প্রধানমন্ত্রীরদপ্তর
azadi ka amrit mahotsav

প্রধানমন্ত্রী বায়োটেক স্টার্টআপ এক্সপো-২০২২’এর উদ্বোধন করেছেন


“গত ৮ বছরে ভারতের জৈব অর্থনীতি ৮ গুণ বেড়েছে। আমরা ১০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার থেকে ৮০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে পৌঁছেছি। বায়োটেকের গ্লোবাল ইকো ব্যবস্থাপনার শীর্ষ স্থানীয় ১০টি দেশের লিগে পৌঁছানো থেকে ভারত খুব বেশি দূরে নেই”

“আমরা গত কয়েক দশকে তথ্যপ্রযুক্তি পেশাদারদের জন্য যে সম্মান ও খ্যাতি দেখতে পেয়েছি,একই সম্মান ও খ্যাতি আমাদের বায়োটেক ক্ষেত্র এবং এ ক্ষেত্রের পেশাদারদের জন্য লক্ষ্য করছি”

“সবকা সাথ-সবকা বিকাশ’এর মন্ত্র ভারতের বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। এখন ‘সামগ্রিক রূপে সরকার’এর দৃষ্টিভঙ্গী সব ক্ষেত্রকে উৎসাহ যুগিয়েছে”

“আজ প্রায় ৬০টি বিভিন্ন শিল্পে ৭০ হাজার স্টার্টআপ নথিভুক্ত হয়েছে। ৫ হাজারের বেশি স্টার্টআপ বায়োটেকের সঙ্গে যুক্ত”

“গত বছরেই ১ হাজার ১০০টি বায়োটেক স্টার্টআপ আত্মপ্রকাশ করেছে”

“সবকা প্রয়াসের চেতনায় উদ্বুদ্ধ করে সরকার শিল্পের সেরা মানসিকতাকে একটি প্ল্যাটফর্মে নিয়ে এসেছে”

“বায়োটেক ক্ষেত্র অন্যতম চাহিদা সম্পন্ন ক্ষেত্র। কয়েক বছর ধরে ভারতে সহজে জীবন যাপনের বিষয়ে প্রচার বায়োটেক ক্ষেত্রের জন্য নতুন সম্ভাবনার দরজা খুলে দিয়েছে”

Posted On: 09 JUN 2022 12:20PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লী,  ৯  জুন, ২০২২

 

প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী আজ প্রগতি ময়দানে বায়োটেক স্টার্টআপ এক্সপো ২০২২-এর উদ্বোধন করেছেন। তিনি বায়োটেক পণ্যের ই-পোর্টালের সূচনা করেছেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী শ্রী পীযূষ গোয়েল, শ্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান, ডাঃ জীতেন্দ্র সিং এবং বায়োটেক ক্ষেত্রের সঙ্গে যুক্ত সংশ্লিষ্ট পক্ষের প্রতিনিধি, বিশেষজ্ঞ, এমএসএমই ও বিনিয়োগকারীরা। 

অনুষ্ঠানের ভাষণে প্রধানমন্ত্রী জানান, ভারতের জৈব-অর্থনীতি গত ৮ বছরে ৮ গুণ বেড়েছে। তিনি বলেন, “আমরা ১০ বিলিয়ন ডলার থেকে ৮০ বিলিয়ন ডলারে পৌঁছেছি। ভারত বায়োটেকের গ্লোবাল ইকো ব্যবস্থাপনার শীর্ষে থাকা ১০টি দেশের লিগে পৌঁছানো থেকে খুব বেশি দূরে নেই।” শ্রী মোদী দেশের এক্ষেত্রের উন্নয়নে বায়ো টেকনোলজি ইন্ডাস্ট্রি রিসার্চ অ্যাসিসট্যান্স কাউন্সিল (বিআইআরএসি)-এর অবদানের কথা উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, আজ যখন দেশ অমৃতকালের নতুন অঙ্গীকার নিচ্ছে, তখন দেশের উন্নয়নে বায়োটেক শিল্পের ভূমিকা অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ।

বিশ্ব পর্যায়ের মঞ্চে ভারতীয় পেশাদারদের খ্যাতি সম্পর্কে কথা বলতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী জানান, “আমাদের তথ্যপ্রযুক্তি পেশাদারদের দক্ষতা এবং উদ্ভাবনের ওপর বিশ্বের আস্থা নতুন উচ্চতায় পৌঁছেছে। এই একই বিশ্বাস এবং খ্যাতি এ দশকে আমরা ভারতের বায়োটেক এবং সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে যুক্ত পেশাদারদের জন্য দেখতে পাচ্ছি।”

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বায়োটেক ক্ষেত্রে ভারতকে সম্ভাবনাময় দেশ হিসেবে বিবেচনা করার ৫টি বড় কারণ রয়েছে। প্রথম- বৈচিত্র্যময় জনসংখ্যা ও জলবায়ু অঞ্চল, দ্বিতীয়- ভারতের প্রতিভাবান মানব সম্পদ, তৃতীয়- ভারতের ব্যবসা করার প্রক্রিয়া সহজ করার জন্য নিরন্তর প্রয়াস, চতুর্থ- ভারতে বায়ো পণ্যের চাহিদা ক্রমাগত বৃদ্ধি এবং পঞ্চম- ভারতের বায়োটেক ক্ষেত্র এবং এর সাফল্যের ধারাবাহিকতা। 

শ্রী মোদী জানান, সরকার ভারতীয় অর্থনীতির সম্ভাবনা ও শক্তির উন্নতির জন্য নিরন্তর প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, ‘সরকার সামগ্রিক পন্থা পদ্ধতি’র ওপর জোর দিয়েছে। সবকা সাথ সবকা বিকাশের মন্ত্র ভারতের বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। এরফলে দেখার দৃষ্টিভঙ্গী পাল্টে গেছে। তিনি বলেন, আজ প্রতিটি ক্ষেত্রই দেশের উন্নয়নে গতি যোগাচ্ছে। তাই প্রতিটি ক্ষেত্রের ‘সাথ’ এবং প্রতিটি ক্ষেত্রের ‘বিকাশ’ সময়ের সঙ্গে প্রাসঙ্গিক হয়ে উঠেছে। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বায়োটেক ক্ষেত্রের জন্য অভূতপূর্ব পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে, যা স্টার্টআপ ইকো ব্যবস্থাপনায় সুস্পষ্টভাবে বিকাশ লাভ করেছে। তিনি বলেন, “গত ৮ বছরে আমাদের দেশে স্টার্টআপের সংখ্যা কয়েকশো থেকে ৭০ হাজারে পৌঁছেছে। এই ৭০ হাজার স্টার্টআপ তৈরি হয়েছে ৬০টি বিভিন্ন শিল্পে। এরমধ্যে ৫ হাজারের বেশি স্টার্টআপ বায়োটেকের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে। গত বছরেই এ ধরণের ১ হাজার ১০০-টিরও বেশি বায়োটেক স্টার্টআপ আত্মপ্রকাশ করেছে।” শ্রী মোদী বলেন, বায়োটেক ক্ষেত্রে বিনিয়োগকারীর সংখ্যা ৯ গুণ এবং বায়োটেক ইনকিউবেটর ও তাদের জন্য তহবিল ৭ গুণ বেড়েছে। তিনি আরও বলেন, বায়োটেক ইনকিউবেটরের সংখ্যা ২০১৪ সালে ৬ থেকে বেড়ে এখন ৭৫ হয়েছে। বায়োটেক পণ্যের সংখ্যা ১০ থেকে বেড়ে আজ ৭০০’র বেশি হয়েছে। 

প্রধানমন্ত্রী জানান, সরকার কেন্দ্রিক দৃষ্টিভঙ্গী দূর করার জন্য কেন্দ্রীয় সরকার সকলের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা ভিত্তিক নতুন সংস্কৃতি নিয়ে এসেছে। বিআইআরএসি-এর মতো মঞ্চগুলিকে শক্তিশালী করে তোলা হচ্ছে। এক্ষেত্রে তিনি স্টার্টআপের জন্য স্টার্টআপ ইন্ডিয়ার উদাহরণ তুলে ধরেন। মহাকাশ ক্ষেত্রের জন্য আইএন-স্পেস, প্রতিরক্ষা স্টার্টআপের জন্য আইডিইএক্স, সেমি কন্ডাক্টরের জন্য সেমি কন্ডাক্টর মিশন, স্মার্ট ইন্ডিয়া হ্যাকাথন যুব সম্প্রদায়ের মধ্যে উদ্ভাবনী বিষয়ে উৎসাহ যুগিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, “সবকা প্রয়াসের চেতনায় উদ্বুদ্ধ করে সরকার নতুন প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে শিল্পের সেরা মানসিকতাকে এক মঞ্চে নিয়ে এসেছে। এটি দেশের জন্য আর একটি বড় লাভের বিষয়। দেশ গবেষণা ও শিক্ষা ক্ষেত্র নতুন অগ্রগতি লাভ করেছে। সরকার প্রয়োজনীয় নীতি এবং পরিকাঠামো দিয়ে সাহায্য করেছে।”

প্রধানমন্ত্রী বায়োটেক ক্ষেত্রকে অন্যতম চাহিদা সম্পন্ন ক্ষেত্র বলে জানিয়েছেন। কয়েক বছর ধরে দেশের মানুষের স্বাচ্ছন্দ্যময় জীবন যাপনের বিষয়ে উৎসাহদান বায়োটেক ক্ষেত্রের জন্য নতুন সম্ভাবনার দরজা খুলে দিয়েছে। স্বাস্থ্য, কৃষি, শক্তি, প্রাকৃতিক চাষ, জৈব সুরক্ষিত বীজের উন্নতি এই ক্ষেত্রের জন্য নতুন পথ তৈরি করেছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। 

 

CG/SS/NS



(Release ID: 1832632) Visitor Counter : 66