোর্টাল এবং এমআইএস :

● একটি জাতীয় স্তরের পোর্টাল তৈরি করা হবে যেখানে আবেদনকারী এন্টারপ্রাইজ সংস্থা হিসেবে প্রকল্পটিতে অংশ নেওয়ার জন্য আবেদন করতে পারে। 

● সমস্ত প্রকল্পের কাজ জাতীয় পোর্টালের আওতায় সম্পন্ন হবে।

রূপান্তরকারী পরিকাঠামো :

● প্রধানমন্ত্রী কৃষি সম্পদ যোজনার আওতায় খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ মন্ত্রক সরবরাহ শৃঙ্খল পরিকাঠামো শক্তিশালীকরণ, প্রক্রিয়াকরণ ক্ষমতা বৃদ্ধি, দক্ষতা বিকাশে সুযোগ-সুবিধা, গবেষণা ও উন্নয়ন, পরীক্ষার ব্যবস্থা করার ক্ষেত্রে ক্ষুদ্র ও মাঝারি খাদ্য প্রক্রিয়াকরণের উদ্যোগে সমর্থন জুগিয়েছে। 

● কৃষি সহযোগিতা ও কৃষক কল্যাণ বিভাগ, পশুপালন ও গবাদি পশু, মৎস্যজীবী, শিল্প প্রচার ও অভ্যন্তরীণ প্রচার বাণিজ্য, বাণিজ্য মন্ত্রকের মতো অন্যান্য মন্ত্রক/বিভাগ খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ ক্ষেত্রে বেশ কয়েকটি প্রকল্প বাস্তবায়নে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে সাহায্য জুগিয়েছে।

● প্রস্তাবিত প্রকল্পের আওতায় আবেদনকারীকে অন্যান্য প্রকল্পের আওতায় যেখানেই সম্ভব হোক না কেন,পরিষেবা গ্রহণের অনুমতি দেওয়া হবে। 

প্রেক্ষাপট :

● ভারতে খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ ক্ষেত্রে অতিক্ষুদ্র থেকে বৃহত্তর শিল্পসংস্থা পর্যন্ত সমস্ত বিভাগে উৎপাদনের উদ্যোগ পরিবেষ্টিত হয়ে রয়েছে। 

● বৃহত্তর দেশীয় বাজার এবং মূল্য সংযোগিত পণ্যের বিষয়ে প্রচারের সুযোগ-সুবিধার ক্ষেত্রে ভারতে প্রতিযোগিতামূলক সুবিধা রয়েছে।

● এই ক্ষেত্রে পূর্ণ সম্ভাবনা অর্জনের জন্য ভারতীয় সংস্থাগুলির উন্নতিসাধন, উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি , মূল্য সংযোজন এবং বিশ্বের মূল্য শৃঙ্খলের সঙ্গে দেশের সংযোগ স্থাপনের মাধ্যমে বিশ্বব্যাপি প্রতিযোগিতায় ভারতের প্রতিযোগিতামূলক শক্তির উন্নতি সাধনের  সুযোগ রয়েছে।  

● ভারতের উৎপাদন দক্ষতা এবং রপ্তানীর বৃদ্ধির জন্য আত্মনির্ভার ভারত অভিযানের আওতায় নীতি আয়োগ খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ শিল্পের জন্য উৎপাদনের সঙ্গে সংযুক্ত উৎসাহদায়ক প্রকল্প বিষয়ে পরিকল্পনা করেছে।

***

 

 

CG/SS/NS



(Release ID: 1708795) Visitor Counter : 262