সহযোগ মন্ত্রক
azadi ka amrit mahotsav

জাতীয় সমবায় সম্মেলনে মুখ্য অতিথি হিসেবে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র ও সমবায় মন্ত্রী শ্রী অমিত শাহ

Posted On: 25 SEP 2021 7:56PM by PIB Kolkata

নতুন দিল্লি, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১

 

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র ও সমবায় মন্ত্রী শ্রী অমিত শাহ আজ নতুন দিল্লিতে মুখ্য অতিথি হিসেবে জাতীয় সমবায় সম্মেলনে যোগ দেন। এই উপলক্ষে সমবায়গুলির সঙ্গে যুক্ত বহু বিশিষ্ট ব্যক্তি উপস্থিত ছিলেন। সমবায় বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী শ্রী বিএল ভার্মা, আন্তর্জাতিক সমবায় জোটের সভাপতি ডঃ অ্যরিয়েল গুয়ারকো সহ সমবায় ও কৃষিমন্ত্রকের সচিব এবং ভারতের অগ্রণী সমবায় প্রতিষ্ঠানগুলির প্রতিনিধিরা সম্মেলনে যোগ দেন। 

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র ও সমবায় মন্ত্রী ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে দেশ ও বিদেশের প্রায় ৬ কোটি সমবায়ের সঙ্গে যুক্ত মানুষের উদ্দেশে ভাষণ দেন। তিনি বলেন, সমবায় সমিতিগুলি ছাড়া দরিদ্র মানুষের কল্যাণ কখনই সম্ভব হত না। অতীতে যখনই দরিদ্র মানুষের কল্যাণের প্রসঙ্গ উঠেছে, তখন পন্ডিত দীনদয়াল উপাধ্যায় প্রথমেই অন্তোদয় ব্যবস্থার কথা বলেছেন। আজ তাঁর জন্মতিথি এবং এমন একটি দিন যা লক্ষ লক্ষ শ্রমিকের কাছে প্রেরণার। 

শ্রী শাহ বলেন, স্বাধীনতার ৭৫ বছর পর যখন সমবায় আন্দোলনের প্রয়োজনীয়তা দেখা দিয়েছে, তখন প্রধানমন্ত্রী সমবায় মন্ত্রক গঠন করেছেন। এজন্য কোটি কোটি মানুষের পক্ষ থেকে শ্রী শাহ প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান। দেশে প্রথম সমবায় মন্ত্রী হিসেবে হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ তাঁর কাছে গর্বের বলেও শ্রী শাহ উল্লেখ করেন। সমবায় আন্দোলনের নেতা এবং লক্ষ লক্ষ কর্মীকে আহ্বান জানিয়ে বলেন, এখন সময় এসেছে সমবায় আন্দোলনকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার। 

দেশের উন্নয়নে সমবায়গুলি গুরুত্বপূর্ণ অবদান যোগায় বলে উল্লেখ করে শ্রী শাহ বলেন, এখনও সমবায়গুলির কাছে আরও অনেক কিছু করণীয় রয়েছে। দেশে লক্ষ লক্ষ কৃষক, বঞ্চিত, পিছিয়ে পড়া, দলিত, দরিদ্র মানুষ ও মহিলাদের সার্বিক কল্যাণে সমবায়ের মাধ্যমে উন্নয়নের পথ প্রশস্ত করা যেতে পারে। সমবায়ের প্রাসঙ্গিকতা নিয়ে অনেকেই প্রশ্ন করেন এবং তারা মনে করেন এখন সমবায় আন্দোলন সম্পূর্ণ অপ্রাসঙ্গিক। কিন্তু আমি মনে করি, সমবায় আন্দোলন আজও সমান প্রাসঙ্গিক এবং এখনও অনেক পথ চলা বাকি। 

শ্রী শাহ আরও বলেন, সমবায় ক্ষেত্রের সঙ্গে যুক্ত মানুষের আর্থিক স্বচ্ছলতা এখনও কম। কিন্তু সমবায়ের সঙ্গে যুক্ত মানুষের সংখ্যা এত বেশি যে সকলে একত্রিত হয়ে এক বিরাট কর্মী বাহিনী গঠন করতে পারেন। তাই এখন সময় এসেছে সমবায় আন্দোলনের নতুন সূচনা করার। প্রধানমন্ত্রী শ্রী মোদী সমবায় সমিতির মাধ্যমে সমৃদ্ধি সম্ভাবনা রয়েছে বলে বারবার উল্লেখ করেছেন এবং এজন্যই তিনি সমবায় ক্ষেত্রের প্রতি পূর্ণ আস্থা রাখার পরামর্শ দিয়েছেন। দেশের অর্থ ব্যবস্থাকে ৫ লক্ষ কোটি মার্কিন ডলারে নিয়ে যাওয়ার যে লক্ষ্য স্থির হয়েছে, তাতে সমবায় ক্ষেত্র গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে পারে। 

সমবায় আন্দোলন এক স্বতন্ত্র গ্রামীণ সমাজ গঠন করে নতুন সামাজিক পুঁজির ধারণা দিতে পারে। তিনি সমবায় আন্দোলনের সঙ্গে প্রায় ২৫ বছর যুক্ত রয়েছেন বলে উল্লেখ করে শ্রী শাহ বলেন, সমবায় সমিতিগুলি কোন নীতি-নির্দেশিকার অপেক্ষা না করেই বিপর্যয়ের সময় মানুষের সহায়তায় এগিয়ে আসে। এরকম অনেক সঙ্কট থেকে সমবায় সমিতিগুলি দেশকে উদ্ধার করেছে। সমবায় আন্দোলন ভারতে নতুন কোন ধারণা নয়, বরং ১৯০৪ সাল থেকে এর অস্তিত্ব রয়েছে। সুদীর্ঘ এই সময়ে সমবায়গুলি অনেক উত্থান-পতন দেখেছে। অনেক নতুন সাফল্যের শিখরে পৌঁছেছে। কিন্তু, কোন প্রতিকূলতাতেই সমবায় আন্দোলনের গতি রুদ্ধ হয়নি। 

এই উপলক্ষে শ্রী শাহ সমবায় আন্দোলনে অবদান রাখার ক্ষেত্রে মহান ব্যক্তিত্ব যেমন মাধব রাও গোদবলে, বৈকুন্ঠভাই মেহেতা, ত্রিভূবন দাস প্যাটেল, ভিত্তলরাও ভিখে পাতিল প্রমুখের কথা স্মরণ করেন। 

 

CG/BD/AS/



(Release ID: 1758400) Visitor Counter : 126