কৃষিমন্ত্রক

কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নতুন দিল্লিতে আইসিএআর-এর আইএআরআই প্রতিষ্ঠানের ৬০তম সমাবর্তন অনুষ্ঠানে ভাষণ দিয়েছেন


শ্রী তোমর কৃষি প্রতিষ্ঠানগুলিকে শিক্ষক ও বিজ্ঞানীদের পাশাপাশি সচেতন কৃষক গড়ে তোলার ওপর গুরুত্ব দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন

Posted On: 11 FEB 2022 5:56PM by PIB Kolkata
নতুন দিল্লি,  ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০২২
 
কেন্দ্রীয় কৃষি ও কৃষক কল্যাণ মন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র সিং তোমর আজ নতুন দিল্লিতে ভারতীয় কৃষি গবেষণা পরিষদের অধীন ভারতীয় কৃষি গবেষণা প্রতিষ্ঠানের পোস্ট-গ্যাজুয়েট বিদ্যালয়ের ২৮৪ জন ছাত্র-ছাত্রীর হাতে পুরস্কার ও ডিগ্রি সম্পর্কিত নথি তুলে দেন। এই ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে ৮ জন বিদেশী পড়ুয়াও রয়েছেন। এই উপলক্ষে শ্রী তোমর ৬টি ভিন্ন প্রজাতির ফলমূল ও শাক-সব্জি জাতির উদ্দেশে উৎসর্গ করেন। শ্রী তোমর সমস্ত কৃষি প্রতিষ্ঠানকে সচেতন কৃষক গড়ে তোলার ওপর গুরুত্ব দেওয়ার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, কৃষি প্রতিষ্ঠানগুলি প্রতিভাবান শিক্ষক-শিক্ষাকা ও বিজ্ঞানী গড়ে তুলতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। কিন্তু এই শিক্ষক শিক্ষিকা ও বিজ্ঞানীদের জ্ঞান প্রতিষ্ঠানের মধ্যেই সীমিত থাকে। তাই কৃষি প্রতিষ্ঠানগুলি যদি সচেতন কৃষক গড়ে তোলার ওপর গুরুত্ব দেয়, তাহলে একেবারে তৃণমূল স্তরে জ্ঞানের পরিধি বিস্তার ঘটে। শ্রী তোমর শিল্পোদ্যোগের প্রসারে ছাত্র-ছাত্রীদের অগ্রণী ভূমিকা পালনের আহ্বান জানিয়ে কৃষিকাজকে পেশা হিসেবে গ্রহণ করার আহ্বান জানান। 
 
কৃষি গবেষণা ক্ষেত্রে সরকারের অগ্রাধিকারের কথা উল্লেখ করে শ্রী তোমর বলেন, প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদীর সুদক্ষ নেতৃত্বে ভারত কৃষিজ পণ্য রপ্তানিকারী প্রথম দশটি দেশের তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে। তিনি আরও বলেন, "আমরা ভারতকে প্রথম ৫টি দেশের মধ্যে নিয়ে আসতে চাই এবং আমি এব্যাপারে নিশ্চিত যে আমাদের কৃষি প্রতিষ্ঠানগুলির প্রয়াস ও গবেষণার মাধ্যমে ভারত শীঘ্রই এই কৃতীত্ব অর্জন করবে।" 
 
কৃষক কল্যাণে এবং বিভিন্ন ক্ষেত্রে কর্মসংস্থানে ড্রোন প্রযুক্তির প্রয়োগ সম্পর্কে কৃষি মন্ত্রী বলেন, সরকার কৃষি প্রতিষ্ঠানগুলিকে ড্রোন সংগ্রহে ১০০ শতাংশ পর্যন্ত অনুদান দিচ্ছে, যাতে এধরণের প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলি কাজে লাগাতে পারে। তিনি জানান, কৃষি প্রতিষ্ঠানগুলি থেকে স্নাতক ডিগ্রিধারী ছাত্র-ছাত্রীরাও ড্রোন সংগ্রহে অনুদান পেতে পারেন। এই প্রেক্ষিতে তিনি সদ্য স্নাতক হওয়া ছাত্র-ছাত্রীদের ড্রোন প্রযুক্তি ক্ষেত্রে অপার সম্ভাবনার সুযোগ কাজে লাগানোর পরামর্শ দেন। 
 
কৃষি ক্ষেত্রে বিভিন্ন ধরণের উচ্চ ফলনশীল প্রজাতির বীজ এবং আধুনিক প্রযুক্তি উদ্ভাবনের মাধ্যমে খাদ্য ও পৌষ্টিক নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার জন্য কৃষি প্রতিষ্ঠানগুলির গুরুত্বপূর্ণ অবদানের প্রশংসা করেন কৃষিমন্ত্রী। তিনি পুরস্কার জয়ী সকলকে অভিনন্দন জানিয়ে আত্মনির্ভর ভারতের অঙ্গ হিসেবে কৃষিতেও স্বনির্ভরতা অর্জনে অবদান রাখার আবেদন জানান। 
 
এর আগে, ভারতীয় কৃষি গবেষণা প্রতিষ্ঠানের অধিকর্তা ডঃ এ কে সিং এই প্রতিষ্ঠানের গুরুত্বপূর্ণ সাফল্যের কথা উল্লেখ করে জানান তাঁর প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন প্রজাতির উচ্চ ফলনশীল গম উদ্ভাবন করেছে, যা দেশে মোট গম উৎপাদনে প্রায় ৬০ মিলিয়ন টন যোগান দিচ্ছে। উৎপাদিত এই গমের মূল্য প্রায় ৮০ হাজার কোটি টাকা। একই ভাবে বাসমতি প্রজাতির যে উন্নত বীজ উদ্ভাবন করা হয়েছে তার ফলে দেশে বাসমতি চালের উৎপাদন ও উৎপাদনশীলতা উভয়ই বেড়েছে। শুধু তাই নয়, ভারত থেকে রপ্তানিকৃত মোট বাসমতি চালের ৯০ শতাংশই এই প্রতিষ্ঠান থেকে উদ্ভাবিত বীজের ফসল। এছাড়াও এই প্রতিষ্ঠানটি উচ্চফলনশীল সর্ষে বীজ উদ্ভাবন করেছে। এর ফলে, অতিরিক্ত পরিমাণে সর্ষের উৎপাদন হচ্ছে। অনুষ্ঠানে বিভাগীয় প্রতিমন্ত্রী শ্রী কৈলাশ চৌধুরী সম্মানীয় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। ভারতীয় কৃষি গবেষণা পর্ষদের মহানির্দেশক ডঃ ত্রিলোচন মহাপাত্র, ভারতীয় কৃষি গবেষণা প্রতিষ্ঠানের ডিন তথা যুগ্ম নির্দেশক ডঃ রেশমি আগরওয়াল উপস্থিত ছিলেন। 
 
 
CG/BD/AS/


(Release ID: 1797924) Visitor Counter : 145


Read this release in: English , Urdu , Hindi , Telugu